বিয়েই মামুনের নেশা, নববধূকে ছেড়ে দ্বিতীয় বিয়ে

অনলাইন ডেস্ক

বিয়েই মামুনের নেশা, নববধূকে ছেড়ে দ্বিতীয় বিয়ে

৪ বছরের প্রেম সিলেটের মামুন-হাবিবার। যার পূর্ণতা পায় গত বছরের ২৫শে সেপ্টেম্বর। পারিবারিকভাবেই কাবিন ও আক্দ শেষ হয় তাদের। কিন্তু শ্বশুরবাড়ি গিয়ে ঘর করার স্বপ্ন পূরণ হলো না হাবিবার। হাবিবাকে ছেড়ে আবারও বিয়ের পিঁড়িতে বসেছে মামুন।

উপায় না পেয়ে শাহপরাণ থানায় এ নিয়ে মামলা দায়ের করেন হাবিবা। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে হাবিবার ভাসুর সুজনকে। হাবিবার দাবি- মামুন প্রেমের অভিনয়ে তাকে ফাঁদে ফেলে বিয়ে করেছে। একাধিক নারীর সঙ্গে আগেও তার প্রেম-বিয়ে ছিল মামুনের। বিয়ে করাই হচ্ছে মামুনের নেশা। 

২০ বছর বয়সী হাবিবা আক্তারের বাড়ি শহরতলীর মেজরটিলা সৈয়দপুরে। মাকে নিয়ে সে ওখানে বসবাস করে। পৈত্তিক বাড়ি গোলাপগঞ্জে। এবারের এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিল সে। মামুনের পুরো নাম আব্দুল্লাহ আল মামুন।


আরও পড়ুন: সুন্দরবনে বাঘের আক্রমণে দুই জেলে নিহত


সিলেট সিটি করপোরেশনের ২০নং ওয়ার্ডের কাজী সালাউদ্দিন কামাল জানান, উভয় পরিবারের সম্মতিতে আত্মীয়-স্বজনের উপস্থিতিতে এই বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। কাবিনে বর-কনে এবং আত্মীয়-স্বজনের সাক্ষর রয়েছে।

এদিকে বিয়ের কিছুদিন পর নানাভাবে টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করে মামুন। এমনকি টাকা না দেয়ায় হাবিবাকে সে একাধিক বার নির্যাতন করে। এসব ঘটনায় নিয়ে মামুন ও হাবিবার সংসারে তিক্ততার সৃষ্টি হয়। তবে- হাবিবা কিংবা তার পরিবার সেটি জটিল পর্যায়ে নেননি। এদিকে- মামুনের কথামতো হাবিবার বোন রোজিনা বেগম তাদেরকে ২ লাখ টাকার ফার্নিচার প্রদান করেন। হাবিবার ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে মামুনের চাহিদামতো আরো আড়াইলাখ টাকা নগদ প্রদান করেন। এতেও মন গলেনি মামুনের। যৌতুকের আরো ৫ লাখ টাকার জন্য সে হাবিবাকে নির্যাতন করে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহপরাণ থানার এসআই চন্দ্র শেখর বড়ুয়া জানিয়েছেন, মামলার পর আসামি সুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আর প্রধান আসামি মামুনকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

আকবর হোসেন সোহাগ, নোয়াখালী

গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

নোয়াখালীর হাতিয়ায় গৃহবধূকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ অভিযোগের মামলায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রাজধানীতে মানবপাচার চক্রের এক সদস্য গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীতে মানবপাচার চক্রের এক সদস্য গ্রেপ্তার

রাজধানীর শাহজাহানপুর এলাকা থেকে কানাডায় মানবপাচার চক্রের সক্রিয় এক সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মেয়েকে কখনো নিজ বাড়িতে, কখনো ঢাকা-চট্টগ্রামে যৌন কাজে পাঠাতেন মা

অনলাইন ডেস্ক

মেয়েকে কখনো নিজ বাড়িতে, কখনো ঢাকা-চট্টগ্রামে যৌন কাজে পাঠাতেন মা

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার আলাইয়াপুর ইউনিয়নে মাদ্রাসাছাত্রীকে একাধিক বার গণধর্ষণ, ভিডিও ধারণ ও অপহরণের ঘটনায় দায়ের করা মামলার বাদী বিউটি আক্তারের বিরুদ্ধে এবার মামলা করেছে পুলিশ।

অভিযোগ রয়েছে বিউটি নিজের মেয়েকে (১৭) জোরপূর্বক যৌন ব্যবসায় বাধ্য করে। মামলায় বিউটি ছাড়াও আলাইয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমানসহ আরও পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে বেগমগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমিন বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন। পুলিশ জানায়, মামলায় অভিযুক্ত ১ নম্বর আসামি গত বৃহস্পতিবার রাতে তার মেয়েকে (১৭) ধর্ষণ, বিবস্ত্র করে ছবি ধারণ ও অপরহরণ করা হয়েছে অভিযোগ এনে চারজনের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন। মামলার সূত্র ধরে অভিযান চালিয়ে আসামি ফয়সাল, সাইফুল ইসলাম ইমন ও জোবায়েরকে গ্রেপ্তার করা হয়।


১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

সবইতো চলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন ঈদের পরে খুলবে: নুর

আইন চলে ক্ষমতাসীনদের ইচ্ছেমত: ভিপি নুর

রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ


পুলিশ জানায়, গত শনিবার সন্ধ্যায় ঢাকার সাভারের পূরগাও এলাকার রুবি নামের একজনের বাসা থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরদিন ভিকিটিম অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-৩ এ বিচারকের কাছে স্বেচ্ছায় ২২ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেন।

পুলিশ আরও জানায়, জবানবন্দি ও মামলার তদন্ত করতে গিয়ে জানা গেছে ২০১৮ সালে ভিকটিম ধীতপুর দারুল উলুম দাখিল মাদ্রাসায় অষ্টম শ্রেণিতে পড়া লেখা করত। ২০১৭ সাল থেকে ২৮ ডিসেম্বর ২০২০ সাল পর্যন্ত ভিকটিমকে দিয়ে তার মা বিউটি আক্তার জোর করে টাকার বিনিময়ে দেহ ব্যবসা করাত। বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে টাকা নিয়ে নিজের মেয়েকে কখনো নিজ বাড়িতে, কখনো ঢাকা-চট্টগ্রামের যৌন কাজের জন্য পাঠাতেন বিউটি।

বিষয়টির প্রতিবাদ করলে কয়েকবার ভিকটিমের হাত-পা বেঁধে মারধর করেন বিউটি। আগের মামলার সাক্ষী ও বর্তমান মামলার আসামি মোজ্জামেল হোসেন বিউটিকে টাকা দিয়ে ঘরে এসে ওই ছাত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করতেন। একরাতে মোজাম্মেলের সঙ্গে যৌন কাজে লিপ্ত হলে স্থানীয় ফয়সাল ও জোবায়ের দেখে তাদের দুইজনের বিবস্ত্র ছবি ও ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে। পরে তার মোজাম্মেলকে বের করে দিয়ে ওই রাতে ভিকটিমকে গণধর্ষণ করে ফয়সাল ও জোবায়ের। পরে বিউটি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আনিসুর রহমানের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তার বাড়িতে পাঠায় ওইছাত্রীকে। চেয়ারম্যান আনিস নিজ বাড়িতে রেখে একাধিকবার ধর্ষণ করে ভিকটিমকে।

এদিকে ঘটনার প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে আজ বিকেলে আলাইয়াপুর ৬ নম্বর ওয়ার্ড নাফিতের পোল এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও হীরাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করে স্থানীয় এলাকাবাসী।

পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ভিকটিম ও গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের জবানবন্দির আলোকে পতিতাবৃত্তির উদ্দেশ্যে ওই ছাত্রীকে শারীরিক নির্যাতন, আটক রেখে পতিতাবৃত্তিতে বাধ্যকরণ, অবৈধভাবে অর্থের বিনিময়ে যৌন শোষণ ও স্থানান্তরিত করে যৌনকর্ম করার অপরাধে বিউটি ও চেয়ারম্যানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মানব পাচার ও দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ পরিদর্শক আরও জানান, ঘটনায় গ্রেপ্তার বিউটিকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। চেয়ারম্যান আনিসসহ মামলার অপর আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান সিকদার জানান, মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণ, অপরহণ, নগ্ন ভিডিও ধারণের ঘটনায় আগে দুটি ও মানব পাচার দমন আইনে আরও একটি মামলা হয়েছে। মামলায় মোট পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রংপুর শহরে পিটিয়ে টাকা ছিনতাই

রেজাউল করিম মানিক, রংপুর

রংপুর শহরে পিটিয়ে টাকা ছিনতাই

রংপুর মহানগরীর লক্ষী হল গলিতে নাসির নামে এক ড্রাইভারকে পিটিয়ে ৩০ হাজার টাকার মোবাইল ফোনসহ ৫ হাজার টাকা ছিনতাই করেছে দুর্বৃত্তরা।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

যশোরের চৌগাছায় ইউপি সদস্য সাময়িক বহিস্কার

রিপন হোসেন, যশোর

যশোরের চৌগাছায় ইউপি সদস্য সাময়িক বহিস্কার

চৌগাছার ফুলসারা ইউনিয়নের চার নম্বর ওয়ার্ডের (জামিরা গ্রাম) সদস্য, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন ওরফে আনারকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ।

চালের কার্ড, বয়স্কভাতা, বিধবাভাতা, প্রতিবন্ধীভাতা, কাবিখা, ভিজিডি ও মাতৃত্বকালীন ভাতা দেওয়ার নাম করে ওয়ার্ডের বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ স্থানীয় তদন্তে প্রমাণিত হয়।


সবইতো চলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন ঈদের পরে খুলবে: নুর

আইন চলে ক্ষমতাসীনদের ইচ্ছেমত: ভিপি নুর

রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ


এরপর গত ১১ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় সরকার বিভাগের ইপ-১ অধিশাখার সিনিয়র সহকারী সচিব মো. আবু জাফর রিপন স্বাক্ষরিত স্মারক নং ৪৬,০১৭,০২৭,০০,০০,০২৮,২০১৪(অংশ-১)-১৯৬ এক প্রজ্ঞাপনে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রকৌশলী এনামুল হক বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর