বাগেরহাটে গৃহহীন ৪৩৫ পরিবার পাচ্ছে পাকা ঘর ও জমি

বাগেরহাট প্রতিনিধি:

বাগেরহাটে গৃহহীন ৪৩৫ পরিবার পাচ্ছে পাকা ঘর ও জমি

পেশায় দিনমজুর, থাকেন পরের বারান্দায় কিংবা অন্যের জমিতে। এমন দরিদ্র পরিবার এখন পেতে যাচ্ছেন পাকা ঘর ও জমি। ঘরে থাকছে বিদ্যুৎ সংযোগও। ভূমি ও গৃহহীন দরিদ্র পরিবারগুলো এ ঘর পেয়ে যেন তাদের আনন্দের শেষ নেই। তেমনি খুশির পাশাপাশি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীকে। মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে হত দরিদ্রদের এ ঘর বানিয়ে দেয়া হচ্ছে সরকারের পক্ষ থেকে। 

ইতিমধ্যে উপকারভোগীদের প্রত্যেকের নামে দুই শতক ভূমিসহ ওইসব ঘরের দলিল ও নামপত্তন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। আগামী শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধনের পর বাগেরহাটের ৯টি উপজেলার ৪৩৫টি পরিবার স্থানীয়ভাবে ঘরের দলিল ও চাবি হস্তান্তর করা হবে উপকারভোগী হাতে। 

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক আ ন ম ফয়জুল হক জানান, যাচাই বাছাই করে ‘ক’ তালিকায় থাকা পরিবারের মধ্যে অধিক দরিদ্রদের দেয়া হচ্ছে ৪৩৫টি ঘর। পর্যায়ক্রমে দেয়া হবে তালিকার অন্যান্যদের বলে জানিয়েছেন তিনি। এসব পাকা ঘরের সামনে বারান্দা, দুইটি রুম, একটি রান্না ও বাথ রুম সম্বলিত ঘরসহ দুই শতক করে জমি দেয়া হবে প্রত্যেক পরিবারকে। 


কাদের মির্জার বিরুদ্ধে যুবলীগ নেতার মামলা!


সেই সাথে নতুন ঘরে থাকছে মিটারসহ বৈদ্যুৎতিক সংযোগের ব্যবস্থাও। সেখানকার বাসিন্দাদের সুপেয় পানির চাহিদা মিটাতে খনন করা হচ্ছে একটি মিষ্টি পানির পুকুরও। রয়েছে সংযোগ সড়ক। বন বিভাগের সহায়তায় ওই প্রকল্প এলাকা জুড়ে সবুজ বনায়নের আওতায় আনারও উদ্যোগ রয়েছে স্থানীয় প্রশাসনের। জেলাজুড়ে এ প্রকল্প এলাকা এখন যেন দৃষ্টি নন্দন স্বপ্নের নীড়। জমিসহ এসব ঘরের মালিক হতে যাচ্ছেন স্থানীয় ভিক্ষুক, সবজি বিক্রেতা ও  প্রতিবন্ধী পরিবারগুলো। 

জীবনের বেশির ভাগ সময় ধরে অন্যের জায়গায় বসবাসকারী এ সকল উপকারভোগী স্থানীয় বাসিন্দারা বলছেন, মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া এ ঘর পেয়ে স্থায়ীভাবে মাথাগোজার ঠাঁই হয়েছে তাদের। তাই খুশি মনে প্রধানমন্ত্রীকে কৃতজ্ঞতাও জানিয়েছেন তারা। 

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রাজধানীর দেয়ালে ২০ নারীর আঁকিবুকি

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর দেয়ালে ২০ নারীর আঁকিবুকি

দরজায় কড়া নাড়ছে নারী দিবস। আর এই দিবসটিকে সামনে রেখে রাজধানীর গুলশান-২ এর ৮৪ নম্বর সড়কের দেয়ালে কয়েক দিন আগে থেকেই শুরু হয়েছে দেয়ালচিত্র তৈরির কাজ।  আয়োজনের নাম, 'রাইট টু সিটি'।

মজার বিষয় হচ্ছে অংশগ্রহণকারীরা সবাই নারী। ২০ নারী শিল্পী আঁকছেন ৭২ ফুট দীর্ঘ ও ১০ ফুট প্রস্থের দেয়ালচিত্র। শিল্পীরা মনে করছেন এই দেয়ালচিত্রের মাধ্যমে আবদ্ধ রাস্তাটির দৃষ্টিসীমা প্রসারিত করছেন তারা।

ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন পৃষ্ঠপোষকতা দিচ্ছে ফারিহা জেবার নেতৃত্ব ও পরিকল্পনায় কাজ করা শিল্পীদের। 

শিল্পী ফারিহা জেবা বলেন, '৮ মার্চ নারী দিবস উপলক্ষে আমরা সমবেত হয়েছি। ৬ তারিখ সকাল থেকেই শুরু করেছি এ দেয়ালচিত্রের কাজ। আমরা এটি নিয়েছি একটি উৎসবের মতো করে, প্রথমে দেয়ালটি সবাই ভাগ করে নিয়েছি লে আউট অনুযায়ী, আশা করি কালকের (৭মার্চ) মধ্যে আঁকাটি শেষ হয়ে যাবে।'

তিনি বলেন, 'আমরা এখন পর্বতে উঠতে পারি, আমরা দেয়ালে ছবি আঁকতে পারি। এই দেয়ালচিত্র কোনো দুঃখের গ্লানির কথা নয়, আমরা আনন্দ আঁকতে চাই। আমাদের মূল উদ্দেশ্য আমাদের আনন্দ আমাদের ভালোলাগাগুলো উজ্জ্বল রঙের মাধ্যমে এই দেয়ালে তুলে রাখা। আশা করি এই উজ্জ্বলতা সবার মধ্যে সঞ্চারিত হবে।'

ফারিহা জেবা ছাড়াও নারীশিল্পীরা হলেন- এই দলে আছেন, নুজহাত তাবাসসুম, কাজী ইস্তেলা আহমেদ, ইসমত আরা মিতু, মাহমুদা আকতার লুৎফা, সুরভী আক্তার, মানসী বণিক, আতিয়া মাইবাম, সারিয়া আহমেদ, সাইকা চৌধুরী, দিবারাহ মাহমুদ, নিপা নিপবীথি দাশ, লায়লা ফজল, পাপিয়া সারোয়ার দিঠি, মন্দ্রিলা মধুরিমা, লায়লা ফজল।


মশা মারতে গিয়ে পুড়ে গেলেন মা ও দুই মেয়ে

ভাসানচর পুরোপুরি নিরাপদ ও বাসযোগ্য এক দ্বীপ

মশা মারতে গিয়ে পুড়ে গেলেন মা ও দুই মেয়ে

আস্থা ভোটে জিতলেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান

চিকিৎসাপত্র ছাড়াই ওষুধ কিনছেন ক্রেতারা, রোগী দেখছেন ফার্মেসি মালিকরা


ঢাকার বাইরে থেকে তিন নৃগোষ্ঠীর প্রতিনিধিত্বশীল নারী অংশ নিয়েছেন, তারা হলেন আলভী চাকমা, রূপশ্রী হাজং এবং আতিয়া মাইবাম। ইউনিয়ন কার্যালয়ের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় পথচারীদের আকৃষ্ট করছে নারীশিল্পীদের  দেয়ালচিত্রগুলো। অংশগ্রহণকারীদের বিশ্বাস পুরো কাজ শেষ হয়ে গেলে এই দেয়ালচিত্রের সামনে সেলফি তোলার হিড়িক পড়ে যাবে।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

তাহেরীর গান নাজায়েজ, ক্ষমা চাইতে হবে: সংবাদ সম্মেলনে আলেম

নিজস্ব প্রতিবেদক

তাহেরীর গান নাজায়েজ, ক্ষমা চাইতে হবে: সংবাদ সম্মেলনে আলেম

আল্লাহ-রাসূলের কটূক্তি ও কুফুরি বক্তব্য দিয়ে মাওলানা গিয়াস উদ্দীন আত-তাহেরী জাতিকে বিভ্রান্ত করছেন বলে অভিযোগ করেছেন ইসলামী আলোচক ও মর্জিনা সালাম ইন্টারন্যশনাল ক্যাডেট মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা শেখ মহিউদ্দিন বিল্লাহ।

শনিবাার (৬ মার্চ) দুপুরে বাগেরহাট প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তিনি।

লিখিত বক্তব্যে মহিউদ্দিন বিল্লাহ বলেন, ‘সম্প্রতি ওয়াজ মাহফিল ও জারি গানের নামে আল্লাহ এবং রসূলের (সা.) বিরুদ্ধে কটূক্তিসহ সরাসরি কুফুরি বক্তব্য প্রদানের মাধ্যমে জাতিকে ঈমানহারা করার চক্রান্ত করছে গিয়াস উদ্দীন তাহেরী। গজলের সুরে তাহেরী যেসব গান গায় তার বেশিরভাগ নাজায়েজ। এই ধরনের গান শোনাও পাপ।’


মশা মারতে গিয়ে পুড়ে গেলেন মা ও দুই মেয়ে

ভাসানচর পুরোপুরি নিরাপদ ও বাসযোগ্য এক দ্বীপ

মশা মারতে গিয়ে পুড়ে গেলেন মা ও দুই মেয়ে

আস্থা ভোটে জিতলেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান

চিকিৎসাপত্র ছাড়াই ওষুধ কিনছেন ক্রেতারা, রোগী দেখছেন ফার্মেসি মালিকরা


এই ধরনের বক্তব্য প্রত্যাহার ও পূর্বের বিতর্কিত বক্তব্যের জন্য জাতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনার আহ্বান জানানো হয়। অবিলম্বে এই ধরনের কর্মকাণ্ড বন্ধ না করা হলে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের কাছে অনুরোধ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে মাওলানা শেখ মহিউদ্দিন বিল্লাহ, হাফেজ মো. রবিউল ইসলাম ও মো. সাইদ খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ঝিনাইদহে তিন কেজি গাঁজাসহ আটক ৩

শেখ রুহুল আমিন, ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহে তিন কেজি গাঁজাসহ আটক ৩

ঝিনাইদহে অভিযান চালিয়ে জোবায়ের ও ইনতাজ আলী নামে দুই গাজা পাচারকারীকে আটক করেছে ডিবি পুলিশের একটি দল। শনিবার ঝিনাইদহ চুয়াডাঙ্গা সড়কের ভেটেরিনারি কলেজ এলাকা থেকে তাদের গাঁজাসহ গ্রেপ্তার করা হয়। 

তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হয় দুই কেজি গাঁজা। জোবায়ের চুয়াডাঙ্গার আনোয়ারপুর গ্রামের আব্দুল মালেক ও ইনতাজ আলী দর্শনার হঠাৎপাড়ার আব্দুল হামিদের ছেলে।


কুমিরের পেট থেকে বের করা হচ্ছে আস্ত মানুষ (ভিডিও)

প্রেমের বিয়ের ৪ মাসের মাথায় নববধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

বাক্‌স্বাধীনতা সুরক্ষিত রাখতে মানবাধিকার সংস্থাগুলোর আহ্বান

চুম্বনের দৃশ্যের আগে ফালতু কথা বলতো ইমরান : বিদ্যা


এদিকে মহেশপুরের মথুরানগর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঝিনাইদহ র‌্যাব কোটচাঁদপুরের লক্ষিকুন্ডু গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে ইকরাইল মণ্ডলকে আটক করে। তার কাছ থেকে এক কেজি গাজা উদ্ধার করা হয়।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

হেলিপ্যাডের জায়গা দখল করে ট্রাকস্ট্যান্ড

নাসিম উদ্দীন নাসিম, নাটোর

হেলিপ্যাডের জায়গা দখল করে ট্রাকস্ট্যান্ড

নাটোরের গুরুদাসপুর পৌর সদরের বিলচলন শহীদ সামসুজ্জোহা কলেজের সামনে ১৯৮৮ সালের বন্যার পর ক্ষতিগ্রস্থদের খোঁজখবর নিতে হেলিপ্যাড তৈরি করেছিলেন তৎকালীন এরশাদ সরকার। কিন্তু সঠিক রক্ষণাবেক্ষণ ও অবহেলার কারণে হেলিপ্যাডটি দখল করেছে প্রভাবশালীরা। 

বর্তমানে উপজেলা স্টেডিয়াম করার জন্য সাইনবোর্ড টানানো হলেও সেখানে গড়ে উঠেছে ট্রাকস্ট্যান্ড। সেই সাথে স্থানীয় একটি অসাধু চক্র প্রকাশ্যে হেলিপ্যাডের মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে। তবুও যেন সরকারি এই গুরুত্বপূর্ণ জায়গাটি দেখার কেউ নেই।

পৌর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মনি বিশ্বাস, শহীদুল ইসলাম, শাইনুল শেখ, মাহাতাব প্রামানিক, বাবু মল্লিক, বিল্টু শেখ, মইনুল ইসলামসহ অনেকে দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, দেশে এখন উন্নয়নের জোয়ার বইছে। অথচ গুরুদাসপুরের হেলিপ্যাডের জায়গার কোনো উন্নয়ন হলো না। জায়গাটি রক্ষার্থে উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা হ্যালিপ্যাডটিতে স্টেডিয়ামের জন্য নির্ধারিত স্থান হিসেবে সাইনবোর্ড বসালেও জায়গাটি এখন ট্রাকস্ট্যান্ড ও ট্রাক শ্রমিকদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। 

এমনকি হেলিপ্যাডের মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে স্থানীয় লোকজন। নিয়ন্ত্রণহীন এই হেলিপ্যাডে এখন নিয়মিত মাদক সেবনের আড্ডাও চলে। এ বিষয়ে প্রশাসন ব্যবস্থা নিচ্ছি বললেও ব্যবস্থা নেয়না। এভাবে সময়ক্ষেপণ হতে থাকলে হয়ত হেলিপ্যাডের অস্তিত্বই খুঁজে পাওয়া যাবে না। তাই জায়গাটি দখলমুক্ত করতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানিয়েছে স্থানীয় সচেতন মহল।

এ ব্যাপারে স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর শেখ সবুজ বলেন, দীর্ঘদিন ধরে হেলিপ্যাডের এই দুর্দশা দেখে আসছি। সঠিক রক্ষানাবেক্ষণের অভাবে জায়গাটি প্রায় বিলীন হওয়ার পথে। এলাকাবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে সেখানে একটি শিশু পার্ক বা বিনোদন কেন্দ্র স্থাপনের দাবি জানান তিনি।


মশা মারতে গিয়ে পুড়ে গেলেন মা ও দুই মেয়ে

আস্থা ভোটে জিতলেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান

চিকিৎসাপত্র ছাড়াই ওষুধ কিনছেন ক্রেতারা, রোগী দেখছেন ফার্মেসি মালিকরা

দেশে বাজারে আবারও কমছে স্বর্ণের দাম


উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তমাল হোসেন বলেন, ঘটনাটি আমাকে জানিয়েছেন ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে হেলিপ্যাডের সরকারি জায়গাটির ব্যাপারে এসিল্যান্ডকে প্রতিবেদন তৈরির দায়িত্ব দিয়েছি।

সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. আবু রাসেল বলেন, হেলিপ্যাডের মাটি কাটা আগে বন্ধ করব। তারপর ট্রাকস্ট্যান্ডের ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে পালালো রোহিঙ্গা নারী

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে পালালো রোহিঙ্গা নারী

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল থেকে কর্তব্যরত তিন পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে স্বামীকে রেখে পালিয়েছে জেসমিন বেগম (২২) নামে এক রোহিঙ্গা নারী 

সে ভাসানচরের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রক্লাস্টার নং ২৭, হাউজ-বি-থ্রি এর মো.সাইফুল ইসলামের স্ত্রী। শনিবার ভোর রাতে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে এই ঘটনা ঘটে। 

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) সৈয়দ মহিউদ্দিন আবদুল আজিম বলেন একজন রোহিঙ্গা নারী হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসে পালিয়ে গেছে বলে শুনেছি। তবে এ বিষয়ে এখন আমি বিস্তারিত কিছু বলতে পারবোনা।


কুমিরের পেট থেকে বের করা হচ্ছে আস্ত মানুষ (ভিডিও)

প্রেমের বিয়ের ৪ মাসের মাথায় নববধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

গান দিয়ে করোনা ঠেকানোর ব্যাতিক্রম উদ্যোগ

দেশে বাজারে আবারও কমছে স্বর্ণের দাম


অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) দীপক জ্যোতি খীসা গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, গত ২ ফেব্রুয়ারি রাত ৩টা ৩০ মিনিটের দিকে গলায় টিউমার অপারেশন করতে স্বামী এবং শিশু সুমাইয়া আক্তারকে (৬) সাথে নিয়ে রোহিঙ্গা নারী জেসমিন নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি হয়। 

পরে শনিবার ভোর রাতে শিশু বাচ্চাকে প্রসাব করানোর কথা বলে বাথরুমে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে বাথরুমে গিয়ে কর্তব্যরত পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে তার স্বামীকে রেখে শিশু বাচ্চাকে নিয়ে পালিয়ে যায় রোহিঙ্গা নারী।  

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর