৩০ হাজার ৫৭৩টি মিথ্যা বলেছে ট্রাম্প!

অনলাইন ডেস্ক

৩০ হাজার ৫৭৩টি মিথ্যা বলেছে ট্রাম্প!

মিথ্যাকে  শিল্পে পরিণত করে বিরল নজির স্থাপন করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। মিথ্যা দিয়ে তিনি তার প্রেসিডেন্সি শুরু করেছিলেন। এর ধারাবাহিকতা টানা চার বছর বজায় রেখে যথারীতি মিথ্যা দিয়েই ক্ষমতা ছেড়েছেন ট্রাম্প। রিপাবলিকান দলের মনোনয়ন পেয়ে ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয় লাভ করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ২০১৭ সালের ২০ জানুয়ারি ট্রাম্পের অভিষেক হয়। সেই অভিষেক নিয়েই প্রথম মিথ্যা বলেন ট্রাম্প। ক্ষমতা শুরু হয় তার মিথ্যা দিয়ে। 

ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দিনে পাঁচ শতাধিক মিথ্যা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এতে নিজেরই মিথ্যা বলার রেকর্ড ভঙ্গ করেছেন তিনি। দৈনিকটি ‘ট্রুথ টেস্টার’ নামের একটি কলামে ডোনাল্ড ট্রাম্পের মিথ্যা বলার এ পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে। 

প্রতিবেদনটিতে মার্কিন প্রেসিডেন্টের টুইটার বার্তাগুলোর কিছু উল্লেখযোগ্য মিথ্যা তুলে ধরে বলা হয়েছে, ট্রাম্প গত ২ নভেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগের দিন ৫০৪ বার মিথ্যা বলেছেন, যা একদিনে সর্বোচ্চ। আর ৫ নভেম্বর পর্যন্ত ডোনাল্ড ট্রাম্প ২৯ হাজার ৫০৮ বার মিথ্যা বলেছেন ও বিভ্রান্তিকর তথ্য তুলে ধরেছেন। 

বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট যেসব বিষয়ে সবচেয়ে বেশি মিথ্যা বলেছেন, সেগুলোর মধ্যে করোনাভাইরাস অন্যতম। বলা হয়েছে, এই ভাইরাসকে প্রথম দিকে গুরুত্ব না দিয়ে তিনি যে ভুল করেছেন, তা ধামাচাপা দিতেই মূলত তিনি এসব মিথ্যা বুলি উচ্চারণ করেছেন।

সবচেয়ে দুর্বল যেসব পাসওয়ার্ড

শীর্ষে ম্যানইউ

নিউইয়র্ক টাইমস পত্রিকার চিফ হোয়াইট হাউস করেসপনডেন্ট পিটার বেকার সম্প্রতি এক বিশ্লেষণে উল্লেখ করেন, ট্রাম্প তার প্রেসিডেন্সি শুরু করেছিলেন মিথ্যা দিয়ে। তার সেই মিথ্যা ছিল অভিষেক অনুষ্ঠানে জনতার উপস্থিতি নিয়ে। শুরু থেকেই ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সি মিথ্যার কারখানা হিসেবে কাজ করে।

মিথ্যা দিয়ে ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সি শুরু করার প্রমাণ সিএনএনও হাজির করে। তারা জানায়, অভিষেক অনুষ্ঠানের সময় হওয়া বৃষ্টি নিয়ে শুরুর মিথ্যাটা বলেছিলেন ট্রাম্প।

ট্রাম্পের মিথ্যার একটা হিসাব ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকার ‘ফ্যাক্ট চেক’ থেকে পাওয়া যায়। পত্রিকাটির তথ্য অনুযায়ী, ২০২০ সালের ৯ জুলাই প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্প ২০ হাজার মিথ্যার ‘মাইলফলক’ স্পর্শ করেন। আর ২০২০ সালের ৫ নভেম্বর পর্যন্ত ট্রাম্প ২৯ হাজার ৫০৮টি মিথ্যা বা বিভ্রান্তিকর কথা বলেন।

২০২১ সালের ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকার ফ্যাক্ট চেক হিসাব অনুযায়ী, চার বছরে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ৩০ হাজার ৫৭৩টি মিথ্যা বা বিভ্রান্তিকর কথা বলেছেন।

ফ্যাক্ট চেক হিসাব দেখা যায়, ২০২০ সালের অক্টোবরে তিনি প্রেসিডেন্ট হিসেবে সর্বোচ্চসংখ্যক প্রায় চার হাজার মিথ্যা বলেন। তিনি পুরো ২০১৭ সালে যত মিথ্যা বলেছেন, তার দ্বিগুণ বলেছেন এই এক মাসে। পরের মাস নভেম্বরেও ট্রাম্পের মিথ্যা বলা যথারীতি অব্যাহত ছিল। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রাক্কালে গত ২ নভেম্বর তিনি দৈনিক মিথ্যার সর্বোচ্চ রেকর্ড গড়েন। ২৪ ঘণ্টায় ট্রাম্প পাঁচ শতাধিক মিথ্যা বলেন। ৩ নভেম্বরের নির্বাচনের রাত থেকে ট্রাম্প লাগাতার মিথ্যা বলা শুরু করেন।

ট্রাম্প তার মেয়াদের পুরোটা সময় মিথ্যাকে একটি ‘অস্ত্র’ হিসেবে ব্যবহার করেছেন। তিনি রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে মিথ্যা অপবাদ দিয়েছেন। সংবাদমাধ্যমকে দিয়েছেন ‘ফেক নিউজ’ তকমা। প্রাণঘাতী করোনা নিয়ন্ত্রণে আছে বলে তাঁর মিথ্যা দাবির পর যুক্তরাষ্ট্রে চার লাখের বেশি মানুষ এই ভাইরাসে প্রাণ হারিয়েছেন।

সবশেষ প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নিয়ে ট্রাম্প মিথ্যার বেসাতি করেছেন। নির্বাচনে কারচুপি-জালিয়াতির মিথ্যা অভিযোগ তুলে তিনি নিজেকে জয়ী দাবি করেছেন। এই মিথ্যা দিয়ে তিনি তাঁর সমর্থকদের উসকে ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল ভবনে রক্তক্ষয়ী হামলার কারিগর হিসেবে কাজ করেন।

নির্বাচনে জয়ের ডাহা মিথ্যায় অনড় থেকেই ২০ জানুয়ারি ক্ষমতা ছাড়েন ট্রাম্প। এমনকি এদিন অ্যান্ড্রুজ সামরিক ঘাঁটিতে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিদায়ী ভাষণেও ছিল একগাদা মিথ্যা।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এল খাসোগি হত্যার গোপন তথ্য

অনলাইন ডেস্ক

মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এল খাসোগি হত্যার গোপন তথ্য

সৌদি আরবের ভিন্ন মতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যা বা গ্রেফতারের অভিযানে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান অনুমোদন দিয়েছিলেন।

শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) প্রকাশিত যুক্তরাষ্ট্রের একটি গোয়েন্দা প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ডিরেক্টর অব ন্যাশনাল ইনটেলিজেন্সের দফতর।

গোয়েন্দা প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে ধরা বা হত্যার জন্য তুরস্কের ইস্তাম্বুলে একটি অপারেশন চালানোর অনুমতি দেন।


অভাব দুর হবে, বাড়বে ধন-সম্পদ যে আমলে

সূরা কাহাফ তিলাওয়াতে রয়েছে বিশেষ ফজিলত

করোনার ভ্যাকসিন গ্রহণে বাধা নেই ইসলামে

নামাজে মনোযোগী হওয়ার কৌশল


চার পৃষ্ঠার ‘জামাল খাসোগি হত্যায় সৌদি সরকারের ভূমিকা’ শীর্ষক এ গোয়েন্দা প্রতিবেদনটি শুক্রবার প্রকাশ করা হয়। তবে পশ্চিমা বিশ্বে এমবিএস নামে পরিচিত যুবরাজ নিয়মিতভাবে এই অভিযোগ অস্বীকার করে যাচ্ছেন, যদিও তার ঘনিষ্ঠ কয়েকজন উপদেষ্টা এই হত্যাকাণ্ডে নিবিড়ভাবে জড়িত ছিলেন।

এমন এক সময় খাসোগি হত্যার গোয়েন্দা প্রতিবেদন প্রকাশ হলো যখন মধ্যপ্রাচ্যে সম্পর্ক ঢেলে সাজাতে চেষ্টা করছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের সঙ্গে ফোনে কথা বলেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

ওয়াশিংটন পোস্ট’-র কলামনিস্ট ছিলেন তিনি। ২০১৮ সালে ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলের সৌদি দূতাবাসে গিয়েছিলেন জামাল খাশোগি। সেদিনই নিখোঁজ হন তিনি। সৌদি সরকার ১৭ দিন দাবি করেছিল তার অবস্থান সম্পর্কে কোনো তথ্য নেই।

অবশেষে আন্তর্জাতিক চাপে ১৯ অক্টোবর স্বীকার করে, খাশোগিকে সৌদি দূতাবাসের ভেতর হত্যা করা হয়েছে। হত্যার অভিযোগে ১১ জন সৌদি কর্মকর্তাকে আটক করা হয়েছিল।

তুর্কি পুলিশের ধারণা, ৫৯ বছর বয়সী সাংবাদিক খাশোগিকে শ্বাসরোধে হত্যার পর তার মরদেহ টুকরো করে পুড়িয়ে ফেলা হয়েছিল।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

হাতে ঠেলা রেল ট্রলিতে উ.কোরিয়া ছেড়েছেন রাশিয়ান কূটনীতিক

অনলাইন ডেস্ক

উত্তর কোরিযার কঠোর কোভিডবিরোধী পদক্ষেপের জেরে হাতে ঠেলা রেল ট্রলিতে করে উত্তর কোরিয়া ছেড়েছেন রাশিয়ান কূটনীতিক এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের একটি দল।

আট সদস্যের এ দলটি ট্রেন এবং বাসে করে সীমান্ত এলাকায় পৌঁছানোর পর রুশ সীমান্ত পাড়ি দিতে হাতে ঠেলা ট্রলিতে প্রায় এক কিলোমিটার রেললাইন পাড়ি দেন বলে জানায় বিবিসি। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে  যাত্রী পরিবহন সেবার বেশিরভাগই বন্ধ রেখেছে উত্তর কোরিয়া।

দেশটির দাবি এখন পর্যন্ত সেখানে কোনও আক্রান্ত শনাক্ত হয়নি, তবে পর্যবেক্ষকরা এই দাবি অস্বীকার করে আসছেন। গত বছরের শুরুতেই ট্রেন, ওয়াগন ও বেশিরভাগ আন্তর্জাতিক যাত্রীবাহি ফ্লাইটও বন্ধ করে দেওয়া হয়।


নাসিরের স্ত্রীকে ‘জাতীয় ভাবী’ আখ্যা দিয়ে সুবাহ'র স্ট্যাটাস

বিএনপির সমাবেশ ঘিরে খুলনায় পরিবহন চলাচল বন্ধ

১৩৮ বছরের পুরনো পরিত্যক্ত আদালত ভবনে চলে বিচার কাজ

নাইজেরিয়ায় হোস্টেল থেকে কয়েকশ ছাত্রীকে অপহরণ


ফলে এক বছরের বেশি সময় ধরে আটকে থেকে, পিয়ংইয়ং ছেড়ে যেতে রুশ কূটনীতিকদের সামনে অস্বাভাবিক যাত্রা করা ছাড়া অন্য কোনও বিকল্প খোলা ছিলো না। সীমান্ত পার হওয়ার পর অপেক্ষমান রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা তাদের স্বাগত জানান।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

খাশোগী হত্যা: বাইডেনের কাছে পাঠানো হলো সিআইএর প্রতিবেদন

অনলাইন ডেস্ক

সাংবাদিক জামাল খাশোগীর হত্যা রহস্য নিয়ে সৌদি যুবরাজের সংশ্লিষ্ট থাকার বিষয়ে আবারো এসেছে কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য। আর এ বিষয়ে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার একটি তদন্ত রিপোর্ট এরইমধ্যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন দেখেছেন। 

যদিও প্রতিবেদনটি এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ হয়নি। আর এরমাঝে জো বাইডেনের সৌদি বাদশাহ’র সঙ্গে ফোনালাপ হলেও, খাশোগির মৃত্য নিয়ে সরাসরি কোন আলাপ হয়নি বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউজ। 

মার্কিন গণমাধ্যমে প্রতিবেদনে সাংবাদিক জামাল খাশোগির হত্যাকাণ্ডে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সংশ্লিষ্টতার জোরালো তথ্য উপস্থাপন করেছে। খাশোগির হত্যাকারী দল যুবরাজের নিয়ন্ত্রণাধীন একটি কোম্পানির প্রাইভেট বিমানে করে তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে উড়ে গিয়েছিল। ‘টপ সিক্রেট’ শিরোনামের এই নথিতে সৌদি আরবের একজন মন্ত্রীরও সই রয়েছে বলে সিএনএন জানিয়েছে।

এদিকে খাশোগি হত্যা সংক্রান্ত মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ এর একটি তদন্ত প্রতিবেদন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদনটি তিনি দেখেছেন বলে জানালেও এর বেশি সাংবাদিকদের কোন প্রশ্নে জবাব দেননি বাইডেন।


বিএনপির সমাবেশ ঘিরে খুলনায় পরিবহন চলাচল বন্ধ

১৩৮ বছরের পুরনো পরিত্যক্ত আদালত ভবনে চলে বিচার কাজ

নাইজেরিয়ায় হোস্টেল থেকে কয়েকশ ছাত্রীকে অপহরণ

কুয়েটে শর্টপিচ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট শুরু


এছাড়া প্রতিবেদনটি পড়ার পরে সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজের সঙ্গে কথা বলেছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। এ ফোনালাপে বাইডেন সর্বজনীন মানবাধিকার এবং আইনের শাসনের ওপর যুক্তরাষ্ট্রের দেয়া গুরুত্বের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউজ। তবে খাশোগি ইস্যুতে কোন কথা হয়েছে কি-না সেটি জানানো হয়নি।

একইসঙ্গে খাশোগির হত্যাকাণ্ড নিয়ে গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনটি অচিরেই প্রকাশ করা হবে বলে জানিয়েছেন স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র নেড প্রাইস। আরো জানান, এই ঘৃণ্য হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। ২০১৮ সালের ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে জামাল খাশোগিকে নির্মমভাবে হত্যার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ১১ জনকে দোষী সাব্যস্ত করেছে সৌদিআরব। কিন্তু সৌদি যুবরাজের সংশ্লিষ্টতার বিষয়টি প্রতিবারই এড়িয়ে যায় রিয়াদ।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নাইজেরিয়ায় হোস্টেল থেকে কয়েকশ ছাত্রীকে অপহরণ

অনলাইন ডেস্ক

নাইজেরিয়ায় হোস্টেল থেকে কয়েকশ ছাত্রীকে অপহরণ

ছবি: আলজাজিরা থেকে নেয়া

নাইজেরিয়ার জামফারা প্রদেশের একটি স্কুলহোস্টেল থেকে কয়েক শ ছাত্রীকে অপহরণ করেছে বন্দুকধারীরা। উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় জামফারা এলাকায় শুক্রবার এ ঘটনা ঘটেছে। শিক্ষক ও অভিভাবকদের বরাতে বার্তা সংস্থা এএফপি এমন খবর দিয়েছে।

প্রদেশটির তথ্য কমিশনার সুলায়মান তানাউ আনকা রয়টার্সকে বলেছেন, ‘ঠিক কত বাচ্চাকে তুলে নেয়া হয়েছে, তা এই মুহূর্তে বলা সম্ভব নয়।’

‘অজ্ঞাত বন্দুকধারীরা গুলি করতে করতে হোস্টেলে ঢুকে মেয়েদের নিয়ে যায়,’ জানিয়ে আনকা বলেন, ‘তারা গাড়িতে এসেছিল বলে তথ্য পেয়েছি। নিরাপত্তাকর্মীরা তল্লাশি চালাচ্ছেন।’


কুয়েটে শর্টপিচ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট শুরু

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

মেয়েকে তুলে নিয়ে মাকে রাত কাটানোর প্রস্তাব অপহরণকারীর

নাসির বিয়ে করেছেন আপনার খারাপ লাগে কেন?


নিজের নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক শিক্ষক জানিয়েছেন, ‘কমপক্ষে ৩০০ মেয়েকে তুলে নেয়া হয়েছে।’

এক অভিভাবক জানিয়েছেন, তার দুই মেয়েকে খুঁজে পাচ্ছেন না। তাদের বয়স ১০ এবং ১৩।

স্থানীয়দের উদ্ধৃত করে আল-জাজিরা লিখেছে, বন্দুকধারীরা রাতে বালিকা বিদ্যালয়টির হোস্টেলে হানা দেয়। কয়েক ঘণ্টা ধরে তারা তল্লাশি চালিয়ে মেয়েদের তুলে নেয়।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বৃটেনে ফিরতে পারবে না আইএস বধু শামিমা

অনলাইন ডেস্ক

বৃটেনে ফিরতে পারবে না আইএস বধু শামিমা

আইএস বধু হিসেবে পরিচিত শামিমা বেগম বৃটেনে ফিরতে পারবেনা বলে রায় দিয়েছে দেশটির সর্বোচ্চ আদালত। শুক্রবার জিহাদি সংগঠন ইসলামিক স্টেটে যোগ দেয়া সাবেক এই বৃটিশ নাগরিকের বিরুদ্ধে এ রায় দেয়া হয়। আদালতের রায়ে বলা হয়, নিরাপত্তা ঝুঁকি থাকায় এই আদেশ চ্যালেঞ্জ করতেও শামিমা বৃটেনে প্রবেশের সুযোগ পাবে না।

জঙ্গি সংগঠনে যোগ দেয়ার জন্য ২০১৯ সালে বৃটিশ সরকার শামিমা বেগমের নাগরিকত্ব কেঁড়ে নেয়। সেসময় বৃটেনের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ শামিমাকে বাংলাদেশি বলে দাবি করেছিলেন। তখন শামিমা ওই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করে জানায়, সে বৃটেন ছাড়া অন্য কোনো দেশের নাগরিক নয় এবং সাজিদ জাভিদের ওই সিদ্ধান্ত তাকে রাষ্ট্রহীন করেছে। 


কারাবন্দি অবস্থায় লেখক মুশতাক মৃত্যুতে যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী

বগুড়ায় সকাল ও দুপুরের সড়ক দুর্ঘটনায় ঝরল ৬ প্রাণ

যা দেখে নাসিরকে ভালোবেসেছিলেন তামিমা


গত বছরের জুলাই মাসে বৃটেনের আপিল বিভাগ জানিয়েছিল, শামিমাকে বৃটেনে ফেরার অনুমতি দেয়া হলে সে আদালতে তার নাগরিকত্ব বাতিলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবে। কিন্তু নভেম্বরে এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করে বৃটেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, শামিমা বৃটেনে প্রবেশ করলে তা হবে দেশের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ন।

বৃটিশ গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর তথ্য অনুযায়ী আইএসে যোগ দেয়া জিহাদিরা জাতীয় নিরাপত্তার জন্য চরম ঝুঁকিপূর্ণ। এরপর শুক্রবারের রায়ের মধ্য দিয়ে শামিমার নাগরিকত্ব আবেদনের সুযোগ একেবারে বন্ধ হয়ে গেলো। এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন সাজিদ জাভিদ।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে শামিমা তার দুই বন্ধুর সঙ্গে ইসলামিক স্টেটে যোগ দিতে তুরস্ক হয়ে সিরিয়া যায়। সেসময় তার বয়স ছিল মাত্র ১৫। সিরিয়ায় ইসলামিক খেলাফত প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে সেখানে যুদ্ধ করতে যায় জঙ্গিরা। শামিমা ওই খেলাফত রাষ্ট্রের রাজধানী রাক্কায় বাস করতো। সেখানে সে এক আইএস জিহাদিকে বিয়ে করে। তাদের তিনটি সন্তানের জন্ম হলেও তারা সকলেই মারা গেছে। এরপর ইসলামিক স্টেটের পতন হলে তিনি সিরিয়ার আল-রোজ শরনার্থী শিবিরে আশ্রয় নেয় শামিমা। এই শিবিরগুলো পরিচালনা করে সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্স।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর