বাইডেনের জন্য ট্রাম্প কি কোন চিঠি রেখে যাবেন?
বাইডেনের জন্য ট্রাম্প কি কোন চিঠি রেখে যাবেন?

বাইডেনের জন্য ট্রাম্প কি কোন চিঠি রেখে যাবেন?

অনলাইন ডেস্ক

মার্কিন রীতি অনুযায়ী বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ওভাল অফিসে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টের জন্য একটি চিঠি রেখে যান। এই চিঠিতে থাকে নানা পরামর্শ। ট্রাম্প তাঁর উত্তরসূরি জো বাইডেনের জন্য কি এমন কোন চিঠি রেখে যাবেন কিনা তাই নিয়ে জল্পনা-কল্পনা চলছে।  মার্কিন সংবাদ মাধ্যম সিএনএনের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য বলা হয়।

 

বারাক ওবামাও হোয়াইট হাউজ থেকে বিদায় নেওয়ার সময় ট্রাম্পের জন্য এমন চিঠি রেখে গিয়েছিলেন। সবাই এখন তাকিয়ে আছে ট্রাম্পের দিকে। তিনি কি আসলেই কোন চিঠি রেখে যাবেন? রাখলেও সেই চিঠিতে কি লেখা থাকবে?

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার রেখে যাওয়া এমন চিঠি ডোনাল্ড ট্রাম্প অতিথিদের দেখাতেন। যেখানে সাবেক পূর্বসূরি হিসেবে ওবামা দেশের গণতন্ত্র ও সংবিধানের সমুন্নত রাখার চমৎকার সব কথা লিখেছিলেন।

সাফল্য কামনা করেছিলেন উত্তরসূরি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের।

প্রেসিডেন্ট হিসেবেই ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০ জানুয়ারি সকালে হোয়াইট হাউস ত্যাগ করবেন। জো বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ গ্রহণের আগেই তিনি শেষবারের মতো এয়ারফোর্স ওয়ান বিমানে করে চার বছরের আবাসন ত্যাগ করবেন।  


প্রাণীর আকৃতি ও আরবি জুমর্ফিক ক্যালিগ্রাফি


মার্কিন ঐতিহ্য অনুযায়ী নতুন প্রেসিডেন্টের শপথ অনুষ্ঠানে পুরোনোজনের থাকার রীতি থাকলেও এবার থাকবেন না ডোনাল্ড ট্রাম্প। ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স সস্ত্রীক উপস্থিত থাকবেন ২০ জানুয়ারি দুপুরে জো বাইডেনের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের ব্যক্তিগত বাক্সপেটরা গতকাল শুক্রবার হোয়াইট হাউস থেকে ট্রাকযোগে সরিয়ে নিতে দেখা গেছে। হোয়াইট হাউসের বরাত দিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্যম গতকাল এসব কথা জানিয়েছে।

ডোনাল্ড ট্রাম্প বুধবার সকালে হোয়াইট হাউস থেকে ফ্লোরিডার মার এ লাগোতে যাওয়ার আগে ম্যারিল্যান্ডের জয়েন্ট বেস এন্ড্রুস সামরিক স্থাপনায় থামবেন। সেখানে সামরিক বাহিনীর পক্ষ থেকে তাঁকে বিদায়ী অভিবাদন জানানো হবে।

জো বাইডেনের শপথ গ্রহণের আগপর্যন্ত ডোনাল্ড ট্রাম্পই প্রেসিডেন্ট। ফলে তিনি শেষবারের মতো প্রেসিডেন্টের এয়ারফোর্স ওয়ান বিমানটি ব্যবহার করতে পাবেন ফ্লোরিডা পর্যন্ত যাওয়ার জন্য। অন্যথায় প্রেসিডেন্টের যাতায়াতের নিজস্ব বিমান ব্যবহারের জন্য তাঁকে জো বাইডেনের অনুমতি গ্রহণ করতে হতো।

ডোনাল্ড ট্রাম্প আগেই জানিয়েছিলেন, তিনি জো বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠানে থাকছেন না। জো বাইডেনও বলেছেন, ট্রাম্পের উপস্থিত না থাকাই ভালো। ট্রাম্পকে জাতির জন্য এক বিব্রতকর মানুষ হিসেবে উল্লেখ করেছেন জো বাইডেন।

এদিকে ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স টেলিফোনে কথা বলেছেন তাঁর উত্তরসূরি কমলা হ্যারিসের সঙ্গে। শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য সব ধরনের সহযোগিতার হাত সম্প্রসারণের কথা বলেছেন ভাইস প্রেসিডেন্ট পেন্স।

৬ জানুয়ারি ডোনাল্ড ট্রাম্পের আহ্বানে তাঁর সমর্থকদের তাণ্ডব আমেরিকার ইতিহাসে কলঙ্কজনক অধ্যায় হয়ে থাকবে। ক্যাপিটল হিল দখল করার নামে উন্মত্ত লোকজনের তাণ্ডবে পাঁচজনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এখন পর্যন্ত ২০০ জনের বেশি লোকজনকে অভিযোগের আওতায় আনা হয়েছে।

সূত্র: সিএনএন

news24bd.tv / আয়শা