পরকীয়া দেখে ফেলায় ৩ সন্তানকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা

অনলাইন ডেস্ক

পরকীয়া দেখে ফেলায় ৩ সন্তানকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা

ফাইল ছবি

ঢাকার ধামরাইয়ে পরকীয়া দেখে ফেলায় তিন সন্তানকে বঁটি দিয়ে গলা কেটে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে এক মায়ের বিরুদ্ধে। শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে উপজেলার সুয়াপুর ইউনিয়নের কুটিরচর গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

এদিকে শনিবার প্রবাসীর স্বামী দেশে ফিরে তার স্ত্রীকে পাথর দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে শাসন করেন। এতে ওই নারী গুরুতর আহত হলে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সোমবার হাসপাতাল থেকেও ওই নারী নিরুদ্দেশ হয়েছে বলে জানান তার প্রবাসী স্বামী আনোয়ার হোসেন।

প্রতিবেশীরা জানান, প্রবাসী মো. আনোয়ার হোসেন সংসারের অভাব ঘোচাতে ২০২০ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি কাতার যান। রেখে যান স্ত্রী, দুই ছেলে আবির হোসেন (১২), আরী হোসেন মিতু (১০) ও মেয়ে আমেনা আক্তারকে (৯)।

এদিকে ওই প্রবাসীর স্ত্রী মানিকগঞ্জের সদর থানার বাররারচর গ্রামের মো. রাশেদুল ইসলাম নামে দুবাই ফেরত এক যুবকের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। রাশেদুলকে ধর্ম ভাই পরিচয় দিয়ে মাঝে মধ্যেই নিজের শয়নকক্ষে রাতযাপন করেন। বিষয়টি প্রতিবেশীদেরও দৃষ্টিগোচর হয়।

শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে প্রবাসীর স্ত্রী ও দুবাই ফেরত ওই যুবককে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলে তার তিন সন্তান।

বিষয়টি প্রবাসী স্বামী জেনে যাওয়ার ভয়ে তিন সন্তানকে ধরে বঁটি দিয়ে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা করেন তাদের মা।

এ সময় ওই তিন সন্তান বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন লাঠিসোটা নিয়ে এগিয়ে এসে তাদের রক্ষা করে।

এদিকে গত শনিবার বাড়িতে ফেরেন তার কাতার প্রবাসী স্বামী আনোয়ার হোসেন। এর পর তিন সন্তান ও প্রতিবেশীরা তাকে বিষয়টি জানান।  

ঘটনাটি সহ্য করতে না পেরে প্রবাসী স্বামী তার স্ত্রীকে পাথর ছুড়ে উপর্যুপরি আঘাত করে শাসন করেন। এতে ওই নারী গুরুতর আহত হন।

পরে তাকে ধামরাই সরকারি আবাসিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর ওই পরকীয়া প্রেমিক প্রবাসীর স্ত্রীকে ভাগিয়ে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন।

আরও পড়ুন:

বঙ্গবন্ধুর খুনিকে ফেরাতে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা চাইলেন সেনাপ্রধান

পাষণ্ড মামার ধর্ষণচেষ্টায় তিন বছরের শিশু রক্তাক্ত

ডিজে নেহার খদ্দেরের তালিকায় ধনাঢ্য ব্যবসায়ীরা!


বিষয়টি জানাজানি হলে সোমবার ওই হাসপাতাল থেকেও ওই প্রবাসীর স্ত্রী নিরুদ্দেশ হয়ে যায় বলে জানা গেছে।

স্বামী আনোয়ার হোসেন জানান, এ ব্যাপারে তিনি ধামরাই থানায় একটি অভিযোগ দায়ের ও সাংবাদিকদের কাছে ভিডিও সাক্ষাৎকার দিয়েছি।

ওই তিন সন্তান জানায়, আমরা মাকে আগে খুব ভালো জানতাম। নিজ চোখে যা দেখতে হলো তাতে পৃথিবীর আর কোনো সন্তানই মাকে এভাবে বিশ্বাস করতে ও ভালোবাসতে পারবে না। এরা মা নামের কলঙ্ক। তাদের এখনও আতঙ্ক কাটেনি। কথা বলতে বলতে আঁতকে উঠতে দেখা গেছে তিন শিশুকে।

প্রবাসী আনোয়ার বলেন, স্ত্রী-সন্তানের সুখের জন্য বিদেশে গিয়েছিলাম। আমার এতবড় সর্বনাশ হবে জানলে কখনও বিদেশে যেতাম না। যার সুখের কথা ভেবে বিদেশে গেলাম, আর সেই আমার বিশ্বাসের ঘরে করল ডাকাতি।

এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা আব্দুস সালাম বলেন, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। সরেজমিন পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি গভীরভাবে তদন্তসাপেক্ষে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। মামলা তদন্তের স্বার্থে এ ব্যাপারে আপাতত কোনো তথ্য প্রদান করা যাবে না। তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানানো হবে।

এ ব্যাপারে প্রবাসীর স্ত্রীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হয়। তিনি জানান, আমার স্বামী মিথ্যা অপবাদ দিয়ে আমার ওপর অমানসিক নির্যাতন করেছে। আমি এখনও অনেক অসুস্থ। তাই বেশি কথা বলতে পারছি না। আমি সুস্থ হয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নেব। সূত্র: যুগান্তর।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আত্মীয়ের বাড়ি না নিয়ে নিল নিজ বাড়িতে, ধর্ষণ করল তিনজন মিলে

অনলাইন ডেস্ক

আত্মীয়ের বাড়ি না নিয়ে নিল নিজ বাড়িতে, ধর্ষণ করল তিনজন মিলে

শরীয়তপুরে দুই কিশোরীকে ধর্ষণের দায়ে ছয় যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং প্রত্যেককে পঞ্চাশ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। টাকা অনাাদায়ে ছয় মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

আজ সোমবার বিকেলে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আ. ছালাম খান এই রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- নড়িয়া উপজেলার আনাখন্ড গ্রামের মৃত খালেক ছৈয়ালের ছেলে টিটু ছৈয়াল (৩১), পাঁচক গ্রামের মৃত নুর মোহাম্মদ ছৈয়ালের ছেলে মো. রাজ্জাক ফকির (৩৩), রশিদ সরদারের ছেলে আবু সরদার (৩৮)। সদর উপজেলার মধ্যপাড়া গ্রামের মৃত লোকমান ফকিরের ছেলে ইসলাম ফকির (২৪), মৃত ছামাদ মন্ডলের ছেলে রাকিব মন্ডল (২৪) ও শাহআলম তালুকদারের ছেলে  সবুজ তালুকদার (২২)।


ভাতিজিকে ধর্ষণ, জেল থেকে বেড়িয়েই চাচার মোটর শোভাযাত্রা!

শ্যালিকাকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ, দুলাভাই গ্রেপ্তার

যতদিন পুরুষতন্ত্র থাকবে, ধর্ষণ চলবে

ধর্ষণ করতে গিয়ে পুরুষাঙ্গ ‌‘হারালেন’ যুবক!

৩০-৩২ গার্লফ্রেন্ড থাকার পরও আমাকে ভালোবাসত নাসির: তামিমা


মামলার বিবরণে প্রকাশ, ২০১৯ সালের ২৬ অক্টোবর মজিদ জরিনা ফাউন্ডেশন স্কুল এন্ড কলেজে চলছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠান থেকে ১৩ বছরের বয়সী ওই কিশোরী সহপাঠী মইন ও রনিকে নিয়ে ঘুরতে বের হন। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলার ভোজেশ্বর ইউনিয়নের আনাখন্ড বেইলি ব্রিজের পাকা সড়কে পৌঁছালে আসামি টিটু, রাজ্জাক ও আবু সরদারা মিলে মইন ও রনিকে এলোপাতাড়িভাবে মারধর করে আহত করে ওই কিশোরীকে অপহরণ করে।

ওইদিন রাতে আসামি টিটুর বাড়িতে ওই কিশোরীকে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। চিৎকার করলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় ওই কিশোরী বাদী হয়ে নড়িয়া থানায় মামলা করে। 

অন্যদিকে, ২০১৯ সালের ৩০ জুন ১৪ বছরের ওই কিশোরীর বাড়ি ছিল নড়িয়া উপজেলায়। নদী ভাঙনে গৃহহীন হয়ে জাজিরার একটি গ্রামে আশ্রয় নেয় পরিবারটি। ওই কিশোরী বিকেলে তার এক আত্মীয়র বাড়ি যাওয়ার জন্য শরীয়তপুর জেলা শহরের বাস টার্মিনালে আসেন। তখন সেখানে দেখা হয় পূর্ব পরিচিত পরিবহন শ্রমিক ইসলামের সঙ্গে। ইসলাম ওই কিশোরীকে তার আত্মীয়র বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে তার বন্ধু রাকিব মন্ডল ও সবুজের সাথে অটোরিকশায় তুলে দেয়। রাকিব ও সবুজ মেয়েটিকে নিয়ে মনোহর বাজারে যান।

পরে রাকিবের বাড়িতে নেয়া হয়। সেখানে মেয়েটির মুখ বেঁধে রাকিব ও সবুজ প্রথম দফায় ধর্ষণ করেন। এরপর সন্ধ্যায় ওই বাড়িতে যায় ইসলাম। রাতে ইসলামও মেয়েটিকে ধর্ষণ করেন। পুনরায় ধর্ষণ করা নিয়ে ইসলামের সঙ্গে রাকিব ও সবুজের কথা কাটাকাটি হয়। তখন ইসলাম মেয়েটিকে তাদের বাড়ির পাশের শরীয়তপুর বনবিভাগের পুকুর ঘাটে নিয়ে যায়। পুকুর ঘাটে নিয়েও মেয়েটিকে ধর্ষণ করা হয়। পরে কিশোরীকে পুলিশ উদ্ধার করে। রাতে ওই কিশোরীর বাবা বাদি হয়ে পালং মডেল থানায় মামলা করেন।

নড়িয়া থানা ও পালং মডেল থানা পুলিশ মামলাটি তদন্ত করে ২০২০ সালে আদালতে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পরবর্তী সময়ে মামলাটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বিচারের জন্য গেলে আদালত সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

শরীয়তপুরের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মির্জা হজরত আলী জানান, রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তবে আসামিপক্ষের আইনজীবী এই দণ্ডাদেশের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন বলে জানান।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মাথায় গাছের ডাল পরে কাঠ ব্যবসায়ীর মৃত্যু

মো. বুরহান উদ্দিন, সুনামগঞ্জ

মাথায় গাছের ডাল পরে কাঠ ব্যবসায়ীর মৃত্যু

সুনামগঞ্জের কুরবান নগর ইউনিয়নের বদিপুর গ্রামে মাথায় গাছের ডাল পরে শওকত আলী (৪৫) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে।

আজ সোমবার (১ মার্চ) বিকেলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত শওকত আলী বদিপুর গ্রামের মৃত আব্দুল বারিকের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিহত শওকত আলী বিভিন্ন জায়গায় গাছ কিনে সেই গাছ কেটে কাঠ তৈরি করে বিক্রি করতেন।  নিজের গ্রামে একটি কদম গাছ কিনে সোমবার বিকেলে শ্রমিক দিয়ে সেই গাছ কাটছিলেন।


প্রতিদিন নতুন নারী লাগত তার, পরতেন ত্রিশ দিনে ৩০ সানগ্লাস

১৭ বছরের কিশোরীর পেটে ৪৮ সেন্টিমিটার লম্বা চুলের দলা

ছোট ভাই মাকে বলল,‘আপুকে পেছনের রুমে নিয়ে গেছে এক ভাইয়া

স্ত্রীকে সৌদি পাঠিয়ে ৮ বছরের মেয়েকে নিয়মিত ধর্ষণ করে বাবা


অসাবধানতা বশত গাছের বড় একটি ডাল শওকত আলীর মাথায় পরে। গাছের ডালের আঘাতে তিনি জ্ঞান হারান। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তবরত চিকিৎসক জাহিদ হাসান বলেন, মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত শওকত আলী নামের একজনকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিল। তবে হাসপাতালে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ময়মনসিংহে ছিনতাকারী চক্রের ছয় নারী সদস্যসহ আটক ৭

সৈয়দ নোমান, ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহে ছিনতাকারী চক্রের ছয় নারী সদস্যসহ আটক ৭

ময়মনসিংহ নগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ছিনতাইকারী চক্রের ছয় নারী সদস্য ও এক পুরুষ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে দশটি স্বর্ণের চেইন ও ছিনতাইকাজে ব্যবহৃত বিশেষ কাটার উদ্ধার করা হয়েছে। অন্তত তিন মাস ধরে নগরীতে ছিনতাই করছিলো তারা।

আটকরা হলেন- নাসিমা বেগম (২২), নিহার বেগম (২৫), শিল্পি বেগম (২৫), মনোয়ারা বেগম (৪৫), সুরাইয়া বেগম (৪১) ও মো. রাশেদ মিয়া (২৫)। তাদের সবার বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর এলাকায়। শম্ভুগঞ্জ এলাকায় বাসা ভাড়া
নিয়ে তারা থাকতো।


এক নারী দিয়ে হতো না, প্রতিদিন নতুন নারী লাগত তার

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

মেয়েকে তুলে নিয়ে মাকে রাত কাটানোর প্রস্তাব অপহরণকারীর

নাসির বিয়ে করেছেন আপনার খারাপ লাগে কেন?


সোমবার সকাল সাতটার দিকে তাদের আটক করা হয় বলে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি শাহ কামাল আকন্দ জানিয়েছেন।

তিনি আরও জানান, এক শিক্ষিকার পাাঁচ বছর বয়সী মেয়ের স্বর্ণের চেইন ছিনতাই করতে গিয়ে হাতেনাতে আটক হয় পাপিয়া আক্তার (২৭) ও শিল্পি আক্তার (২৪) নামে আরো দুই নারী ছিনতাইকারী। তাদের বাড়ি ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার চরশ্রীরামপুর গ্রামে। তাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হবে।

পুলিশ সুপার মোহা. আহমার উজ্জামান বলেন, জনসমাগম বেশি এমন স্থানকে টার্গেট করে অপতৎপরতা চালাচ্ছিল চক্রটি। এই চক্রটি সুকৌশলে মানুষের মোবাইল ও চেইন ছিনতাইসহ নানা অপরাধমূলক কাজে জড়িত ছিল। চক্রটির মূলহোতাদের আইনের আওতায় আনার চেষ্টা করা হচ্ছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মাদ্রাসা শিক্ষকের হাত-পা বাঁধা ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

শেখ রুহুল আমিন, ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় এক মাদ্রাসা শিক্ষকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

আজ সকালে সদর উপজেলার বাজারগোপালপুর কলুপাড়ার একটি ভাড়াবাসা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত ইসমাইল হোসেন সদর উপজেলার হলিধানী গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে। 

পুলিশ জানায়, বাজারগোপালপুর বড়বাড়ি দাখিল মাদ্রাসার সুপার ইসমাইল হোসেনের ভাড়া বাসার নিজ কক্ষে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয় পরিবারের লোকজন। 


পুলিশকে কেন প্রতিপক্ষ বানানো হয়, প্রশ্ন আইজিপির

আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

বিমা খাতে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে আরও প্রচার প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেললো বাংলাদেশ


পরে পুলিশ এসে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। স্থানীয় ও পুলিশের ধারণা ওই মাদ্রাসা শিক্ষককে রাতের কোনো এক সময় দুর্বৃত্তরা হাত-পা বেঁধে ঘরের কাঠামোর সাথে ঝুলিয়ে হত্যা করেছে। গত ৪ বছর ধরে গ্রামের শরিফুল ইসলামের বাড়িতে স্ত্রী সন্তান নিয়ে তিনি বসবাস করে আসছিল।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মোবাইলে পরিচয়, দেখা করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

আব্দুল লতিফ লিটু, ঠাকুরগাঁও

মোবাইলে পরিচয়, দেখা করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

ঠাকুরগাঁওয়ে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ১৫ বছর বয়সী এক তরুণীকে গণধর্ষণ করার আভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের ভগদগাজী মুরগীর ফার্ম এর পাশে একটি আম বাগানে এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

গণধর্ষণের ঘটনায় ওই তরুণীর মা বাদী হয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। 

এ মামলায় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তাররা হলেন- রাণীশংকৈল উপজেলার উত্তর মহেশপুর গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে বাবুল (১৯), একই এলাকার খলিলুর রহমানের ছেলে সোহেল রানা (২০), নুনতোর বাবুপাড়া গ্রামের শামসুদ্দীনের ছেলে রমজান আলী (১৯), ঝাড়বাড়ি মোহাম্মদপুর গ্রামের মোসলেম উদ্দীনের ছেলে পইদুল ইসলাম (২২)।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, এক মাস আগে ওই তরুণীর সাথে বাবু ওরফে বাবুলের মোবাইলে পরিচয় হয় এবং প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

পরে শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে তরুণী খালার বাসায় খাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে কাশিয়াডাঙ্গা ব্রিজে বাবুলের
সঙ্গে দেখা করতে যায়।

সেখানে আগে থেকে অপেক্ষারত বাবুল ও তার সহযোগী সোহেল সহ অপরিচিত ৪-৫ জন ওই তরুণী ও তার সাথে থাকা ভাতিজিকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।


প্রতিদিন নতুন নারী লাগত তার, পরতেন ত্রিশ দিনে ৩০ সানগ্লাস

১৭ বছরের কিশোরীর পেটে ৪৮ সেন্টিমিটার লম্বা চুলের দলা

ছোট ভাই মাকে বলল,‘আপুকে পেছনের রুমে নিয়ে গেছে এক ভাইয়া

স্ত্রীকে সৌদি পাঠিয়ে ৮ বছরের মেয়েকে নিয়মিত ধর্ষণ করে বাবা

৬৬ নারীকে ধর্ষণ করেছে এক ‌‘ডেলিভারি বয়’


ভগদগাজী মুরগীর ফার্মে ওই তরুণীর ভাতিজিকে আটকে রেখে পাশের আম বাগানে বাবু ওরফে বাবুল ও তার সহযোগী সোহেল সহ অন্যরা ধর্ষণ করে।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মামলার তদন্ত চলছে, অন্য আসামিদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মন্তব্য

পরবর্তী খবর