গণতন্ত্র সূচকে ৪ ধাপ এগোল বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

গণতন্ত্র সূচকে ৪ ধাপ এগোল বাংলাদেশ

ব্রিটিশ গণমাধ্যম ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (ইআইইউ) গণতন্ত্র সূচক ২০২০-এ বাংলাদেশের চার ধাপ অগ্রগতি হয়েছে। ৫ দশমিক ৯৯ স্কোর নিয়ে ইআইইউর গণতন্ত্র সূচকে এবার ১৬৫টি দেশ ও দুটি অঞ্চলের মধ্যে বাংলাদেশ রয়েছে ৭৬তম অবস্থানে। এর আগেরবার ছিল ৮০তম অবস্থানে।

আজ বুধবার পাঁচটি মানদণ্ডে একটি দেশের গণতন্ত্র পরিস্থিতি বিচার করে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ইআইইউ।

ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিট ২০০৬ সাল থেকেই প্রতিবছর এই সূচক প্রকাশ করে। তাদের বিবেচনায় সারাবিশ্বেই গণতন্ত্রের পরিস্থিতির বেশ অবনমন হয়েছে। সারাবিশ্বের গড় স্কোর আগের বছরের ৫ দশমিক ৪৪ থেকে কমে ৫ দশমিক ৩৭ হয়েছে। যা এখন পর্যন্ত সর্বনিম্ন। অবশ্য এর পেছনে করোনা মোকাবেলায় জনগণের চলাচলে বিধিনিষেধ আরোপ করাও বড় ভূমিকা রেখেছে। 

নির্বাচনী ব্যবস্থা ও বহুদলীয় অবস্থান, সরকারে সক্রিয়তা, রাজনৈতিক অংশগ্রহণ, রাজনৈতিক সংস্কৃতি এবং নাগরিক অধিকার- এই পাঁচ মানদণ্ডে একটি দেশের পরিস্থিতি বিবেচনা করে ১০ ভিত্তিক এই সূচক তৈরি করে ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিট।

এসব বিবেচনায় বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার ‘পরিস্থিতি ভালো’ বলে মনে করছে ইআইইউ। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে গণতন্ত্রের বিচারে বাংলাদেশের চেয়ে সবচেয়ে ভালো অবস্থায় আছে ভারত। ৬ দশমিক ৬১ স্কোর নিয়ে ভারত আছে তালিকার ৫৩ নম্বরে।


আমরা প্রচণ্ড চাপের মধ্যে আছি: রিজভী

জামাত-শিবির আন্তর্জাতিক মিডিয়া ভাড়া করে অপপ্রচার চালাচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী

কাটলো প্রাথমিকের শিক্ষকদের বেতন জটিলতা


দক্ষিণ এশিয়ার অন্য দেশগুলোর মধ্যে ৬ দশমিক ১৪ স্কোর নিয়ে শ্রীলঙ্কা ৬৮তম; ৫ দশমিক ৯৯ স্কোর নিয়ে বাংলাদেশ ৭৬তম; ৫ দশমিক ৭১ স্কোর নিয়ে ভুটান ৮৪তম; ৫ দশমিক ২২ স্কোর নিয়ে নেপাল ৯২তম; ৪ দশমিক ৩১ স্কোর নিয়ে পাকিস্তান ১০৫তম; ৩ দশমিক ০৪ স্কোর নিয়ে মিয়ানমার ১৩৫তম এবং ২ দশমিক ৮৫ স্কোর নিয়ে আফগানিস্তান ১৩৯তম অবস্থানে রয়েছে।

সূচকে ৯ দশমিক ৮১ স্কোর নিয়ে এবারের তালিকার শীর্ষে রয়েছে নরওয়ে। শীর্ষ দশে আরও আছে আইসল্যান্ড, সুইডেন, নিউজিল্যান্ড, কানাডা, ফিনল্যান্ড, ডেনমার্ক, আয়ারল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও নেদারল্যান্ডস। এ তালিকায় সবার নিচে অবস্থান হয়েছে উত্তর কোরিয়ার। এছাড়া ডিআর কঙ্গো, সেন্ট্রাল আফ্রিকা, সিরিয়া, চাদ, তুর্কমেনিস্তানকেও নিচের দিকে রাখা হয়েছে।  

২০২০ সালের এই সূচক বলছে, বিশ্বের মোট জনসংখ্যার অর্ধেক (৪৯ দশমিক ৪ শতাংশ) এখন গণতন্ত্র অথবা আংশিক গণতন্ত্র ভোগ করছে। এর মধ্যে পূর্ণ গণতন্ত্র উপভোগ করছে মাত্র ৪ দশমিক ৮ শতাংশ মানুষ।

সব সূচক মিলিয়ে কোনো দেশের গড় স্কোর ৮ এর বেশি হলে সেই দেশে ‘পূর্ণ গণতন্ত্র’ রয়েছে বলে বিবেচনা করা হয়েছে প্রতিবেদনে। আর স্কোর ৬ থেকে ৮ এর মধ্যে হলে সেখানে ‘ত্রুটিপূর্ণ গণতন্ত্র’, ৪ থেকে ৬ এর মধ্যে হলে ‘মিশ্র শাসন’ এবং ৪ এর নিচে হলে সে দেশে ‘স্বৈরশাসন’ চলছে বলে ধরা হয়।

ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের প্রতিবেদন বলছে, ২০২০ সালে তাদের ভাষায় ‘পূর্ণ গণতন্ত্র’ ছিল মাত্র ২৩টি দেশে, যা আগের বছরের চেয়ে একটি বেশি। ‘ত্রুটিপূর্ণ গণতন্ত্র’ রয়েছে এমন দেশের সংখ্যা আগের বছর থেকে দুটি কমে ৫২টি হয়েছে। আর ‘মিশ্র শাসনে’ আছে এমন দেশ ৩৭টি থেকে কমে ৩৫টি হয়েছে। তাদের বিচারে বর্তমান বিশ্বে ৫৭টি দেশ এখন স্বৈরশাসনের অধীনে রয়েছে; এই সংখ্যা আগের বছরের চেয়ে তিনটি বেশি।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আল্লামা বাবুনগরীর বক্তব্য দেখে হতাশ মাওলানা মামুনুল

অনলাইন ডেস্ক

আল্লামা বাবুনগরীর বক্তব্য দেখে হতাশ মাওলানা মামুনুল

হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সেক্রেটারি মাওলানা মামুনুল হক গ্রেপ্তারের পর থেকে অনেক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে। বর্তমানে ৭ দিনের রিমান্ডে রয়েছেন তিনি। রিমান্ডের এই ক’দিনে বেশ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন মামুনুল হক।

গোয়েন্দাদের জিজ্ঞাসাবাদে মাওলানা মামুনুল হক বলেছেন, ২০১৩ সালে বিএনপির পেছনে থেকে ইসলামী রাষ্ট্র কায়েমের স্বপ্ন দেখতেন তারা। এখন তিনি মনে করেন, হেফাজতই সামনে থেকে নেতৃত্ব দেবে আর বিএনপিসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলে তাদের পেছনে থাকবে।

আরও পড়ুন


লকডাউনেও ঢাকায় রাস্তায় যানজট, চলাচল বেড়েছে মানুষের

দরিদ্রদের সহায়তায় প্রধানমন্ত্রীর সাড়ে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ

তীব্র দাবদাহে দেশ, ৪ বিভাগে বৃষ্টির আভাস

রংপুর করোনা হাসপাতালে বরাদ্দকৃত ৫০ আইসিইউ-এর মধ্যে বসেছে মাত্র ২৩টি


রিমান্ডে নেয়ার পর ছাড়া পাওয়ার বিষয়ে মামুনুল হক মনে করতেন, ডিবি অফিসে হামলা চালিয়ে হলেও তার নেতাকর্মীরা তাকে ছাড়িয়ে নিয়ে যাবে। তবে তিনি হতাশ হয়েছেন হেফাজতের আমীর আল্লামা বাবুনগরীর বক্তব্য দেখে।

উল্লেখ্য, গত ১৮ এপ্রিল মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদরাসা থেকে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরীর সেক্রেটারি মাওলানা মামুনুল হককে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের বিচারক তার সাতদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

লকডাউনেও ঢাকায় রাস্তায় যানজট, চলাচল বেড়েছে মানুষের

অনলাইন ডেস্ক

লকডাউনেও ঢাকায় রাস্তায় যানজট, চলাচল বেড়েছে মানুষের

করোনার সংক্রমণ রোধে গত ১৪ এপ্রিল থেকে ৭ দিনের ‘কঠোর লকডাউন’ দেয়া হয়। এরপর সংক্রমণ না কমায় আবারও ৭ দিন বাড়ানো হয় চলমান লকডাউন। লকডাউনের প্রথম দিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোরতা ও মানুষের সচেতনতায় কিছুটা বিধিনিষেধ মানলেও বর্তমানে অনেকই মানছেন না তা।

এদিকে প্রথম দফার লকডাউনের দু’একদিন পরেই ঢাকার রাস্তায় যানবাহন ও মানুষ চলাচল বেশি দেখা যায়। সাতদিন পরের বর্ধিত সেই লকডাউনেও একই চিত্র। বরং আগের চেয়ে যানবাহন ও মানুষ দুটোই বেড়েছে।

গণপরিবহন বন্ধ থাকায় সকালে অনেককেই হেঁটে গন্তব্যের উদ্দেশে যেতে দেখা গেছে। অনেককেই রাস্তায় দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। রাজধানীর খিলক্ষেত এলাকায় অনেকেই গন্তব্যে যাওয়ার উদ্দেশে প্রাইভেট কার খুঁজছিলো। কেউ বাড়তি ভাড়া দিয়ে প্রাইভেটকারে করে গন্তব্যের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। রাজধানীর প্রায় প্রতিটি সড়কেই ব্যক্তিগত গাড়ির উপস্থিতি ছিলো চোখে পড়ার মতো।

আরও পড়ুন


দরিদ্রদের সহায়তায় প্রধানমন্ত্রীর সাড়ে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ

তীব্র দাবদাহে দেশ, ৪ বিভাগে বৃষ্টির আভাস

রংপুর করোনা হাসপাতালে বরাদ্দকৃত ৫০ আইসিইউ-এর মধ্যে বসেছে মাত্র ২৩টি

উৎসব মুখর পরিবেশে সুনামগঞ্জের হাওরে ধান কাটা শুরু


খিলক্ষেত, বিমানবন্দর ও হাউজবিল্ডিং এলাকায় ব্যক্তিগত গাড়ির চাপে যানজটও দেখা যায়। অন্য দিনের তুলনায় এসব জায়গায় ব্যক্তিগত গাড়ি ছিল অনেক বেশি। এছাড়াও সিএনজি, মোটরসাইকেল ও রিকশার চাপও ছিলো বেশি।

দায়িত্বরত এক ট্রাফিক সার্জেন্ট জানায়, অন্য দিনের তুলনায় রাস্তায় গাড়ির সংখ্যা বেড়েছে। ‍মুভমেন্ট পাস দেখিয়ে অনেকেই নানা অজুহাতে মানুষ বাইরে বের হচ্ছে। জিজ্ঞেস করলে কেউ দেখাচ্ছেন প্রেসক্রিপশন আবার কেউ তর্কে জড়াচ্ছেন। 

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দরিদ্রদের সহায়তায় প্রধানমন্ত্রীর সাড়ে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ

নিজস্ব প্রতিবেদক

দরিদ্রদের সহায়তায় প্রধানমন্ত্রীর সাড়ে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ

চলমান লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত দরিদ্র, দুস্থ, ভাসমান এবং অসচ্ছল মানুষকে সহায়তার জন্য ১০ কোটি ৫০ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে এসব অর্থ সহায়তা দেওয়া হবে।

বুধবার (২১ এপ্রিল) প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানায়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনা ভাইরাসের কারণে চলমান লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্ত দরিদ্র, দুস্থ, ভাসমান এবং অসচ্ছল মানুষকে সহায়তার লক্ষে জেলা প্রশাসকগণের অনুকূলে ১০ কোটি ৫০ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

news24bd.tv আহমেদ

 

আরও পড়ুন


তীব্র দাবদাহে দেশ, ৪ বিভাগে বৃষ্টির আভাস

রংপুর করোনা হাসপাতালে বরাদ্দকৃত ৫০ আইসিইউ-এর মধ্যে বসেছে মাত্র ২৩টি

উৎসব মুখর পরিবেশে সুনামগঞ্জের হাওরে ধান কাটা শুরু

রিমান্ডে যে সব গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন ‘শিশু বক্তা’


 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

‘হাসপাতাল পরিবর্তন করে অন্যদের সংকটে ফেলবেন না’

অনলাইন ডেস্ক

‘হাসপাতাল পরিবর্তন করে অন্যদের সংকটে ফেলবেন না’

গত সোমবার (১৯ এপ্রিল) রাজধানীর মহাখালীর ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মার্কেটে চালু হয়েছে দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতাল। উদ্বোধনের পর থেকেই অনেক করেনা রোগী চিকিৎসার জন্য ভিড় করছেন এই হাসপাতালটিতে।

হাসপাতালটিতে যেন অন্য হাসপাতালের রোগীরা না আসেন সে জন্য  হাসপাতালটির পরিচালক ব্রিগেডিয়ার নাসির উদ্দিন বলেন, করোনা রোগীরা যারা যে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন সেখানেই থাকুন। মঙ্গলবার হাসপাতালটি পরিদর্শন শেষে এ কথা বলেন তিনি।

এসময় তিনি আরও বলেন, যারা যে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন তারা সেই হাসপাতালেই চিকিৎসা নিন। তারা যেন এখানে না আসেন। এলে নতুন যারা আক্রান্ত হচ্ছেন তাদের সংকট দেখা দেবে। আপনারা যেখানে চিকিৎসা নিচ্ছেন সেখানেই নিন। তবে যারা নতুন আক্রান্ত হচ্ছেন তারা এখানেই সেবা পাবেন।

ব্রিগেডিয়ার নাসির উদ্দিন বলেন, সোমবার থেকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত ১৯২ জন রোগী রিপোর্ট করেছেন। ৮৩ জন রোগীকে আমরা ভর্তি করেছি। ৩৪ জন রোগীকে আমরা আইসিইউতে নিয়েছি। তারমধ্যে ৪ জন মারা গেছেন। এই মুহূর্তে ভর্তি আছে ৭৮ জন। এখন পর্যন্ত ৮০টি আইসিইউ প্রস্তুত আছে।

আরও পড়ুন


কষ্টটা ডায়রির পাতায় শব্দে শব্দে বুনে রেখেছিলাম

বৈঠকতো দূরের কথা, বাবুনগরী কখনোই খালেদা জিয়াকে সামনাসামনি দেখেননি: হেফাজতে ইসলাম

গোদাগাড়ী পৌরসভার মেয়র বাবু মারা গেছেন

প্রয়োজন ছাড়া বের না হলে লকডাউনের প্রশ্নই উঠবে না: মোদি


সরেজমিনে দশ মিনিট অবস্থান নিয়ে দেখা গেছে, এই সময়ে একের পর এক অ্যাম্বুলেন্স এসে দীর্ঘ লাইন লেগে গেছে। এসব অ্যাম্বুলেন্সে আসা অধিকাংশ রোগীরই জটিল পরিস্থিতি।

এ প্রসঙ্গে ব্রিগেডিয়ার নাসির উদ্দিন বলেন, রোগীদের অধিকাংশই সিবিআর সাসপেক্টিভ প্রব্লেম নিয়ে আসছেন। তারা অল্প সময়েই বেশি অসুস্থ হয়ে যাচ্ছেন। অবস্থা জটিল আকার ধারণ করছে।

হাসপাতাল পরিচালক আরও বলেন, শুরুতে ২৫০ শয্যা দিয়েই হাসপাতালের চিকিৎসা কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই আমরা এটাকে পাঁচ শতাধিক শয্যায় পরিণত করব এবং এই মাসের মধ্যেই আশা করা যায় এক হাজার শয্যাই আমরা চালু করতে পারবো।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এই পর্যন্ত ১০৯ সাংসদ করোনায় আক্রান্ত, মৃত্যু চার

নিজস্ব প্রতিবেদক

এই পর্যন্ত ১০৯ সাংসদ করোনায় আক্রান্ত, মৃত্যু চার

করোনা সংক্রমণ রোধে সারাদেশে চলছে সর্বাত্মক লকডাউন। কিন্তু এই লকডাউনের মধ্যে সারা দেশে করোনায় মৃত্যুর সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা।এদিকে এ পর্যন্ত অন্তত ১০৯ জন সাংসদ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। যার মধ্যে করোনয় মৃত্যু হয়েছে চার জনের। আর মন্ত্রিসভার সদস্যদের মধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ সদস্য, এর মধ্যে একজন মারা গেছেন। আক্রান্তদের মধ্যে সংরক্ষিত নারী আসনের সাংসদ ১২ জন(সংরক্ষিত ৫০ জনসহ সংসদের সদস্য মোট ৩৫০ জন)।  সংসদ সচিবালয় ও দলীয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত বছরের ১৩ জুন মারা যান আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, সাবেক মন্ত্রী ও সিরাজগঞ্জ-১ আসনের সাংসদ মোহাম্মদ নাসিম। একই দিনে মারা যান টেকনোক্র্যাট কোটায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ আবদুল্লাহ। আর জুলাইয়ে মারা যান নওগাঁ-৬ আসনের সাংসদ ইসরাফিল আলম। সর্বশেষ ১৪ এপ্রিল মারা গেছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কুমিল্লা-৫ আসনের সাংসদ আবদুল মতিন খসরু। এর আগে গত মাসে মারা যান সিলেট-৩ আসনের সাংসদ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী।

দেশে করোনায় ২০ এপ্রিল পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ১০ হাজার ৫৮৮ জনের আর মোট করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ২৭ হাজার ৭৮০ জনে। 

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর