যার মাথার দাম ৩০ লাখ ডলার, সেই শীর্ষ জঙ্গি নিহত

অনলাইন ডেস্ক

যার মাথার দাম ৩০ লাখ ডলার, সেই শীর্ষ জঙ্গি নিহত

রাস্তার ধারে পড়ে থাকা বোমা বিস্ফোরণে মৃত্যু হলো পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠন লস্কর-ই-ইসলামের প্রধানের। মঙ্গল বাগ। বৃহস্পতিবার(২৮ জানুয়ারি) ঘটনাটি ঘটে আফগানিস্তানের নানগরহর প্রদেশের আচিন জেলার ভান্ডারি এলাকায়। জঙ্গি প্রধান মঙ্গল বাগের পাশাপাশি এই বিস্ফোরণের ফলে তার আরও দুই সঙ্গীও নিহত হয়েছেন বলে জানা যায়।

স্থানীয় সূত্রের বরাত বার্তা সংস্থা আনদলু জানায়, বৃহস্পতিবার লস্কর-ই-ইসলাম জঙ্গি সংগঠনের প্রধান মঙ্গল বাগ ও তার দুই সঙ্গী একটি গাড়িতে করে যাচ্ছিল। হঠাত করেই নানগরহর প্রদেশের আচিন জেলার বান্দার ডারা এলাকায় রাস্তার ধারে থাকা একটি বোমা ফেটে যায়। এর ফলে মঙ্গল বাগ-সহ তিন জঙ্গি নিহত হন।

আরও পড়ুন


চাচী-ভাতিজার পরকীয়া প্রেম; জানাজানির ভয়ে দু'জনেরই আত্মহত্যা

দেশের সব খাতেই উন্নয়নের ছোঁয়া লেগেছে: পরিকল্পনামন্ত্রী

কলারোয়ায় বিএনপি প্রার্থীর ভোট বর্জন

নলছিটি পৌরসভায় বিএনপি ও আ.লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থীর ভোট বর্জন


তেহেরিক-ই-তালিবান জঙ্গিদের ঘনিষ্ঠ মঙ্গল বাগের মৃত্যু নিয়ে এর আগেও গুজব ছড়িয়েছিল। তাই প্রথমে বিষয়টি বিশ্বাস করতে চাননি আফগানিস্তানের প্রশাসন। পরে বিষয়টি সত্যি বলে টুইট করে জানান নানগরহর প্রদেশের গভর্নর জিয়াউলহাক আমারখিল।

আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের ভাষ্যমতে, ২০০৬ সালে লস্কর-ই-ইসলাম নামে ওই জঙ্গি সংগঠনটি তৈরি করেছিল মঙ্গল বাগ। তারপর থেকে পূর্ব আফগানিস্তানের নানগরহর প্রদেশ ও পশ্চিম পাকিস্তানের বিস্তীর্ণ এলাকায় দেওবান্দী কট্টর ইসলামিক চিন্তাধারার প্রচার শুরু করে সে। 

পরে জঙ্গি কার্যকলাপ চালানোর জন্য মাদক পাচার, চোরাচালান, অপহরণ, ন্যাটোর কনভয়ে হামলা ও আফগানিস্তান এবং পাকিস্তানের ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টোল আদায় করত। ওই এলাকায় মঙ্গল বাগের মাথার মূল্য ৩০ লাখ মার্কিন ডলার ধার্য করেছিল আমেরিকার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়।

news24bd.tv / কামরুল

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

গোপনে ভ্যাকসিন নিয়ে হোয়াইট হাউস ছেড়েছেন ট্রাম্প-মেলানিয়া!

অনলাইন ডেস্ক

গোপনে ভ্যাকসিন নিয়ে হোয়াইট হাউস ছেড়েছেন ট্রাম্প-মেলানিয়া!

হোয়াইট হাউস ছাড়ার আগেই করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নিয়েছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্প। সোমবার তার এক উপদেষ্টা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ওই উপদেষ্টা জানিয়েছেন, জানুয়ারিতে হোয়াইট হাউস ছাড়ার আগেই ট্রাম্প এবং মেলানিয়া করোনার ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। তবে এ বিষয়ে তিনি বিস্তারিত কোনো তথ্য জানাননি।

হোয়াইট হাউস ছাড়ার পর স্থানীয় সময় রোববার এক বিবৃতিতে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, কোভিড-১৯ ভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রত্যেকের ভ্যাকসিন নেয়া প্রয়োজন। যুক্তরাষ্ট্রে ইতোমধ্যেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৫ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

পরবর্তী নির্বাচনে আবারও অংশ নিবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

ইরানের সমঝোতা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানে হতাশ যুক্তরাষ্ট্র

খাশোগি হত্যাকান্ড: রহস্যজনকভাবে বদলে গেল প্রতিবেদনে অভিযুক্তের নাম


এদিকে, ট্রাম্পের অনেক সমর্থকই ভ্যাকসিন গ্রহণের বিষয়ে অনিচ্ছা প্রকাশ করেছেন। গত বছরের অক্টোবরে ডোনাল্ড ট্রাম্প, তার স্ত্রী এবং ছেলে করোনায় আক্রান্ত হন। ট্রাম্পকে তিনদিন হাসপাতালে কাটাতে হয়েছে।

তবে ট্রাম্প গোপনে কেন ভ্যাকসিন দিলেন বা এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানালেন না কেন সেটাই প্রশ্ন রয়ে গেছে। হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকেও এর আগে ট্রাম্পের ভ্যাকসিন নেয়ার খবর প্রকাশ করা হয়নি।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ইসরাইলের ছোড়া ক্ষেপনাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করে দিয়েছে সিরিয়া

অনলাইন ডেস্ক

ইসরাইলের ছোড়া ক্ষেপনাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করে দিয়েছে সিরিয়া

ইসরাইলের ছোড়া ক্ষেপনাস্ত্র আকাশই ধ্বংস করে দিয়েছে সিরিয়ান সামরিক বাহিনী। সিরিয়ার গণমাধ্যম জানিয়েছে, তারা ইসরাইলের অধিকাংশ ক্ষেপনাস্তদ্রকে আকাশেই বিনাশ করে দিয়েছে। একারণে সেগুলো আর লক্ষ্যে পৌঁছতে পারেনি। 

সিরিয়ার সরকারি গণমাধ্যম জানিয়েছে, রোববার সন্ধ্যায় গোলান মালভূমি থেকে দামেস্কের বিভিন্ন স্থান লক্ষ্য করে দখলদার ইসরাইল একাধিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করে। তবে তাদের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা অধিকাংশ ক্ষেপণাস্ত্রকেই আকাশে ধ্বংস করতে সক্ষম হয়েছে। কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।


মঙ্গলবার রাজধানীর যেসব এলাকার মার্কেট বন্ধ থাকবে

বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে পরিবহন বন্ধ রাখায় বিচ্ছিন্ন রাজশাহী

শিক্ষাবিদ প্রফেসর মো. হানিফ আর নেই

নামাজের পূর্বের ৭টি ফরজ কাজ সম্পর্কে জানুন


মুসলমানদের অন্যতম প্রধান শত্রু ইহুদিবাদী ইসরাইল গত কয়েক বছর ধরে মাঝেমধ্যেই সিরিয়ার ওপর বিমান ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে আসছে।

সিরিয়া যে উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে লড়াই করছে সে লড়াই বানচাল করার জন্য ইসরাইল এসব হামলা চালিয়ে আসছে। যারা উগ্র সন্ত্রাসীদেরকে অর্থ, অস্ত্র ও সামরিক সহযোগিতা দিচ্ছে তার মধ্যে ইসরাইলও রয়েছে।

ইসরাইলের লক্ষ্য আপাদত কাজে লাগলো না। সিরিয়ায় বেশ কয়েক বছর যাবৎ গৃহযুদ্ধ লেগে আছে। 

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এখনো ইরান ও আমেরিকাকে নিয়ে বসতে চান বোরেল

অনলাইন ডেস্ক

এখনো ইরান ও আমেরিকাকে নিয়ে বসতে চান বোরেল

ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান কর্মকর্তা জোসেপ বোরেল এখনো ইরানের পরমাণু সমঝোতার সবগুলো পক্ষ ও আমেরিকাকে নিয়ে অবিলম্বে আলোচনায় বসতে চান। বোরেলের মুখপাত্র পিটার স্ট্যানো সোমবার ব্রাসেলসে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান।

বোরেলের একই প্রস্তাবের ব্যাপারে ইরানের প্রতিক্রিয়া সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন। স্ট্যানো বলেন, আমেরিকাসহ সব পক্ষকে এক টেবিলে নিয়ে আসার জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়ন সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, জোসেফ বোরেল চান পরমাণু সমঝোতায় স্বাক্ষরকারী সবগুলো দেশ এই সমঝোতা পুরোপুরি বাস্তবায়ন করুক।

আরও পড়ুন:


সৌদি যুবরাজের শাস্তি চাইলেন খাশোগির বাগদত্তা চেঙ্গিস

৫ খাল থেকে দুই মাসে পৌনে ২ লাখ টন বর্জ্য অপসারণ

মঙ্গলবার রাজধানীর যেসব এলাকার মার্কেট বন্ধ থাকবে

বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে পরিবহন বন্ধ রাখায় বিচ্ছিন্ন রাজশাহী


এর আগে জোসেফ বোরেল আমেরিকার উপস্থিতিতে পরমাণু সমঝোতার বাকি দেশগুলোকে নিয়ে অনানুষ্ঠানিক বৈঠকের যে প্রস্তাব দিয়েছিলেন তা নাকচ করে দিয়েছে ইরান। ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাঈদ খাতিবজাদে বলেছেন, পরমাণু সমঝোতার ব্যাপারে ইউরোপ সম্প্রতি যে অনানুষ্ঠানিক বৈঠকের প্রস্তাব দিয়েছে তার জন্য বর্তমান সময়কে উপযুক্ত মনে করছে না তেহরান।

খাতিবজাদে রোববার তেহরানে বলেন, “জো বাইডেন ক্ষমতায় আসার পর এখন পর্যন্ত মার্কিন প্রশাসনের নীতি-অবস্থানে বিন্দুমাত্র পরিবর্তন আসেনি। বাইডেন প্রশাসন যে শুধু সাবেক ট্রাম্প প্রশাসনের ‘সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের’ ব্যর্থ নীতি অনুসরণ করে যাচ্ছে তাই নয় সেইসঙ্গে পরমাণু সমঝোতা ও জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাবের ব্যাপারে নিজের করণীয় ঠিক করেনি।”

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সৌদি যুবরাজের শাস্তি চাইলেন খাশোগির বাগদত্তা চেঙ্গিস

অনলাইন ডেস্ক

সৌদি যুবরাজের শাস্তি চাইলেন খাশোগির বাগদত্তা চেঙ্গিস

নিহত সাংবাদিক জামাল খাশোগির হত্যার ঘটনায় অনতিবিলম্বে সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানের শাস্তি দাবি করেছেন খাশোগির বাগদত্তা হাদিস চেঙ্গিস। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, “এর ফলে শুধু যে ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠিত হবে তাই নয় সেইসঙ্গে একই ধরনের নৃশংসতা রোধ করাও সম্ভব হবে।”

সৌদি যুবরাজের নির্দেশে ২০১৮ সালের অক্টোবরে তুরস্কের ইস্তাম্বুলস্থ সৌদি কনস্যুলেটে জামাল খাশোগিকে হত্যা করা হয়। সম্প্রতি প্রকাশিত মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্ট থেকে এ তথ্য জানা গেছে।  ২০১৮ সালেই এই প্রতিবেদন তৈরি করা হলেও সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এটি গোপন রাখার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

এক টুইটার বার্তায় চেঙ্গিস লিখেছেন, যদি সৌদি যুবরাজকে শাস্তি দেয়া না হয় তাহলে এর মধ্য দিয়ে চিরদিনের জন্য এমন একটা বার্তা দেয়া হবে যে, খুনের মূল অপরাধী ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকতে পারেন। এতে আমরা সবাই বিপদে পড়ব। এতে আমাদের মানবতায় রক্তের দাগ লাগবে।

আরও পড়ুন:


৫ খাল থেকে দুই মাসে পৌনে ২ লাখ টন বর্জ্য অপসারণ

মঙ্গলবার রাজধানীর যেসব এলাকার মার্কেট বন্ধ থাকবে

বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে পরিবহন বন্ধ রাখায় বিচ্ছিন্ন রাজশাহী

শিক্ষাবিদ প্রফেসর মো. হানিফ আর নেই


২০১৮ সালের অক্টোবরে তুরস্কের ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে খুন করার পর জামাল খাশোগির মরদেহ টুকরো টুকরো করে ফেলা হয়। তিনি সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের কট্টর সমালোচক ছিলেন।

শুরু থেকেই হত্যার নির্দেশদাতা হিসেবে মোহাম্মদ বিন সালমানকে সন্দেহ করা হচ্ছে। সৌদি আরব প্রথমে এই হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করলেও পরে আন্তর্জাতিক চাপে খুনের কথা স্বীকার করে। তবে এখন পর্যন্ত মৃতদেহের সন্ধান দেয়নি সৌদি রাজপরিবার।

সৌদি যুবরাজ প্রবাসে বসবাসকারী আরও কয়েকজন সাবেক সৌদি কর্মকর্তাকে হত্যার জন্য ঘাতক স্কোয়াড গঠন করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্টের তিন বছরের কারাদণ্ড

অনলাইন ডেস্ক

দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্টের তিন বছরের কারাদণ্ড

দুর্নীতির দায়ে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট নিকোলাস সারকোজিকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। দেশটির আদালত সোমবার (১ মার্চ) এ রায় দেয়।

এছাড়াও ওই প্রেসিডেন্টের সাবেক দুই আইনজীবীকেও দেওয়া হয়েছে তিন বছরের সাজা। খবর বিবিসি।


রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ

মোবাইলে পরিচয়, দেখা করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

নোয়াখালীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা: স্বামী আটক


নিকোলাস সারকোজিকে বাড়িতে বন্দী করে রাখা হবে। সেজন্য তাকে ইলেকট্রনিক ট্যাগও দিতে হবে বলে রায় ঘোষণার সময় বলেন আদালত। 

এদিকে, নিকোলাস বলেছেন তিনি ওই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর