চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচন: নৌকা-ধানের শীষের লড়াই আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচন: নৌকা-ধানের শীষের লড়াই আজ

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনের ভোট গ্রহণ আজ। কে হবেন বন্দরনগরীর নগর পিতা সেটি নির্ধারণেই ইভিএম এর মাধ্যমে সকাল ৮টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহণ চলবে। এছাড়া ভোটের মাধ্যমে চূড়ান্ত হবে ৪১টি সাধারণ ওয়ার্ড ও ১৪টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলর।

চসিক নির্বাচনে ভোট দেবেন ১৯ লাখ ৩৮ হাজার ৭০৬ জন ভোটার। নির্বাচন নির্বিঘ্ন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মোট ১৪ হাজার ৩৭০ জন দায়িত্ব পালন করবেন। অপ্রিতিকর ঘটনা এড়াতে ২৫ প্লাটুন বিজিবি গত সোমবার থেকেই টহল দিচ্ছে নগরীর বিভিন্ন সড়কে।

নির্বাচনে লড়াই করবেন - মেয়র পদে সাতজন ও কাউন্সিলর পদে ২২৯ জন প্রার্থী। নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ করতে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ৭৩৫ ভোটকেন্দ্রের প্রতিটিতে মঙ্গলবার নির্বাচনসামগ্রীও পৌঁছেছে।

তবে মেয়র পদে ৭ প্রার্থীর মধ্যে আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে আছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী ও বিএনপি প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন।

আরও পড়ুন:


যে দুই সূরা পাঠ করলে সর্বপ্রকার অনিষ্ট হতে রক্ষা পাওয়া যাবে

ফেব্রুয়ারির প্রথম বা দ্বিতীয় সপ্তাহে স্কুল খুলবে : জাকির হোসেন

চার পেসার খেলানো বিদেশে সাফল্য আনবে: শফিকুল হক হীরা

এক পৌরসভায় আওয়ামী লীগের ৭ বিদ্রোহী


তবে সদ্য সাবেক হওয়া ৯ কাউন্সিলর বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় টেনশন বেড়েছে প্রশাসনের। আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ, প্রশাসন ও দলীয় মনোনয়ন পাওয়া প্রার্থীদের চরম চাপ, হুমকি-ধমকি উপেক্ষা করে শেষ পর্যন্ত ভোটের মাঠ থেকে সরে যাননি তারা। এখনও লড়াইয়ে আছেন ৯ সাবেক কাউন্সিলর।

সাধারণ ছুটি না থাকলেও নির্বাচন উপলক্ষে নগরের দুটি রফতানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকার (ইপিজেড) সব কারখানায় ছুটি ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ।

নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান জানিয়েছেন, চসিক নির্বাচনে সাত হাজার ৭৭২ জন পুলিশ সদস্য মোতায়েন থাকবে। সেই সঙ্গে ২৫ প্লাটুন বিজিবি এবং র‌্যাবের ৪১টি টিম থাকবে। পুলিশের রিজার্ভ টিম ও আনসার সদস্য মোতায়েন থাকবে নির্বাচনী এলাকায়। গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে ৪১৬টি কেন্দ্রকে চিহ্নিত করা হয়েছে। এসব কেন্দ্রে ১৮ জন করে এবং সাধারণ কেন্দ্রগুলোতে ১৬ জন করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য নিয়োজিত থাকবেন।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দ্বিতীয়বারের মতো মেয়র হলেন কেশবপুরের রফিকুল

রিপন হোসেন, যশোর

দ্বিতীয়বারের মতো মেয়র হলেন কেশবপুরের রফিকুল

যশোরের কেশবপুর পৌর সভা নির্বাচনে আবারও আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থী রফিকুল ইসলাম মোড়ল বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন। তিনি গতবারও মেয়র ছিলেন।

রির্টানিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন জানান, নৌকা প্রতীকের প্রার্থী রফিকুল ইসলাম মোড়ল পেয়েছেন ১১ হাজার ৮ ৮৮ ভোট। তাঁর নিকটতম বিএনপির ধানের শীষের প্রার্থী আলহাজ আব্দুস সামাদ বিশ্বাস পেয়েছেন ২ হাজার ৩২৩ ভোট।


গুলি ছুড়ে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করেছে সৌদি

জানা গেল আসল রহস্য, ১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

আবাহনীকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিল বসুন্ধরা কিংস

৬৬ নারীকে ধর্ষণ


সাধারণ ওয়ার্ডে যারা নির্বাচিত হয়েছেন তারা হলেন- ১ ওয়ার্ডে আতিয়ার রহমান (আওয়ামী লীগ), ২নং মশিয়ার রহমান (বিএনপি), ৩নং জি এম কবির হোসেন (আওয়ামী লীগ), ৪নং আবজাল হোসেন বাবু (বিএনপি), ৫নং বি এম শহিদুজ্জামান শহিদ (আওয়ামী লীগ), ৬নং মনোয়ার হোসেন মিন্টু (আওয়ামী লীগ), ৭নং কামাল খান (আওয়ামী লীগ), ৮নং আব্দুল হালিম (বিএনপি) এবং ৯নং ওয়ার্ডে এবাদত সিদ্দিকী বিপুল (আওয়ামী লীগ)। সংরক্ষিত মহিলা আসনে খাদিজা খাতুন (আওয়ামী লীগ), আছিয়া খাতুন (বিএনপি) ও আসমা খাতুন (আওয়ামী লীগ) জয়ী হয়েছেন।

রোববার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত পৌর সভার ১০টি কেন্দ্রে ইভিএমে ভোট গ্রহণ করা হয়। সারা দিনই ভোটারদের ব্যাপক উপস্থিতি দেখা গেছে। দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। প্রতিটি কেন্দ্রেই ভোটের আমেজ ছিল উৎসবমূখর। নিরাপত্তা বাহিনীর টহল ছিল চোখে পড়ার মতো। কোথাও কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বগুড়ায় বিএনপি প্রার্থী বিজয়ী

আব্দুস সালাম বাবু, বগুড়া

বগুড়ায় বিএনপি প্রার্থী বিজয়ী

আইনশৃঙ্খলা বাহীনির কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থায় বগুড়া পৌরসভা নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে ও উৎসবমূখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ইভিএম এ ভোট গ্রহণ শেষে রাতে ফলাফল ঘোষণা করেন জেলা রিটার্নিং অফিসার।

এতে বিএনপি প্রার্থী রেজাউল করিম বাদশা ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে বেসরকারীভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন।

তার প্রাপ্ত ভোট ৮২ হাজার ২১৭ টি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী জগ প্রতিকে আব্দুল মান্নান আকন্দ। তিনি পেয়েছেন ৫৬ হাজার ৯০টি ভোট।


গুলি ছুড়ে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করেছে সৌদি

জানা গেল আসল রহস্য, ১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

আবাহনীকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিল বসুন্ধরা কিংস

৬৬ নারীকে ধর্ষণ


আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী নৌকা প্রতীকে বগুড়া পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু ওবায়দুল হাসান ববি তৃতীয় স্থানে রয়েছেন। তার প্রাপ্ত ভোট ২০ হাজার ৮৯।

এছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ বগুড়ার সহ সভাপতি মাও. আব্দুল মতিন হাতপাখা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৬ হাজার ১৯১ ভোট। নির্বাচনে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন ১ লাখ ৬৫ হাজার ১১২ জন, যা ৫৯.৮৫ শতাংশ।

রোববার রাত পৌনে নয়টার দিকে বগুড়া শহরের শহীদ টিটু মিলনায়তনে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহবুব আলম শাহ্ এই বেসরকারি ফলাফল প্রকাশ করেন।

এদিকে বগুড়া পৌরসভা নির্বাচনে সাধারণ কাউন্সিলর পদে জয় পেয়েছেন ১নং ওয়ার্ডে শাহ মো. মেহেদী হাসান হিমু, ২নং ওয়ার্ডে তৌহিদুল ইসলাম বিটু, ৩নং ওয়ার্ডে কবিরাজ রুণ কুমার চক্রবর্তী, ৪নং ওয়ার্ডে আব্দুল মতিন সরকার, ৫ নং ওয়ার্ডে রেজাউল করিম ডাবলু, ৬ নং ওয়ার্ডে পরিমল চন্দ্র দাস, ৭নং ওয়ার্ডে দেলোয়ার হোসেন পশারী হিরু, ৮নং ওয়ার্ডে এরশাদুল বারী এরশাদ, ৯নং ওয়ার্ডে আলহাজ শেখ, ১০ নং ওয়ার্ডে আরিফুল ইসলাম আরিফ, ১১ নং ওয়ার্ডে সিপার আল বখতিয়ার, ১২ নং ওয়ার্ডে এনামুল হক সুমন, ১৩ নং ওয়ার্ডে আল মামুন, ১৪ নং ওয়ার্ডে এম আর ইসলাম রফিক, ১৫ নং ওয়ার্ডে আমিনুল ইসলাম, ১৬ নং ওয়ার্ডে আমিন আল মেহেদী,১৭ নং ওয়ার্ডে ইকবাল হোসেন রাজু, ১৮ নং ওয়ার্ডে রাজু হোসেন পাইকাড়, ১৯ নং ওয়ার্ডে লুৎফর রহমান মিন্টু, ২০ নং ওয়ার্ডে রুস্তম আলী, ২১ নং ওয়ার্ডে রুহুল কুদ্দুস ডিলু। এর আগে রোববার সকাল ৮টায় ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে বিকাল ৪টায় শেষ হয়। ১৬ প্লাটুন বিজিবি সহ র‌্যাব, পুলিশ, স্ট্রাইকিং ফোর্স ও ম্যাজিস্ট্রেটগণ সার্বক্ষনিক টহল দিয়েছেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের কড়া নিরাপত্তার কারণে বগুড়া পৌর নির্বাচনে কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

বগুড়া জেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা যায়, ৭০ বর্গ কিলোমিটারের বগুড়া পৌরসভা ২১টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত। জনসংখ্যা রয়েছে প্রায় ৮ লাখের বেশি। নতুন ভোটার নিয়ে চলতি বছরে এসে ভোটার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৭৫ হাজার ৮৭০ জন। এর মধ্যে বগুড়া পৌরসভায় ১ লাখ ৩৪ হাজার ৯০৬ জন পুরুষ ও ১ লাখ ৪০ হাজার ৯৬৪ জন মহিলা ভোটার রয়েছেন। ভোট গ্রহণের ক্ষেত্রে পৌরসভার ১১৩টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৫৬টি কেন্দ্রকে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করে। ঝুঁকিপূর্ন কেন্দ্রে বসানো হয় সিসি ক্যামেরা।

বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) ফয়সাল মাহমুদ জানান, শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ হয়েছে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে আ.লীগ প্রার্থী মেয়র নির্বাচিত

মো. রফিকুল আলম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে আ.লীগ প্রার্থী মেয়র নির্বাচিত

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল পৗরসভা নির্বাচনে ৪ হাজার ৫১২ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আব্দুর রশিদ খাঁন ঝালু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী রেজাউল ইসলাম বাবু পেয়েছেন ২ হাজার ৮৯২ ভোট।

বিএনপির বিদ্রোহী আমানুল্লাহ মাসুদ ২ হাজার ৭৯১ ভোট পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন।  ধানের শীষের প্রার্থী মাসউদা হক শুচি ২ হাজার ৩১ ভোট পেয়ে চতুর্থ হয়েছেন।


গুলি ছুড়ে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করেছে সৌদি

জানা গেল আসল রহস্য, ১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

আবাহনীকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিল বসুন্ধরা কিংস

৬৬ নারীকে ধর্ষণ


ভোটগ্রহণ শেষে রিটার্নিং ও জেলা নির্বাচন অফিসার মো. মোতওয়াক্কিল রহমান ফলাফল ঘোষণা করেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মাদারীপুর পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগের খালিদ বিজয়ী

বেলাল রিজভী, মাদারীপুর

মাদারীপুর পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগের খালিদ বিজয়ী

মাদারীপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী খালিদ হোসেন ইয়াদ বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ২২ হাজার ৫৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনিত প্রার্থী জাহান্দার আলী জাহান পেয়েছেন ৫ হাজার ২৫৬ ভোট।

সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১,২,৩ নং ওয়ার্ডে সাইয়েদা সালমা এবং ৪,৫,৬, নং ওয়ার্ডে বিনু বেগম এবং ৭,৮,৯ নং লিজা আক্তার বিজয়ী হয়েছেন।


গুলি ছুড়ে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করেছে সৌদি

জানা গেল আসল রহস্য, ১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

আবাহনীকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিল বসুন্ধরা কিংস

৬৬ নারীকে ধর্ষণ


এছাড়াও কাউন্সিলর পদে ১ নং ওয়ার্ডে এনায়েত হোসেন মৃধা, ২ নং ওয়ার্ডে সাইদুল বাসার টফি, ৩ নং ওয়ার্ডে রাজিব মাহমুদ কাওছার ৪ নং ওয়ার্ডে সিরাজুল আলম খান, ৫ নং ওয়ার্ডে রেজাউল হক, ৬ নং ওয়ার্ডে সিদ্দিক তালুকদার, ৭ নং ওয়ার্ডে হাই বেপারী,৮ নং ওয়ার্ডে বাসার বেপারী এবং ৯ নং ওয়ার্ডে আয়ুব খান বেসরকারী ভাবে বিজয়ী হয়েছেন।

মাদারীপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান এই ফল ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে।

উল্লেখ্য, মাদারীপুর পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের ২১টি ভোট কেন্দ্রে মোট ভোটার ৫১ হাজার ৭৭৮ জন ভোটার রয়েছে। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ২৪ হাজার ৭২৩ জন ও নারী ভোটারের সংখ্যা ২৬ হাজার ৭৫৫ জন।

নির্বাচন অফিস জানান, মাদারীপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৪ জন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ৯ জন এবং কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

কালীগঞ্জের নতুন মেয়র এসএম রবীন

শেখ সফিউদ্দিন জিন্নাহ্, গাজীপুর

কালীগঞ্জের নতুন মেয়র এসএম রবীন

গাজীপুরের কালীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী এস.এম রবীন হোসেন নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রথমবারের মতো জয়লাভ করেছেন।

বেসরকারি ফলাফলে নৌকা প্রতীক নিয়ে রবিন হোসেন পেয়েছেন ১৩ হাজার ৭৮৪ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সতন্ত্র নারিকেল গাছ প্রতীকের প্রার্থী মো. লুৎফুর রহমান পেয়েছেন ১০ হাজার ২২৫টি ভোট।

এছাড়া বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী ফরিদ আহমেদ পেয়েছেন ১ হাজার ২৯৭ ভোট এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মো. চাঁন মিয়া পেয়েছেন ৫২৪ ভোট।

৩ হাজার ৫৫৯ ভোটের ব্যবধানে রবীন হোসেন মেয়র নির্বাচিত হন।


গুলি ছুড়ে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করেছে সৌদি

জানা গেল আসল রহস্য, ১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

আবাহনীকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিল বসুন্ধরা কিংস

৬৬ নারীকে ধর্ষণ


রোববার (২৮ ফেরুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলা শহীদ ময়েজ উদ্দিন অডিটোরিয়ামে ফলাফল সংগ্রহ ও পরিবেশন কেন্দ্র থেকে কালীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কাজী মো. ইস্তাফিজুল হক আকন্দ এ ফলাফল ঘোষণা করেন।

এ সময় সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফারিজা নূর, কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম মিজানুল ঘশ উপস্থিত ছিলেন। 

এদিকে, ৯টি সাধারণ ওয়ার্ডে বেসরকারিভাবে বিজয়ী কাউন্সিলররা হলেন- ১ নম্বর ওয়ার্ডে মোফাজ্জল হোসেন আকন্দ (উটপাখি), ২ নম্বর ওয়ার্ডে মু. আফসার হোসেন (উটপাখি), ৩ নম্বর ওয়ার্ডে মো. আশরাফউজ্জামান (পাঞ্জাবী), ৪ নম্বর ওয়ার্ডে মোহাম্মদ বাদল মিয়া (পানির বোতল), ৫ নম্বর ওয়ার্ডে আশরাফুল আলম (পানির বোতল), ৬ নম্বর ওয়ার্ডে আবদুস সালাম (উটপাখি), ৭ নম্বর ওয়ার্ডে মো. নূরে আলম শেখ (উটপাখি), ৮ নম্বর ওয়ার্ডে মো. আমির হোসেন (উটপাখি) ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডে মোহাম্মদ শাখাওয়াত হোসেন (উটপাখি)।

এ ছাড়া সংরক্ষিত নারী কাউন্সিল হিসেবে বিজয়ী হয়েছেন- ১, ২, ৩ ওয়ার্ডে আমিরুন নেছা (জবা ফুল); ৪, ৫, ৬ ওয়ার্ডে নার্গিস বেগম (আনারস); ৭, ৮, ৯ নম্বর ওয়ার্ডে কাস্তা (আনারস)।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ও সতস্ত্রসহ ৪ জন মেয়র প্রার্থী এবং ৩৩ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ১০ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করেছেন।

পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের ১৭টি কেন্দ্র ও ১২০টি কক্ষে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটাররা ভোটাধীকার প্রয়োগ করেন।

মোট ভোটার সংখ্যা ৩৬ হাজার ৬৪০ জন। এর মধ্যে ১৮ হাজার ৩২১ জন পুরুষ ও ১৮ হাজার ৩১৯ জন মহিলা ভোটার। মোট ভোট প্রয়োগ হয় ২৫ হাজার ৮৯০টি। এরমধ্যে ৬০টি ভোট নষ্ট হয়।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর