ফোনে ৮হাজার আপত্তিকর ছবি

প্রতারক বেলালের খপ্পড়ে পুড়ল শত নারীর কপাল

৮ বছরে ১০০ নারীর সঙ্গে প্রতারণা

অনলাইন ডেস্ক

প্রতারক বেলালের খপ্পড়ে পুড়ল শত নারীর কপাল

বরিশালের বেলাল পরিচয় দেন সরকারি কর্মকর্তা বলে। এরপর ফেসবুকে পরিচয়ের সুত্র ধরে বন্ধুত্ব সেখান থেকে প্রেম। এরপর আপত্তিকর ছবি ধারণ ও সর্বশেষ সেই ছবি পরিবারের কাছে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে করেন টাকা আদায়। তাও আবার  চল্লিশোর্ধ্ব নারীদের থেকে। এভাবেই গত ৮ বছরে প্রায় শতাধিক নারীর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে ব্ল্যাকমেইল করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়েছেন বরিশালের বেলাল হোসেন। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় বেলালকে গ্রেফতারের পর পুলিশ বলছে, চল্লিশোর্ধ্ব নারীদের টার্গেট করতেন বেলাল। বেলালের ফোনে পাওয়া গেছে ৮হাজার আপত্তিকর ছবির সন্ধান!

মাস তিনেক আগে রাজধানীর যাত্রাবাড়ির এক নারীর সঙ্গে বরিশালের বেলাল হোসেনের ফেসবুকে পরিচয় হয়। বিয়ের প্রলোভনে ওই নারীর গোপন ছবি তুলে ব্ল্যাকমেইল করার অভিযোগে থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগী নারী।

অভিযোগটি আমলে নিয়ে অভিযুক্ত বেলাল হোসেনকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ। ফেসবুকে একের পর এক নারীর সঙ্গে বন্ধুত্বের নামে প্রতারণার বিষয়টি স্বীকার করে বেলাল।


পার্টি আয়োজনই মৃত ছাত্রী ও তার বন্ধুদের পেশা : পুলিশ

দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ ‌জুমার দিনে ‘সূরা কাহাফ’ তেলাওয়াতের ফজিলত

দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ ‌`জুমার’ দিনে যা করবেন

প্রতিদিন সকালে যে দোয়া পড়তেন বিশ্বনবি


অভিযুক্ত বেলাল হোসেন বলেন, ফেসবুকে পরিচয় হয় সেখান থেকে বন্ধুত্ব স্থাপন করি। পরে শারীরিক সম্পর্ক হয়। এরপর ২০ হাজার টাকা চাই। না দিলে তার ছেলেমেয়েকে ফোন করে বলে দেওয়ার হুমকি দেই। বেলালের ফেসবুক ও ইমোতে প্রায় ৮ হাজার ছবি পাওয়া গেছে। যার প্রায় সবই আপত্তিকর। গত ৮ বছরে ১০০ নারীর সঙ্গে প্রতারণার তথ্য পাওয়া গেছে।

গোয়েন্দা মতিঝিল বিভাগ উপকমিশনার মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে আমরা সত্যতা পেয়েছি। তার মোবাইলে এবং ইমো, ওয়াটসঅ্যাপে বিভিন্ন আপত্তিকর ছবি পেয়েছি। গত আট বছরে শতাধিক নারীর সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। বেলাল মধ্যবয়সী নারীদের টার্গেটে করে এ ধরনের প্রতারণার কাজ করে আসছিল।

ছবি দেখিয়ে প্রতারণার পর নিজেই পুলিশ সেজে সহযোগিতার কথা বলে আবারও টাকা হাতিয়ে নিত বেলাল। টাকা না দিলে পরিবারকে সব তথ্য ফাঁস করার হুমকি দিত।

পুলিশ বলছে, বেলালের এই প্রতারণা থেকে বাদ যায়নি তার স্বজনরাও।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মেয়েকে কখনো নিজ বাড়িতে, কখনো ঢাকা-চট্টগ্রামে যৌন কাজে পাঠাতেন মা

অনলাইন ডেস্ক

মেয়েকে কখনো নিজ বাড়িতে, কখনো ঢাকা-চট্টগ্রামে যৌন কাজে পাঠাতেন মা

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার আলাইয়াপুর ইউনিয়নে মাদ্রাসাছাত্রীকে একাধিক বার গণধর্ষণ, ভিডিও ধারণ ও অপহরণের ঘটনায় দায়ের করা মামলার বাদী বিউটি আক্তারের বিরুদ্ধে এবার মামলা করেছে পুলিশ।

অভিযোগ রয়েছে বিউটি নিজের মেয়েকে (১৭) জোরপূর্বক যৌন ব্যবসায় বাধ্য করে। মামলায় বিউটি ছাড়াও আলাইয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমানসহ আরও পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে বেগমগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমিন বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন। পুলিশ জানায়, মামলায় অভিযুক্ত ১ নম্বর আসামি গত বৃহস্পতিবার রাতে তার মেয়েকে (১৭) ধর্ষণ, বিবস্ত্র করে ছবি ধারণ ও অপরহরণ করা হয়েছে অভিযোগ এনে চারজনের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন। মামলার সূত্র ধরে অভিযান চালিয়ে আসামি ফয়সাল, সাইফুল ইসলাম ইমন ও জোবায়েরকে গ্রেপ্তার করা হয়।


১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

সবইতো চলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন ঈদের পরে খুলবে: নুর

আইন চলে ক্ষমতাসীনদের ইচ্ছেমত: ভিপি নুর

রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ


পুলিশ জানায়, গত শনিবার সন্ধ্যায় ঢাকার সাভারের পূরগাও এলাকার রুবি নামের একজনের বাসা থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরদিন ভিকিটিম অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালত-৩ এ বিচারকের কাছে স্বেচ্ছায় ২২ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেন।

পুলিশ আরও জানায়, জবানবন্দি ও মামলার তদন্ত করতে গিয়ে জানা গেছে ২০১৮ সালে ভিকটিম ধীতপুর দারুল উলুম দাখিল মাদ্রাসায় অষ্টম শ্রেণিতে পড়া লেখা করত। ২০১৭ সাল থেকে ২৮ ডিসেম্বর ২০২০ সাল পর্যন্ত ভিকটিমকে দিয়ে তার মা বিউটি আক্তার জোর করে টাকার বিনিময়ে দেহ ব্যবসা করাত। বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে টাকা নিয়ে নিজের মেয়েকে কখনো নিজ বাড়িতে, কখনো ঢাকা-চট্টগ্রামের যৌন কাজের জন্য পাঠাতেন বিউটি।

বিষয়টির প্রতিবাদ করলে কয়েকবার ভিকটিমের হাত-পা বেঁধে মারধর করেন বিউটি। আগের মামলার সাক্ষী ও বর্তমান মামলার আসামি মোজ্জামেল হোসেন বিউটিকে টাকা দিয়ে ঘরে এসে ওই ছাত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করতেন। একরাতে মোজাম্মেলের সঙ্গে যৌন কাজে লিপ্ত হলে স্থানীয় ফয়সাল ও জোবায়ের দেখে তাদের দুইজনের বিবস্ত্র ছবি ও ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে। পরে তার মোজাম্মেলকে বের করে দিয়ে ওই রাতে ভিকটিমকে গণধর্ষণ করে ফয়সাল ও জোবায়ের। পরে বিউটি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আনিসুর রহমানের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তার বাড়িতে পাঠায় ওইছাত্রীকে। চেয়ারম্যান আনিস নিজ বাড়িতে রেখে একাধিকবার ধর্ষণ করে ভিকটিমকে।

এদিকে ঘটনার প্রতিবাদ ও বিচারের দাবিতে আজ বিকেলে আলাইয়াপুর ৬ নম্বর ওয়ার্ড নাফিতের পোল এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও হীরাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করে স্থানীয় এলাকাবাসী।

পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রুহুল আমিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ভিকটিম ও গ্রেপ্তারকৃত আসামিদের জবানবন্দির আলোকে পতিতাবৃত্তির উদ্দেশ্যে ওই ছাত্রীকে শারীরিক নির্যাতন, আটক রেখে পতিতাবৃত্তিতে বাধ্যকরণ, অবৈধভাবে অর্থের বিনিময়ে যৌন শোষণ ও স্থানান্তরিত করে যৌনকর্ম করার অপরাধে বিউটি ও চেয়ারম্যানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে মানব পাচার ও দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ পরিদর্শক আরও জানান, ঘটনায় গ্রেপ্তার বিউটিকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। চেয়ারম্যান আনিসসহ মামলার অপর আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান সিকদার জানান, মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণ, অপরহণ, নগ্ন ভিডিও ধারণের ঘটনায় আগে দুটি ও মানব পাচার দমন আইনে আরও একটি মামলা হয়েছে। মামলায় মোট পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রংপুর শহরে পিটিয়ে টাকা ছিনতাই

রেজাউল করিম মানিক, রংপুর

রংপুর শহরে পিটিয়ে টাকা ছিনতাই

রংপুর মহানগরীর লক্ষী হল গলিতে নাসির নামে এক ড্রাইভারকে পিটিয়ে ৩০ হাজার টাকার মোবাইল ফোনসহ ৫ হাজার টাকা ছিনতাই করেছে দুর্বৃত্তরা।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

যশোরের চৌগাছায় ইউপি সদস্য সাময়িক বহিস্কার

রিপন হোসেন, যশোর

যশোরের চৌগাছায় ইউপি সদস্য সাময়িক বহিস্কার

চৌগাছার ফুলসারা ইউনিয়নের চার নম্বর ওয়ার্ডের (জামিরা গ্রাম) সদস্য, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন ওরফে আনারকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ।

চালের কার্ড, বয়স্কভাতা, বিধবাভাতা, প্রতিবন্ধীভাতা, কাবিখা, ভিজিডি ও মাতৃত্বকালীন ভাতা দেওয়ার নাম করে ওয়ার্ডের বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ স্থানীয় তদন্তে প্রমাণিত হয়।


সবইতো চলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন ঈদের পরে খুলবে: নুর

আইন চলে ক্ষমতাসীনদের ইচ্ছেমত: ভিপি নুর

রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ


এরপর গত ১১ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় সরকার বিভাগের ইপ-১ অধিশাখার সিনিয়র সহকারী সচিব মো. আবু জাফর রিপন স্বাক্ষরিত স্মারক নং ৪৬,০১৭,০২৭,০০,০০,০২৮,২০১৪(অংশ-১)-১৯৬ এক প্রজ্ঞাপনে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রকৌশলী এনামুল হক বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চৌগাছায় ৮ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক

রিপন হোসেন, যশোর

চৌগাছায় ৮ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক

যশোরের চৌগাছায় সাত কেজি আট’শ নব্বই গ্রাম গাঁজাসহ রাসেল (২০) ও জনি (২০) নামে দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। 

আটক রাসেল উপজেলার স্বরুপদাহ ইউনিয়নের মাশিলা গ্রামের খোকা জাহাঙ্গীরের ছেলে। আর জনি একই গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে।

চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম সবুজ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সংবাদ পেয়ে এসআই বিকাশ চন্দ্র ও এসআই মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে পুলিশ অভিযান চালায়। এসময় অভিনব কায়দায় ইঞ্জিনচালিত ভ্যানের নিচে বাঁধা অবস্থায় সাত কেজি আট’শ নব্বই গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করা হয়। এসময় গাঁজা বহনকারী দুই মাদক ব্যবসায়ী রাসেল ও জনিকে আটক করা হয়।


রাজশাহীতে চলছে বিএনপির মহাসমাবেশ

করোনায় দেশে আরও ৭ জনের মৃত্যু

বিমানের মধ্যেই মৃত্যু, পাকিস্তানে ভারতীয় বিমানের জরুরি অবতরণ

কুয়েতে দিনার ছিটিয়ে ‘অশ্লীল নাচ’, ৪ বাংলাদেশিকে খুঁজছে দূতাবাস


ওসি আরো জানান, আটকরা জানিয়েছে তারা একজন ব্যবসায়ীর হয়ে মাশিলা সীমান্তের গদাধারপুর থেকে চৌগাছা-মাশিলা সড়ক দিয়ে চৌগাছা হয়ে চুড়ামনকাঠি পৌঁছে দিচ্ছিলো।

এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে। মূল মালিককে আটকের চেষ্টা চলছে। আসামিদের বুধবার আদালতে পাঠানো হবে বলেও জানান তিনি।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

পরকিয়া আসক্ত স্ত্রীর মামলা : স্বামীর সংবাদ সম্মেলন

অনলাইন ডেস্ক

পরকিয়া আসক্ত স্ত্রীর মামলা : স্বামীর সংবাদ সম্মেলন

পরকিয়াতে আসক্ত স্ত্রীর করা অপপ্রচার, হয়রানি ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে স্ত্রীর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছে ওই নারীর স্বামী মো. শাহদাত হোসেন করিম ও তার শ্বশুর-শাশুড়ি। 

মঙ্গলবার (০২ মার্চ) দুপুরে বাগেরহাট প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মো. শাহদাত হোসেন করিম। 

সংবাদ সম্মেলনে মো. শাহদাত হোসেন বলেন, ২০২০ সালের ৭ জুন বাগেরহাট মোরেলগঞ্জ উপজেলায় ওই নারীর (২৭) সঙ্গে ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক আমার বিয়ে হয়। স্ত্রীর ঢাকার পত্রিকায় চাকরির সুবাদে সে ঢাকাতে থাকত। বিয়ের মাত্র দেড় মাস পর আমার স্ত্রী পরকীয়ায় আসক্ত হয়। সংসার বাঁচাতে উপায়ন্তু না পেয়ে আমি তাকে আমার গ্রামের বাড়ি পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার উদয়তারা বুরিরচরে নিয়ে আসি। ব্যবসার কাজে তাকে বাড়িতে রেখে আমি ঢাকাতে আসি। আর এ সুযোগে সে বাড়ি থেকে তার কাপড় চোপড়, ৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও বাড়ির কাজের জন্য রাখা ৫ লাখ ৩০ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে আসে। 


গুপ্তচরবৃত্তির ইসরাইলি জাহাজে ইরানের হামলা!

ওটিটি প্ল্যাটফর্মেও ডাবল ব্লকবাস্টার দৃশ্যম টু!

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে পাক-ভারত!

অপো নতুন ফোনে থাকছে ১২ জিবি র‌্যাম


 

তিনি বলেন, পরবর্তীতে আমি মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে সে আমার সাথে খারাপ ব্যবহার করে। বিষয়টি আমার শ্বশুর-শাশুড়িকে জানাই। আমি আমার স্বর্ণালংকার ও টাকার জন্য চাপ দিলে একই বছর ১২ অক্টোবর আমার বৃদ্ধ মা ও আমাকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আমার শ্বশুর-শাশুড়ি আমাকে নির্দোষ বলে আদালতে সাক্ষ্য দেয়।

পরবর্তীতে আমার স্ত্রীর না রাজির ভিত্তিতে আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে দায়িত্ব দেয়। পিবিআই মামলাটির তদন্ত করে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা রিপোর্ট প্রদান করে। আমি এই মিথ্যা মামলা থেকে বাঁচতে চাই। আমাদের নামে বিভিন্ন মিডিয়ায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ ও প্রচার করে সামাজিকভাবে হেয় করছে।

শাহদাতের বোন রেশমা আক্তার ও ভাই শহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা চেয়েছিলাম ছোট ভাইয়ের বউ বাড়িতে মাকে নিয়ে থাকবেন। কিন্তু মায়ের সাথে তো থাকলই না। বরং এখন আমাদের উল্টো হেনস্থা করছে। আমরা এই মিথ্যা মামলা থেকে বাঁচতে চাই।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত স্ত্রী বলেন, আমার স্বামী অনেকগুলো বিয়ে করেছে। বিয়ে করা তার নেশা। মামলা থেকে বাঁচতে সে আমার নামে এসব অভিযোগ করে বেড়াচ্ছেন।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর