নড়াইলে স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

নিজস্ব প্রতিবেদক

নড়াইলে স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

নড়াইলের কালিয়ায় এক স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগে ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার উথলী গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। অসুস্থ অবস্থায় নির্যাতিত স্কুল ছাত্রী এখন নড়াইল সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। 

মামলা বিবরণী থেকে জানা যায়, ওই ছাত্রীর সঙ্গে  উথলী গ্রামের নিশান শেখের প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মেয়েটিকে একই গ্রামের নাঈম শেখের বাড়ির পাশে দেখা করতে আসতে বলে নিশান। আগে থেকেই ওখানে নিশান ও তার সহযোগীরা অবস্থান করছিন। ঘটনাস্থলে পৌছালে জোরপূর্বক মেয়েটি ধর্ষণ করে তারা।


দূষণের প্রতিবাদ: পরিত্যক্ত পানির বোতল দিয়ে তৈরি মৎস্যভাস্কর্য

ডিজে নেহা রিমান্ডে

বঙ্গবন্ধুকে উৎসর্গ করা হচ্ছে কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলা


চিকিৎকার শুনে স্থানীয়রা নির্যাতিতকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। এঘটনায় ছাত্রীর বাবা কালিয়া থানায় মামলা করলে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।বাকিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে বলে জানিয়েছেন কালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. কনি মিয়া।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চট্টগ্রামে ছাত্রলীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষে একজন নিহত

অনলাইন ডেস্ক

চট্টগ্রামে ছাত্রলীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষে একজন নিহত

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে চট্টগ্রামের বায়েজীদে ছাত্রলীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষে ইমন নামে এক ছাত্রলীগকর্মী নিহত হয়েছেন।

বায়েজিদ থানার ওসি পিটন সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সন্ত্রাসীদের গুলিতে মাথার খুলি উড়ে গেল ইউপি সদস্যের

রিপন হোসেন, যশোর

সন্ত্রাসীদের গুলিতে মাথার খুলি উড়ে গেল ইউপি সদস্যের

যশোরের অভয়নগরে নূর আলি (৫০) নামে এক ইউপি সদস্যকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। এ সময় তাঁর ছেলে ইব্রাহিম (১৬) গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়।

রোববার (৭ মার্চ) রাত আনুমানিক ৮টার সময় সন্ত্রাসীদের গুলিতে তার ‍মৃত্যু হয়।

নিহত নূর আলি উপজেলার শুভরাড়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সদস্য ছিলেন। আহত ইব্রাহিমকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।


রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ

মোবাইলে পরিচয়, দেখা করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

নোয়াখালীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা: স্বামী আটক


ঘটনাস্থলে উপস্থিত অভয়নগর থানার ওসি (তদন্ত) মিলন কুমার মন্ডল মুঠোফোনে জানান, অভয়নগর থানা পুলিশের ৭ মার্চের আনন্দ উদযাপন অনুষ্ঠান শেষে সন্ধ্যার পর মোটরসাইকেলযোগে নিজ বাড়ি ফিরছিলেন নূর আলি ও তাঁর ছেলে। শুভরাড়া ইউনিয়নের বাববুরহাট নামকস্থানে পৌঁছালে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা খুব কাছ থেকে গুলি ছোড়ে। গুলিতে নূর আলির মাথার খুলি উড়ে যায় এবং ঘটনাস্থলে তাঁর মৃত্যু হয়। এ সময় নূর আলির ছেলে মোটরসাইকেল চালক ইব্রাহিমের পায়ে গুলি লাগে। তাকে হাসপাতালে ভর্তির জন্য পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও জানান, এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনে পুলিশ কাজ শুরু করেছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নারীকে ধর্ষণের পর ইয়াবা দিয়ে ধরিরে দেয় ছাত্রলীগ নেতা

অনলাইন ডেস্ক

নারীকে ধর্ষণের পর ইয়াবা দিয়ে ধরিরে দেয় ছাত্রলীগ নেতা

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে ধর্ষণের পর ইয়াবা দিয়ে এক গৃহবধূকে ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় আদালতে মামলা দায়ের করেছেন ওই গৃহবধূ।

আসামি করা হয়েছে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুর রহমান রাসেল ও ছয় পুলিশ সদস্যসহ ১০ জনকে।

আজ রোববার দুপুরে চট্টগ্রামের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শহীদুল্লাহ কায়সারের আদালতে এ মামলা দায়ের করেন এক নারী।

আসামিরা করা হয়- হাটহাজারী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আরিফুর রহমান রাসেল (৩২), হাটহাজারী থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই মুকিব হাসান, এসআই মো. সেলিম মিয়া, এসআই কফিল উদ্দীন, কনস্টেবল মো. পারভেজ, কনস্টেবল মো. সাইফুল, নারী কনস্টেবল বৈশাখী রহমান, পুলিশের সোর্স মো. রিংকু সুলতান (২৫), মো. হেলাল উদ্দীন ও মো. হেলাল (৩৫)।

আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে বাদীর বক্তব্য গ্রহণ করেছেন। বাদীর আইনজীবী মোহাম্মদ ইলিয়াছ মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। 

মামলার অভিযোগে তিনি জানান, স্বামীর সঙ্গে বিরোধ, পারিবারিক অশান্তি ও সন্তানদের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ না পেয়ে প্রতিকারের আশায় হাটহাজারী উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আরিফুর রহমান রাসেলের শরণাপন্ন হন ভুক্তভোগী নারী। রাসেল বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দিয়ে ওই নারীকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। পরে উপজেলা সদরের একটি গেস্ট হাউসে নিয়ে ধর্ষণের পর পুলিশের মাধ্যমে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসিয়ে দেন তাকে। সেই মামলায় পাঁচ মাস কারাগারে ছিলেন ওই নারী।

এ ঘটনায় কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে আজ (রোববার) আদালতে মামলা দায়ের করেন তিনি।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রেমিক-প্রেমিকার কাণ্ড!

নিজের গোপনাঙ্গ ও গলাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম

অনলাইন ডেস্ক

নিজের গোপনাঙ্গ ও গলাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম

প্রতীকী ছবি

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে রমজান (২৪) ও তার প্রেমিকা (১৮) নিজ নিজ বাড়িতে আত্মহত্যার চেষ্টা করতে গিয়ে গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদেরকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তাদের রেফার করা হয়।

শনিবার সন্ধ্যায় আত্মহত্যার উদ্দেশ্যে প্রেমিক রমজান ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার গোপনাঙ্গ ও গলাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করেন। ওদিকে, প্রেমিকা নিজের গলায় আঘাত করে গুরুতর আহত হন। উপজেলার ৩নং কালচোঁ উত্তর ইউনিয়নের তারাপাল্লা গ্রামের এই ঘটনা ঘটে। 

আহত প্রেমিক রমজান ওই গ্রামের মনিরুল ইসলামের ছেলে এবং প্রেমিকা একই গ্রামের বাসিন্দা। তারা সম্পর্কে আত্মীয়। দীর্ঘদিন তাদের মাঝে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। কিন্তু তাদের সম্পর্ক দুই পরিবার মেনে নেয়নি।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুই পরিবারের লোকজন তাদের সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় তাদের মাঝে টানাপোড়েন চলছিল। সম্প্রতি প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব পাঠায় রমজান। কিন্তু দুই পরিবারের অভিভাবকেরা তা মেনে নেননি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শনিবার সন্ধ্যায় রমজান তার বাড়ির টয়লেটের দরজা বন্ধ করে নিজের গোপনাঙ্গ, গলা এবং বাম হাতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করেন।


সালমান খানের তোয়ালে পরা ছবি ভাইরাল

দেব-মিমি-নুসরাত যে কারণে প্রার্থীদের তালিকায় নেই

চুম্বনের দৃশ্যের আগে ফালতু কথা বলতো ইমরান : বিদ্যা

রণবীরের সঙ্গে ক্যাটরিনার খোলামেলা ছবি বিশ্বাস হয়নি সালমানের


এদিকে, একই সময়ে প্রেমিকা নিজের বাড়ির ঘাটলায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার গলায় আঘাত করে গুরুতর আহত হন। পরে তাদের দুজনকে উদ্ধার করে পরিবারের লোকজন ও স্থানীয়রা হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। 

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, ধারাল অস্ত্রের আঘাতে রমজানের গোপনাঙ্গ ৯০ শতাংশ কাটা পড়েছে এবং গলার ডান পাশে ও হাতে মারাত্মক জখম হয়েছে। পিংকির গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মারাত্মক জখম হয়েছে। তাদের দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাদেরকে ঢাকায় রেফার করা হয়েছে।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

‘আত্মহত্যা করা’ রেহানার ৫ টুকরো লাশ বিভিন্ন জায়গা থেকে উদ্ধার

শেখ সফিউদ্দিন জিন্নাহ, গাজীপুর

‘আত্মহত্যা করা’ রেহানার ৫ টুকরো লাশ বিভিন্ন জায়গা থেকে উদ্ধার

গাজীপুর সদর উপজেলার মনিপুর এলাকায় রেহানা আক্তার নামে এক গৃহবধূর পাঁচ টুকরো করা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী জুয়েল আহমেদকে আটক করেছে জয়দেবপুর থানা-পুলিশ। রোববার সদরের মনিপুরে আরাবী ফ্যাশন সংলগ্ন তিনটি জায়গা থেকে লাশের খণ্ডিত অংশ উদ্ধার করা হয়।

নিহত রেহানা আক্তার সুনামগঞ্জের বিশ্বাম্ভরপুর থানার পলাশ ইউনিয়নের কচিরগাতি গ্রামের আব্দুল মালেকের মেয়ে ও আটক জুয়েল একই গ্রামের বাতেনের ছেলে।


রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ

মোবাইলে পরিচয়, দেখা করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

নোয়াখালীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা: স্বামী আটক


জানা যায়, রেহানা ও জুয়েল সম্পর্কে বিয়াই-বিয়াইন, প্রেমে জড়িয়ে ২ বছর আগে পালিয়ে বিয়ে করে গাজীপুরের মনিপুর এলাকায় জাকিরের বাড়িতে ভাড়া থাকেন। রেহানা ভাড়া বাড়ির পাশেই আরাবী ফ্যাশনে চাকরি করতেন। জুয়েল চাকরি হারিয়ে করতেন কাপড়ের ব্যবসা। বৃহস্পতিবার সাংসারিক কলহের এক পর্যায়ে টয়লেটের দরজা আটকে আত্মহত্যা করে রেহানা। মৃত্যু নিশ্চিত হতে ফেঁসে যাওয়ার ভয়ে লাশ গুম করার উদ্দেশ্যে রেহানার মৃতদেহ ৫ টি খণ্ড করে বস্তায় ভরে বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে রাখে।

এ বিষয়ে পুলিশ পরিদর্শক নাজমুল হুদা জানান, স্থানীয়রা ফোন দিয়ে ঘটনা সম্পর্কে অবগত করার পর স্বামীকে আটক করি এবং লাশের খণ্ডিতাংশ কয়েকটি জায়গা থেকে উদ্ধার করি। ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর