প্যান্টের জিপ খুলে রাখা, অঙ্গ প্রদর্শন যৌন নির্যাতন নয়, কারণ ত্বকের স্পর্শ হয়নি

অনলাইন ডেস্ক

প্যান্টের জিপ খুলে রাখা, অঙ্গ প্রদর্শন যৌন নির্যাতন নয়, কারণ ত্বকের স্পর্শ হয়নি

প্যান্টের জিপ খুলে রাখা অথবা যৌনাঙ্গ দেখানো যৌন নির্যাতনের আওতায় পড়ে না। বম্বে হাইকোর্টের পকসো আইনের অধীনে দেওয়া এ রায় নিয়ে বিতর্ক অব্যাহত আছে।

এর আগে জোর করে হাত ধরে রাখলেও সেটি যৌন নিগ্রহের আওতায় পড়ে না বলে রায় দিয়েছেন নাগপুর বেঞ্চার বিচারপতি পুষ্পা গানেদিওয়ালা।

বম্বে হাইকোর্টের এই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে শীর্ষ আদালতে আবেদন জানান কেন্দ্রীয় সরকার। ওই রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে বুধবার (২৮ জানুয়ারি) সুপ্রিম কোর্টে জানতে চান অ্যাটর্নি জেনারেল। শুনানির পর রায়ের ওপর স্থগিতাদেশ দেন সর্বোচ্চ আদালত।

আরও পড়ুন: বিএনপির সাংসদ রুমিন ফারহানার নামে প্রচার করা ছবি ডা. শামীমার

দুজন পেছন থেকে ধরে রাখে একজন ধারাল অস্ত্র দিয়ে বুকে আঘাত করে

উন্নত মগজ মানুষের তাই সবচেয়ে হিংস্র-দয়ালু-আবেগী

ট্রাম্পকে অপ্রাপ্ত বয়স্ক রুশ মেয়ে পাঠানো হতো, ‘ভিডিও ধারণ’!

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জিনিউজের খবরে বলা হয়েছে, বুধবার কেন্দ্রীয় সরকারের আবেদনের শুনানি চলাকালীন কেন্দ্রীয় অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল বলেন, বম্বে হাইকোর্টের রায় অত্যন্ত বিরক্তিকর। এই রায় একটি বিপজ্জনক নজির সৃষ্টি করবে।

এর আগে ৫০ বছরের ব্যক্তি এক পাঁচ বছরের শিশু কন্যাকে জোর করে ধরে, তার সামনে প্যান্টের জিপ খুলে যৌনাঙ্গ প্রদর্শন করে। এতে অভিযুক্তকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা ও ৫ বছরের কারাদণ্ড দেন সেশন কোর্ট। কিন্তু বম্বে হাইকোর্টের নাগপুর বেঞ্চের বিচারপতি আইনের ব্যাখ্যা দিয়ে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৫৪ এবং ৩৪২ নম্বর ধারা মোতাবেক ১ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন অভিযুক্তকে। বিচারপতি পুষ্পা গানেদিওয়ালা আইনের ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন, প্যান্টের জিপ খুলে রাখা অথবা যৌনাঙ্গ প্রদর্শন করা যৌন নির্যাতনের আওতায় পড়ে না। কারণ ত্বকের সঙ্গে সংস্পর্শ হয়নি। তাই এটিকে যৌন হয়রানির আওতায় ফেলা যায় না।

শিশুকন্যার মায়ের অভিযোগ, ৫০ বছরের ওই ব্যক্তি তার ৫ বছরের মেয়ের হাত ধরে টানাটানি করে তাকে বিছানায় নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এর মাঝে প্যান্টের জিপ খুলে যৌনাঙ্গ প্রদর্শন করেন। তার অভিযোগের ভিত্তিতে প্রথমে সেশন কোর্টে পকসো আইনের আওতায় ওই অভিযুক্ত ব্যক্তিকে শাস্তি দেওয়া হলেও তা বাতিল হয়ে যাবে বম্বে হাইকোর্টের নাগপুর বেঞ্চে। তিনি আইনের ব্যাখ্যা দিয়ে যুক্তি দেন, এই ঘটনায় ত্বকে স্পর্শ ও পেনিট্রেশন (অঙ্গপ্রবেশের মতো ঘটনা) ঘটেনি।  

এদিকে ১২ বছরের একটি কিশোরীর যৌন হেনস্থা নিয়ে শুনানির রায় দিতে গিয়ে নাগপুর বেঞ্চের বিচারপতি পুষ্পা গানেদিওয়ালা বলেন, 'কোনও নাবালিকার যৌন নিগ্রহ প্রমাণ করতে গেলে শারীরিক সংস্পর্শ হয়েছে তার প্রমাণ দিতে হবে। অন্যদিকে, জামাকাপড় না খুলে, যদি স্তনে হাত দেওয়া হয় তাহলেও সেটি যৌন নিগ্রহের আওতায় পড়বে না। পকসোর-র ৭ নম্বর ধারা অনুযায়ী এই রায় দেওয়া হয়েছে। 

এই ঘটনায় মেয়েটিকে বাড়িতে ডেকে তার সঙ্গে অসভ্য আচরণ করেন ওই ব্যক্তি। তার স্তনে হাত দিয়ে পোশাক খোলার চেষ্টা করেন। কিন্তু সেই মুহূর্তে তার মা এসে যাওয়ায় মেয়েটিকে ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে অভিযুক্ত। তার নামে স্থানীয় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাংলাদেশের গরীব মানুষ এখনো খেতে পাচ্ছে না: অমিত শাহ

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশের গরীব মানুষ এখনো খেতে পাচ্ছে না: অমিত শাহ

বাংলাদেশের গরীব মানুষ এখনও খেতে পাচ্ছে না বলে মন্তব্য করেছেন বিজেপির সাবেক সভাপতি ও ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারকে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ক্ষমতায় এসে পশ্চিমবঙ্গে অনুপ্রবেশ বন্ধ করবে বিজেপি।

বাংলাদেশের আর্থিক উন্নয়ন হওয়ার পরেও লোকে কেন পশ্চিমবঙ্গে প্রবেশ করছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এর দুটো কারণ আছে। এক, বাংলাদেশের উন্নয়ন সীমান্ত এলাকায় নিচুতলায় পৌঁছায়নি। যে কোনও পিছিয়ে পড়া দেশে উন্নয়ন হতে শুরু করলে সেটা প্রথম কেন্দ্রে হয়। আর তার সুফল প্রথমে বড়লোকদের কাছে পৌঁছায়। গরিবদের কাছে নয়। এখন বাংলাদেশে সেই প্রক্রিয়া চলছে। ফলে গরিব মানুষ এখনও খেতে পাচ্ছে না। সে কারণেই অনুপ্রবেশ চলছে। আর যারা অনুপ্রবেশকারী, তারা যে শুধু বাংলাতেই থাকছে, তা নয়। তারা তো ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে ছড়িয়ে পড়ছে। জম্মু-কাশ্মীর পর্যন্ত পৌঁছে যাচ্ছে।


আরও পড়ুনঃ


যেভাবে পাওয়া যাবে ‘লকডাউন মুভমেন্ট পাস’

চীনে সন্তান নেয়ার প্রবণতা কমছে, কমছে জন্মহার

কুমারীত্ব পরীক্ষায় 'ফেল' করায় নববধূকে বিবাহবিচ্ছেদের নির্দেশ

বাদশাহ সালমানের নির্দেশে সৌদিতে কমছে তারাবির রাকাত সংখ্যা


অমিত শাহের মতে, দ্বিতীয় কারণটি হলো প্রশাসনিক সমস্যা। তিনি বলেন, প্রশাসনিকভাবেই এর মোকাবিলা করতে হবে। সেটা পশ্চিমবঙ্গের সরকার করেনি।

উল্লেখ্য, ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে সরকার গড়তে জোর প্রচেষ্টা চালাচ্ছে বিজেপি। তৃণমূল কংগ্রেসকে হটিয়ে পশ্চিমবঙ্গে ২০০র বেশি আসন পেয়ে সরকার গড়তে চায় তারা। ক্ষমতা এসেই তারা পশ্চিমবঙ্গে অনুপ্রবেশ বন্ধ করবে বলে ঘোষণা দিয়েছে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রেকর্ড সংখ্যক যুদ্ধবিমান নিয়ে তাইওয়ানের আকাশে চীন

অনলাইন ডেস্ক

রেকর্ড সংখ্যক যুদ্ধবিমান নিয়ে তাইওয়ানের আকাশে চীন

রেকর্ড সংখ্যক যুদ্ধবিমান নিয়ে তাইওয়ানের আকাশে মহড়া দিয়েছে চীন। সোমবার (১২ এপ্রিল) দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এমন অভিযোগ করা হয়েছে।

তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, তথাকথিত বিমান প্রতিরক্ষা শনাক্তকরণ অঞ্চলে (এডিআইজেড) সোমবার পারমাণবিক বোমারু বিমানসহ ২৫টি জঙ্গি বিমান ওড়ায় চীন।

এই মহড়া চলতি বছরের সবচেয়ে আক্রমণাত্মক ও বৃহৎ বলে জানিয়েছে তাইওয়ান। তাইওয়ান ইস্যুতে চীন ক্রমেই আগ্রাসী হয়ে উঠছে যুক্তরাষ্ট্রের এমন মন্তব্যের পরপরই এই মহড়া চালালো চীন।


আরও পড়ুনঃ


করোনা আক্রান্ত প্রতি তিনজনের একজন মস্তিষ্কের সমস্যায় ভুগছেন: গবেষণা

চীনে সন্তান নেয়ার প্রবণতা কমছে, কমছে জন্মহার

কুমারীত্ব পরীক্ষায় 'ফেল' করায় নববধূকে বিবাহবিচ্ছেদের নির্দেশ

বাদশাহ সালমানের নির্দেশে সৌদিতে কমছে তারাবির রাকাত সংখ্যা


চীন বরাবরই তাইওয়ানকে একটি বিচ্ছিন্ন প্রদেশ হিসাবে দেখে আসলেও তাইওয়ান নিজেকে সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করেছে।

মহড়ায় ছিল ১৮টি জঙ্গিবিমান, ৪টি আনবিক অস্ত্র বহনকারী বোমারু বিমান এবং দুটি সাবমেরিন বিধ্বংসী এয়ারক্রাফট ছিলো বলে জানায় তাইওয়ান।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সাগরে ১০ লাখ টন দূষিত পানি ফেলার সিদ্ধান্ত জাপানের

অনলাইন ডেস্ক

সাগরে ১০ লাখ টন দূষিত পানি ফেলার সিদ্ধান্ত জাপানের

ফুকুশিমা পারমাণবিক শক্তি কেন্দ্র থেকে ১০ লাখ টন দূষিত পানি সাগরে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাপান। আগামী দুই বছরের মধ্যে এই দূষিত পানি নির্গমন প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

বিষয়টির দায়িত্ব পালন করবে পারমাণবিক শক্তি কেন্দ্রটি পরিচালনার দায়িত্বে থাকা টোকিও ইলেক্ট্রিক পাওয়ার। এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত হলে মৎস্য সম্পদের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

এ বিষয়ে জাপান সরকারের দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, নিয়ন্ত্রক মানদণ্ডের পরিপ্রেক্ষিতে আসা পরামর্শের পরিপ্রেক্ষিতে সমুদ্রে (পানি) নির্গমনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

৫০০টি প্রমাণ আকৃতির সুইমিং পুলের সমপরিমাণ এই পানিকে বিশুদ্ধিকরণ করা হয়েছে। তবে এর মধ্য থেকে ক্ষতিকর আইসোটোপ সরানোর জন্য পুনরায় ফিল্টার করার প্রয়োজন।


আরও পড়ুনঃ


করোনা আক্রান্ত প্রতি তিনজনের একজন মস্তিষ্কের সমস্যায় ভুগছেন: গবেষণা

চীনে সন্তান নেয়ার প্রবণতা কমছে, কমছে জন্মহার

কুমারীত্ব পরীক্ষায় 'ফেল' করায় নববধূকে বিবাহবিচ্ছেদের নির্দেশ

বাদশাহ সালমানের নির্দেশে সৌদিতে কমছে তারাবির রাকাত সংখ্যা


এছাড়া আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অনুযায়ী এই বিপুল পরিমাণ পানিকে বিশেষ প্রক্রিয়াকরণের মধ্য দিয়ে যেতে হবে।

বিষয়টির তাৎক্ষণিক ও তীব্র নিন্দা জানিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

‘দ্রুত মার্কিন সেনা বহিষ্কার ইরাকে স্থিতিশীলতা ফিরবে’

অনলাইন ডেস্ক

‘দ্রুত মার্কিন সেনা বহিষ্কার ইরাকে স্থিতিশীলতা ফিরবে’

ইরাক থেকে দ্রুত মার্কিন সেনা বহিষ্কার করা হলে তাতে দেশটিতে স্থিতিশীলতা ফিরে আসবে বলে জানিয়েছেন ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের সচিব আলী শামখানি।

এসময় তিনি বলেন, মার্কিন সেনা বহিষ্কারের ব্যাপারে ইরাকের জাতীয় সংসদে যে বিল পাস হয়েছে তা দ্রুত বাস্তবায়ন করলে দেশটিতে রাজনৈতিক প্রক্রিয়া সহজ ও দ্রুততর হবে।

গতকাল ইরান সফররত ইরাকের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের উপদেষ্টা কাসিম আল-আরাজির সঙ্গে তেহরানে বৈঠকের সময় এসব কথা বলেন আলী শামখানি।

আরও পড়ুন


হবিগঞ্জ হার্ট ফাউন্ডেশনের আজীবন সদস্য হলেন কানাডা প্রবাসী মাহমুদ

মামুনুলকে নিয়ে ফেসবুকে পোস্ট, আ. লীগের ২ পক্ষের সংঘর্ষ

বৈশাখে মঙ্গল শোভাযাত্রা ও গণজমায়েত না করার নির্দেশ

তারাবির নামাজ নিয়ে নতুন নির্দেশনা


তিনি আরও বলেন, ইরাকে নিরাপত্তাহীনতা ও অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির মূল কারণ মার্কিন সেনাদের উপস্থিতি। তারাই মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলে সঙ্ঘবদ্ধ সন্ত্রাসবাদ চালায়। ইরানের ইসলামী বিপ্লব গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি'র কুদস ফোর্সের সাবেক কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল কাসেম সোলাইমানি এবং ইরাকের জনপ্রিয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হাশদ আশ-শাবির সেকেন্ড-ইন-কমান্ড আবু মাহাদি আল-মুহান্দিসকে হত্যার মাধ্যমে মার্কিন সেনারা পরিষ্কার করে দিয়েছে যে, আমেরিকাই উগ্র তাকফিরি সন্ত্রাসবাদকে উসকে দিচ্ছে।

সন্ত্রাসবাদ-বিরোধী এই দুই কমান্ডারকে হত্যার পর ইরাকে মার্কিন বিরোধী মনোভাব তুঙ্গে উঠেছে। সূত্র: পার্সটুডে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

জিবুতিতে নৌকাডুবি, নিহত ৩৪

অনলাইন ডেস্ক

জিবুতিতে নৌকাডুবি, নিহত ৩৪

আফ্রিকার দেশ জিবুতিতে নৌকা ডুবে ৩৪ অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে। দেশটির এডেন সাগরে উপকূল সংলগ্ন এলাকায় সোমবার (১২ এপ্রিল) এই ঘটনা ঘটে।

অভিবাসন বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংস্থা (আইওএম) বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

এক টুইট বার্তায় আইওএম জানিয়েছে, চোরাকারবারিদের নিয়ন্ত্রণাধীন নৌকাটিতে ৬০ জন যাত্রী ছিল। তাদের নিয়ে এডেন উপসাগরের জিবুতি সংলগ্ন উপকূলে ডুবে যায়। তাতে ৩৪ জন নিহত হয়। তবে সংস্থাটি বিস্তারিত তথ্য জানায়নি।


আরও পড়ুনঃ


বাংলাদেশের জিহাদি সমাজে 'তসলিমা নাসরিন' একটি গালির নাম

করোনা আক্রান্ত প্রতি তিনজনের একজন মস্তিষ্কের সমস্যায় ভুগছেন: গবেষণা

কুমারীত্ব পরীক্ষায় 'ফেল' করায় নববধূকে বিবাহবিচ্ছেদের নির্দেশ

বাদশাহ সালমানের নির্দেশে সৌদিতে কমছে তারাবির রাকাত সংখ্যা


বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, করোনাভাইরাস সংক্রান্ত বিধিনিষেধ ও কড়াকড়ির কারণে তারা সৌদি আরবে প্রবেশে ব্যর্থ হয়ে তারা ইয়েমেনে আটকে পড়ে। সেখান থেকে ফেরার পথেই নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর