সবাইকে করোনা টিকা নেওয়ার আহবান স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক


সবাইকে করোনা টিকা নেওয়ার আহবান স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, সব টিকারই কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকে। অক্সফোর্ডের টিকারও কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে। তবে এই টিকা অনেক নিরাপদ। 

এসময় তিনি করোনা ভাইরাসের টিকা দেওয়ার জন্য মানুষকে টিকাদান কেন্দ্রে নিয়ে যেতে জনপ্রতিনিধিদের প্রতি আহ্বান জানান।

মঙ্গলবার রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। 

সবাইকে টিকা নেওয়ার আহবান জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, শুধু শহর নয়; একদম প্রত্যন্ত অঞ্চলে আমাদের মুরব্বিরা, মা-বোনেরা আছেন। তাদের আহ্বান করব, আমাদের জেলা-উপজেলায় এসে টিকা নেওয়ার জন্য। 

তিনি বলেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের আহ্বান করব- আপনারা আপনাদের এলাকার মানুষকে টিকাদান কেন্দ্রে নিয়ে যাবেন। তাদের উদ্বুদ্ধ করবেন টিকা নিতে।

টিকা নেওয়ার জন্য অনলাইনে নিবন্ধন করতে না পারলে টিকাদান কেন্দ্রেও সেই ব্যবস্থা থাকবে বলে জানান জাহিদ মালেক। 

তিনি বলেন, করোনার টিকার জন্য সবাই আমাদের অ্যাপের মাধ্যমে নিবন্ধন করতে পারবেন। অ্যাপে না পারলে সাহায্য নিন। ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার থেকে সাহায্য নিতে পারেন। টিকাদান কেন্দ্রে আসলেও আপনি ফরম পূরণ  করে দিলে তারাই নিবন্ধন করে দেবে। কাজেই সব ব্যবস্থা আছে। আপনি টিকা নিন, সুস্থ থাকুন, দেশকে সুস্থ রাখুন।

সব জেলায় টিকা পৌঁছে গেছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, খুব দ্রুতই উপজেলা পর্যায়ে টিকা যাবে। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে টিকাদান কার্যক্রম শুরু করা হবে।


নৌকায়ই উঠতে হবে: খালেদা জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী

শুধু গৃহকর্মী বাবদ ট্রাম্প পাচ্ছেন প্রায় ১ লাখ ডলার

মিয়ানমারের উপর আবারও নিষেধাজ্ঞার হুমকি বাইডেনের

ভারতে কমছে সোনার দাম


তিনি বলেন, সংক্রমণের হার অনেকটাই কমে গেছে। এখন সংক্রমণের হার ৩ শতাংশের ঘরে আছে। এই হার ধরে রাখতে হবে। এজন্য প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। মাস্ক পরতে হবে। আমরা একটা ভালো পর্যায়ে আছি। এটা ধরে রাখতে হবে। 

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে পরিবহন বন্ধ রাখায় বিচ্ছিন্ন রাজশাহী

অনলাইন ডেস্ক

বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে পরিবহন বন্ধ রাখায় বিচ্ছিন্ন রাজশাহী

রাজশাহীতের বিএনপির সমাবেশ আজ মঙ্গলবার। সমাবেশকে ঘিরে কঠোর অবস্থানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সমাবেশ ঘিরে ‘হামলা-নাশকতার আশঙ্কায়’ গতকাল সোমবার সকাল থেকেই বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে রাজশাহীকে। সব রুটের সঙ্গে বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। 

কোনো ধরনের পূর্ব ঘোষণা ছাড়া আকস্মিক বাস বন্ধ করে দেওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। রাজশাহীর পরিবহন মালিক ও শ্রমিক নেতাদের দাবি, বাস চলাচল করলে হামলার আশঙ্কা আছে। তাই চালক-শ্রমিকদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে তারা বাস চলাচল আপাতত বন্ধ করে দিয়েছেন। পরিস্থিতি বুঝে পরে তারা আবারও বাস চলাচলের সিদ্ধান্ত নেবেন।

এদিকে চার দেয়ালের ভেতর বিএনপিকে বিভাগীয় সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছে পুলিশ। রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, ‘বিএনপি মধ্য শহরের রাস্তায় সমাবেশ করার অনুমতি চেয়েছিল। কিন্তু এসব এলাকায় সমাবেশ করলে মানুষের চলাচল বাধাগ্রস্ত হবে। তীব্র যানজট দেখা দেবে। এ জন্য মধ্য শহরে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি। আমরা বলেছি, ইনডোরে সমাবেশ করতে হবে।’

আরও পড়ুন:


শিক্ষাবিদ প্রফেসর মো. হানিফ আর নেই

নামাজের পূর্বের ৭টি ফরজ কাজ সম্পর্কে জানুন

নামাজের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নকারীদের পরিণতি কী?

বাংলাদেশের মিডিয়া মুক্ত ও সোচ্চার: বিক্রম দোরাইস্বামী


রাজশাহী মহানগর বিএনপির মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, ‘আমরা শহরের সাহেববাজার জিরোপয়েন্ট, মনিচত্বর, সোনাদীঘি বা গণকপাড়া এলাকায় সমাবেশের জন্য অনুমতি চেয়েছিলাম। কোথায়ও অনুমতি দেয়নি। শেষ পর্যন্ত নাইস কনভেনশন সেন্টার চত্বরে বিভাগীয় সমাবেশ করার অনুমতি মিলেছে। আমরা সেখানেই করব। 

রাজশাহী বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মতিউল হক টিটো জানান, মঙ্গলবার রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ ঘিরে তারা সড়কে বিশৃঙ্খলা ও যানবাহনে সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কা করছেন। এ কারণে তারা সোমবার সকাল থেকে বাস চলাচল বন্ধ রেখেছেন।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

শিক্ষাবিদ প্রফেসর মো. হানিফ আর নেই

রাহাত খান, বরিশাল

শিক্ষাবিদ প্রফেসর মো. হানিফ আর নেই

বরিশালের সর্বজন শ্রদ্ধেয় শিক্ষাবিদ সরকারি ব্রজমোহন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. হানিফ আর নেই। (ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেউন)। 

সোমবার দিবাগত রাত সোয়া ১০টার দিকে ঢাকার ইবনেসিনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯০ বছর। তিনি ৪ ছেলে ও ২ মেয়ে নাতি-নাতনীসহ অসংখ্য স্বজন এবং শুভাকাঙ্খী রেখে গেছেন। 

প্রফেসর মো. হানিফ দির্ঘদিন ধরে বার্ধক্য জনিত নানা রোগে ভুগছিলেন বলে জানিয়েছেন বিএম কলেজের অর্থনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. আক্তারুজ্জামান খান।

আরও পড়ুন:


নামাজের পূর্বের ৭টি ফরজ কাজ সম্পর্কে জানুন

নামাজের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নকারীদের পরিণতি কী?

বাংলাদেশের মিডিয়া মুক্ত ও সোচ্চার: বিক্রম দোরাইস্বামী

আন্তর্জাতিক ১৩ প্রেস মুশতাক হত্যাকাণ্ডের সঠিক তদন্ত চায়: নুর


প্রফেসর মো. হানিফ জীবদ্দশায় ব্রজমোহন কলেজ ছাড়াও সরকারি সৈয়দ হাতেম আলী কলেজ ও বরিশাল ইসলামিয়া কলেজের অধ্যক্ষ এবং যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট কমিটির সাবেক সদস্য ছিলেন তিনি। 

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় এবং বরিশাল শিক্ষা বোর্ড প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে অগ্রসেনাদের একজন অধ্যক্ষ মো. হানিফ।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাংলাদেশের মিডিয়া মুক্ত ও সোচ্চার: বিক্রম দোরাইস্বামী

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশের মিডিয়া মুক্ত ও সোচ্চার: বিক্রম দোরাইস্বামী

বাংলাদেশের মিডিয়াকে ‌‘প্রাণবন্ত, মুক্ত, বর্ণময় এবং অত্যন্ত সোচ্চার’ বলেছেন ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী। 

তিনি সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সংস্কারকৃত মিডিয়া সেন্টারের উদ্বোধনকালে এ কথা বলেন।

এ সময় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান, যুগ্ম সম্পাদক মইনুল আলম ও কোষাধ্যক্ষ শাহেদ চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন,  দু'দেশের মধ্যে অংশীদারিত্ব এগিয়ে চলেছে। এই গুরুত্বপূর্ণ মাসে প্রেস ক্লাবের এ আয়োজনে থাকতে পেরে আনন্দিত।


সবইতো চলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন ঈদের পরে খুলবে: নুর

আইন চলে ক্ষমতাসীনদের ইচ্ছেমত: ভিপি নুর

রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ

মোবাইলে পরিচয়, দেখা করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

নোয়াখালীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা: স্বামী আটক


তিনি বলেন, জাতীয় প্রেস ক্লাব এমন একটি জায়গা যা বাংলাদেশের চেতনাকে প্রতিফলিত করে।

প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, দুদেশের মধ্যে সম্পর্ক সবদিক দিয়ে প্রসারিত হচ্ছে। প্রতিবেশী দুই দেশের গণমাধ্যমের মধ্যে আরও সহযোগিতার ওপরও জোর দেওয়া হয়েছে।

এ সময় তিনি জাতীয় প্রেস ক্লাবের মিডিয়া সেন্টারের উন্নয়নে ভারতীয় হাইকমিশনের অবদানের কথা স্মরণ করেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

জাতীয় প্রেস ক্লাবে মিডিয়া সেন্টার উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশের মিডিয়াকে প্রাণবন্ত, মুক্ত, বর্ণময় এবং অত্যন্ত সোচ্চার বলে অভিহিত করেছেন ঢাকার নিযুক্ত ভারতের হাই কমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী। 

সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে মিডিয়া সেন্টার উদ্বোধনের পর এক আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়ায় এমন অভিমত ব্যক্ত করেন। এসময় বাংলাদেশ-ভারত পারষ্পরিক সম্পর্ক উত্তরোত্তর এগিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে প্রেসক্লাব সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, দু-দেশের মিডিয়ার মধ্যেও সম্পর্ক আরো বাড়বে। আরো জানাচ্ছেন লাকমিনা জেসমিন সোমা।

সোমবার প্রেসক্লাব সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিনসহ সিনিয়র সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে মিডিয়া সেন্টার এর উদ্বোধন করেন ভারতীয় হাই কমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী। ভারতের আর্থিক সহযোগিতায় আধুনিকায়ণ করা মিডিয়া সেন্টেরটি ঘুরে দেখেন তারা।

পরে আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়ায় ভারতীয় হাই কমিশনার বলেন, বাংলাদেশের গণমাধ্যম সব সময়ই স্বাধীন, প্রাণবন্ত, এবং অত্যন্ত সোচ্চার।


পুলিশকে কেন প্রতিপক্ষ বানানো হয়, প্রশ্ন আইজিপির

আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

বিমা খাতে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে আরও প্রচার প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেললো বাংলাদেশ


আধুনিক মিডিয়া সেন্টারটি বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে এবং বিশ্বের খবর বাংলাদেশের কাছে তুলে ধরতে গণমাধ্যমকর্মীদের সহায়ক হবে বলেও প্রত্যাশা করেন তিনি।

এসময় প্রেসক্লাব সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন বলেন বাংলাদেশ ভারত পারষ্পরিক সম্পর্ক উত্তরোত্তর এগিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে দু দেশের মিডিয়ার মধ্যেও সম্পর্ক আরো বাড়বে বলে প্রত্যাশা করেন।

তিনি জাতীয় প্রেস ক্লাবের মিডিয়া সেন্টারের উন্নয়নে ভারতীয় হাইকমিশনের অবদানের কথাও তুলে ধরেন প্রেসক্লাব সভাপতি।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সম্মাননা বর্জন করে অনুষ্ঠান ছেড়ে চলে গেলেন মুক্তিযোদ্ধা

নিজস্ব প্রতিবেদক

সম্মাননা বর্জন করে অনুষ্ঠান ছেড়ে চলে গেলেন মুক্তিযোদ্ধা

রণাঙ্গনে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা প্রদানে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলো ভাসানী অনুসারী পরিষদ, গণসংহতি আন্দোলন, ছাত্র-যুব-শ্রমিক অধিকার পরিষদ ও রাষ্ট্রচিন্তা নামের কয়েকটি সংগঠন। 

অনুষ্ঠানে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা এবং ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরী ছাড়াও গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক, রাষ্ট্রচিন্তার হাসনাত কাইয়ুম, ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


পুলিশকে কেন প্রতিপক্ষ বানানো হয়, প্রশ্ন আইজিপির

আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

বিমা খাতে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে আরও প্রচার প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেললো বাংলাদেশ


অতিথিদের বক্তব্য শেষে বীর মুক্তিযোদ্ধদের সম্মানা স্মারক দেওয়া হচ্ছিলো। অনুষ্ঠানে ৫০ জন মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মাননা জানানো হয়। এ সময় একজন মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা গ্রহণের জন্য স্টেজে ওঠার ডাক পেলে তিনি মাইক্রোফোনে অভিযোগ করেন, ‘যে জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিল, সে স্লোগান একবারও উচ্চারণ হয়নি এবং যাঁর ডাকে মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিল সেই বঙ্গবন্ধুর নামও একবার নেওয়া হয়নি।’ 

তিনি এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে সম্মাননা বর্জন করেন। এ সময় অনুষ্ঠানে আসা অন্যরা হইহই করে তাঁর কথার প্রতিবাদ জানান। তিনি এরপর অনুষ্ঠান ত্যাগ করে চলে যান।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর