ইরানে সন্ত্রাসী নেতা জাভেদ দেহকানকে ফাঁসি

অনলাইন ডেস্ক

ইরানে সন্ত্রাসী নেতা জাভেদ দেহকানকে ফাঁসি

ইরানের সিস্তান ও বালুচিস্তান প্রদেশের সন্ত্রাসী নেতা জাভেদ দেহকান খালদকে ফাঁসি দিয়েছেন দেশটির আদালত। তিনি স্থানীয়ভাবে মোহাম্মদ ওমর নামে সুপরিচিত। কথিত জয়শুল আদাল নামে একটি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর নেতা ছিলেন। 

ইরানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম পার্সটুডে এ খবর জানিয়েছে। 

খবরে বলা হয়, ইরানের বিচার বিভাগের গণমাধ্যম দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে, জাহেদান প্রদেশের কারাগারে আজ (শনিবার) সকালে জাভেদ দেহকান খাল্‌দের ফাঁসি কার্যকর করা হয়। ইরানের ইসলামী বিপ্লব গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র সদস্যদের ওপর সশস্ত্র হামলা এবং জয়শুল আদাল ও জয়শুল নাস্‌র নামে নিষিদ্ধ সংগঠনের সঙ্গে সম্পর্ক রাখার দায়ে তাকে ফাঁসি দেয়া হয়।


ইউএস বাংলা এখন আতঙ্কের বাহন!

জিপিএ-৫ পেলেন রিফাত হত্যা মামলার দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি রিশান

নিজ হাসপাতালে ভালোবাসায় সিক্ত হলেন প্রথম করোনা টিকা নেওয়া রুনু

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১৮ সদস্যের টেস্ট দল ঘোষণা


২০১৫ সালের জুন মাসে দেহকান খাল্‌দকে আটক করা হয় এবং আইআরজিসি’র দুই সদস্যকে হত্যা করার জন্য ইরানের আদালত তাকে ফাঁসির আদেশ দেয়। পাকিস্তান সীমান্তবর্তী ইরানের সারাভান শহরে পাঁচজন সীমান্তরক্ষীকে অপহরণ করার ক্ষেত্রেও দেহকান খাল্‌দ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন।

ইরানের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে বহুসংখ্যক বোমা হামলায় জয়শুল আদাল জড়িত। ইরানের নিরাপত্তাকে বিঘ্নিত করার জন্য ওই সন্ত্রাসী গোষ্ঠী এসব হামলা ও অপহরণের মতো জঘন্য তৎপরতা চালিয়ে আসছে। নিষিদ্ধ ঘোষিত এই সন্ত্রাসী সংগঠন আমেরিকা, সৌদি আরব এবং তাদের আঞ্চলিক মিত্রদের সর্বাত্মক সমর্থন ও সহযোগিতা পেয়ে আসছে।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বৈবাহিক সম্পর্কে স্ত্রী কখনও স্বামীর সম্পত্তি নয়: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

অনলাইন ডেস্ক

বৈবাহিক সম্পর্কে স্ত্রী কখনও স্বামীর সম্পত্তি নয়: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

বৈবাহিক সম্পর্কে স্ত্রী কখনও স্বামীর সম্পত্তি নয়। স্ত্রী স্বামীর সঙ্গে থাকতে না চাইলে, তাকে জোর করে আটকে রাখা যাবে না। বুধবার এই রায় দিয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট।

স্ত্রী স্বামীর সঙ্গে থাকতে না চাইলেও স্বামী চান একসঙ্গে থাকতে। এই পরিস্থিতিতে স্ত্রী যাতে বৈবাহিক দায়িত্ব পালনে পিছিয়ে না যায়, তাই আইনের দ্বারস্থ হয়েছিলেন এক ব্যক্তি। আদালত সেই আর্জি খারিজ করে জানান, নারীরা স্বামীর সম্পত্তি নয় যে অনিচ্ছা সত্ত্বেও তাকে স্বামীর সঙ্গেই থাকতে হবে।

এদিকে, স্ত্রীকে বৈবাহিক সম্পর্কে বাধ্য করার আর্জি জানিয়ে মামলাটি যিনি করেছিলেন, তাকে ভর্ৎসনা করে আদালত বলেছেন, ‘এমন রায় যে আদালত দিতে পারে, এ কথা মনে হল কী করে তার?’

জানা গেছে, ২০১৫ সালের একটি মামলার প্রেক্ষিতে এই রায় দেওয়া হয়। তবে মামলাটি সুপ্রিম কোর্টে ওঠার আগে উত্তরপ্রদেশের একটি পারিবারিক আদালত এবং এলাহাবাদ হাইকোর্ট ঘুরে এসেছে।

স্বামীর বিরুদ্ধে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ এনে আলাদা থাকতে শুরু করেছিলেন স্ত্রী। তবে সমস্যা বাধে স্বামীর থেকে খোরপোশ (ভরণপোষণ) চাওয়ায়। নিজের জন্য আর্থিক সংস্থানে অপারগ ওই নারী স্বামীর কাছে প্রতি মাসে ২০ হাজার টাকার খোরপোশ দাবি করেন। তারপরই গোরক্ষপুরের এক আদালতে শুরু হয় স্বামী-স্ত্রীর আইনি লড়াই।২০১৯ সালে গোরক্ষপুরের সেই পারিবারিক আদালত স্বামীর পক্ষে রায় দেন। সেই রায়ের বিরুদ্ধেই পাল্টা এলাহাবাদ হাইকোর্টে মামলা করেন স্ত্রী।


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

প্রথমবারের মতো দেশে পালিত হচ্ছে টাকা দিবস

ইয়ার্ড সেলে মিললো ৪ কোটি টাকার মূল্যবান চীনামাটির পাত্র!

এই নচিকেতা মানে কী? আমি তোমার ছোট? : মঞ্চে ভক্তকে নচিকেতার ধমক (ভিডিও)


আদালতে ওই নারীর অভিযোগ, “পণের টাকা না দেওয়ায় তার ওপর নিয়মিত শারীরিক নির্যাতন করতেন স্বামী। তাই তিনি আর তার স্বামীর সঙ্গে থাকতে চান না। তবে, যেহেতু তিনি নিজের আর্থিক সংস্থানে অপারগ, তাই স্বামীর কাছ থেকে খোরপোশ পাওয়ার অধিকার আছে তার।”

আদালতকে ওই নারী জানান, এ সবই আসলে তার স্বামীর অজুহাত। খোরপোশের টাকা দেবেন না বলেই তাকে নিজের সঙ্গে থাকতে বলছেন স্বামী।

এলাহাবাদ হাইকোর্ট মামলাটিতে স্ত্রীর পক্ষে রায় দিলে এবার সুপ্রিম কোর্টে যান স্বামী। বুধবার সুপ্রিম কোর্টও স্ত্রীর পক্ষেই রায় দিলেন। স্বামীকে ভর্ৎসনা করে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি সঞ্জয়কিষাণ কাউল এবং বিচারপতি হেমন্ত গুপ্তর বেঞ্চ বলেন, “নারীরা কি সম্পত্তি নাকি? একজন নারী কি স্বামীর সম্পত্তি যে তিনি যেতে না চাইলেও তাকে জিনিসপত্রের মতো স্বামীর ঘরে পাঠিয়ে দেওয়া হবে?’

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

পরমাণু সমঝোতায় ফেরার একমাত্র উপায় নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার: ইরান

অনলাইন ডেস্ক

পরমাণু সমঝোতায় ফেরার একমাত্র উপায় নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার: ইরান

পরমাণু সমঝোতা নিয়ে আলোচনায় বসার একমাত্র উপায় হচ্ছে তেহরানের উপর যুক্তরাষ্ট্রের আরোপিত বেআইনি ও নিপীড়নমূলক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা। 

ইরানের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইয়্যেদ আব্বাস আরাকচি বুধবার সন্ধ্যায় গ্রিসের পররাষ্ট্র সচিব সামিস্টুক্লিস দিমিত্রিসের সঙ্গে এক ভিডিও কলে এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, পশ্চিমা দেশগুলোকে পরমাণু সমঝোতাকে পুনরুজ্জীবিত করার ক্ষেত্রে অবশিষ্ট যে কূটনৈতিক সুযোগটুকু রয়েছে সেটুকুর সদ্ব্যবহার করতে হবে।

তারা যেন এমন কোনো ধ্বংসাত্মক কাজ না করে যাতে এই সুযোগটুকুও হাতছাড়া হয়ে যায়।

আরাকচি বলেন, সমসাময়িক যুগের অন্যতম সফল কূটনৈতিক অর্জন- পরমাণু সমঝোতাকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে আমেরিকাকে নিঃশর্তভাবে এতে ফিরে আসতে এবং তেহরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে। ওয়াশিংটন তা করলে তেহরানও নিজের প্রতিশ্রুতি পুরোপুরি বাস্তবায়নে ফিরে যাবে।


শামীম ওসমানের ‘খেলা হবে’ ভারতীয় নেতাদের মুখে মুখে

জামালপুরে নারীর সঙ্গে ভিডিও ফাঁস হওয়া সেই ডিসির বেতন কমল

‘পরমাণু সমঝোতার একমাত্র পথ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার’

এইচ টি ইমামের জানাজা ও দাফনের সময়


আইএইএ’র নির্বাহী বোর্ডের সভায় তিন ইউরোপীয় দেশের ইরানবিরোধী প্রস্তাব উত্থাপনের প্রতি ইঙ্গিত করে আরাকচি বলেন, আইএইএ’র মহাসচিবের সাম্প্রতিক তেহরান সফরে দু’পক্ষের মধ্যে যখন একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হলো তখন ফ্রান্স, ব্রিটেন ও জার্মানির এ আচরণ গ্রহণযোগ্য নয়।

ইরানের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমেরিকার ‘সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের’ নীতি ব্যর্থ হওয়ার পর ইউরোপের পক্ষ থেকে একই ধরনের চাপ প্রয়োগ মেনে নিতে তেহরান কোনো অবস্থায় রাজি নয়।

গ্রিসের পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ইউরোপ সব সময় যুক্তরাষ্ট্রের পরমাণু সমঝোতা তেকে বের হয়ে যাওয়ার বিপক্ষে ছিল। এমনকি ইরান বিরোধী নিষেধাজ্ঞা আরোপেরও সমর্থন করেনি। ইরানের পরমাণু সমঝোতার প্রতি গ্রিসের পুরোপুরি সমর্থন রয়েছে। 

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চাকরির কথা বলে নারীর সঙ্গে মন্ত্রীর অন্তরঙ্গ সম্পর্ক, ভিডিও ফাঁস

অনলাইন ডেস্ক

চাকরির কথা বলে নারীর সঙ্গে মন্ত্রীর অন্তরঙ্গ সম্পর্ক, ভিডিও ফাঁস

কাজ দেয়ার নাম করে এক নারীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগ উঠেছিল কর্ণাটকের জলসম্পদমন্ত্রী রমেশ ঝারকিহোলির বিরুদ্ধে। এমনকি বিভিন্ন মাধ্যমে তা ভাইরালও হয়েছিল। এরপর নানা বিতর্কের পর বুধবার (৩ মার্চ) পদত্যাগ করলেন তিনি।

বুধবার ঝারকিহোলি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদুরাপ্পার কাছে তার পদত্যাগপত্র জমা দেন এবং তিনি তা গ্রহণ করে ইতোমধ্যে রাজ্যপালের কাছে পাঠিয়েও দিয়েছেন।

সম্প্রতি বিভিন্ন গণমাধ্যমে তার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। যেখানে কাজ পাইয়ে দেয়ার নাম করে একজন নারীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগ ওঠে। যা সারা ভারতে হইচই পড়ে যায়।

যদিও তিনি তা অস্বীকার করে বলেছেন, ভিডিওটি ভুয়া। তিনি এই ধরনের কোনো কাজের সঙ্গে যুক্ত নন এবং নিজের পদ থেকে পদত্যাগ করতেও অস্বীকার করেছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত পদত্যাগ করলেন তিনি।


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

ভারতে বাড়ছে গাধার চাহিদা!

ইয়ার্ড সেলে মিললো ৪ কোটি টাকার মূল্যবান চীনামাটির পাত্র!

এই নচিকেতা মানে কী? আমি তোমার ছোট? : মঞ্চে ভক্তকে নচিকেতার ধমক (ভিডিও)


এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রহ্লাদ যোশী বলেন, ‘গণমাধ্যমে আমি বিজেপি মন্ত্রীর ওই ভিডিওটি দেখেছি। এ বিষয়ে কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদুরাপ্পা ও দলের সর্বভারতীয় সভাপতির সঙ্গে কথা বলবো। যে ভিডিওটি প্রকাশিত হয়েছে, সেটির সত্যতা যাচাইয়ের পর পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক করা হবে।’ যদিও ইতোমধ্যে নিজের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন ঝারকিহোলি।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মোদির দলে যোগ দেয়া নিয়ে কী সিদ্ধান্ত নিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়?

অনলাইন ডেস্ক

মোদির দলে যোগ দেয়া নিয়ে কী সিদ্ধান্ত নিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়?

বেশ কয়েকদিন থেকেই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বিজেপিতে যোগ দেয়া নিয়ে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে। সবাই বলছেন মহারাজ এবার ব্যাট করবেন বিজেপিতে। কিন্তু বর্তমান ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি সৌরভের পক্ষ থেকে হ্যাঁ না কোন উত্তরই পাওয়া যাচ্ছিলোনা। তাই বাড়তে থাকে জল্পনাও। 

এদিকে আগামী ৭ মার্চ ব্রিগেডে নরেন্দ্র মোদির জনসভায় সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় হাজির থাকতে পারেন এবং সে দিনই আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁর বিজেপিতে যোগদান সম্পন্ন হতে পারে বলে জোর জল্পনা শুরু হয়েছিল। কিন্তু গতকাল বুধবার বিশ্বস্ত সূত্রের খবর, জল্পনা আপাতত জল্পনাই থেকে যাচ্ছে। মহারাজ এখনই রাজনীতির ময়দানে ব্যাট করতে আগ্রহী নন।

আরও পড়ুন:


শামীম ওসমানের ‘খেলা হবে’ ভারতীয় নেতাদের মুখে মুখে

জামালপুরে নারীর সঙ্গে ভিডিও ফাঁস হওয়া সেই ডিসির বেতন কমল

‘পরমাণু সমঝোতার একমাত্র পথ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার’

এইচ টি ইমামের জানাজা ও দাফনের সময়


স্থানীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার বলছে, সৌরভের বক্তব্য এখনও অস্পষ্টই। এনিয়ে কোন মন্তব্য করেননি তিনি। তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা হলেও কোনও সাড়া দেননি। এ দিন সন্ধ্যা থেকে আবার নতুন জল্পনা শুরু হয়, সৌরভ এবং রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সাক্ষাৎকার নিয়ে।

অন্য দিকে, অমিত-পুত্র জয় যেহেতু বোর্ড প্রশাসনে সৌরভের সতীর্থ, তাই ক্রিকেট মাঠের বৃত্ত ছাড়িয়ে পিতা-পুত্রের মাধ্যমে রাজনৈতিক সেতুবন্ধনের সম্ভাবনা জোরালো হতে থাকে। এ নিয়ে কোনও সন্দেহই নেই যে বিজেপি হাইকম্যান্ড সৌরভকে বঙ্গে তাঁদের পার্টির মুখ করার জন্য খুবই আগ্রহী ছিলেন। এক সময় জল্পনা খুবই জোরালো হয়ে উঠেছিল যে, সৌরভ বিজেপি-তে যোগ দিচ্ছেন। বঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনে দাদা বনাম দিদি - এই দ্বৈরথের চিত্রনাট্যও কেউ কেউ লিখে ফেলেছিলেন।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

শামীম ওসমানের ‘খেলা হবে’ ভারতীয় নেতাদের মুখে মুখে

অনলাইন ডেস্ক

শামীম ওসমানের ‘খেলা হবে’ ভারতীয় নেতাদের মুখে মুখে

নির্বাচন ইস্যুতে সরব ভারতের পশ্চিমবঙ্গ। বক্তব্য পাল্টা বক্তব্যে গরম রাজনীতির ময়দান। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বয়ং হুঙ্কার দিয়ে বলছেন, ‘‘আসুন, খেলা হয়ে যাক।’’ তাঁর অন্যতম সেনাপতি অনুব্রত মণ্ডলের একই রকম হুঙ্কার, ‘‘ভয়ঙ্কর খেলা হবে।’’

তাদের এই ‘খেলা হবে’র পাল্টা জবাব দিতে ভুলেননি বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বলেছেন ‘‘আমরাও বলছি খেলা হবে। তোমাদের খেলা শেষ হয়ে গেছে।’’ ‘খেলা হবে’-র বার্তা দিয়ে নবান্ন অভিযান করেছেন বাম ছাত্র-যুবরা। হুমকিতে, চ্যালেঞ্জে, গানে, প্যারোডিতে, পোস্টারে, সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে - খেলা হবে, খেলা হবে!

এই ‘খেলা হবে’র জন্ম বাংলাদেশের সংসদ সদস্য শামীমের ওসমানের মুখে। ২০১৩-১৪ সালে বিএনপির আন্দোলনের সময় হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে প্রথম এই স্লোগান দেন তিনি।

ভারতীয় একটি গণমাধ্যমকে ফোনে শামিম বলেন, ‘‘আমাদের খেলা শান্তি, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি এবং উন্নয়নের লক্ষ্যে।’’ সাংসদের দাবি, ‘‘প্রথম যখন চ্যালেঞ্জ করি, তখন মানুষ এই স্লোগানকে সমর্থন করেছিলেন। স্লোগানটি জনপ্রিয়ও হয়েছিল।’’

আরও পড়ুন:


জামালপুরে নারীর সঙ্গে ভিডিও ফাঁস হওয়া সেই ডিসির বেতন কমল

‘পরমাণু সমঝোতার একমাত্র পথ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার’

এইচ টি ইমামের জানাজা ও দাফনের সময়

এইচ টি ইমামের মৃত্যুতে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর শোক


অথচ যে ভাবে পশ্চিমবঙ্গে ‘খেলা হবে’ স্লোগান দেওয়া হচ্ছে, তার হাবে-ভাবে উদ্বিগ্ন সমাজতত্ত্ববিদ অভিজিৎ মিত্র। তাঁর কাছে এই খেলা ‘আসলে মরণ খেলা।’ তিনি আরও বলেন, ‘‘খেলা হবে কথাটি শুনলেই আমার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘হরিখেলা’ কবিতাটির কথা মনে পড়ে যায়। সেখানেও রক্তাক্ত খেলা হয়েছিল।’’

যার মুখে ‘খেলা হবে’র জন্ম সেই শামীম ওসমান বলছেন, ‘‘ভারতের সঙ্গে আমার সম্পর্ক অত্যন্ত আন্তরিক। সুযোগ পেলেই আমি কলকাতায় যাই। আমি আশা করব, পশ্চিমবঙ্গের ভোটে খেলা যেন শান্তি, পারস্পরিক সৌহার্দ এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে। ভোট গণতন্ত্রের উৎসব। তাকে যেন সাম্প্রদায়িক কালিমা, হিংসার রক্তে রঞ্জিত করা না-হয়। খেলার নামে মানুষ যেন অকারণ হিংসায় না-মাতেন।’’

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর