পুরুষ হয়েছেন বলে কি সভ্য হওয়া যায় না?

আমিনুল ইসলাম

পুরুষ হয়েছেন বলে কি সভ্য হওয়া যায় না?

আপনারা টিকা দিচ্ছেন ভালো কথা। কিন্তু বুক দেখিয়ে, অর্ধেক শরীর উঠিয়ে ছবি তুলছেন আর আমরা আপনার বুকে পশম আছে কী নেই, সেটাও দেখতে পাচ্ছি! পুরুষ হয়েছেন বলে কি একটু সভ্য হওয়া যায় না?

এরপর টিকা দিতে গেলে অতি সাধারণ টি-শার্ট পরে যাবেন। হাতা উঠিয়ে যাতে টিকা দিতে পারেন। ফ্যাশন কোম্পানিগুলো টিকা উপলক্ষে নতুন ধরনের পোশাক বানালেই তো পারে। আশা করছি ভালোই চাহিদা থাকবে। (ফেসবুক থেকে)

আমিনুল ইসলাম, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, অস্ট্রিয়া। 

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আমাদের মুক্তির সংগ্রামে নারীদের সরাসরি অংশগ্রহণ ছিল

শরিফুল হাসান

আমাদের মুক্তির সংগ্রামে নারীদের সরাসরি অংশগ্রহণ ছিল

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে স্বাধীনতা বাঙালি জাতির সবচেয়ে বড় অর্জন। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধে নারীর অবদানের কথা এলেই আমরা কেবল ধর্ষণ আর নিপীড়নের কথা বলি। 

কিন্তু এই ছবিগুলো বলছে আমাদের মুক্তির সংগ্রামে নারীদের সরাসরি অংশগ্রহণ ছিল উল্লেখযোগ্য। কিন্তু সেই ইতিহাসের কথা আমরা খুব বেশি বলি না। কেবল আন্তর্জাতিক নারী দিবসে না।

সারাবছরই এই ছবিগুলো নিয়ে আমরা কথা বলতে পারি। ‌আমাদের মুক্তির ইতিহাসে নারীর সাহসী এই ভূমিকাকে স্যালুট। জয় বাংলা।

শরিফুল হাসান, উন্নয়নকর্মী

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আজকের দিনটি আসলে পুরুষদের উদ্দেশ্যে

মাসুদা ভাট্টি

আজকের দিনটি আসলে পুরুষদের উদ্দেশ্যে

আজকের দিনটি নারী দিবস হিসেবে চিহ্নিত হলেও আসলে দিনটি পুরুষদের উদ্দেশ্যে এই কথাটিই জোর দিয়ে বলার জন্য যে, বন্ধুরা পৃথিবী থেকে আসুন বৈষম্য দূর করি, আর্ধেক আনন্দ নিয়ে বেঁচে থেকে কী লাভ বলুন? 

আসুন সবাই মিলে পূর্ণ আনন্দে বাঁচি। ভোগী আর ভোগ্যের বিভাজন থেকে বেরিয়ে সমতার পৃথিবীতে এসেই দেখুন, আপনার ভেতরকার অপরাধবোধ থেকে মুক্ত হয়েই দেখুন, পৃথিবী আসলে সুন্দর। 

আপনি মনে মনে একথা জানেন যে, সৃষ্টির শুরু থেকে আপনি যাকে ক্ষমতায়/শক্তিতে/বৈষম্যে পরাজিত, পদানত, পর্দানত করতে চেয়েছেন তারা আপনাকে শত্রুজ্ঞান করেনি, তারা আপনার পাশে দাঁড়িয়ে, আপনার সংগে থেকে কাজ করতে চেয়েছে সমতার ভিত্তিতে, সমানতর সক্ষমতা নিয়ে। 

আজকের দিনে এসব কথাই আপনাকে স্মরণ করিয়ে দিতে চাই আমরা। দিনটি তাই কেবল আমাদের নয়, আপনারও, আমার প্রিয় পুরুষ বন্ধু-পিতা-ভাই-সহকর্মী-সহযাত্রী আপনাদেরও।


বিশ্ব নারী দিবস আজ

নারীর কর্মসংস্থান হলেও বেড়েছে নির্যাতন নিপীড়ন

অস্তিত্ব রক্ষায় এখনো সংগ্রামী নারী, তবে আজো ন্যয্যতা আর নিরাপত্তা বঞ্চিত

সাইবার অপরাধের সবচেয়ে বড় ভুক্তভোগী নারীরা


আজকের দিনটি নারী দিবস হিসেবে চিহ্নিত হলেও আসলে দিনটি পুরুষদের উদ্দেশ্যে এই কথাটিই জোর দিয়ে বলার জন্য যে, বন্ধুরা পৃথিবী থেকে আসুন বৈষম্য দূর করি, আধেক আনন্দ নিয়ে বেঁচে থেকে কী লাভ বলুন?

 
আসুন সবাই মিলে পূর্ণ আনন্দে বাঁচি। ভোগী আর ভোগ্যের বিভাজন থেকে বেরিয়ে সমতার পৃথিবীতে এসেই দেখুন, আপনার ভেতরকার অপরাধবোধ থেকে মুক্ত হয়েই দেখুন, পৃথিবী আসলে সুন্দর। 

আপনি মনে মনে একথা জানেন যে, সৃষ্টির শুরু থেকে আপনি যাকে ক্ষমতায়/শক্তিতে/বৈষম্যে পরাজিত, পদানত, পর্দানত করতে চেয়েছেন তারা আপনাকে শত্রুজ্ঞান করেনি, তারা আপনার পাশে দাঁড়িয়ে, আপনার সংগে থেকে কাজ করতে চেয়েছে সমতার ভিত্তিতে, সমানতর সক্ষমতা নিয়ে।
 
আজকের দিনে এসব কথাই আপনাকে স্মরণ করিয়ে দিতে চাই আমরা। দিনটি তাই কেবল আমাদের নয়, আপনারও, আমার প্রিয় পুরুষ বন্ধু-পিতা-ভাই-সহকর্মী-সহযাত্রী আপনাদেরও।

মাসুদা ভাট্টি, সাংবাদিক, দৈনিক আমাদের অর্থনীতি 

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

কর্ম, নেতৃত্ব, পরিবার, নারী পুরুষের সমান অধিকার

শরিফুল হাসান

কর্ম, নেতৃত্ব, পরিবার, নারী পুরুষের সমান অধিকার

এই তো গত বছরের সেপ্টেম্বরে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে সর্বোচ্চ শান্তিরক্ষী প্রেরণকারী দেশ হিসেবে বাংলাদেশ আবারও প্রথম অবস্থানে উঠে এলো। এর মধ্যেই আজ শুনলাম শান্তিরক্ষা মিশনে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশি চার জন বিচারক নারী যাচ্ছেন। দারুণ খবর। 

এই চার বিচারকের মধ্যে তিন জন দক্ষিণ সুদানে এবং অন্যজন সোমালিয়ায় অবস্থিত জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে (ইউএনএসওএম) যোগ দেবেন। আইন মন্ত্রণালয় বলছে, এই চার বিচারক জাস্টিস অ্যাডভাইজার হিসেবে বিচার ব্যবস্থার পুনর্গঠন ও উন্নয়নে কাজ করবেন।


পশ্চিমবঙ্গের কাছে পর্যাপ্ত পানি থাকবে তখন তিস্তা চুক্তি: মমতা

যে দোয়া পড়লে বিশ্ব নবীর সঙ্গে জান্নাতে যাওয়া যাবে!

খুলনায় সওজ কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি, ক্ষোভ

৭ই মার্চের অনুষ্ঠান থেকে বেড়িয়ে গেলেন অথিতিরা


অভিনন্দন মুন্সীগঞ্জের যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ আফসানা আবেদীন, টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নওরিন মাহবুবাকে। আন্তর্জাতিক নারী দিবসের দিন মানে ৮ মার্চ সকাল সাড়ে ১০ টায় দক্ষিণ সুদানের উদ্দেশে তাঁরা ঢাকা ত্যাগ করবেন। কক্সবাজার জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা জজ) জেবুন্নাহার আয়শা দক্ষিণ সুদান যাবেন আগামী ১৯ মার্চ। আর জামালপুরের যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ লুবনা জাহান আগামী ১৫ মার্চ সোমালিয়ার উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন।

আমি মনে করি জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে নারী বিচারকদের এই অংশগ্রহণ বাংলাদেশের জন্য একটি মাইলফলক। পাশাপাশি এ বছর ৮ মার্চের স্লোগান  কর্ম, নেতৃত্ব, পরিবার, নারী পুরুষের সমান অধিকার। আমি মনে করি এই স্লোগানটা অর্থবহ করে তুললেন আমাদের নারী বিচারকরা। কাজেই অভিনন্দন এই চার নারী বিচারককে। অভিনন্দন বাংলাদেশ। শুভ কামনা জগতের সব নারীদের জন্য।

(ফেসবুক থেকে)

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আমার অনেক একলা হয়ে যেতে ইচ্ছে করে

জসিম মল্লিক

আমার অনেক একলা হয়ে যেতে ইচ্ছে করে

আমরা প্রায়ই একলা হয়ে যেতে ইচ্ছে করে। একলা বাঁচতে ইচ্ছে করে। বৈষয়িক ভাবনা, ঘরবাড়ি, দালান কোঠা এসব খুব বিষময় মনে হয় আমার কাছে। প্রচুর সম্পদের ভার আমি নিতে পারব না। ডেবিট ক্রেডিটের হিসাব খুব অসহ্য লাগে আমার কাছে। আমি স্বীকার করি যে যে সুন্দরভাবে বাঁচার জন্য অর্থের প্রয়োজন আছে। আবার এটাও ঠিক যখন আমার কিছুই ছিল না তখনও আমি সুন্দরভাবে বেঁচেছিলাম। আনন্দময় ছিল সেই দিনগুলি। 

অনেক কিছু যে নাই সেই বোধটাই তৈরী হয়নি, তাই কিছু খারাপ লাগেনি। অনেক কিছু যে ছিল না তাতে কোনো কষ্ট পাইনি কখনো। ওই সময়ের জন্য ওটাই ছিল স্বাভাবিক। আমার খুব হালকা হয়ে বাঁচতে ইচ্ছে করে। পাখির পালকের মতো হালকা। আগে যেমন বেঁচেছিলাম। নির্ভার একটা জীবন ছিল। উদ্বেগহীন জীবন। ঘুম ভেঙ্গে যেনো কোনো অনাকাঙ্খিত খবর আমাকে বিচলিত না করে। সংসার এমনই যাঁতাকল যে প্রতিদিন কিছু লড়াই থাকে। বাঁচার লড়াই। স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো সামনে এসে পড়ে। প্রতিপক্ষ তৈরি হয়। 

আমার খুব একলা বাঁচতে ইচ্ছে করে। চারিদিকে সবই থাকবে। সবকিছুর মধ্যে আমি একলা হয়ে যাব। কিন্তু পৃথিবী এতো কোলাহলমুখর যে একলা হয়ে বাঁচা যায় না। এতো স্বার্থের সংঘাত যে নিজের মতো ডুব দিয়ে থাকা যায় না। আমাকে নিয়ে অনেকের অনেক অভিযোগ। স্ত্রীর অভিযোগ, ভাই বোনের অভিযোগ, বন্ধুর অভিযোগ, আত্মীদের অভিযোগ। 

আমি মানি যে আমার অনেক ত্রুটি আছে, সীমাব্ধতা আছে। আমি চাইলেও এসব ত্রুটি কাটিয়ে উঠতে পারব না। আমার অনেক কাছের আত্মীয়রাও আমাকে খারিজ করে দিয়েছে। ডিলিট করে ফেলেছে আমার নাম। যাদের জন্য অনেক করেছি, অনেক মমতা দিয়েছি তারাও আমার কাছ থেকে দূরে সরে গেছে।

কেনো গেছে সেই কারন জানা নাই। জানতে পারলে ভাল হতো। কিন্তু জানতে ইচ্ছা করে না। আবার আমাকে ভালবাসে এমন আত্মীয়র সংখ্যাও কম না। আমার খুব একলা বাঁচতে ইচ্ছা করে।


মেসি ঝড়ে বার্সার জয়, অ্যাতলেটিকোর সঙ্গে ব্যবধান কমলো

এবার অনলাইনে প্রতারণার শিকার মিমি চক্রবর্তী

ভালো ছেলে পেলে তৃতীয় বিয়ে করবেন মুনমুন

রবিবার যেসব এলাকা বন্ধ থাকবে


আমাকে নিয়ে কখনো কোনো অভিযোগ করে না আমার ছেলে মেয়ে। ভুল ত্রুটি খুঁজে বেড়ায় না। আমার সবকিছুতে ওদের সায় আছে। কখনো কোনো অবান্তর প্রশ্ন করেনা আমাকে। আমার ব্যর্থতা নিয়ে কোনো কথা বলে না। কোনোদিন কোনো কিছুর জন্য জোর করেনি যা আমি করতে পারব না। কোনো রাগ অভিমান করে থাকেনি। বরং আমি রাগ করে আমিই সরি বলেছি অনেকদিন। 

আমি যে লিখি তাতে ওরা প্রাউড ফীল করে। আমি যে দেশে যাই তাতেও সবসময় সম্মতি থাকে। ওদের বক্তব্য হচ্ছে বাবার যা ভাল লাগে তাই করবে। ওরাই আমার শক্তির জায়গা। সবসময় সমর্থন থাকে বাবার পক্ষে। কোনো কিছু না চাইতেই বাবার জন্য করতে চায়। তাই ওদেরকে কিছু বলা থেকে বিরত থাকি আমি।

আমি সবসময় অকপটে ওদের কাছে আমার জীবনের গল্পগুলো বলি। আমার না পাওয়া গল্প, বেদনার গল্প বলি। কিন্তু এমনভাবে বলি যেনো ওটাই বিরাট আনন্দের কিছু ছিল। যেনো কোনো বিষাদ ভর না করে ওদের মনে। কাউকে বিষাদ দিতে চাই না।

আমার অনেক একলা বাঁচতে ইচ্ছা করে। একলা হয়ে যেতে ইচ্ছা করে। কিন্তু কিভাবে একলা হতে হয় তাই জানি না। চারিদিকের  নানা ঘটনা অষ্ঠে পৃষ্ঠে জড়িয়ে থাকে তাই একলা হওয়া অসম্ভব হয়ে পড়ে। মায়া জিনিসটা খুব খারাপ, খু্ব পোড়ায়। মায়া কিছুতে ছাড়ে না। 

সন্তানের জন্য মায়া, স্ত্রীর জন্য মায়া, ভাই বোন, আত্মীয়, বন্ধুর জন্য মায়া। তাই আর একলা হওয়া হয়ে ওঠেনা। এই যে বেঁচে আছি,, এই যে দীর্ঘ ঘরবন্দী জীবন, এই যে বস্তুগত জীবন তার মধ্যেও নিজেকে খুব একলা মনে হয়। সেদিন গাড়িতে যেতে যেতে অরিত্রিকে বললাম, আমার কোথাও চলে যেতে ইচ্ছা করে।

অরিত্রি কথাটার অর্ন্তনিহিত অর্থটা বুঝতে পরেনি। মনে করেছে আমি কোথাও ঘুরতে যেতে চাই বা দেশে যেতে চাই। অরিত্রি বলল, তাহলে বাংলাদেশে যাও। হ্যাঁ যাব। ভ্যাকসিন নিয়েই যাও, ঘুরে আসো। কিন্তু অরিত্রিকে তো আর বলা যায় না যে আমি একলা বাঁচতে চাই। এসব শুধু কল্পনায়ই থেকে যায়।

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সকলের জন্য শ্রবণশক্তির যত্ন

সাদিয়া তাজ ঐশী

সকলের জন্য শ্রবণশক্তির যত্ন

যোগাযোগ একটি মানবাধিকার এবং এটি সামাজিক সম্পর্কের অন্যতম অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ। শ্রবণশক্তি ভালো যোগাযোগের জন্য অত্যন্ত গরুত্বপূর্ণ ভূমিকা বহন করে। শিশুদের জধ্যে শ্রবণশক্তি বিকশিত না হলে তারা অনেক সময় পরিপূর্ণভাবে মনের ভাব প্রকাশ করতে পারে না, যোগাযোগ ক্ষমতা ব্যাহত হয়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, ২০৫০ সাল নাগাদ প্রতি চারজনে একজন শবণশক্তির ঘাটতিতে আক্রান্ত হবে। প্রতি বছর ৩ মার্চ বিশ্ব শ্রবণ দিবস পালিত হয়। ২০২১ সালের প্রতিপাদ্য ‌সকলের জন্য শ্রবণশক্তি শ্রবণ যন্ত্রের পরীক্ষাকরণ- পুনবাসন- যোগাযোগ।


আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকাণ্ড, ধরা ২০ নারী

চুমু দিয়ে নারীদের সব রোগ সারিয়ে দেন ‘চুমুবাবা’

বুবলিকে ধাক্কা দেওয়া গাড়িটি ছিল ব্ল্যাক পেপারে মোড়ানো, ছিল না নম্বর প্লেট

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ


প্রবৃত্ত এবং অধির ফাউন্ডেশনের যৌথ প্রযোজনায় শব্দ দূষণ এবং শ্রবণ ক্ষমতার ঘাটতি এর উপর একটি ফিজিক্যাল সেমিনার সভা অনুষ্ঠিত হয়। এখানে শ্রবণশক্তির প্রতি কীভাবে যত্ন নেওয়া যায়, কীভাবে দূষণ প্রবণের ক্ষতিসাধন করে এসবই আলোচনা করা হয়। উক্ত সভাটি পরিচালনা করেন প্রবৃত্তির সভাপতি মুবাশশিরা বিনতে মাহবুব এবং এডমিন ও এইচআর লাবিবা মোর্শেদ।

এছাড়াও প্রবৃত্ত এবং অধীর ফাউন্ডেশন সম্মিলিতভাবে যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ওয়েবিনার এর আয়োজন করে, এতে জনস্বাস্থ্য বিশেজ্ঞরা উপস্থিত ছিলেন। তারা শ্রবণ শক্তি বাংলাদেশ বধিরতার সামগ্রিক অবস্থা শ্রবণশক্তির সহায়ক যন্ত্র ও যন্ত্রের ব্যাপারে কথা বলেন। অডিয়েন্স থেকে প্রশ্নোত্তর এর একটি সেশন ছিলো যেখানে অতিথিরা উত্তর প্রদান করেন।

ওয়েবিনার এ শবণক্ষতির প্রতিরোধযোগ্য পদক্ষেপগুলো নিয়ে আলোচনা করা হয় এবং এ ব্যাপারে সাধারণ মানুষের সচেতনতা তৈরির জনসাধারণকে উদ্বুদ্ধ করা হয়ে থাকে।

সাদিয়া তাজ ঐশী, রিক্টর অফ পাবলিকেশন

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর