কুড়িল বিশ্বরোডেই স্থায়ী হল ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার স্থান

সুলতান আহমেদ

কুড়িল বিশ্বরোডেই স্থায়ী হল ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার স্থান

চীনের কাছ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বাণিজ্য মেলার নতুন গন্তব্য বুজে নিল সরকার। রাজধানীর পূর্বাচলের স্থায়ী ভবনেই এবছরের যেকোন সময় থেকে শুরু হবে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। বাণিজ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, এক্সিবিশন সেন্টারে সারা বছরই কোন না কোন প্রদর্শনি হবে। এছাড়া চীনের পক্ষ থেকেও বছরে দুই বার মেলা আয়োজনের কথা রয়েছে।

রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড থেকে ৩০০ ফিট রাস্তা ধরে ১৫ কিলোমিটার যেতেই চোখে পড়বে সুউচ্চ এই স্থাপনা। দূর থেকে দেখতে অনেকটা জাহাজ আকৃতির এই ভবন তৈরি শুরু হয় ২০১৭ সালে। টানা ৪ বছর ধরে চীনের রাষ্ট্রীয় কনস্ট্রাকশন কোম্পারি তৈরি করেছে চায়না বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টার। 

ভবন তৈরিতে মোট ব্যয় হয়েছে ৭৭৩ কোটি টাকা, মোট ২০ একর জায়গা জুড়ে তৈরি এই স্থাপনায় সারা বছরই অনুষ্ঠিত হবে কোন না কোন আয়োজন। বাণিজ্যমেলার পাশাপাশি এখানে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন প্রদর্শনি, মেলা কিংবা সভা-সেমিনারও হবে।


কানাডার সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকায় ‘দায়েস বাংলাদেশ’

দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ ‌জুমার দিনে ‘সূরা কাহাফ’ তেলাওয়াতের ফজিলত

দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ ‌`জুমার’ দিনে যা করবেন

প্রতিদিন সকালে যে দোয়া পড়তেন বিশ্বনবি


করোনার জন্য আনুষ্ঠানিক হস্তান্তরের দিনেও ছিল না কোন বড় আয়োজন। সচিবালয়ে বাণিজ্যমন্ত্রীর কাছে ভবন হস্তান্তর করেন চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং। মহামারীর কারণে সময়মতো না হলেও অন্য সব বছর জানুয়ারি জুড়েই হবে বাণিজ্যমেলা আয়োজন, জানান টিপু মুন্সী। আর উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে বন্ধু হয়ে বাংলাদেশের পাশে থাকার কথা জানান চীনের রাষ্ট্রদূত।

প্রায় ৩৩ হাজার বর্গমিটারের স্থাপনাটিতে থাকছে বিশাল আকৃতির দুটি হলরুম। যেখানে ১৫ হাজার বর্গমিটার জায়গা জুড়ে নির্মাণকরা সম্ভব ৮০০ স্টল। এছাড়া বাইরের জায়গা জুড়ে থাকছে বিশাল পার্কিং এলাকা।

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে একগুচ্ছ কর্মপরিকল্পনা বিডা’র

বাবু কামরুজ্জামান

করোনা পরবর্তী অর্থনীতিতে দেশি বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে একগুচ্ছ কর্মপরিকল্পনা হাতে নিয়েছে বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-বিডা। 

সংস্থাটি বলছে, বিশ্বদরবারে বাংলাদেশকে তুলে ধরতে দূতাবাসগুলোতে ব্র্যান্ডিং করার পাশাপাশি চলতি বছরের জুলাই মাসে বিনিয়োগ সম্মেলন-২০২১ আয়োজন করবে বিডা। নিউজ টোয়েন্টিফোরকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বিনিয়োগ বাড়াতে এমন নানা কর্মসূচির কথা তুলে ধরেছেন বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম। 

দেশে বিদেশী বিনিয়োগ বৃদ্ধি এবং বিনিয়োগ পরিবেশের উন্নয়নে নানামুখী উদ্যোগ এবং তা বাস্তবায়নে কাজ করছে বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বিডা।

বিডার ওয়ান স্টপ সার্ভিস পোর্টালের মাধ্যমে এখন বিনিয়োগকারীদের ১১টি সংস্থার ৪১ টি সেবা দিচ্ছে সংস্থাটি। তবে খুব শিগিগির দুই সিটি করপোরেশনে ট্রেড লাইসেন্স প্রক্রিয়া সহজ করতে এর আওতায় আনা হচ্ছে। এছাড়া মুজিববর্ষে বিনিয়োগ আকর্ষণে বিডা আয়োজন করছে বিনিয়োগকারীদের আন্তর্জাতিক সম্মেলন।


অনুমোদনের অপেক্ষায় সিএমপির ছয় থানা

৩৩৭ জনকে উপসচিব পদে পদোন্নতি

আটকে গেল ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার লড়াই

শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে জখম মাদ্রাসার শিক্ষক প্রেপ্তার


বিডার দেয়া সবশেষ হিসাব বলছে,২০১৯ সালে সংস্থাটির মাধ্যমে নিবন্ধিত হওয়া দেশি বিনিয়োগ প্রকল্প প্রস্তাবের সংখ্যা ছিল ৯৬৮ টি যেখানে বিদেশি বিনিয়োগ প্রস্তাব ছিল ১৮৫। যদিও করোনার ধাক্কায় ২০২০ সালে কমেছে দেশি বিদেশি বিনিয়োগের পরিমাণ। 

তবে ২০২১ সালের মাত্র ২ মাসে বিনিয়োগ প্রকল্প নিবন্ধিত হয়েছে শতাধিক যেখানে ৭টি বিদেশী কোম্পানির কাছে মিলেছে ৪৯ মিলিয়ন ডলারের প্রস্তাব; যা নিয়ে আশার কথা বলছে বিডা কর্তৃপক্ষ।

বিশ্বব্যাংকের ইজ অব ডুয়িং বিজনেস বা সহজে ব্যবসা সূচকে ১৯০ দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৬৮তম। যা এবার ১শর মধ্যে উন্নীত করতে সমন্বিতভাবে কাজ চলছে বলেও জানান বিডা চেয়ারম্যান।

তবে বাংলাদেশে বিনিয়োগ বাড়াতে এখনো অন্যতম চ্যালেঞ্জ করপোরেট কর হার। প্রতিবেশি দেশ ভারত শ্রীলঙ্কা, মালয়েশিয়া কিংবা ভিয়েতনামের তুলনায় বাংলাদেশে স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর করপোরেট কর এখনো সর্বোচ্চ যা সাড়ে ৩২ শতাংশ। জুলাই থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই ৮ মাসে প্রস্তাবিত বিনিয়োগ বাস্তবায়ন হলে অন্তত ১ লাখ লোকের কর্মসংস্থান তৈরি হবে বলে জানিয়েছে বিডা।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাংলাদেশে আর ব্যবসা করতে চান না আজিজ মোহাম্মদ ভাই

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশে আর ব্যবসা করতে চান না আজিজ মোহাম্মদ ভাই

আজিজ মোহাম্মদ ভাই

বাংলাদেশ থেকে ব্যবসা গোটাতে চাইছেন দেশের আলোচিত শিল্পোদ্যোক্তা আজিজ মোহাম্মদ ভাই ও তার পরিবারের সদস্যরা। মহামারী করোনা ভাইরাসের আগে থেকেই ব্যবসা গোটানোর এ চেষ্টা চলছে।

শিল্প-বাণিজ্য-অর্থনীতিবিষয়ক বাংলা দৈনিক পত্রিকা দৈনিক বণিক বার্তা'র এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়। 

প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশ থেকে ব্যবসা গুটিয়ে নিতে দেশি-বিদেশি ক্রেতার সঙ্গে যোগাযোগও করেছেন তারা। কিন্তু ক্রেতাদের প্রস্তাবিত দাম তাদের প্রত্যাশার সঙ্গে মেলেনি। ফলে নতুন ক্রেতার কাছে বিক্রির প্রস্তাব ও দরকষাকষির প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

বণিক বার্তা বলছে, আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের হাত ধরেই যাত্রা করেছিল পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ। তালিকাভুক্ত আরেক কোম্পানি এমবি ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডেরও স্বত্বাধিকারী তিনি ও তার পরিবার। বর্তমানে পরিবারটি বসবাস করছে থাইল্যান্ডে। মাঝেমধ্যে দেশে এসে ব্যবসা দেখাশোনা করছিলেন তার স্ত্রী নওরীন আজিজ মোহাম্মদ ভাই, চাচা মুবারক আলীসহ স্বজনরা।

সম্প্রতি দেশের একটি শীর্ষস্থানীয় করপোরেট গ্রুপের কাছে অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ ও এমবি ফার্মাসিউটিক্যালস বিক্রির প্রস্তাব দিয়েছেন ‘মোহাম্মদ ভাই’ পরিবারের সদস্যরা। একটি ব্যাংক ও বেশ কয়েকটি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি তাদের পক্ষ হয়ে ক্রেতাদের কাছে শেয়ারগুলো বিক্রির জন্য দেনদরবার করছে। শিল্প গ্রুপটির সঙ্গে যুক্ত একাধিক পক্ষসহ বিভিন্ন সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।


শত বিঘায় শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি

৩৩৭ জনকে উপসচিব পদে পদোন্নতি

আটকে গেল ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার লড়াই

শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে জখম মাদ্রাসার শিক্ষক প্রেপ্তার


ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের বর্তমান বাজার মূলধন ৩ হাজার ৩৬২ কোটি টাকা। আর ১০২ কোটি টাকা বাজার মূলধন আছে এমবি ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের। দুটি কোম্পানিরই সিংহভাগ শেয়ারের মালিকানা মোহাম্মদ ভাই পরিবারের। এর মধ্যে শুধু আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের মালিকানাধীন শেয়ারের বর্তমান বাজারমূল্য ৫৫০ কোটি টাকার বেশি।

আজিজ মোহাম্মদ ভাই পরিবারের সঙ্গে যুক্ত একাধিক সূত্রের ভাষ্যমতে, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, হংকং, সিঙ্গাপুরসহ বিভিন্ন দেশে ‘মোহাম্মদ ভাই’ পরিবারের ব্যবসা রয়েছে। দেশে শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারি, হত্যাকাণ্ড, মাদক বাণিজ্যসহ নানা বিতর্কে জড়িয়ে ভাবমূর্তি সংকটে পড়েছে পরিবারটি। এ অবস্থায় বাংলাদেশে থাকা কোম্পানিসহ অন্যান্য সম্পদ বিক্রি করে এ পরিবারের সদস্যরা থাইল্যান্ডে স্থায়ী নিবাস গড়তে চাইছেন।

বণিক বার্তার প্রতিবেদনটি পড়তে এখানে ক্লিক করুন

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বগুড়ায় হয়ে গেল ৩ দিনব্যাপী উদ্যোক্তা মেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক

বগুড়ায় হয়ে গেল ৩ দিনব্যাপী উদ্যোক্তা মেলা

উৎপাদিত পণ্যের প্রচার ও আরো বেশি উদ্যোক্তা তৈরির লক্ষ্যে বগুড়ায় অনুষ্ঠিত হলো ৩ দিনব্যাপী উদ্যোক্তা মেলা। মেলায় স্থান পাওয়া ৪২টি স্টলের মধ্যে ৩৮টি ছিলো নারীদের দখলে। তাদের দাবি মেলার মাধ্যমে দর্শনার্থীরা উৎপাদিত পণ্য সম্পর্কে যেমন পরিচিতি হয়েছেন তেমনি অনেকেই আগ্রহী হয়েছেন ব্যবসায়। 

করোনাকালে অনলাইনে ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েছেন অনেক তরুণ-তরুণী। তাদের উৎপাদিত পণ্যের প্রচার-প্রসারসহ নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে এই মেলা। তিন দিনব্যাপী এই মেলায় স্থান পাওয়া ৪২টি স্টলের মধ্যে ৩৮টি ছিল নারীদের, এদের মধ্যে নতুন উদ্যোক্তা ৩৬ জন।


মশা মারতে গিয়ে পুড়ে গেলেন মা ও দুই মেয়ে

আস্থা ভোটে জিতলেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান

চিকিৎসাপত্র ছাড়াই ওষুধ কিনছেন ক্রেতারা, রোগী দেখছেন ফার্মেসি মালিকরা

দেশে বাজারে আবারও কমছে স্বর্ণের দাম


মেলায় বিভিন্ন ধরনের কেক, পিঠা, আচার, শুকনো খাবারসহ মেয়েদের  জামাকাপড় ও প্রসাধনী দর্শনার্থীদের নজর কাড়ে। মেলার কারণে সহজেই ক্রেতাদের কাছে উৎপাদিত পণ্য সম্পর্কে জানাতে পেরে খুশি উদ্যোক্তারাও।

উদ্বোধনের দিন থেকেই মেলায় বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত। তরুণ-তরুণীদের ব্যবসায় আগ্রহী করতেই বগুড়া শহরের শহীদ টিটু মিলনায়তন চত্বরে গত ৪ মার্চ থেকে ৬ মার্চ পর্যন্ত-৩দিনব্যাপী এই উদ্যোক্তা মেলা অনুষ্ঠিত হয়।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দেশে বাজারে আবারও কমছে স্বর্ণের দাম

অনলাইন ডেস্ক

দেশে বাজারে আবারও কমছে স্বর্ণের দাম

ফাইল ছবি

বিশ্ববাজারে দর পতনের পর এবার দেশে বাজারে স্বর্ণের দাম আরও কমল। প্রতি ভরিতে দেড় হাজার টাকা কমিয়ে নতুন দাম নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)। আজ শনিবার বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাজুস জানায়, ২২ ক্যারেট স্বর্ণের প্রতি ভরির (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) দাম এক হাজার ৫১৬ টাকা কমিয়ে নির্ধারণ করা হয়েছে, নতুন দাম ৭১ হাজার ১৫১ টাকা। ২১ ক্যারেটের স্বর্ণ ৬৮ হাজার ১ টাকা, ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণ ৫৯ হাজার ২৫২ টাকা ও সনাতন পদ্ধতির স্বর্ণ ৪৮ হাজার ৯৩১ টাকা ঠিক করা হয়েছে।

বিশ্ববাজারে স্বর্ণের এ দরপতনের ধারা অব্যাহত থাকলে শিগগিরই দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম আরও কমানো হতে পারে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির (বাজুস) দায়িত্বশীলরা।

এ বিষয়ে বাজুস সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা বলেন, বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম কমার কারণে ইতিমধ্যে বাংলাদেশে স্বর্ণের দাম কমানো হয়েছে। 


কুমিরের পেট থেকে বের করা হচ্ছে আস্ত মানুষ (ভিডিও)

প্রেমের বিয়ের ৪ মাসের মাথায় নববধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

বাক্‌স্বাধীনতা সুরক্ষিত রাখতে মানবাধিকার সংস্থাগুলোর আহ্বান

চুম্বনের দৃশ্যের আগে ফালতু কথা বলতো ইমরান : বিদ্যা


দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম কমানোর পরও আমরা দেখছি, গত কয়েক দিন ধরে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম নিম্নমুখী। বিশ্ববাজারে দাম কমার এ প্রবণতা অব্যাহত থাকলে আমরাও স্বর্ণের দাম কমাবো।

স্বর্ণের দাম কমলেও, রূপা পূর্বনির্ধারিত দামেই বিক্রি হচ্ছে। ক্যাটাগরি অনুযায়ী ২২ ক্যারেটের প্রতিভরি রূপার মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১ হাজার ৫১৬ টাকা। ২১ ক্যারেটের রূপার দাম ১৪৩৫ টাকা, ১৮ ক্যারেটের ১২২৫ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির রূপার দাম ৯৩৩ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আবারও স্বর্ণের দরপতন, ৯ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন দাম

অনলাইন ডেস্ক

আবারও স্বর্ণের দরপতন, ৯ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন দাম

বেশ কয়েকদিন থেকেই বড় ধরণের দরপতন লক্ষ্য করা যাচ্ছে স্বর্ণের বাজারে। বিশ্ববাজরে প্রতিদিনই কমছে স্বর্ণের দাম। ফেব্রুয়ারি মাসজুড়ে দাম কমেছে ৫ দশমিক ৯৪ শতাংশ। এরপর চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহেও স্বর্ণের দামে বড় পতন হয়েছে। যার কারণে গত ৯ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন দামে এই ধাতুটির দাম।

গত সপ্তাহজুড়ে স্বর্ণের পাশাপাশি বড় দরপতন হয়েছে দামি দুই ধাতবপণ্য রুপা ও প্লাটিনামের। গত এক সপ্তাহে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম কমেছে ১ দশমিক ৮৮ শতাংশ। রুপার দাম কমেছে ৫ দশমিক ১৭ শতাংশ। আর প্লাটিনামের দাম কমেছে ৪ দশমিক ৯৬ শতাংশ।

এই ভাবে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দরপতন হতে থাকলে শিগগির দেশের বাজারেও স্বর্ণের দাম আরও কমানো হতে পারে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস) দায়িত্বশীলরা।

এ বিষয়ে বাজুস সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা বলেন, বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম কমার কারণে ইতোমধ্যে বাংলাদেশে স্বর্ণের দাম কমানো হয়েছে। দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম কমানোর পরও আমরা দেখছি, গত কয়েকদিন ধরে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম নিম্নমুখী। বিশ্ববাজারে দাম কমার এই প্রবণতা অব্যাহত থাকলে আমরাও স্বর্ণের দাম কমাবো।

২ মার্চ অনুষ্ঠিত বাজুসের কার্যনির্বাহী কমিটির সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ৩ মার্চ থেকে ভালো মানের অর্থাৎ ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) স্বর্ণের দাম ১ হাজার ৫১৬ টাকা কমিয়ে ৭১ হাজার ১৫১ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

আরও পড়ুন:


রণবীরের সঙ্গে ক্যাটরিনার খোলামেলা ছবি বিশ্বাস হয়নি সালমানের

রানার গ্রুপে চাকরির সুযোগ

‘ভয়ঙ্কর একটি শক্তি’ ভিন্নমতের ওপর নির্যাতন চালাচ্ছে: ফখরুল

দেশের তিন অঞ্চলে বজ্রসহ বৃষ্টির আভাস


পাশাপাশি ২১ ক্যারেটের স্বর্ণ ৬৮ হাজার ১ টাকা, ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণ ৫৯ হাজার ২৫২ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি স্বর্ণ ৪৮ হাজার ৯৩১ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে।

এর আগে চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারি ভরিতে স্বর্ণের দাম ১ হাজার ৯৮৩ টাকা কমানো হয়। সে হিসাবে দুই মাসের মধ্যে দেশের বাজারে ভরিতে স্বর্ণের দাম সাড়ে ৩ হাজার টাকা কমেছে।

স্বর্ণের দাম কমলেও রুপার পূর্বনির্ধারিত দাম বহাল রয়েছে। ক্যাটাগরি অনুযায়ী ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি রুপা বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ৫১৬ টাকা। ২১ ক্যারেটের রুপার দাম ১ হাজার ৪৩৫ টাকা, ১৮ ক্যারেটের ১ হাজার ২২৫ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির রুপার দাম ৯৩৩ টাকা।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর