মিয়ানমারে সেনাশাসন ব্যর্থ করার আহবান জাতিসংঘ মহাসচিবের

অনলাইন ডেস্ক

মিয়ানমারে সেনাশাসন ব্যর্থ করার আহবান জাতিসংঘ মহাসচিবের

জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেস বুধবার এক বিবৃতিতে মিয়ানমারের  সেনা শাসনকে ব্যর্থ করে দিতে আহবান জানান। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা বিবিসির এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানা যায়।

সেনা কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন একটি দেশ শাসন করার উপায় নয় অভ্যুত্থান। সরকারি কর্মকর্তাদের আটকে রেখে এভাবে অন্যায় করাটা আইনের শাসনের ব্যতয়। নির্বাচনের দোহাই দিয়ে এভাবে সামরিক শাসন জারি করা কোনভাবেই  গ্রহণযোগ্য নয়। 

অবিলম্বে দেশটির রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চি-সহ অন্যান্য রাজনীতিবিদদের মুক্তির আহ্বান জানানো হয়েছে ওই বিবৃতিতে।


চুক্তিতে নিককে বিয়ে করেছিলেন প্রিয়াঙ্কা!

আন্তর্জাতিক আদালতে আমেরিকার বিরুদ্ধে বিচার চলবে

রাজধানীর যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না আজ

গাজীপুরে রাতভর ৫ জনের গণধর্ষণের শিকার অভিনয়শিল্পী


এছাড়া দেশ শাসনের নামে ধরকাপড় এবং গণতন্ত্র চর্চায় বাধা দেওয়া আইনের অবক্ষয় বলেও মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিচ।

মঙ্গলবার চীনের ভেটোর কারণে সেনা অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব পাস করতে ব্যর্থ হয় জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। এদিকে, সু চি’র মুক্তির দাবিতে দেশটিতে অব্যাহত আছে বিক্ষোভ প্রতিবাদ। সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জানানো হচ্ছে প্রতিবাদ।

জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিচ জানান, গেল কয়েকদিনে যত মানুষকে আটক করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী সবাইকে দ্রুত মুক্তির আহ্বান জানিয়েছি আমরা। 

সু চি’র বিরুদ্ধে যে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে সেটি গণতান্ত্রিক চর্চাকে বাধাগ্রস্ত করবে। একই সঙ্গে এটি শাসন ব্যবস্থার চরম অবক্ষয়। তাই সংকট সমাধানে বিশ্ব সম্প্রদায়কে আলোচনা চালিয়ে যেতে হবে।

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের নিন্দা প্রস্তাবে ভেটো দিয়েছে চীন। চীন সেনা অভ্যুত্থানের ঘটনাকে মিয়ানমারের অভ্যন্তরীন বিষয় বলেছেন। 

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সুইজারল্যান্ডে বোরখা নিয়ে বিতর্কিত আইন পাস

অনলাইন ডেস্ক

সুইজারল্যান্ডে বোরখা নিয়ে বিতর্কিত আইন পাস

সুইজারল্যান্ডে এক গণভোটে প্রকাশ্যে মুখ ঢাকা পোশাক বা বোরখা নিষিদ্ধের প্রস্তাব পাস হয়েছে। গত রবিবার অনুষ্ঠিত গণভোটে ৫১ দশমিক ২ শতাংশ মানুষ প্রস্তাবটির পক্ষে রায় দিয়েছেন। বিপক্ষে ভোট পড়ে ৪৮ দশমিক ২ শতাংশ।

দেশটির নিয়মানুযায়ী, যে কোনো বিষয়ে এক লাখ মানুষ স্বাক্ষর প্রদান করলে সেই প্রস্তাবের ওপর জাতীয় ভোট অনুষ্ঠিত হয়। দেশটির কট্টর ডানপন্থি দল সুইস পিপলস পার্টি (এসপিপি) পার্লামেন্টে এই প্রস্তাব আনে।

এদিকে মুসলিমবিদ্বেষী এ প্রস্তাব পাস হওয়ায় এই দিনটিকে দেশটির জন্য একটি কালো দিন হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন সুইস ইসলামি গ্রুপের নেতারা।

প্রস্তাব অনুযায়ী, কোনো ব্যক্তি জনসমক্ষে মুখ ঢেকে রাখতে পারবেন না। রেস্টুরেন্ট, স্টেডিয়াম, গণপরিবহন—এমনকি রাস্তায় হাঁটার ক্ষেত্রেও মুখ আবৃত করে এমন পোশাক পরা যাবে না।

তবে ধর্মীয় উপাসনালয় এবং নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যগত কারণে এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে না। অর্থাৎ করোনা থেকে রক্ষায় মাস্ক পরতে কোনো সমস্যা নেই। তবে প্রার্থনাস্থলে এই নিয়মের ছাড় দেওয়া হবে।

সুইজারল্যান্ডে সচরাচর বোরকা, নেকাব পরিহিত নারী তেমন একটা দেখা যায় না। তার পরও এমন প্রস্তাব ওঠা নিয়ে রাজনৈতিক বিতর্ক আছে।

এই বিষয়ে সুইস পিপলস পার্টির সংসদ সদস্য জ্যঁ-লুক অ্যাডোর বলেন, বোরকা পরা খুব বেশি নারী সুইজারল্যান্ডে নেই সেটি সৌভাগ্যের। তার যুক্তি— কোন বিদ্যমান সমস্যা নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার আগেই সমাধান করা উচিত।

ইতিমধ্যে দেশটির দুটি অঞ্চলে নিয়মটি কার্যকর রয়েছে, যা সারা দেশে প্রযোজ্য হবে কিনা সেই বিষয়ে রোববার গণভোট হয়।


আরও পড়ুনঃ


সমালোচনা আমাদের কাজের সফলতা : কবীর চৌধুরী তন্ময়

পাবনায় থাকছেন শাকিব খান

সাধ্যের মধ্যে ৮ জিবি র‍্যামের রেডমি ফোন

কমেন্টের কারণ নিয়ে যা বললেন কবীর চৌধুরী তন্ময়


তবে প্রশাসনিক অঞ্চলের ছয়টিতে বেশিরভাগ মানুষ এই প্রস্তাব সমর্থন করেননি। এর মধ্যে রয়েছে সুইজারল্যান্ডের বড় তিনটি শহর জুরিখ, জেনেভা ও বাসেল।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ব্রিটিশ রাজপরিবারেই বর্ণবৈষম্যের ভয়াবহ চিত্র

অনলাইন ডেস্ক

ব্রিটিশ রাজপরিবারেই বর্ণবৈষম্যের ভয়াবহ চিত্র

বর্ণবাদ মানেই হলো সাদা কালোয় ভেদাভেদ। বিশ্বব্যাপী বর্ণবাদের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। বিশ্বে বিভিন্ন দেশে বর্ণবাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন চলছে। অথচ খোদ ব্রিটিশ রাজপরিবারেই বর্ণবাদের ভয়াবহ চিত্র। 

প্রিন্স হ্যারির স্ত্রী ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মের্কেল ব্রিটিশ রাজপরিবারের বর্ণবৈষম্য নিয়ে বিস্ফোরক সব মন্তব্য নিয়ে আলোচনার ঝড় উঠেছে।

অপরাহ উইনফ্রেকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেছেন, তার ছেলে অর্চির গায়ের রংয়ের জন্য তাকে প্রিন্স বানাতে চায়নি ব্রিটেনের রাজপরিবার।

মেগানের মা কৃষ্ণাজ্ঞ, বাবা শ্বেতাঙ্গ। নিজে কিছুদিন মডেলিং করেছেন। প্রেম করে বিয়ে করেন ব্রিটেনের রাজপুত্র প্রিন্স হ্যারিকে। মেগানের এমন ব্যাকগ্রাউন্ডের কারণে তাকে ভালোভাবে নেয়নি পরিবারটি। এক সময় স্বামীকে নিয়ে আলাদা হয়ে যান তিনি।

রবিবার সিবিএস-এ প্রকাশিত সাক্ষাৎকারে মেগান বলেন, “তারা আমার সন্তানকে প্রিন্স করতে চায়নি। আমি গর্ভবতী থাকতেই এসব আলোচনা শুনতে হয়েছে। ছেলে হবে কি মেয়ে হবে, সেটা কোনও ব্যাপার ছিল না। মূল ব্যাপার ছিল তার গায়ের রং কেমন হবে।”


বিশ্ব নারী দিবস আজ

নারীর কর্মসংস্থান হলেও বেড়েছে নির্যাতন নিপীড়ন

অস্তিত্ব রক্ষায় এখনো সংগ্রামী নারী, তবে আজো ন্যয্যতা আর নিরাপত্তা বঞ্চিত

সাইবার অপরাধের সবচেয়ে বড় ভুক্তভোগী নারীরা


মেগান আরও বলেন, “সন্তানের গায়ের রং নিয়ে উদ্বেগের কথা রাজ পরিবারের বিশেষ কোনও সদস্য তাকে জানিয়েছিলেন।”

তবে সাক্ষাৎকারে ওই ব্যক্তির নাম প্রকাশ করেননি মেগান।

তিনি জানান, “আমার সব থেকে বড় ভুলটি হল আমি রাজ পরিবারকে বিশ্বাস করেছিলাম। ভেবেছিলাম সেখানে আমাকে সুরক্ষিত রাখা হবে।”

গতবছরের জানুয়ারিতে হ্যারি ও মেগান ব্রিটিশ রাজপরিবারের প্রতিনিধিত্ব না করার সিদ্ধান্তের কথা জানান। তারা স্বাধীনভাবে নিজেদের জীবনযাপন করার জন্য ব্রিটিশ রাজপরিবার থেকে বেরিয়ে যান। এখন তারা যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাস করছেন। 

জনপ্রিয় উপস্থাপক অপেরা উনফ্রেকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মগোন এই তথ্য ফাঁস করে দেন।

সূত্র: বিবিসি। 

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সৌদি গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করল ইয়েমেন

অনলাইন ডেস্ক

সৌদি গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করল ইয়েমেন

হুথি আনসারুল্লাহ সমর্থিত সামরিক বাহিনী সৌদি সামরিক জোটের একটি ড্রোন ভূপাতিত করেছে। এই ড্রোনটি নির্মাণকারী দেশ হচ্ছে তুরস্ক। 

ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারিয়ি গতকাল (রোববার) তার টুইটার একাউন্টে দেয়া এক পোস্টে জানিয়েছেন, তার দেশের সামরিক বাহিনী তুরস্কে নির্মিত কারায়েল নামক একটি ড্রোন ভূপাতিত করতে সক্ষম হয়েছে। ড্রোনটি পরিচালনা করেছিল সৌদি নেতৃত্বাধীন কথিত আরব জোট।


বিশ্ব নারী দিবস আজ

নারীর কর্মসংস্থান হলেও বেড়েছে নির্যাতন নিপীড়ন

অস্তিত্ব রক্ষায় এখনো সংগ্রামী নারী, তবে আজো ন্যয্যতা আর নিরাপত্তা বঞ্চিত

সাইবার অপরাধের সবচেয়ে বড় ভুক্তভোগী নারীরা


জেনারেল সারিয়ি জানান, ড্রোনটি জাওফ প্রদেশের আল-মারাজিক এলাকার আকাশে গুপ্তচরবৃত্তি চালাচ্ছিল। ইয়েমেনে তৈরি একটি ক্ষেপণাস্ত্র দিয়েই ড্রোনটি ভূপাতিত করা হয়। তবে এ ক্ষেপণাস্ত্র এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে উন্মোচন করা হয়নি।

২০১৫ সালের মার্চ মাস থেকে সৌদি আরব ও তার কয়েকটি আরব মিত্র দেশ ইয়েমেনের ওপর সামরিক আগ্রাসন চালিয়ে আসছে। তবে ইয়েমেনের হুথি যোদ্ধারা ও তাদের সমর্থিত সেনারা ধীরে ধীরে রুখে দাঁড়িয়েছে এবং ইয়েমেনিরা এখন নিয়মিতভাবে পাল্টা হামলা চালিয়ে আসছে।

২০১৫ সালের মার্চ মাস থেকে সৌদি ও তার মিত্ররা মিলে ইয়েমেনের ওপর সামরিক আগ্রাসন চালিয়ে আসছে। কিন্তু, ইয়েমেনের সাধারণ মানুষ এখন  রুখে দাড়িঁয়েছে। পাল্টা হামলা চালানো শুরু করেছে হুথি যোদ্ধারাও। 

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে ফ্রান্সের এমপি অলিভিয়ের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্ক

হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে ফ্রান্সের এমপি অলিভিয়ের মৃত্যু

ফ্রান্সের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকায় হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে দেশটির ধনকুবের এমপি অলিভিয়ের ডাসাল্ট মারা গেছেন। 

রোববার (৭ মার্চ) স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় নরম্যান্ডি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। অবকাশ যাপনের জন্য ওই এলাকায় তার একটি বাড়ি রয়েছে।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা বিবিসি জানিয়েছে, এ দুর্ঘটনায় পাইলটও নিহত হয়েছেন। তারা দুজন ছাড়া হেলিকপ্টারটিতে আর কেউ ছিলেন না। ব্যক্তিগত একটি ল্যান্ডিং স্টেশন থেকে উড়াল দেয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই সেটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে।

ডাসাল্টের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রো বলেছেন, ‘এ মৃত্যু দেশের জন্য বড় ক্ষতি।’

ফোর্বসের তথ্য অনুযায়ী, এই ফরাসি এমপি প্রায় ৭ দশমিক ৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের মালিক ছিলেন। যা তাকে বসিয়েছিল বিশ্বের ধনীদের তালিকার ৩৬১ নম্বরে।


পশ্চিমবঙ্গের কাছে পর্যাপ্ত পানি থাকবে তখন তিস্তা চুক্তি: মমতা

যে দোয়া পড়লে বিশ্ব নবীর সঙ্গে জান্নাতে যাওয়া যাবে!

খুলনায় সওজ কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি, ক্ষোভ

৭ই মার্চের অনুষ্ঠান থেকে বেড়িয়ে গেলেন অথিতিরা


ডাসাল্টের বাবা সার্জ ডাসাল্ট ছিলেন ফ্রান্সের বিখ্যাত শিল্পপতি। তাদের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানই বহুল পরিচিত রাফাল যুদ্ধবিমানের প্রস্তুতকারক। লে ফিগারো নামের একটি পত্রিকারও মালিক তাদের পরিবার।

২০০২ সালে উত্তরাঞ্চলীয় এলাকা ওইসি থেকে ফরাসি পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষের সদস্য নির্বাচিত হন অলিভিয়ের রাফাল।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

পশ্চিমবঙ্গের কাছে পর্যাপ্ত পানি থাকবে তখন তিস্তা চুক্তি: মমতা

অনলাইন ডেস্ক

পশ্চিমবঙ্গের কাছে পর্যাপ্ত পানি থাকবে তখন তিস্তা চুক্তি: মমতা

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেছেন, তিস্তার পানি বাংলাদেশকে তখনই দেওয়া যাবে যখন পশ্চিমবঙ্গের কাছে পর্যাপ্ত পানি থাকবে। 

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আগামী ২৬ মার্চ বাংলাদেশ সফরের আগে এ মন্তব্য যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন অনেকে।

রোববার (৭ মার্চ) শিলিগুড়িতে এক জনসভায় নরেন্দ্র মোদি সরকারকে আক্রমণ করতে করতে হঠাৎ তিস্তার পানি বণ্টন নিয়ে আসেন ।


যে দোয়া পড়লে বিশ্ব নবীর সঙ্গে জান্নাতে যাওয়া যাবে!

খুলনায় সওজ কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি, ক্ষোভ

৭ই মার্চের অনুষ্ঠান থেকে বেড়িয়ে গেলেন অথিতিরা

সালমান খানের তোয়ালে পরা ছবি ভাইরাল


'আমাদের রাজ্যের সঙ্গে আলাপ না করে একটা তিস্তা চুক্তি ওরা করতে চাইছে এটা কিভাবে সম্ভব? আমরা তখনই তিস্তার পানি দিতে পারব যখন আমাদের কাছে পর্যাপ্ত পানি থাকবে, বললেন মমতা।

'তিস্তা উত্তরবঙ্গের অংশ' মমতা স্লোগান দিয়েছেন আজ।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তাঁর খুব ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক এবং উনাকে শ্রদ্ধা করেন।

এক রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলেন, সামনেই পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচন মমতাজ হঠাৎ পানি বণ্টন নিয়ে মন্তব্য করবেন তার কারণ স্থানীয় রাজনীতি।

উত্তরবঙ্গের ওই বিশ্লেষক আরেও বলেন, বিজেপি তিস্তার পানি বাংলাদেশকে দিতে চায় বলে তিনি বিজেপির বিরুদ্ধে একটা জনমত তৈরি করেছেন।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর