সামিকে ত্যাজ্যপুত্র করার পরদিনই মারা যান বাবা লে. কর্নেল (অব.) আবদুল বাসেত

অনলাইন ডেস্ক

সামিকে ত্যাজ্যপুত্র করার পরদিনই মারা যান বাবা লে. কর্নেল (অব.) আবদুল বাসেত

২০০৬ সালের ২০ জুলাই র‌্যাব কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে রাজধানীর ফার্মগেটের এজে টেলিকমিউনিকেশন থেকে ৯ লাখ ৯০ হাজার টাকার মোবাইল ফোন কিনে একটি ভুয়া চেক দেন। একইভাবে প্রাইজ ক্লাব নামক একটি কম্পিউটার ফার্ম থেকে ১০টি ল্যাপটপ কেনার কথা বলে দুটি ল্যাপটপের গুণগত মান দেখার কথা বলে চেক দিয়ে দুটি ল্যাপটপ নিয়ে আসেন। চেক ডিস-অনার হলে অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাব-১ তাঁকে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনার পর তাঁকে এনপিজি ঘোষণা করে সব সেনানিবাস ও দপ্তরে অবাঞ্ছিত করা হয়। এ ঘটনার পর সামিকে ত্যাজ্য করেছিলেন বাবা লে. কর্নেল (অব.) আবদুল বাসেত। ঠিক এর পরদিন ২০০৬ সালের ২৩ জুলাই মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন তিনি।

সেনা কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে প্রথম স্ত্রীকে না জানিয়েই এক সেনা কর্মকর্তার মেয়েকে বিয়ে করেছিলেন সামি। অ্যান্টেনা ভাঙা ভিএইচএফ (ওয়াকিটকি) নিয়ে মার্কিন দূতাবাসের নিরাপত্তা কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা দেওয়ার নামে কয়েকজনের কাছ থেকে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ ছিল সামির বিরুদ্ধে। ব্যবসার কথা বলেও অনেকের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়েছিলেন। শ্বশুরের অর্থে হাঙ্গেরিতে রেস্তোরাঁ ব্যবসা শুরু করার পর বিএনপির রাজনীতিতে যুক্ত হন। ব্যবসা-বাণিজ্যের কথা বলে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার জন্য অনেকেই সামিকে খুঁজছেন।

আরও পড়ুন:

বঙ্গবন্ধুর খুনিকে ফেরাতে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা চাইলেন সেনাপ্রধান

পাষণ্ড মামার ধর্ষণচেষ্টায় তিন বছরের শিশু রক্তাক্ত

ডিজে নেহার খদ্দেরের তালিকায় ধনাঢ্য ব্যবসায়ীরা!


সামি সম্পর্কে তার বন্ধু ওমর শরীফ আরেফিন ফেসবুকে লিখেছেন, সাদা পাঞ্জাবি আর জিন্স পরে সে হাতে একটা অ্যান্টেনা ভাঙ্গা ভিএইচএফ (ওয়াকি-টকি) সেট নিয়ে ঘুরছে। ভিএইচএফ দেখে জিজ্ঞেস করলাম, কী ব্যাপার ভাঙ্গা রেডিও নিয়ে কী করো, সে বলল সে নাকি ইউএস এম্বাসিতে সিকিউরিটির কাজ করে তাই রেডিও রাখতে হয়! সাধারণত এসব রেডিওর রেঞ্জ হয় কয়েক শ মিটার! অথচ আমরা তখন শান্তিনগরে বসে বিয়ে খাচ্ছি, বুঝলাম এটাও তার একটা ভেল্কি!

তার কিছুদিন পর সে তার স্ত্রী-সন্তান রেখে হাওয়া হয়ে গেল, এর ভেতর পালিয়ে বিয়ে করার কারণে তার স্ত্রীকে বাসা থেকে বের করে দিয়েছিল তার বাবা-মা, মেয়েটা তখন বিশাল একটা দুর্বিপাকে পড়ল। স্বামী নিরুদ্দেশ, ছোট বাচ্চা, বিয়ে-বাচ্চা নিয়ে পড়াশোনাতেও বাধা পড়েছে, কোনোমতে একটা চাকরি করে সে তখন তার এই দুঃসময় পার করেছিল। তার বেশ কিছুদিন পর একটা রেস্তোরাঁয় বসে আছি, দেখি সেনাবাহিনীর একটা জিপ থেকে নামছে হিরো, এর ভেতর তার স্বাস্থ্য প্রায় মাশাল্লাহ তিন গুণ হয়েছে, সঙ্গে একটা মেয়ে। আমার সঙ্গে দেখা হওয়ায় সে হতচকিত; কিন্তু চাল্লু ছেলে ঘাবড়াল না, বলে নতুন বিয়ে করেছে, জেনারেলের মেয়ে আলহামদুলিল্লাহ! আমার স্ত্রী সঙ্গে সঙ্গে তার বান্ধবীকে ফোন দিয়ে সব কথা জানাল, তার বান্ধবী মানে হিরোর প্রথম স্ত্রী তো আকাশ থেকে পড়ল এই কথা শুনে, সে কিছু জানেই না এ সম্পর্কে! এ নিয়ে নারীমহলে নাকি ব্যাপক কালবৈশাখীর তাণ্ডবলীলা চলেছিল বলে শুনেছি, আমি মনে মনে বলেছিলাম লাকিম্যান! 

গত বছর সাইবার ক্রাইম ইউনিট অনলাইনে জাতির পিতা, শেখ হাসিনা ও মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে কটূক্তি ও আপত্তিকর প্রচারণা এবং করোনা ভাইরাস নিয়ে অপপ্রচারসহ বিভিন্ন গুজব রটিয়ে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির জন্য, যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে তাদের অন্যতম সামি। ‘উই আর বাংলাদেশি’ পেজ থেকে রাষ্ট্রবিরোধী প্রচারণার অভিযোগে অভিযুক্তদের ল্যাপটপ ও মোবাইল অনুসন্ধান করে ১১ জনের সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পান গোয়েন্দারা। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাসনিম খলিল, সামিসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে ২০২০ সালের মে মাসে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়। এ মামলার প্রতিবাদে কলাম লিখেছিলেন আরেক অপপ্রচারকারী ডেভিড বার্গম্যান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, বাংলাদেশকে টার্গেট করে বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের সেনাবাহিনী ও সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার লক্ষ্যেই কল্পিত তথ্যচিত্রটি নির্মাণ করা হয়েছে। একই সঙ্গে প্রতারণা ও মিথ্যাচারে সিদ্ধহস্ত বিতর্কিত ব্যক্তিদের দিয়ে আলজাজিরার এই তথ্যচিত্র তৈরির উদ্দেশ্য কারো বুঝতে আর বাকি নেই।  সূত্র: কালের কণ্ঠ

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সৌজন্য: বিবিসি বাংলা

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পরিবর্তনের আভাস আইনমন্ত্রীর

অনলাইন ডেস্ক

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পরিবর্তনের আভাস আইনমন্ত্রীর

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় গাজীপুরের কাশিমপুর হাই-সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি অবস্থায় লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় আইনটি নিয়ে নতুন করে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। একইসাথে আইনটির কিছু ধারা বিকর্তিত উল্লেখ করে দেশব্যাপী শুরু হয় বিক্ষোভ। এমন প্রেক্ষাপটে সরকার এখন আইনটির অপপ্রয়োগ বন্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা ভাবছে।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, এ আইনে কোনো অপরাধের অভিযোগ এলে পুলিশের তদন্তের আগে কাউকে গ্রেপ্তার করা যাবে না বা তার বিরুদ্ধে মামলা নেওয়া যাবে না-এমন ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

জামিন হওয়া না হওয়ার প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, সাজা যতটা হলে জামিন হবে এবং যতটা হলে জামিন হবে না-ঠিক সেই প্রিন্সিপালটা ফলো করে আমরা বিধান করেছি। সারা পৃথিবীতেই এটা করা হয়। এমনকি এ উপমহাদেশেও। বিষয়টা নিয়ে আমরা আলাপ আলোচনা করছি। সব আইনই যখন করা হয়, তখন কিন্তু একটা ট্রায়াল অ্যান্ড এরর বা পরীক্ষা-নিরীক্ষার মধ্য দিয়ে যায়। কথা হচ্ছে, এখানে যদি কিছু অ্যাবিউজ এবং মিসইউজ হয়, সেটা কি করে বন্ধ করা হবে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা আমরা নিচ্ছি।

বিষয়টি নিয়ে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের সঙ্গেও আলোচনা করার কথা জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, "জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের অফিসের সঙ্গে আমি আলাপ চালাচ্ছি। সারা বিশ্বের সঙ্গে আমরা এটার তুলনা করছি। মিসইউজ যেগুলো ধরা পড়ছে বা অ্যাবিউজ যেগুলো হচ্ছে, সেগুলোর জন্য একটা চেক অ্যান্ড ব্যালেন্স সিস্টেম কীভাবে ডেভেলপ করা যায়, এ আইনের মধ্যেই কীভাবে সেটা থাকতে পারে সেই ব্যবস্থা আমরা করছি।"

আওয়ামী লীগ সরকার নানা বিতর্কের মধ্যেই ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণয়ন করে। আইনটি যখন খসড়া করা হয়, তখনই গণমাধ্যম এবং মানবাধিকার কর্মীরা আপত্তি তুলেছিলেন আইনের অপপ্রয়োগ নিয়ে। এই আইনে ৯ মাস ধরে আটক থাকা লেখক মুশতাকের মৃত্যুর পর অভিযোগ উঠেছে যে, ছয় বার আবেদন করেও জামিন মেলেনি তার।

বিশ্লেষকদের অনেকে মনে করেন, এই আইনের কারণে গণমাধ্যমের পাশাপাশি সাধারণ নাগরিকদের মধ্যেও ভয়ের সংস্কৃতি তৈরি হয়েছে।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মত প্রকাশ বা বাক স্বাধীনতা খর্ব করছে বলে অভিযোগ রয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক শাহনাজ হুদা বলেন, "ভিন্নমত যাতে না আসে, সেজন্য সরকার আইনটি করেছিল বলে আমি মনে করি। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটা ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে একটা পরিবেশ তৈরি হয়েছে। সত্যি কথা বলতে, আমাদেরই কিন্তু ভয় লাগে কোন কিছু সম্পর্কে একটা কমেন্ট করতে। একটা সেলফ সেন্সরশিপ কিন্তু এসে গেছে সবার মনে।"

আরও পড়ুন:


সাই পল্লবীর ফাঁস হওয়া ভিডিও ভাইরাল (ভিডিও)

আনুশকাকে ধর্ষণের পর হত্যা দিহানের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন পেছাল

ডিভোর্সের গুঞ্জনের মধ্যেই নতুন প্রেমে জড়ালেন শ্রাবন্তী!

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন স্থগিতের আহ্বান জাতিসংঘের


তবে মত প্রকাশের স্বাধীনতা বা বাক স্বাধীনতা খর্ব করার অভিযোগ মানতে রাজি নন আইনমন্ত্রী এবং সরকারের অন্য মন্ত্রীরাও। আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বিভিন্ন অভিযোগ নিয়ে সরকার এবং দলের উচ্চ পর্যায়ে তারা আলোচনা করছেন। ডিজিটাল দুনিয়ায় নানা অপরাধের প্রেক্ষাপটে আইনটির প্রয়োজন আছে বলেই সরকার মনে করছে।

ড. রাজ্জাক বলেন, আইনের অপব্যবহার হচ্ছে কীনা-সেটা আমরা অবশ্যই পর্যালোচনা করছি। এটা নিয়ে ব্যাপক সমালোচনাও হচ্ছে। তারপরও সাথে সাথে এটাও আমাদের চিন্তা করতে হচ্ছে যে, প্রযুক্তিগত এই সুযোগ বা সুবিধাটাকে আমরা অপব্যবহার করছি কিনা-এবং দেশের উন্নয়ন ও শান্তি আমরা বিঘ্নিত করছি কি না-এটাও আমাদের দেখতে হচ্ছে।

বিশ্লেষকরা মনে করেন, সরকার দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে আইনটি নিয়ে বিতর্ক বা সমালোচনার কারণে আওয়ামী লীগ সরকারের ভাবমূর্তির ওপর দেশে ও বিদেশে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নেত্রকোনায় জাতীয় ভোটার দিবস পালিত

সোহান আহমেদ কাকন, নেত্রকোনা

নেত্রকোনায় জাতীয় ভোটার দিবস পালিত

"বয়স যদি আঠারো হয় ভোটার হতে দেরি নয় " এই স্লোগানকে সামনে রেখে নেত্রকোনায় জাতীয় ভোটার  দিবস ২০২১ পালিত হয়েছে।

দিবসটি উপলক্ষে মঙ্গলবার (২ মার্চ) সকালে জেলা নির্বাচন অফিসের আয়োজনে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এসময় রঙিন বেলুন উড়িয়ে দিবসটির শুভ সূচনা করেন জেলা প্রশাসক কাজি মো. আবদুর রহমান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার মো. আকবর আলী মুনসী, জেলা নির্বাচন অফিসার আব্দুল লতিফ শেখ, উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোহাম্মদ ইদি আমিন সহ নির্বাচন কমিশনের সংশ্লিষ্টরা। এ ছাড়াও সাধারণ ভোটার সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ দিবসটির কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন।


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

পরবর্তী নির্বাচনে আবারও অংশ নিবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

ইরানের সমঝোতা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানে হতাশ যুক্তরাষ্ট্র

খাশোগি হত্যাকান্ড: রহস্যজনকভাবে বদলে গেল প্রতিবেদনে অভিযুক্তের নাম


এ সময় নির্বাচন অফিসার জানান, দেশব্যাপী নানা আয়োজনে দিবসটি পালিত হচ্ছে। এরই অংশ হিসেবে নেত্রকোনায়ও ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে পরিবহন বন্ধ রাখায় বিচ্ছিন্ন রাজশাহী

অনলাইন ডেস্ক

বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে পরিবহন বন্ধ রাখায় বিচ্ছিন্ন রাজশাহী

রাজশাহীতের বিএনপির সমাবেশ আজ মঙ্গলবার। সমাবেশকে ঘিরে কঠোর অবস্থানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সমাবেশ ঘিরে ‘হামলা-নাশকতার আশঙ্কায়’ গতকাল সোমবার সকাল থেকেই বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে রাজশাহীকে। সব রুটের সঙ্গে বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। 

কোনো ধরনের পূর্ব ঘোষণা ছাড়া আকস্মিক বাস বন্ধ করে দেওয়ায় দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। রাজশাহীর পরিবহন মালিক ও শ্রমিক নেতাদের দাবি, বাস চলাচল করলে হামলার আশঙ্কা আছে। তাই চালক-শ্রমিকদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে তারা বাস চলাচল আপাতত বন্ধ করে দিয়েছেন। পরিস্থিতি বুঝে পরে তারা আবারও বাস চলাচলের সিদ্ধান্ত নেবেন।

এদিকে চার দেয়ালের ভেতর বিএনপিকে বিভাগীয় সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছে পুলিশ। রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, ‘বিএনপি মধ্য শহরের রাস্তায় সমাবেশ করার অনুমতি চেয়েছিল। কিন্তু এসব এলাকায় সমাবেশ করলে মানুষের চলাচল বাধাগ্রস্ত হবে। তীব্র যানজট দেখা দেবে। এ জন্য মধ্য শহরে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি। আমরা বলেছি, ইনডোরে সমাবেশ করতে হবে।’

আরও পড়ুন:


শিক্ষাবিদ প্রফেসর মো. হানিফ আর নেই

নামাজের পূর্বের ৭টি ফরজ কাজ সম্পর্কে জানুন

নামাজের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নকারীদের পরিণতি কী?

বাংলাদেশের মিডিয়া মুক্ত ও সোচ্চার: বিক্রম দোরাইস্বামী


রাজশাহী মহানগর বিএনপির মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, ‘আমরা শহরের সাহেববাজার জিরোপয়েন্ট, মনিচত্বর, সোনাদীঘি বা গণকপাড়া এলাকায় সমাবেশের জন্য অনুমতি চেয়েছিলাম। কোথায়ও অনুমতি দেয়নি। শেষ পর্যন্ত নাইস কনভেনশন সেন্টার চত্বরে বিভাগীয় সমাবেশ করার অনুমতি মিলেছে। আমরা সেখানেই করব। 

রাজশাহী বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মতিউল হক টিটো জানান, মঙ্গলবার রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশ ঘিরে তারা সড়কে বিশৃঙ্খলা ও যানবাহনে সন্ত্রাসী হামলার আশঙ্কা করছেন। এ কারণে তারা সোমবার সকাল থেকে বাস চলাচল বন্ধ রেখেছেন।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

শিক্ষাবিদ প্রফেসর মো. হানিফ আর নেই

রাহাত খান, বরিশাল

শিক্ষাবিদ প্রফেসর মো. হানিফ আর নেই

বরিশালের সর্বজন শ্রদ্ধেয় শিক্ষাবিদ সরকারি ব্রজমোহন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. হানিফ আর নেই। (ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেউন)। 

সোমবার দিবাগত রাত সোয়া ১০টার দিকে ঢাকার ইবনেসিনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯০ বছর। তিনি ৪ ছেলে ও ২ মেয়ে নাতি-নাতনীসহ অসংখ্য স্বজন এবং শুভাকাঙ্খী রেখে গেছেন। 

প্রফেসর মো. হানিফ দির্ঘদিন ধরে বার্ধক্য জনিত নানা রোগে ভুগছিলেন বলে জানিয়েছেন বিএম কলেজের অর্থনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. আক্তারুজ্জামান খান।

আরও পড়ুন:


নামাজের পূর্বের ৭টি ফরজ কাজ সম্পর্কে জানুন

নামাজের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্নকারীদের পরিণতি কী?

বাংলাদেশের মিডিয়া মুক্ত ও সোচ্চার: বিক্রম দোরাইস্বামী

আন্তর্জাতিক ১৩ প্রেস মুশতাক হত্যাকাণ্ডের সঠিক তদন্ত চায়: নুর


প্রফেসর মো. হানিফ জীবদ্দশায় ব্রজমোহন কলেজ ছাড়াও সরকারি সৈয়দ হাতেম আলী কলেজ ও বরিশাল ইসলামিয়া কলেজের অধ্যক্ষ এবং যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট কমিটির সাবেক সদস্য ছিলেন তিনি। 

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় এবং বরিশাল শিক্ষা বোর্ড প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে অগ্রসেনাদের একজন অধ্যক্ষ মো. হানিফ।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাংলাদেশের মিডিয়া মুক্ত ও সোচ্চার: বিক্রম দোরাইস্বামী

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশের মিডিয়া মুক্ত ও সোচ্চার: বিক্রম দোরাইস্বামী

বাংলাদেশের মিডিয়াকে ‌‘প্রাণবন্ত, মুক্ত, বর্ণময় এবং অত্যন্ত সোচ্চার’ বলেছেন ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী। 

তিনি সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সংস্কারকৃত মিডিয়া সেন্টারের উদ্বোধনকালে এ কথা বলেন।

এ সময় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান, যুগ্ম সম্পাদক মইনুল আলম ও কোষাধ্যক্ষ শাহেদ চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ভারতীয় হাইকমিশনার বলেন,  দু'দেশের মধ্যে অংশীদারিত্ব এগিয়ে চলেছে। এই গুরুত্বপূর্ণ মাসে প্রেস ক্লাবের এ আয়োজনে থাকতে পেরে আনন্দিত।


সবইতো চলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন ঈদের পরে খুলবে: নুর

আইন চলে ক্ষমতাসীনদের ইচ্ছেমত: ভিপি নুর

রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ

মোবাইলে পরিচয়, দেখা করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

নোয়াখালীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা: স্বামী আটক


তিনি বলেন, জাতীয় প্রেস ক্লাব এমন একটি জায়গা যা বাংলাদেশের চেতনাকে প্রতিফলিত করে।

প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, দুদেশের মধ্যে সম্পর্ক সবদিক দিয়ে প্রসারিত হচ্ছে। প্রতিবেশী দুই দেশের গণমাধ্যমের মধ্যে আরও সহযোগিতার ওপরও জোর দেওয়া হয়েছে।

এ সময় তিনি জাতীয় প্রেস ক্লাবের মিডিয়া সেন্টারের উন্নয়নে ভারতীয় হাইকমিশনের অবদানের কথা স্মরণ করেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর