স্বজনদের সামনে যুবককে কুপিয়ে খুন

অনলাইন ডেস্ক

স্বজনদের সামনে যুবককে কুপিয়ে খুন

গাজীপুরে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে খুনের ঘটনা ঘটেছে। পরে মরদেহের ময়নাতদন্ত করাতে নেওয়া হয়েছে হাসপাতাল মর্গে।

গাজীপুর জেলা শহরের শধ্য ছায়াবীথি এলাকায় বসবাস করছিলেন সেনেটারি মিস্ত্রি সাদেক হোসেন।

আরও পড়ুন:


স্তন ঝুলে যায় কেন?

দুম‌ড়ে গেল অ‌টোবাইক, মৃত্যু হলো মা-মেয়ের

৯টা-৫টা ডেস্ক ওয়ার্ক সম্ভব না: ভারতের সর্বকনিষ্ঠ পাইলট

প্রথমে দুই স্ত্রীর ঝগড়া, পরে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন


বৃহস্পতিবার রাতে নিজ বাসা থেকে পাশের শশুরের বাসায় যাবার পথে সাদেক হোসেনের সঙ্গে দেখা হয় একই এলাকার ‘বখাটে’ কাওসারের। বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয় স্বজনদের সামনে।

জিএমপি’র সদর থানার ওসি মোবাইল বলছেন, অভিযুক্ত যুবককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। নিহত সাদেকের গ্রামের বাড়ি শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার বাঁকাকোড়া গ্রামে। আর অভিযুক্ত কাওসারের বাসা নগরের পশ্চিম ভুরুলিয়া এলাকায়।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

জামালপুরে এক কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

তানভীর আজাদ মামুন, জামালপুর

জামালপুরে এক কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

জামালপুরে ১৫ বছর বয়সী এক অজ্ঞাত কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সকালে শহরের মনিরাজপুর মোড় এলাকার একটি মেহগনির বাগান থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়েছে। 


সাই পল্লবীর ফাঁস হওয়া ভিডিও ভাইরাল (ভিডিও)

আনুশকাকে ধর্ষণের পর হত্যা দিহানের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন পেছাল

ডিভোর্সের গুঞ্জনের মধ্যেই নতুন প্রেমে জড়ালেন শ্রাবন্তী!

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন স্থগিতের আহ্বান জাতিসংঘের


জামালপুর সদর থানার ওসি মো. রেজাউল ইসলাম খান জানান, ভোরে মসজিদ থেকে ফেরার সময় মুসল্লিরা প্রথমে লাশটি দেখতে পান। পরে স্থানীয়রা খবর দিলে অজ্ঞাত কিশোরীর লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা।

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ধর্ষণ মামলা থেকে রক্ষা পেতে বিয়ে!

মোঃ নাজমুল ইসলাম নয়ন,দিনাজপুর

 ধর্ষণ মামলা থেকে রক্ষা পেতে বিয়ে!

শিক্ষক দ্বারা শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলা থেকে রক্ষা পেতে বিয়ে। পরবর্তীতে ৭ লক্ষ টাকা যৌতুক এর দাবি। যৌতুক দিতে না পারায় মেয়েকে স্বামীর বাড়ীতে পাঠাতে পারেনি পিতা। কিছুদিন পরে তালাক এর নোটিশ পাঠিয়ে দেয় বর। এমনই ঘটনা ঘটেছে দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়ী উপজেলায় ।

অবশেষে যৌতুকের দাবিতে মেয়েকে নির্যাতনের অভিযোগ এনে ফুলবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। ফুলবাড়ী উপজেলার আখিঁঘোটনা গ্রামের এক পিতা গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ফুলবাড়ী থানায় যৌতুকের দাবিতে মেয়েকে নির্যাতনের অভিযোগ এনে মামলা করেছেন। 

মামলায় মেয়ের পিতা মোঃআবদুর রশিদ মন্ডল উল্লেখ করেছেন, দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলার গঙ্গাদাশপুর গ্রামের মোঃ খবির উদ্দিনের ছেলে দেশমা দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজি শিক্ষক মোঃ আবুল কালাম আজাদ (৩৬) এর কাছে বাদির নাবালিকা মেয়ে প্রাইভেট পড়ত। এ সময় সে তার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলে। 


সাই পল্লবীর ফাঁস হওয়া ভিডিও ভাইরাল (ভিডিও)

আনুশকাকে ধর্ষণের পর হত্যা দিহানের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন পেছাল

ডিভোর্সের গুঞ্জনের মধ্যেই নতুন প্রেমে জড়ালেন শ্রাবন্তী!

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন স্থগিতের আহ্বান জাতিসংঘের


পরে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়ে গেলে শিক্ষক মোঃ আবুল কালাম আজাদের পরিবারের সদস্যরা বিয়ের প্রস্তাব দেন। সে সময় সামাজিকতা ও পারিপার্শ্বিকতার কথা বিবেচনা করে গত ২৬  ফেব্রুয়ারি ২০২০ ইং তারিখে মেয়েকে তার সঙ্গে বিয়ে দেন। বিয়েতে ৩ লাখ ৯৯ হাজার ৯৯৯ টাকা দেনমহর ধার্য করা হয়। 

বিয়েতে উপটৌকন নগদ ২ লক্ষ টাকা ও আসবাবপত্র প্রদান করেন। এরপরও মেয়েকে তারা নিয়ে যায়নি। পরে মেয়েকে নিয়ে যাওয়ার কথা বললে তারা ৭ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবি করেন। এ নিয়ে গত ১৫ জানুয়ারী ২০২১ ইং তারিখে বাদীর বাসায় আলোচনায় বসে আবারো ৭ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবি করেন। একই সঙ্গে তারা জানায় ৭ লক্ষ টাকা যৌতুক না দিলে তারা মেয়েকে নিয়ে যাবেননা। 

এই ঘটনায় মেয়ের পিতা মেয়ের স্বামী শিক্ষক মোঃ আবুল কালাম আজাদ, তার পিতা খবির উদ্দিন (৬৫),মা মোছাঃ মজিরন বেগম(৫৮), মেয়ের ভাসুর মজিবর রহমান, লুৎফর রহমান ও জা সেলিনা বেগমের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০এর ১১(গ)/৩০ ধারায় মামলা দায়ের করেছেন। এ বিষয়ে মেয়ের পরিবার সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান।

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কলেজ ছাত্রীকে হত্যা

অনলাইন ডেস্ক

প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কলেজ ছাত্রীকে হত্যা

প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কারমাইকেল কলেজের ছাত্রী রুবাইয়া ইয়াসমিন রিমুকে মোটরসাইকেল থেকে ফেলে হত্যা করেছে দুই যুবক।

সোমবার বিকালে নীলফামারী জেলার জলঢাকা উপজেলার কচুকাটা গ্রামে এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়। স্থানীয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় এক যুবক জানান, কারমাইকেল কলেজের বাংলা অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রিমু বিকালে যখন টিউশনি করে বাড়ি কচুকাটা সড়কে ফিরছিল তখন ওঁৎ পেতে ছিল প্রতিবেশী দুই যুবক। এরা হলেন কচুকাটা ইউনিয়নের আব্দুল্লা হোসেনের ছেলে ফয়সাল হোসেন ও তার বন্ধু জাহিদুল হোসেনের ছেলে রেজভি হোসেন।

আরও পড়ুন:


এখনো ইরান ও আমেরিকাকে নিয়ে বসতে চান বোরেল

সৌদি যুবরাজের শাস্তি চাইলেন খাশোগির বাগদত্তা চেঙ্গিস

৫ খাল থেকে দুই মাসে পৌনে ২ লাখ টন বর্জ্য অপসারণ

মঙ্গলবার রাজধানীর যেসব এলাকার মার্কেট বন্ধ থাকবে


তারা দু'জনে রুবাইয়া ইয়াসমিন রিমুকে জোড় করে মোটরসাইকেলে তুলে জলঢাকা সড়কে নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে রিমু যেতে না চাইলে তাকে মোটরসাইকেল থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। পথচারীরা দেখে ফেললে পড়ে তাকে তুলে নিয়ে যায়। পড়ে জানতে পারি রিমুর লাশ রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কে বা কারা রেখে চলে গেছেন।

হাসপাতালের কর্মচারী মোসলেম উদ্দিন জানান, বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়েছে লাশ মর্গে পড়ে আছে। ময়না তদন্ত শেষে তার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আত্মীয়ের বাড়ি না নিয়ে নিল নিজ বাড়িতে, ধর্ষণ করল তিনজন মিলে

অনলাইন ডেস্ক

আত্মীয়ের বাড়ি না নিয়ে নিল নিজ বাড়িতে, ধর্ষণ করল তিনজন মিলে

শরীয়তপুরে দুই কিশোরীকে ধর্ষণের দায়ে ছয় যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং প্রত্যেককে পঞ্চাশ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। টাকা অনাাদায়ে ছয় মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

আজ সোমবার বিকেলে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আ. ছালাম খান এই রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- নড়িয়া উপজেলার আনাখন্ড গ্রামের মৃত খালেক ছৈয়ালের ছেলে টিটু ছৈয়াল (৩১), পাঁচক গ্রামের মৃত নুর মোহাম্মদ ছৈয়ালের ছেলে মো. রাজ্জাক ফকির (৩৩), রশিদ সরদারের ছেলে আবু সরদার (৩৮)। সদর উপজেলার মধ্যপাড়া গ্রামের মৃত লোকমান ফকিরের ছেলে ইসলাম ফকির (২৪), মৃত ছামাদ মন্ডলের ছেলে রাকিব মন্ডল (২৪) ও শাহআলম তালুকদারের ছেলে  সবুজ তালুকদার (২২)।


ভাতিজিকে ধর্ষণ, জেল থেকে বেড়িয়েই চাচার মোটর শোভাযাত্রা!

শ্যালিকাকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, দুলাভাই গ্রেপ্তার

যতদিন পুরুষতন্ত্র থাকবে, ধর্ষণ চলবে

ধর্ষণ করতে গিয়ে পুরুষাঙ্গ ‌‘হারালেন’ যুবক!

৩০-৩২ গার্লফ্রেন্ড থাকার পরও আমাকে ভালোবাসত নাসির: তামিমা


মামলার বিবরণে প্রকাশ, ২০১৯ সালের ২৬ অক্টোবর মজিদ জরিনা ফাউন্ডেশন স্কুল এন্ড কলেজে চলছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠান থেকে ১৩ বছরের বয়সী ওই কিশোরী সহপাঠী মইন ও রনিকে নিয়ে ঘুরতে বের হন। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলার ভোজেশ্বর ইউনিয়নের আনাখন্ড বেইলি ব্রিজের পাকা সড়কে পৌঁছালে আসামি টিটু, রাজ্জাক ও আবু সরদারা মিলে মইন ও রনিকে এলোপাতাড়িভাবে মারধর করে আহত করে ওই কিশোরীকে অপহরণ করে।

ওইদিন রাতে আসামি টিটুর বাড়িতে ওই কিশোরীকে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। চিৎকার করলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় ওই কিশোরী বাদী হয়ে নড়িয়া থানায় মামলা করে। 

অন্যদিকে, ২০১৯ সালের ৩০ জুন ১৪ বছরের ওই কিশোরীর বাড়ি ছিল নড়িয়া উপজেলায়। নদী ভাঙনে গৃহহীন হয়ে জাজিরার একটি গ্রামে আশ্রয় নেয় পরিবারটি। ওই কিশোরী বিকেলে তার এক আত্মীয়র বাড়ি যাওয়ার জন্য শরীয়তপুর জেলা শহরের বাস টার্মিনালে আসেন। তখন সেখানে দেখা হয় পূর্ব পরিচিত পরিবহন শ্রমিক ইসলামের সঙ্গে। ইসলাম ওই কিশোরীকে তার আত্মীয়র বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে তার বন্ধু রাকিব মন্ডল ও সবুজের সাথে অটোরিকশায় তুলে দেয়। রাকিব ও সবুজ মেয়েটিকে নিয়ে মনোহর বাজারে যান।

পরে রাকিবের বাড়িতে নেয়া হয়। সেখানে মেয়েটির মুখ বেঁধে রাকিব ও সবুজ প্রথম দফায় ধর্ষণ করেন। এরপর সন্ধ্যায় ওই বাড়িতে যায় ইসলাম। রাতে ইসলামও মেয়েটিকে ধর্ষণ করেন। পুনরায় ধর্ষণ করা নিয়ে ইসলামের সঙ্গে রাকিব ও সবুজের কথা কাটাকাটি হয়। তখন ইসলাম মেয়েটিকে তাদের বাড়ির পাশের শরীয়তপুর বনবিভাগের পুকুর ঘাটে নিয়ে যায়। পুকুর ঘাটে নিয়েও মেয়েটিকে ধর্ষণ করা হয়। পরে কিশোরীকে পুলিশ উদ্ধার করে। রাতে ওই কিশোরীর বাবা বাদি হয়ে পালং মডেল থানায় মামলা করেন।

নড়িয়া থানা ও পালং মডেল থানা পুলিশ মামলাটি তদন্ত করে ২০২০ সালে আদালতে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পরবর্তী সময়ে মামলাটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বিচারের জন্য গেলে আদালত সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

শরীয়তপুরের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মির্জা হজরত আলী জানান, রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তবে আসামিপক্ষের আইনজীবী এই দণ্ডাদেশের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন বলে জানান।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মাথায় গাছের ডাল পরে কাঠ ব্যবসায়ীর মৃত্যু

মো. বুরহান উদ্দিন, সুনামগঞ্জ

মাথায় গাছের ডাল পরে কাঠ ব্যবসায়ীর মৃত্যু

সুনামগঞ্জের কুরবান নগর ইউনিয়নের বদিপুর গ্রামে মাথায় গাছের ডাল পরে শওকত আলী (৪৫) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে।

আজ সোমবার (১ মার্চ) বিকেলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত শওকত আলী বদিপুর গ্রামের মৃত আব্দুল বারিকের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিহত শওকত আলী বিভিন্ন জায়গায় গাছ কিনে সেই গাছ কেটে কাঠ তৈরি করে বিক্রি করতেন।  নিজের গ্রামে একটি কদম গাছ কিনে সোমবার বিকেলে শ্রমিক দিয়ে সেই গাছ কাটছিলেন।


প্রতিদিন নতুন নারী লাগত তার, পরতেন ত্রিশ দিনে ৩০ সানগ্লাস

১৭ বছরের কিশোরীর পেটে ৪৮ সেন্টিমিটার লম্বা চুলের দলা

ছোট ভাই মাকে বলল,‘আপুকে পেছনের রুমে নিয়ে গেছে এক ভাইয়া

স্ত্রীকে সৌদি পাঠিয়ে ৮ বছরের মেয়েকে নিয়মিত ধর্ষণ করে বাবা


অসাবধানতা বশত গাছের বড় একটি ডাল শওকত আলীর মাথায় পরে। গাছের ডালের আঘাতে তিনি জ্ঞান হারান। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তবরত চিকিৎসক জাহিদ হাসান বলেন, মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত শওকত আলী নামের একজনকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিল। তবে হাসপাতালে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর