তুরস্কে চীনা দূতাবাসের সামনে উইঘুর মুসলিমদের বৈঠক

অনলাইন ডেস্ক

তুরস্কে চীনা দূতাবাসের সামনে উইঘুর মুসলিমদের বৈঠক

তুরস্কে বসবাসরত উইঘুর মুসলমানরা চীনা দূতাবাসের কাছে দাবি জানিয়েছে, চীন সরকার তাদের পরিবারের সদস্যদের আটককেন্দ্রে নিয়ে গিয়ে কী অবস্থায় রেখেছে, তা জানাতে হবে। আঙ্কারায় নিযুক্ত চীনা দূতাবাসের বাইরে বৈঠক শেষে এ কথা জানায় তারা।

বিক্ষোভকারীদের পক্ষে মির্জাহমেত ইলিয়াসোগলু বলেন, অন্তত ৫১৯৯ জনের ব্যাপারে আমরা জানি। তাদের খোঁজ মিলছে না। চীনা কনস্যুলেটে এই তালিকা জমা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু চীনা কর্মকর্তারা ওই নথি জমা নেয়নি।

এর আগে গত বছরের ডিসেম্বরে প্রায় একশ উইঘুর ইস্তাম্বুলে চীনা কনস্যুলেটের সামনে জমায়েত হয়ে শান্তিপূর্ণভাবে ১৮ দিন অবস্থান করে প্রতিবাদ জানায়। তাদের দাবি ছিল, ২০১৭ সাল থেকে তারা পরিবারের সদস্যদের খোঁজ পাচ্ছে না।


পরকালের যে বিশ্বাসে মমির মুখে সোনার জিভ

ভক্তের নগ্ন ছবির দেখার ইচ্ছে পুরণ করলেন পূজা হেগড়ে

পার্টি আয়োজনই মৃত ছাত্রী ও তার বন্ধুদের পেশা : পুলিশ

ভারতে ৩০ কোটি মানুষের দেহে করোনার অ্যান্টিবডি


এদিকে চীনে উইঘুর আটককেন্দ্রে লাগাতার ধর্ষণ, যৌন হয়রানি ও শারীরিক নির্যাতনের নতুন অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। যদিও চীনের দাবি, বিবিসির যে প্রতিবেদনের ভিত্তিতে নিন্দা করেছে যুক্তরাষ্ট্র, ওই প্রতিবেদন সম্পূর্ণ ভুয়া।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ভারতে আর ১৮ নয়, ২১ বছর পর্যন্ত ছেলের ভরণপোষণের দায়িত্ব বাবার

অনলাইন ডেস্ক

ভারতে আর ১৮ নয়, ২১ বছর পর্যন্ত ছেলের ভরণপোষণের দায়িত্ব বাবার

ভারতের সুপ্রিম কোর্ট রায় দিয়েছে, ১৮ তেই শেষ নয় বরং ২১ বছর বয়স পর্যন্ত ছেলের দায়িত্ব নিতে হবে বাবা-মা কে। এক্ষেত্রে স্নাতক স্তরকে শিক্ষার মাপকাঠি বিবেচনা করা হয়েছে। এই সময় পর্যন্ত ছেলের দেখভাল করতে হবে।

বৃহস্পতিবার দেশটির সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় এবং বিচারপতি এমআর শাহের একটি বেঞ্চ পারিবারিক আদালতের একটি রায়ের পুনর্বিবেচনা করেন। বেঞ্চ জানায়, ১৮ বছর পর্যন্ত ছেলের জন্য আর্থিক ব্যয় যথেষ্ট নয়। কারণ, কলেজ ডিগ্রি তখনও পর্যন্ত পায়না ছেলে। ফলে চাকরি পেতে পারে না তারা। তাই সেই বয়সের সময়সীমাকে ২১ বছর পর্যন্ত করল শীর্ষ আদালত। 

কর্নাটকের এক কর্মচারীকে ছেলের পড়াশোনার ব্যয় বাবদ ২০ হাজার টাকা দিতে বলে পারিবারিক আদালত। তিনি সেটি দিতে চান না। তারপর সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন তিনি।

সেখানে তিনি বলেন, স্ত্রীর বিবাহবহির্ভুত সম্পর্কের কারণে তাদের ২০০৫ সালের জুন মাসে বিবাহবিচ্ছেদ হয়। তখন তাকে ছেলের ভরণপোষণ নিতে হবে, তা সম্পর্কে অবগত ছিলেন না। এরপর দ্বিতীয়বার বিয়ে করার পর দুই সন্তানের জন্ম দেন ওই কর্মচারী। তার মাসিক বেতন যা, তার পক্ষে এই টাকা দেওয়া সম্ভব নয়।


আরও পড়ুনঃ


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

লবণ প্রাসাদ ‘পামুক্কালে’

ইয়ার্ড সেলে মিললো ৪ কোটি টাকার মূল্যবান চীনামাটির পাত্র!

এই নচিকেতা মানে কী? আমি তোমার ছোট? : মঞ্চে ভক্তকে নচিকেতার ধমক (ভিডিও)


কিন্তু তার কোনও কথাই শোনেননি সুপ্রিম কোর্ট। সুপ্রিম কোর্টের বেঞ্জ জানিয়েছেন, এতে প্রথম পক্ষের সন্তান কী দোষ করল? তার যত্ন নিতে হবে।

এরপরই, পুনর্বিবেচনা করে সুপ্রিম কোর্ট জানায়, আর ১৮ নয়, ২১ বছর পর্যন্ত ছেলের দেখভালের দায়িত্ব নিতে হবে।

সূত্র: জি নিউজ

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

পরমাণু সমঝোতায় আমেরিকার অবস্থান জানতে জরুরী বৈঠকে বসার আহ্বান

অনলাইন ডেস্ক

পরমাণু সমঝোতায় আমেরিকার অবস্থান জানতে জরুরী বৈঠকে বসার আহ্বান

ইরানের পরমাণু সমঝোতায় আমেরিকার অবস্থান জানতে অবিলম্বে জরুরি বৈঠক ডাকার আহ্বান জানিয়েছে রাশিয়া। জাতিসংঘের ইউরোপীয় দপ্তরগুলোতে নিযুক্ত রুশ স্থায়ী প্রতিনিধি মিখাইল উলিয়ানোভ এ আহ্বান জানিয়েছেন।

শুক্রবার রাতে ‘রাশা-২৪’ কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় তিনি আরও বলেন, তার দেশ যে জরুরি বৈঠকের দাবি জানিয়েছে তার উদ্দেশ্য আমেরিকাকে পরমাণু সমঝোতায় ফিরিয়ে আনা এবং ইরানকে তার প্রতিশ্রুতি পুরোপুরি বাস্তবায়ন করতে উৎসাহিত করা।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার পশ্চিমা বার্তা সংস্থাগুলো খবর দেয়, আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থা বা আইএইএ’র নির্বাহী বোর্ডের সভায় ইরানবিরোধী প্রস্তাব উত্থাপন থেকে বিরত থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্রিটেন, জার্মানি ও ফ্রান্স। তিন ইউরোপীয় দেশের এই সিদ্ধান্তের ফলে ইরানের পরমাণু সমঝোতা নিয়ে চলমান অচলাবস্থা অবসানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

আরও পড়ুন:


মিয়ানমারে গণতন্ত্র ফেরাতে নিরাপত্তা পরিষদকে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান

শেখ হাসিনা কমনওয়েলথের সেরা তিন নারী নেতার একজন

মঙ্গলগ্রহে যাওয়া যাবে এলন মাস্কের ৩৬ তলা বাড়ির সমান মহাকাশযানে

কাউকে ক্ষমতায় টিকিয়ে রাখতে নয়, লেখালেখি করি দেশের জন্য


মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রশাসন বলছে, পরমাণু সমঝোতা থেকে সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বেরিয়ে যাওয়ার কারণে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে আমেরিকা একঘরে হয়ে পড়েছিল। সে অবস্থার অবসান ঘটানোর জন্য ওয়াশিংটন পরমাণু সমঝোতায় ফিরতে চায়। কিন্তু বাইডেন প্রশাসন আগে ইরানকে তার পরমাণু সমঝোতায় দেয়া প্রতিশ্রুতি পুরোপুরি বাস্তবায়নের আহ্বান জানাচ্ছে।

এদিকে তেহরান বলেছে, আমেরিকা পরমাণু সমঝোতা থেকে পুরোপুরি বেরিয়ে যাওয়ার এক বছর পর থেকে ইরান তার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের পরিমাণ কমাতে শুরু করেছে। কাজেই ফিরে আসার ক্ষেত্রেও আমেরিকাকে অগ্রগামী হতে হবে। মার্কিন সরকার এ সমঝোতায় ফিরে এসে তেহরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করলে ইরানও কয়েক দিনের মধ্যে তার প্রতিশ্রুতিতে পুরোপুরি ফিরে যাবে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মিয়ানমারে গণতন্ত্র ফেরাতে নিরাপত্তা পরিষদকে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান

অনলাইন ডেস্ক

মিয়ানমারে গণতন্ত্র ফেরাতে নিরাপত্তা পরিষদকে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান

মিয়ানমারে সেনা শাসনের চলমান সংকট নিরসন করে জনগণের শাসন প্রতিষ্ঠার জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নিতে নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মিয়ানমার বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূত ক্রিস্টাইন বারজেনার। মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর হাতে বেশ কিছু বিক্ষোভকারী নিহত হওয়ার পর এই আহ্বান জানান তিনি।

ক্রিস্টাইন রারজেনার স্পষ্ট করে বলেছেন, মিয়ানমারের পরিস্থিতি মানবিক সংকটের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, দ্রুত এ অবস্থা ঠেকানো দরকার। গতকাল জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বারজেনার আরো বলেন, মিয়ানমার বিষয়ে আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে এখন ঐক্য প্রতিষ্ঠা বেশি জরুরি।

জাতিসংঘের এ বিশেষ দূত বলেন, “আমি প্রতিদিন অন্তত ২,০০০ বার্তা পাচ্ছি যাতে মিয়ানমার বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়ার জন্য দেশটির নারী, পুরুষ, শিক্ষার্থী নির্বিশেষে সমাজের সাধারণ মানুষ মিয়ানমার বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে এবং তারা এই আস্থা রাখছে যে, জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ মিয়ানমার বিষয়ে কিছু করবে।”

আরও পড়ুন:


শেখ হাসিনা কমনওয়েলথের সেরা তিন নারী নেতার একজন

মঙ্গলগ্রহে যাওয়া যাবে এলন মাস্কের ৩৬ তলা বাড়ির সমান মহাকাশযানে

কাউকে ক্ষমতায় টিকিয়ে রাখতে নয়, লেখালেখি করি দেশের জন্য

সৌদির কিং খালিদ বিমানঘাঁটিতে ২৪ ঘন্টায় ৩ বার ড্রোন হামলা ইয়েমেনের


গত ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী ন্যাশনাল লীগ ফর ডেমোক্রেসির নেত্রী অং সাং সুচি-সহ বহু রাজনৈতিক নেতা ও মন্ত্রীকে আটক করে এবং সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইং রাষ্ট্রক্ষমতা গ্রহণ করেন। মিয়ানমারের সাধারণ জনগণ সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে রাজপথে নেমেছে এবং এ পর্যন্ত বহু মানুষ নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে নিহত হয়েছে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

শেখ হাসিনা কমনওয়েলথের সেরা তিন নারী নেতার একজন

অনলাইন ডেস্ক

শেখ হাসিনা কমনওয়েলথের সেরা তিন নারী নেতার একজন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কমনওয়েলভুক্ত ৫৪টি দেশের সরকারপ্রধানদের মধ্যে সবচেয়ে অনুপ্রেরণাদায়ী তিন নারী নেতার একজন নির্বাচিত হয়েছেন। করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে অনন্য নেতৃত্বগুণ দেখানোয় তাকে এই স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে লন্ডনের বাংলাদেশ হাইকমিশন।

কমনওয়েলথ মহাসচিব পেট্রেসিয়া স্কটল্যান্ড কিউসি আন্তর্জাতিক নারী দিবস-২০২১ সামনে রেখে গত ৪ মার্চ এক বিশেষ ঘোষণায় তিন সরকারপ্রধানকে করোনাকালে ‘অসাধারণ নারী নেতৃত্ব ও গভীর অনুপ্রেরণাদায়ী’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

তিনি বলেন, আমি অনেক নারী এবং মেয়ের মাধ্যমে অনুপ্রাণিত হয়েছি। তারপরও আমাদের কমনওয়েলথের তিনজন বিস্ময়কর নেতার নাম বলতে চাই- নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডেন, বার্বাডোজের প্রধানমন্ত্রী মিয়া আমোর মোটলে এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আরও পড়ুন:


মঙ্গলগ্রহে যাওয়া যাবে এলন মাস্কের ৩৬ তলা বাড়ির সমান মহাকাশযানে

কাউকে ক্ষমতায় টিকিয়ে রাখতে নয়, লেখালেখি করি দেশের জন্য

সৌদির কিং খালিদ বিমানঘাঁটিতে ২৪ ঘন্টায় ৩ বার ড্রোন হামলা ইয়েমেনের

চাকরি দেবে এসকেএফ ফার্মাসিউটিক্যালস


এই তিন নেতা করোনাকালে যার যার দেশে নিজ নিজ ভূমিকায় অসাধারণ দক্ষতা দেখিয়েছেন বলেও উল্লেখ করেন কমনওয়েলথ মহাসচিব।

পেট্রেসিয়া বলেন, অনেক নারীর পাশাপাশি এই তিন নেতা আমাকে এমন একটি বিশ্বের আশা দিয়েছেন, যা নারী-পুরুষদের জন্য একটি সুন্দর ভবিষ্যৎ তৈরি করবে এবং আমাদের সার্বজনীন মঙ্গলের জন্য কাজ করবে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ব্রিটেনে আবারো করোনার নতুন স্ট্রেন

অনলাইন ডেস্ক

ব্রিটেনে আবারো করোনার নতুন স্ট্রেন

করোনার নতুন স্ট্রেনের মধ্যে আবারো আসলো আরেকটি স্ট্রেন। নতুন স্ট্রেনটি সম্পর্কে এখনো বেশ কিছু জানা যায়নি। তবে এটা ব্রিটেনেই উৎপত্তি হয়েছে বলে প্রাথমিক ধারণা বিজ্ঞানীদের। 

এখনো পর্যন্ত ১৬ জনের শরীরে এই নতুন স্ট্রেন পাওয়া গেছে। নতুন এই স্ট্রেন নিয়ে এরই মধ্যে গবেষণা শুরু করে দিয়েছেন ব্রিটিশ বিজ্ঞানীরা। বিস্তারিত তত্ত্ব প্রকাশ্যে না আসা পর্যন্ত আপাতত এই নয়া স্ট্রেনটিকে ‘ভ্যারিয়েন্ট আন্ডার ইনভেস্টিগেশন’ বা ‘ভইউআই’ বলেই অভিহিত করছে ইংল্যান্ডের জনস্বাস্থ্য দফতর। আপাতত ‘ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন (ভিওসি)’ বা উদ্বেগজনক স্ট্রেনের তালিকায় না-থাকায় তা নিয়ে এখনই আতঙ্কের কারণ নেই বলেই আশ্বস্ত করা হয়েছে দফতরের তরফে।

তবে যে হারে মিউটেট করে নিজেদের চরিত্র বদল করছে করোনাভাইরাস তাতে কপালে ভাঁজ পড়েছে বিজ্ঞানীদের। আরও সংক্রমক হয়ে ওঠার লক্ষ্যে ভবিষ্যতেও যে এই ‘রূপ পরিবর্তন’ চলতেই থাকবে তা নিয়েও এক প্রকার নিশ্চিত তাঁরা। এর প্রভাব বর্তমান প্রতিষেধকগুলির কার্যকারিতার শতাংশে হেরফের আনলেও অবাক হওয়ার কিছু নেই বলেই মত গবেষকদের।

সেই পরিপ্রেক্ষিতে আগামী দিনে একাধিক নয়া স্ট্রেনের বিরুদ্ধে রক্ষার দাবি রাখা কার্যকর এবং নিরাপদ প্রতিষেধকগুলিকে জরুরি ভিত্তিতে অনুমোদন দিতে যাতে বাড়তি সময় নষ্ট না-হয় তার জন্য আরও চার দেশের বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধিদের সঙ্গে হাত মিলেয়েছে ব্রিটেনের ‘মেডিসিন‌স অ্যান্ড হেলথকেয়ার প্রডাক্টস রেগুলেটরি এজেন্সি’ (এমএইচআরএ)। বৃহস্পতিবার এই জোটের কথা প্রকাশ করে ব্রিটেন। সহযোগী দেশগুলি হল অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, সিঙ্গাপুর এবং সুইজারল্যান্ড।


‘চুম্বন বা অন্তরঙ্গ দৃশ্যয়নের আগে একান্তে সময় কাটাই’

শেবাগ-শচিনের জুটিই হারিয়ে দিল বাংলাদেশকে

মন্ত্রী ও বিধায়ককে বাদ দিয়ে প্রার্থী চূড়ান্তে মমতার চমক!

শনিবার ঢাকার যে এলাকায় যাবেন না


এ দিকে বিশ্ব জুড়ে এই অতিমারি ছড়ানো ভাইরাসটির প্রথম স্ট্রেন অর্থাৎ ‘উহান স্ট্রেন’-এর উৎপত্তি অনুসন্ধানে চিনের উহান শহরে পাড়ি দেওয়া তাদের বিশেষজ্ঞ দলের মধ্যবর্তী রিপোর্ট প্রকাশের পরিকল্পনা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। বৃহস্পতিবার এমনটাই দাবি করেছে আমেরিকার এক প্রথম সারির দৈনিক। 

হু-এর তরফে আগে জানানো হয়েছিল, বিজ্ঞানী দলটি কী কী তথ্য পেয়েছে, তার সারাংশ নিয়ে একটি রিপোর্ট প্রকাশ করা হবে। পরে বিস্তারিত রিপোর্টটি প্রকাশিত হবে। যে পরিকল্পনা আপাতত বাস্তবায়িত হচ্ছে না বলেই দাবি সংবাদপত্রটির। বরং সম্পূর্ণ রিপোর্টই একবারে প্রকাশ করা হবে। যদিও সেই রিপোর্টটিও প্রকাশ করতেও বা এত সময় লাগছে কেন, তা নিয়ে বাড়ছে ধোঁয়াশা। উঠছে প্রশ্ন।

ওই সংবাদপত্রটির আরও দাবি, আন্তর্জাতিক বিজ্ঞানীদের একটি দল খোলা চিঠিতে করোনার উৎপত্তি সংক্রান্ত তদন্তটি নতুন করে করার দাবি জানান। ওই বিজ্ঞানীদের মতে, গত মাসে হু-র বিজ্ঞানীদের দলটি উহানে গিয়েছিল ঠিকই কিন্তু তাদের নিজেদের মতো করে তদন্ত চালাতে দেওয়া হয়নি। 

অনেক জায়গাতে পৌঁছতেই দেওয়া হয়নি ওই বিজ্ঞানীদের। বেশির ভাগ সময়েই চিনের বিজ্ঞানীদের কথার উপর নির্ভর করেই তদন্ত চালাতে বাধ্য হয়েছেন তাঁরা। তবে চিনের ওই বিজ্ঞানীদেরও যে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছে তেমনটা নয়। সেই প্রেক্ষিতে ওই তদন্তের স্বার্থকতা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন এই বিজ্ঞানীরা।

মহামারির সঙ্কট এখনও কাটেনি। তা সত্ত্বেও করোনা-বিধিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে শুক্রবার মাস্ক-ছাড়াই জনসমক্ষে এসে বিতর্কের জন্ম দিলেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিং পিং। তিনি প্রতিষেধক নিয়েছেন কি না স্পষ্ট নয়। ফলে প্রশ্ন উঠেছে, চীনের সর্ববৃহৎ রাজনৈতিক সমাবেশে গিয়ে মাস্ক ছাড়াই দেশের নানা প্রান্ত থেকে আসা প্রতিনিধিদের সঙ্গে শি জিং পিং কীভাবে সাক্ষাৎ করলেন। 

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর