বাংলাদেশের নাম শুনে ৩-৪ মিনিট ধরে হাত তালি দিলেন বিদেশিরা: নৌ প্রতিমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশের নাম শুনে ৩-৪ মিনিট ধরে হাত তালি দিলেন বিদেশিরা: নৌ প্রতিমন্ত্রী

রাশিয়ায় একটি সেমিনারে বাংলাদেশের নাম শুনে ৩-৪ মিনিট ধরে হাত তালি দিয়েছেন সেখানে আসা বিদেশিরা।

শনিবার রাতে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ‘ট্রান্সফরমিং টু এ শিপবিল্ডার্স অ্যান্ড এক্সপার্টিং কান্ট্রি: চ্যালেঞ্জ ফর বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী একথা জানিয়েছেন।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবাগে শিপবিল্ডার্স শিল্পের একটি সেমিনারে গিয়েছিলাম। সেখানে আমি বক্তব্য রাখার সময় বাংলাদেশের নাম শুনে ৩-৪ মিনিট ধরে হাত তালি দিলেন বিদেশিরা। সেখানে তো কেউ আমাকে চেনেন না। কিন্তু বাংলাদেশের নাম শোনামাত্রই হাত তালি দিলেন। এটা শুধু শিপবিল্ডার্স ও মেরিন আর্কিটেক্টে এগিয়ে যাওয়ার ফল। বাংলাদেশ জাহাজ শিল্পে অন্য জায়গায় স্থান করে নিয়েছে।

আরও পড়ুন:


সৌদি আরবের সেই প্রস্তাব প্রত্যাখান করল মেসি

কাশ্মীর সীমান্তে গোপন সুড়ঙ্গের খোঁজ, আতঙ্ক

স্বামীর বন্ধুকে বাসায় ডাকেন মনি...

শুধু নারীই নয় টাকা দিলেই আর যা যা মেলে কারাগারে!


তিনি বলেন, নৌ খাত বাঁচলে বাংলাদেশ বাঁচবে। এখন বেসরকারি খাতের উদ্যোক্তারা চাইলেই ব্যাংক ঋণ পাচ্ছেন। ব্যাংকের টাকায় ব্যবসা করতে পারছেন। এটা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারণে। শিপবিল্ডার্স শিল্পে বেসরকারি উদ্যোক্তারাও এগিয়ে আসবেন। এ খাতে যে সম্ভাবনা রয়েছে, সেটা কাজে লাগাতে হবে।

নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, শিপইয়ার্ড এখন প্রাণ ফিরে পাচ্ছে। এখন যুদ্ধ জাহাজও দেশে তৈরি করা হচ্ছে। আমরা ছোট বেলায় নৌকায় চড়েছি। আমরা জাহাজ না বানালে কে বানাবে। মেরিন আর্কিটেক্ট আমাদের সাবজেক্ট।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার ২০৪১ সালের মধ্যে দেশকে উন্নত আয়ের দেশে উন্নীত করার রূপকল্প স্থির করে নৌপরিবহনসহ ব্যাপক ভিত্তিক উন্নয়ন কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। সরকার ব-দ্বীপ পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। 

নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের ৯০ ভাগ পরিবহন হয় নৌপথে। বঙ্গবন্ধু সাড়ে তিন বছরে দেশের ভিত্তি গড়ে দিয়েছিলেন। ৭৫ পরবর্তী সরকারগুলো দেশকে উল্টোপথে পরিচালিত করে পিছিয়ে দেয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে এগিয়ে নিতে নিরলসভাবে কাজ করছেন।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

পরাজয় নিশ্চিত জেনে বিএনপি তৃণমূল নির্বাচন থেকে সরে যাচ্ছে: কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

পরাজয় নিশ্চিত জেনে বিএনপি তৃণমূল নির্বাচন থেকে সরে যাচ্ছে: কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অপরাজনীতির কারণে জনগণ ও নেতাকর্মী থেকে বিএনপি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। তাদের ভোট নেই। তাই পরাজয় নিশ্চিত জেনে তৃণমূল নির্বাচন থেকে সরে যাচ্ছে।

আজ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ উপ-কমিটির পরিচিতি সভায় এ কথা বলেন কাদের। তিনি তার সরকারি বাস ভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে সভায় যুক্ত হন।

কাদের বলেন, গণতন্ত্রের মুখোশের আড়ালে বিএনপি বারবার স্বাধীনতার চেতনা ও মানবাধিকার ভূলুণ্ঠিত করেছে। স্বাধীনতা বিরোধীদের সঙ্গে মিলে বিএনপির স্বাধীনতা দিবস পালন তামাশা ছাড়া কিছু নয়।


ফাবিয়ানা আজিজ পারটেক্স স্টার গ্রুপের নতুন ডিএমডি

এবার শাকিবের নায়িকা ভারত বাংলার এই সুন্দরী

গাজী গ্রুপে মার্কেটিং অফিসার পদে চাকরির সুযোগ

সাবেক স্বামীর ৯৭ কোটি টাকার উপহার বিক্রি করেছেন অ্যাঞ্জেলিনা জোলি


বিএনপির সমাবেশ উপলক্ষে বাস বন্ধ করে দেয়ার অভিযোগের জবাবে তিনি বলেন, বিএনপির সমাবেশের কারণে বাসমালিকরা জ্বালাও পোড়াওয়ের ভয়ে বাস চালানো বন্ধ করে দেয়। এতে সরকারের কোনো হাত নেই। বিএনপি লাঠিসোটা দিয়ে পুলিশকে পেটাচ্ছে এটা জনগণ দেখছে। এটাই বিএনপির রাজনীতি। বিএনপি তাদের নেতিবাচক রাজনীতির ধারা থেকে বের হয়ে আসতে পারেনি।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সিইসিকে একহাত নিলেন রিজভী

নিজস্ব প্রতিবেদক

সিইসিকে একহাত নিলেন রিজভী

 

নির্বাচন কমিশনকে নিয়ে ধারাবাহিকভাবে সমালোচনা করে আসা নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারকে নিয়ে গতকাল প্রকাশ্যে ক্ষোভ ঝাড়েন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদা। ‘জাতীয় ভোটার দিবসের’ অনুষ্ঠানে সিইসি তার কড়া সমালোচনা করেন। আর বিষয়টি সিইসিকে একহাত নিলেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।  

তিনি বলেন, সিইসির ন্যূনতম লজ্জা থাকলে মাহবুব তালুকদারের সমালোচনা করতেন না।

আজ সকালে রাজধানীর মিরপুরে 'সরকারের হেফাজতে লেখক মুশতাকের মৃত্যু ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলের অপচেষ্টার প্রতিবাদে' একটি বিক্ষোভ মিছিল হয়। বিক্ষোভ মিছিল শেষে বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। 


ফাবিয়ানা আজিজ পারটেক্স স্টার গ্রুপের নতুন ডিএমডি

এবার শাকিবের নায়িকা ভারত বাংলার এই সুন্দরী

গাজী গ্রুপে মার্কেটিং অফিসার পদে চাকরির সুযোগ

সাবেক স্বামীর ৯৭ কোটি টাকার উপহার বিক্রি করেছেন অ্যাঞ্জেলিনা জোলি


রিজভী বলেন,  মাহবুব তালুকদার ইসির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেননি; বরং সিইসিই নির্বাচন ব্যবস্থা ধ্বংস করে দিয়েছেন। তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ থেকে নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন বিতাড়িত হয়েছে। সিইসির ন্যূনতম লজ্জাবোধ থাকলে তিনি ইসি মাহবুব তালুকদারের সমালোচনা করতেন না। বরং যদি তার মধ্যে ন্যূনতম বিবেকবোধ থাকত, তা হলে নিজের অপকর্মের জন্য অনুশোচনা করতেন। দেশের গণতন্ত্রের ধ্বংসের জন্য দায়ী এই সিইসি।

কর্মসূচিতে মহানগর উত্তরের যুগ্ম সম্পাদক এজিএম শামসুল হক, দপ্তর সম্পাদক এবিএম আব্দুর রাজ্জাক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা দেখে করোনা টিকা নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত

অনলাইন ডেস্ক

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা দেখে করোনা টিকা নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত

বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার স্বাভাবিক চিকিৎসা সরকার নিশ্চিত করলে তার শারীরিক অবস্থা দেখে করোনা টিকা নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার কায়সার কামাল। 

বুধবার সকালে হাইকোর্টে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ তথ্য জানান খালেদা জিয়ার আইনজীবী। এসময় তিনি আরো বলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন এখনো অসুস্থ, আগে তার শারীরিক অবস্থার আরো উন্নত হওয়া দরকার। সরকার তার চিকিৎসা করার সুযোগ দিচ্ছে না বলে আইনজীবীর অভিযোগ। 


কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানকে সমর্থন তুরস্কের, ভারতের ক্ষোভ

আবারও ইকো ট্রেন চলবে ইরান-তুরস্ক-পাকিস্তানে

সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে বিজিবির অভিযান, বিপুল গোলাবারুদ উদ্ধার

দেনমোহর পরিশোধ না করে স্ত্রীকে স্পর্শ করা যাবে কি না?


স্বাভাবিক চিকিৎসা সুবিধা নিশ্চিত হওয়ার পরে করোনা প্রতিরোধের ভ্যাকসিন টিকা নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। ২০১৮ সালের ৮ই ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় পাঁচ বছরের দণ্ড নিয়ে কারাগারে যান খালেদা জিয়া।

পরে সরকারের নির্বাহী আদেশে গত বছরের ২৫ শে মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল থেকে মুক্তি পেয়ে তার গুলশানের বাসায় যান।

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ব্যানারে নেই বেগম জিয়া, এনিয়ে বিস্তর আলোচনা

অনলাইন ডেস্ক

ব্যানারে নেই বেগম জিয়া, এনিয়ে বিস্তর আলোচনা

গত ১ মার্চ সোমবার স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে বছরব্যাপী কর্মসূচির উদ্বোধন করে বিএনপি। কিন্তু উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সব জমকালো আয়োজন ফেলে এখন আলোচনার বিষয় ব্যানার নিয়ে। কারণ ব্যানারে নেই খালেদা জিয়ার ছবি।

ব্যানারে কেন খালেদা জিয়ার ছবি নেই তা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে চলছে জোর আলোচনা সমালোচনা। অনুষ্ঠানের সকল ব্যানারে খালেদা জিয়ার ছবি থাকলেও উদ্বোধনী ব্যানারে ছিল চেয়ারপার্সনের ছবি। ব্যানারে শুধু ছিল দলটির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান।

খালেদা জিয়ার ছবি না থাকায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত নেতাকর্মীদের মধ্যে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে। ক্ষোভ প্রকাশ করে বিএনপির চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে লেখেন, ‘বদলে যাওয়া এ এক অন্যরকম বিএনপি। সব আছে, সবাই আছে, শুধু নেই বেগম খালেদা জিয়ার ছবি ও নামটি। এই ঘোর দুষ্কালেও অনেকেই ছিলেন স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্যাপন অনুষ্ঠানমালার শুভ উদ্বোধন উপলক্ষ্যে লেকশোর হোটেলে আয়োজিত এই জাঁকালো অনুষ্ঠানে। তবে বিএনপির আমন্ত্রণ পেয়েও সভানেত্রী শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ নেতারা এবং দাওয়াত না পাওয়ায় জামায়াত নেতারা ছিলেন অনুপস্থিত।’

আরও পড়ুন:


ফাবিয়ানা আজিজ পারটেক্স স্টার গ্রুপের নতুন ডিএমডি

এবার শাকিবের নায়িকা ভারত বাংলার এই সুন্দরী

গাজী গ্রুপে মার্কেটিং অফিসার পদে চাকরির সুযোগ

সাবেক স্বামীর ৯৭ কোটি টাকার উপহার বিক্রি করেছেন অ্যাঞ্জেলিনা জোলি


এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা নাজিম উদ্দিন আলম বলেন, আমানউল্লাহ আমানের নেতৃত্বে নয়াপল্টনে যে সাজসজ্জা করা হয়েছে সেখানে জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমানের ছবি রয়েছে। জিয়াউর রহমান আমাদের গর্ব। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কেন ম্যাডামের ছবি রাখা হয়নি, তা আমি জানি না। আমার মনে হয়, ম্যাডামের ছবি রাখা উচিত ছিল।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্যাপন জাতীয় কমিটির সদস্যসচিব ও বিএনপির চেয়ারপাসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম বলেন, জিয়াউর রহমান মানেই মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস। বাংলাদেশ মানেই জিয়া। তাই স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে শুধু জিয়াকে ফোকাস করতে চেয়েছি। এ কারণে দলীয় চেয়ারপারসনের ছবি ব্যবহার করা হয়নি।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পাওয়ায় আনন্দ মিছিল

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পাওয়ায় আনন্দ মিছিল করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আনন্দ মিছিল করে তারা।

পরে ছাত্রলীগ নেতারা বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নশীল দেশের মত উন্নতদেশের লক্ষমাত্রাও অর্জন করবে বাংলাদেশ। নাঈম আল জিকোর প্রকিবেদন।

স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা লাভে আনন্দ মিছিল করতে মঙ্গলবার সকাল থেকেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েল মধুর ক্যান্টিনের সামনে জড়ো হতে থাকেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

পরে, ঢা্কা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আনন্দ মিছিল করে তারা। মিছিলে অংশ নেয়, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ ছাত্রলীগের নেতা-কর্মিরাও।


রাজশাহীতে চলছে বিএনপির মহাসমাবেশ

করোনায় দেশে আরও ৭ জনের মৃত্যু

বিমানের মধ্যেই মৃত্যু, পাকিস্তানে ভারতীয় বিমানের জরুরি অবতরণ

কুয়েতে দিনার ছিটিয়ে ‘অশ্লীল নাচ’, ৪ বাংলাদেশিকে খুঁজছে দূতাবাস


পরে রাজুভাস্কর্যের সামনে সমাবেশ করেন তারা। এসময় ছাত্র নেতারা বলেন, সব ধাপ পেরিয়ে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছে বাংলাদেশ। উন্নয়নের এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে শেখ হাসিনার নেতৃত্বের বিকল্প নেই।

উন্নয়নের এই ধারাবাহিকতাকে সচল রাখাকে বামপন্থি ছাত্র সংগঠন গুলোকে সরকার বিরোধী আন্দোলন থেকে সরে আসার আহবানও জানায় ছাত্রলীগ।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর