নষ্ট দুধের এত গুণ

অনলাইন ডেস্ক

নষ্ট দুধের এত গুণ

প্রায়ই দুধ নষ্ট হয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটে আমাদের সাথে। এসময় আমরা দুধ ফেলে দেই। তবে নষ্ট দুধেরও রয়েছে বিবিধ ব্যবহার। আসুন জেনে নেওয়া যাক কী কী কাজে ব্যবহার করা যেতে পারে নষ্ট ষ

 ১. দুধ যদি ফেটে যায়, তা অনায়াসে সালাড ড্রেসিং-এর কাজে ব্যবহার করতে পারবেন। তবে খেয়াল রাখবেন দুধটা যেন পাস্তুরাইজড মিল্ক না হয়।

২. ঘরের দুধ ফেটে গেলে তা ফেলে না দিয়ে চিজ বানিয়ে ফেলুন। কীভাবে ঘরে চিজ বানাবেন, তার রেসিপি ইন্টারনেটে সহজেই পেয়ে যাবেন।

৩. প্যানকেক, কেক এবং ওয়াফেল-এর মতো অনেক ডেজার্টেই ফেটে যাওয়া দুধ দিতে হয়। তাই দুধ ফেটে গেলে ডেজার্ট তৈরি করতে পারেন।

৪. নষ্ট দুধ আপনার ত্বকের জন্য কিন্তু দারুণ উপকারী। কেটে যাওয়া দুধ মুখে ফেস মাস্কের মতো লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন, ত্বক ঝলমল করে উঠবে।

আরও পড়ুন: বিএনপির সাংসদ রুমিন ফারহানার নামে প্রচার করা ছবি ডা. শামীমার

দুজন পেছন থেকে ধরে রাখে একজন ধারাল অস্ত্র দিয়ে বুকে আঘাত করে

উন্নত মগজ মানুষের তাই সবচেয়ে হিংস্র-দয়ালু-আবেগী

ট্রাম্পকে অপ্রাপ্ত বয়স্ক রুশ মেয়ে পাঠানো হতো, ‘ভিডিও ধারণ’!

৫. বাগানে গাছের গোড়ায় নষ্ট দুধ দিলে আপনাকে সার দিতে হবে না। দেখবেন আপনার নষ্ট হয়ে যাওয়া দুধেই কীভাবে চারাগাছগুলো তরতরিয়ে বাড়তে থাকে।

৬. দুধ যদি কেটে যায়, তা অনায়াসে সালাদ ড্রেসিং-এর কাজে ব্যবহার করতে পারবেন। তবে খেয়াল রাখবেন দুধটা যেন পাস্তুরাইজড মিল্ক না হয়।

৭.মুখের উজ্জ্বলতা বাড়াতে ব্যবহার করতে পারেন নষ্ট দুধ। কাঁচা দুধের মতোই নষ্ট দুধও আপনার ত্বকের জন্য দারুণ উপকারী। কেটে যাওয়া দুধ মুখে ফেসমাস্কের মতো লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন, দেখবেন ত্বক একেবারে ঝলমল করে উঠবে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ডিমের পুডিং

অনলাইন ডেস্ক

ডিমের পুডিং

পুডিং একটি অসাধারণ মজার খাবার। ডেজার্ট হিসেবে এর তুলনা অতুলনীয়। পুডিং খুবই মুখরোচক খাবার। পুডিং রান্নার সহজ একটি রেসিপি আজকে দেওয়া হল। মাত্র একটি ডিম দিয়ে পুডিং তৈরির ফলে গন্ধই থাকবে না। আর যেমন মজাদার তেমনই নরম তুলতুলে হবে।

উপকরণ: তরল দুধ দেড় লিটার। ডিম ১টি (বড় অথবা মাঝারি)। চিনি পরিমাণ মতো। ক্যারামেল এর জন্য দানাদার চিনি ১ চা-চামচ। পানি ১ চা-চামচ। ঘি আধা চা-চামচ।

চিনি, ঘি ও পানি একটি টিফিন বক্সে মিশিয়ে নিন। তারপর চুলার উপর ফ্রাইপ্যান অথবা তাওয়া দিয়ে টিফিন বক্সটি তার উপর বসিয়ে চুলায় জ্বাল দিন। বেশি আঁচে হালকা বাদামি রং হলেই নামিয়ে নিন ।

পদ্ধতি: প্রথমে দুধ জ্বাল দিয়ে ঘন করে নিন। জ্বাল দেওয়ার সময় নাড়তে থাকুন তানাহলে নিচে পুড়ে লেগে যাবে। আবার অল্প আঁচে অনেক সময় নিয়ে দুধ কমালে দুধের রং লালাচে হয়ে যাবে। তাই মাঝারি আঁচে দুধ জ্বাল দিয়ে কমিয়ে নিতে হবে। দুধ ঘন করে আধা কেজির বেশি রাখবেন।


নারীর সঙ্গে সময় কাটানো সেই তুষার এখনো কাশিমপুর কারাগারেই

জিয়ার খেতাব বাতিলের বিষয়ে যা বললেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

পরমাণু সমঝোতায় আমেরিকার অবস্থান জানতে জরুরী বৈঠকে বসার আহ্বান

মিয়ানমারে গণতন্ত্র ফেরাতে নিরাপত্তা পরিষদকে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান


সফট পুডিং তৈরি করতে চাইলে জ্বাল দিয়ে ৬০০ থেকে ৭০০ মিলি লিটার দুধ রাখতে হবে।

দুধ ও ডিমের মিশ্রণ যেন স্টিলের টিফিন বক্সের সামান্য কম হয়। তবে আরেকটু শক্ত পুডিং তৈরি করতে চাইলে দুধ আধা কেজি কমিয়ে নেবেন। দুধ চুলা থেকে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে নিন।

একটি বড় পাত্রে ডিম ভেঙে চামচ দিয়ে ভালো করে ফেটে দুধে ঢেলে ভালো করে মেশান। পুডিং তৈরির জন্য একটি স্টিলের ঢাকনাসহ টিফিন বক্স নিন। অথবা যে পাত্রে পুডিং তৈরি করবেন সে পাত্রে আগে থেকেই ক্যারামেল তৈরি করে রাখুন।

ক্যারামেল বেশি জ্বাল দেবেন না। তাহলে চিনি পুড়ে কালো ও তিতা হয়ে যাবে। অল্প বাদামি রং হলেই নামিয়ে নেবেন। কারণ শেষের দিকে চিনি দ্রুত পুড়ে যায়।

এবার দুধ ও ডিমের মিশ্রণ ভালো করে নেড়ে বক্সে ঢেলে দিন। প্রেশার কুকারে বক্স বসিয়ে বক্সের অর্ধেক পর্যন্ত পানি দিয়ে ঢাকনা লাগিয়ে দিন। মাঝারি আঁচে পাঁচ, ছয়টি শিশ দিলেই নামিয়ে নিন। নরম থাকতে পারে চিন্তার কিছু নেই ঠাণ্ডা হলে ফ্রিজে রাখলে ঠিক হয়ে যাবে। আর যদি বেশি নরম থাকে তবে আরও দুতিন শিশ দিয়ে নামিয়ে নিন।

অতিরিক্ত শিশ দিলে পুডিং শক্ত হয়ে আসল স্বাদ চলে যাবে। ঠাণ্ডা করে পুডিং ফ্রিজে এক,দুই ঘণ্টা রাখুন। ফ্রিজ থেকে বের করে ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা পরিবেশন করুন।

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মজাদার পপকর্ন

অনলাইন ডেস্ক

মজাদার পপকর্ন

খুব সহজেই ঘরে বসে তৈরি করতে পারেন পপকর্ন। এজন্য আপনার দরকার হবে পাকা ভুট্টার দানা। দেশ-বিদেশের যেখানেই থাকেন আপনি খুব সহজেই ভুট্টার দানা কিনতে পারবেন।

উপকরণ:
ভুট্টার দানা, তেল বা ঘি, পরিমানমতো লবণ।

প্রণালী:
মিডিয়াম হাই হিটের চুলায় একটি প্যান বা কড়াই নিন। এরমধ্যে পরিমাণমতো তেল ঢেলে দিন। তেলটা এমনভাবে দিতে হবে যাতে প্যানের তলাটা ভিজে যায়। এরপর তেলের মধ্যে লবণ দিয়ে দিতে হবে। এতে করে পাপকর্নগুলো যখন ফুটবে তখন লবণ এর মধ্যে ঢুকে যাবে। লবণ তেলের সঙ্গে মিশিয়ে নিন। এবার এরমধ্যে ভুট্টাগুলো ঢেলে দিয়ে নেড়েচেড়ে মিশিয়ে নিন। তেলগুলো যেনো ভুট্টার দানাগুলোর গায়ে মেখে যায়।


আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকাণ্ড, ধরা ২০ নারী

চুমু দিয়ে নারীদের সব রোগ সারিয়ে দেন ‘চুমুবাবা’

বুবলিকে ধাক্কা দেওয়া গাড়িটি ছিল ব্ল্যাক পেপারে মোড়ানো, ছিল না নম্বর প্লেট

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ


এরপর ঢাকনা দিয়ে প্যানটি ঢেকে দিন। তবে একটু ফাকা রাখবেন, যাতে বাষ্পটা বের হয়ে যেতে পারে। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুণ। দেখবেন- ঢাকনার নিচে পপকর্নগুলো পট পট শব্দে ফুটছে। ঢাকনা যদি কাচের হয় তাহলে সেটা আপনি দেখতেই পারবেন। 

প্যানটি ধরে মাঝে মাঝে একটু নেড়ে দিলে দানাগুলো নিচে চলে যাবে এবং সবগুলো দানা ভালোভাবে ফুটবে। যখন ফুটার আওয়াজ কমে আসবে তখন চুলাটা বন্ধ করে দিন। পপকর্ন তৈরিতে খুব বেশি সময় লাগে না। প্যানটি চুলায় বসানোর পর চার পাঁচ মিনিটের মধ্যেই পপকর্ন প্রস্তুত হয়ে যায়।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আলুর দম রান্না

অনলাইন ডেস্ক

আলুর দম রান্না

গরম ভাত কিংবা রুটি-লুচির সাথে আলুর দম অতুলনীয়। এই তরকারিটি অনেকে চেনেন আবার অনেক চেনেন না। দেখে নিন কীভাবে রাঁধবেন মজার এই খাবারটি।

আলুর দম তৈরিতে যা লাগবে

১. আধা কেজি আলু।

২. এক টেবিল চামচ সরিষা তেল।

৩. এক চা চামচ পাঁচ ফোড়ন।

৪. একটি দারুচিনি স্টিক।

৫. একটি তেজপাতা।

৬. আধা চা চামচ চিনি।

৭. একটি বড় পেঁয়াজ কুঁচি।

৮. এক চা চামচ লবণ।

৯. এক চা চামচ আদা বাটা।

১০. আধা চা চামচ হলুদ গুঁড়া।

১১. এক চা চামচ ধনিয়া গুঁড়া।

১২. আধা চা চামচ জিরা গুঁড়া।

১৩. আধা চা চামচ মরিচ গুঁড়া।

১৪. আধা চা চামচ গরম মসলা গুঁড়া।

১৫. দুই টেবিল চামচ টমেটো বাটা।

১৬. পরিবেশনের জন্য এক মুঠো ধনিয়া পাতা।


আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকাণ্ড, ধরা ২০ নারী

চুমু দিয়ে নারীদের সব রোগ সারিয়ে দেন ‘চুমুবাবা’

বুবলিকে ধাক্কা দেওয়া গাড়িটি ছিল ব্ল্যাক পেপারে মোড়ানো, ছিল না নম্বর প্লেট

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

মেয়েকে তুলে নিয়ে মাকে রাত কাটানোর প্রস্তাব অপহরণকারীর

নাসির বিয়ে করেছেন আপনার খারাপ লাগে কেন?


আলুর দম যেভাবে তৈরি করতে হবে
১. আলু সিদ্ধ করে ছিলে রেখে দিতে হবে। বড় কড়াইতে তেল গরম করে পাঁচ ফোড়ন, দারুচিনি, তেজপাতা ও চিনি দিয়ে নেড়ে এতে পেঁয়াজ কুঁচি, আদা বাটা ও লবণ দিয়ে কষাতে হবে এবং এতে টমেটো বাটা দিতে হবে।

২. একটি বাটিতে হলুদ গুঁড়া, ধনিয়া গুঁড়া, জিরা গুঁড়া, মরিচ গুঁড়া দুই টেবিল চামচ পানিতে মিশিয়ে নিতে হবে। মসলার এই মিশ্রনটি কড়াইতে দিয়ে নাড়তে হবে।

৩. মসলা মাখামাখা হয়ে আসলে সিদ্ধ আলুগুলো এতে দিতে পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি দিতে হবে, যেন আলুগুলো ডুবে থাকে। চুলার আঁচ কিছুটা কমিয়ে দিয়ে উপরে গরম মসলা ছিটিয়ে দিতে হবে এবং এভাবে ৫ মিনিট রাঁধতে হবে।

৪. আলুর সাথে মসলা মাখামাখা হয়ে আসলে নামিয়ে উপরে ধনিয়া পাতা কুঁচি ছড়িয়ে পরিবেশন করতে হবে আলুর দম।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

গাজরের হালুয়া

অনলাইন ডেস্ক

গাজরের হালুয়া

গাজরের হালুয়া কখনো কখনো গাজরিলা নামেও পরিচিত এক প্রকারের মিষ্টি জাতীয় খাদ্য যা উত্তর ভারত এবং পাকিস্থানে অধিক ব্যবহৃত হয়। এটা গাজর বেটে বা ছেঁচে ক্ষীরের ভিতর দিয়ে তৈরি করা হয়। এর রঙ হয় লাল। গাজর এর হালুয়া বেশ সুস্বাদু। অনেক সময় এই হালুয়ার রং বাদামীও হয়।

উপকরণ : গাজর-দেড় কেজি (কুচি বা গ্রেট করা), চিনি- দুই কাপ, দুধ- ২ লিটার, এলাচ- ৩/৪ টা, দারচিনি- ২/৩ টা, কাজুবাদাম- ১০-১২টা, ঘি- ৩-৪ টেবিল চামচ।


আইটেম গার্ল জেরিন খান এখন ড. জেরিন খান

রাজধানীর খিলক্ষেতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১

সিরাজগঞ্জে এইচ টি ইমামের প্রথম জানাজা সম্পন্ন

মা হচ্ছেন শ্রেয়া ঘোষাল, বেবি বাম্পের ছবি ভাইরাল


প্রণালি : প্রথমে দুধ জ্বাল দিয়ে কিছুটা ঘন করে নিতে হবে। গ্রেট করা গাজর দুধের মধ্যে দিয়ে ভালো করে নাড়তে থাকুন। মধ্যম আঁচে চুলায় নাড়তে থাকুন যতক্ষণ না গাজর নরম হয়। এবার চিনি, এলাচ, দারচিনি দিয়ে আস্তে আস্তে নাড়ুন। 

দুধ শুকিয়ে আসা পর্যন্ত মাঝে মাঝে নাড়তে থাকুন। দুধ শুকিয়ে আসলে অল্প আঁচে ঘি দিয়ে একবার নেড়ে দিন। হালুয়া পাত্রের সাইডে যখন আর লাগবেনা আর সোনালি বাদামি রং হবে তখন নামিয়ে নিয়ে কাজু বাদাম কুচি দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

news24bd.tv/ আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

টাকি মাছের ভর্তা

অনলাইন ডেস্ক

টাকি মাছের ভর্তা

টাকি মাছের ভর্তা একটি জনপ্রিয় পদ। গরম ভাতের সঙ্গে এর জুড়ি মেলা ভার। খেতে সুস্বাদু ও সহজেই তৈরি করা যায় বলে এটি রয়েছে অনেকেরই পছন্দের খাবারের তালিকায়। চলুন জেনে নেই এর রেসিপি।

উপকরণ: টাকি মাছ ৪টি বড়, পেঁয়াজকুচি ২ টেবিল চামচ, ২টি কাঁচা মরিচের কুচি, ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ, আদা মিহি কুচি ১ চা-চামচ, রসুন বাটা ১ চা-চামচ, হলুদের গুঁড়া আধা চা-চামচ, মরিচের গুঁড়া আধা চা-চামচ, লবণ স্বাদমতো, তেল ৪ টেবিল চামচ।


যে জায়গায় মিল পাওয়া গেছে বুবলী-দীঘির

সোনালির প্রেমে পড়ে স্ত্রীকে ডিভোর্স দিতে চেয়েছিলেন যেসব তারকারা

পুলিশ হেফাজতে আইনজীবীর মৃত্যু: বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ

ভাসানচরে যাচ্ছে দুই হাজারের বেশি রোহিঙ্গা


প্রণালি: টাকি মাছ কেটে ও ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখতে হবে। রসুন বাটা, হলুদ-মরিচের গুঁড়া ও লবণ মাখিয়ে রাখতে হবে পাঁচ মিনিট। কড়াইয়ে তেল দিয়ে তাতে টাকি মাছগুলো লাল করে এবং একটু চেপে চেপে ভালো করে ভাজতে হবে, যেন কোনো পানি না থাকে মাছের মধ্যে। ভাজা হলে মাছের কাঁটা বেছে কাঁচা মরিচ, পেঁয়াজ কুচি, ধনেপাতা ও আদা কুচি দিয়ে মেখে পরিবেশন করা যায় মজাদার টাকি মাছের ভর্তা।

পরিবেশন:
শুকনা মরিচ, পেঁয়াজ রিং ও পেঁয়াজ পাতা দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন পানতার সাথে।
গরম গরম সাদা ভাতের সাথেও পরিবেশন করা যায় সহজেই।

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর