আবাহনী-শেখ জামালের খেলা ড্র

অনলাইন ডেস্ক

আবাহনী-শেখ জামালের খেলা ড্র

ঢাকা আবাহনীর ও শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের খেলা ২-২- গোলে ড্র হয়েছে। দুইবার পিছিয়ে পড়ে ঘুরে দাঁড়ায় শেখ জামাল।

খেলায় ত্রয়োদশ মিনিটেই এগিয়ে যায় আবাহনী। রায়হান হাসানের থ্রো ইনের পর ডি-বক্সের বাইরে বল পেয়ে সাইড ভলিতে জাল খুঁজে পেতে চেয়েছিলেন সোহেল রানা। কিন্তু বল বাইরে বেরিয়ে যাওয়ার আগে পা ছুঁয়ে জালে জড়িয়ে দেন হাইতির ফরোয়ার্ড কেরভেন্স বেলফোর্ট।

আরও পড়ুন:


আমেরিকাকে পরমাণু সমঝোতায় ফিরতে হবে: জারিফ

‌‘দূর সম্পর্কের বোনের’ সম্মতিতে শারীরিক সম্পর্ক, সাজা বাতিল হলো কিশোরের

তুরস্ককে বাইডেন প্রশাসনের হুমকি


১৯তম মিনিটে সমতায় ফেরে শেখ জামাল। লিগে টানা পাঁচ জয়ের স্বাদ পাওয়া দলটির উজবেক মিডফিল্ডার ভালিজনোভ ওতাবেকের পাস ধরে নিখুঁত শটে গোলরক্ষক শহিদুল ইসলামকে পরাস্ত করেন গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড সুলাইমান সিল্লাহ।

৩৭তম মিনিটে খেলায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। বল দখলের লড়াইয়ে রায়হান পড়ে যাওয়ার পর শেখ জামালের সলোমন কিং তার গায়ে বল মেরে বসেন।

দুই দলের খেলোয়াড়রাই এরপর বিবাদে জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে জুয়েল রানার সঙ্গে ধাক্কাধাকি হয় সলোমনের। পরে দুইজনকেই লাল কার্ড দেখান রেফারি।

১০ জন করে খেলোয়াড় নিয়ে দ্বিতীয়ার্ধের খেলার শুরুর পর ফের এগিয়ে যায় আবাহনী। বাঁ দিক থেকে রায়হানের ক্রসে ডাইভিং হেডে লক্ষ্যভেদ করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড রদ্রিগেজ দি সৌজা ফিলহো। ৭১তম মিনিটে সমতায় ফেরে শেখ জামাল। গাম্বিয়ান ফরোয়ার্ড মাসিহ সাইঘানির পাস ধরে নিখুঁত শটে গোল করেন ওমর জোবে।

এই ড্রয়ের পরও ৬ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে প্রিমিয়ার লিগের পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে আছে শেখ জামাল। এক ম্যাচ বেশি খেলা আবাহনী ১৫ পয়েন্ট নিয়ে আছে তৃতীয় স্থানে। আর এখন পর্যন্ত ৭ ম্যাচের সবগুলোতেই জিতে শীর্ষে আছে বসুন্ধরা কিংস।  

আজ অন্য ম্যাচে কুমিল্লার শহীর ধীরেন্দ্রনাথ স্টেডিয়ামে ১-০ গোলে  বাংলাদেশ পুলিশ এফসিকে হারিয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। মোহামেডান ৭ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে আছে ছয়ে। ১ ম্যাচ কম খেলা পুলিশের পয়েন্ট ৭,  স্থান নবম।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চ্যাম্পিয়নস লিগে সেমির দেখা পেতে ৭ বছর অপেক্ষা চেলসির

অনলাইন ডেস্ক

চ্যাম্পিয়নস লিগে সেমির দেখা পেতে ৭ বছর অপেক্ষা চেলসির

৭ বছরের অপেক্ষা। পোর্তোর বিপক্ষে হেরেও পয়েন্ট তালিকায় এগিয়ে থাকায় অবশেষে চ্যাম্পিয়নস লিগে সেমির দেখা পেল চেলসি। দলটির লক্ষ ছিলো পোর্তের বিপক্ষে জয় না পেলেও তাদের আটকানো। যদিও সেই কাজটিই করেছে ব্লুজরা।

কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে ২-০ গোলে জিতেছিল চেলসি। শেষ চারে যেতে হলে ফিরতি লেগে পোর্তোকে জিততে হতো ৩-০ ব্যবধানে। কিন্তু তা আর হয়েেউঠেনি। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ১-০ গোলে জিতেও সেমিফাইনালে যাওয়ার স্বপ্ন বিসর্জন দিতে হলো পর্তুগিজ ক্লাবটিকে।

দুই লেগ মিলিয়ে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে শেষ চার নিশ্চিত করল চেলসি। বৈশ্বিক মহামারি করোনার কারণে দুই লেগ-ই হয়েছে স্পেনের সেভিয়ায়। বলা চলে টমাস টুখেলের দল শেষ চারে আগেই এক পা দিয়ে রেখেছিল।

আরও পড়ুন


নববর্ষের রঙে সেজেছে ডুডল

দুই চোখ উপড়ে বুকে ছুরিকাঘাতে যুবককে খুন

করোনা রোধে কুয়েতে নামাজ ও রমজানের আনুষ্ঠানিকতায় বিধিনিষেধ

লকডাউন কার্যকরে কঠোর অবস্থানে পুলিশ, নগরীর মোড়ে-মোড়ে চেকপোস্ট


তবে সব কিছুর পরেও ছেড়ে দিয়ে কথা বলেনি পোর্তো। বল দখলে এগিয়ে থেকে গোলরক্ষক এদুয়ার্দ মেন্দির একের পর এক পরীক্ষা নিয়েও গোলের দেখা পাচ্ছিল না তারা। কিন্তু জালের খোঁজ যখন পেল তখন বড্ডই দেরি হয়ে গেছে।

নির্ধারিত সময় শেষে যোগ করা তৃতীয় মিনিটে সিপেলা গোমেজের ক্রস থেকে দুর্দান্ত বাইসাইকেল কিকে বল চেলসির জালে জড়ান মেহদি তারেমি। জয়সূচক গোল পেলেও শেষ আট থেকে ছিটকে যেতে হলো পোর্তোকে।

সেমিতে চেলসি প্রতিপক্ষ হিসেবে পেতে পারে লিভারপুল বা রিয়াল মাদ্রিদকে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

যাদু দেখাতে পারেননি মেসি, শেষ হাসি হাসলো রিয়াল

অনলাইন ডেস্ক

যাদু দেখাতে পারেননি মেসি, শেষ হাসি হাসলো রিয়াল

বার্সাকে হারিয়ে শেষ হাসি হাসলো রিয়াল মাদ্রিদ। রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে জয় ছিনিয়ে নিলো রিয়াল। শনিবার রাতে মৌসুমের দ্বিতীয় ক্লাসিকোয় আলফ্রেদো দি স্তেফানো স্টেডিয়ামে ২-১ গোলে জিতেছে রিয়াল। সেই সঙ্গে ৪৩ বছর পর কাতালানদের বিপক্ষে টানা তিন জয়ের দেখা পেল লস ব্লাঙ্কস। দুর্দান্ত এ জয়ে ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে বার্সা ও অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদকে টপকে টেবিলের শীর্ষে উঠে এলো বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

নিজের শেষ এল ক্লাসিকোতে ফুটবলের ক্ষুদে যাদুকরের পারফরম্যান্স ছিল একেবারেই বিবর্ণ। জমজমাট দ্বৈরথে শেষ হাসি হাসলো রিয়াল মাদ্রিদ। দারুণ এ জয়ে ১৯৭৮ সালের পর বার্সেলোনার বিপক্ষে টানা তিন জয়ের স্বাদ পেলো লস ব্লাঙ্কসরা।

আলফ্রেদো দি স্তেফানো চেনা মাঠ। আর সেই চেনা পরিবেশে বরাবরই অপ্রতিরোধ্য রিয়াল মাদ্রিদ। মৌসুমের দ্বিতীয় এল ক্লাসিকোর শুরুতেই আধিপত্য বিস্তার বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। যেখানে ভালভার্দে-ভিনিসিয়াস-করিম বেনজেমারা, বার্সার রক্ষণদূর্গে কাঁপন ধরিয়ে দেয়। ম্যাচের ১৪ মিনিটে লুকাসের অ্যাসিস্টে দুর্দান্ত সাইড ফ্লিকে বল জালে জড়ান ফরাসি ফরোয়ার্ড করিম বেনজেমা। 

লিড নিয়ে আরও আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠে জিদান বাহিনী। ২৭ মিনিটে টনি ক্রুসের ফ্রি কিক প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডার সের্জিনোর পিঠে লেগে জালের ঠিকানা খুঁজে নেয়। স্কোর লাইন দাঁড়ায় ২-০।

আরও পড়ুন


বরেণ্য রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী মিতা হক আর নেই

ভূমিকম্পে ইন্দোনেশিয়ায় শতাধিক ভবন ধস, নিহত ৮

ইউক্রেন সীমান্তে ‘ইস্কান্দার’ ক্ষেপণাস্ত্র মোতায়েন করেছে রাশিয়া

কি এমন দোয়া যা বিপদে পড়লেও করতে নিষেধ করেছেন প্রিয় নবী


বিরতির আগে মেসির কর্নার থেকে বল পোষ্টে লেগে ফিরে আসলে আর ব্যবধান কমানো হয়নি বার্সেলোনার। যদিও প্রথমার্ধের ৬৯ শতাংশ বল পায়ে রেখেও প্রতিপক্ষকে চাপে ফেলতে পারেনি কাতালানরা। যেখানে বার্সার ৬ শর্টের একটি ছিল লক্ষ্যে।

যদিও বিরতির পর মাদ্রিদে শুরু হয় মুষলধারে বৃষ্টি। সেই সাথে ঝড়ো বাতাস। প্রতিকূল পরিবেশে ঘুরে দাঁড়াতে প্রাণপণ চেষ্টা কোম্যান শিষ্যদের। অবশেষে ৬০ মিনিটে গোলের দেখা পায় বার্সা। ব্যবধান কমান প্রথমবারের মতো ক্লাসিকো খেলতে নামা তরুণ ডিফেন্ডার মিনগেসা।

তবে নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে মিনগেসাকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখেন ক্যাসেমিরো। দশ জনের দলে পরিণত হয় রিয়াল মাদ্রিদ। এরপর যোগ করা সময়ে ইলাইশের শট ক্রসবারে বাঁধা পেলে আর সমতায় ফেরা হয়নি বার্সোলোনার। রেফারির শেষ বাঁশি বাজতেই এল ক্লাসিকো জয়ের আনন্দে মেতে ওঠে রিয়াল শিবির।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ঘরের মাঠে লিভারপুলকে উড়িয়ে সেমিতে রিয়ালের এক পা

অনলাইন ডেস্ক

ঘরের মাঠে লিভারপুলকে উড়িয়ে সেমিতে রিয়ালের এক পা

চ্যাম্পিয়নস লীগের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে লিভারপুলকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। ঘরের মাঠ আলফ্রেড ডি স্টেফানোতে লিভারপুলকে এদিন পাত্তাই দেয়নি রিয়াল মাদ্রিদ।

জোড়া গোল করেছেন ভিনিসিয়াস জুনিয়র। ম্যাচের ২৭ মিনিটে টনি ক্রুসের পাস থেকে বল জালে জড়িয়ে গ্যালাক্টিকোদের ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে নেন ভিনিসিয়াস।

এরপর মার্কো অ্যাসেন্সিওর সহজ গোলে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে শেষ হয় প্রথমার্ধ।

৫৫ মিনিটে মো সালাহ লিভারপুলকে গোল এনে দিলে ২-১ ব্যবধানে ম্যাচ জমিয়ে তোলার বার্তা দেয় লিভারপুল কিন্তু, সেটি ধরে রাখতে পারেনি বেশীক্ষণ। ম্যাচের ৬৫ মিনিটের ভিনিসিয়াসের পা থেকে আবারও গ্যালাক্টিকোরা পেয়ে যায় গোল।

রিয়ালকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন ব্রাজিলিয়ান তরুণ ভিনিসিয়াস জুনিয়র আর লুকা মদ্রিচ এবং টনি ক্রুস দাপিয়ে বেড়িয়েছেন মধ্যমাঠ। আর ডিফেন্সিভ মিডফিল্ড থেকে তাদের বলের রসদ জুগিয়েছেন কাসেমিরো। পুরো ম্যাচেই মাঝমাঠ ছিলো এই গ্যালাক্টিকো ত্রয়ীর দখলে।

ইঞ্জুরিতে দলের প্রধান দুই ডিফেন্ডার রামোস ও ভারানে না থাকলেও তাদের অভাব বুঝতেই দেননি মিলিতাও ও নাচো ফারনান্দেস।

তবে প্রেস কনফারেন্সে জিনেদিন জিদান বলেন, "আমরা এখনো কিছুই জিতি নি। আমরা আজকের পারফর্মেন্সে খুশি। ম্যাচ পূর্ববর্তী অসুবিধা থাকা সত্ত্বেও প্লেয়াররা ‌অসাধারণ খেলেছে।"


আরও পড়ুনঃ


তিন পুরুষাঙ্গ নিয়ে শিশুর জন্ম!

টাকা আছে বলেই সব কিনে ফেলতে হবে!

গৃহবন্দি থাকার দুইদিনের মাথায় আনুগত্য প্রকাশ

একমত হইনি বলে দালাল হিসেবে সমালোচিত হয়েছি


ভিনিসিয়াস জুনিয়র সম্পর্কে জিদান বলেন, "আমি জানি না আজকের ম্যাচটি ভিনির সেরা ম্যাচ কিনা। কিন্তু এমন স্টেজে জোড়া গোল অনেক গুরুত্বপূর্ণ। সে এটি ডিজার্ভ করে। আমি আশা করবো আজকের ম্যাচটি তার আত্মবিশ্বাস বুস্ট করবে।"

কোয়ার্টার ফাইনালের ফিরতি লেগে লিভারপুলের ঘরের মাঠ অ্যানফিল্ডে দুই দল আবারও মুখোমুখি হবে আগামী ১৫ এপ্রিল।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রোনালদোর গোলেও জয় পেল না জুভেন্টাস

অনলাইন ডেস্ক

রোনালদোর গোলেও জয় পেল না জুভেন্টাস

নয় বছর পর ইতালিয়ান সিরি ‘আ’র শিরোপা খোয়ানোর পথে জুভেন্টাস। তুরিনোর মাঠে খেলতে গিয়ে ২-২ গোলের ড্র নিয়ে ফিরেছে জুভেন্টাস। এই ড্রয়ে লিগের আর মাত্র দশ ম্যাচ বাকি থাকতে ১২ পয়েন্ট পিছিয়ে গেছে জুভেন্টাস।

শনিবার রাতে গোল করেও দলকে জেতাতে পারেননি রোনালদো। মূলত রোনালদোর গোলেই পরাজয় এড়িয়েছে জুভরা। অথচ পুরো ম্যাচে বল দখলের লড়াই কিংবা আক্রমণের ধাঁরে এগিয়ে ছিল জুভেন্তাসই।

ম্যাচের ১৩ মিনিটের সময় ফ্রেডরিখ চিয়েসার গোলে লিড নেয় জুভেন্টাস। মাত্র ১৪ মিনিটের ব্যবধানেই সমতা ফেরায় স্বাগতিকরা। বিরতি থেকে ফিরে দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম মিনিটেই এগিয়ে যায় তুরিনো। পরে রোনালদোর সুবাদে সেই গোল শোধ দিতে ৭৯ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়ে জুভেন্টাসকে।


আরও পড়ুনঃ


সোমবার থেকে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ

এই সংস্কৃতিটা মামুনুল হকরা নিজে তৈরি করেছে

সৌদি যুবরাজের খেজুর খাওয়ার মতো গরীব বাংলাদেশে নেই

দল বেঁধে রিসোর্টে তাকে ঘেরাও করাকে কোনোভাবেই উৎসাহ দেয়া যায় না


এই ড্রয়ের পর ২৮ ম্যাচে ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চার নম্বরে রয়েছে জুভেন্টাস। সমানে ৬৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ইন্টার মিলান, ৬০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় এসি মিলান ও ৫৮ পয়েন্ট পাওয়া আটলান্টা রয়েছে তিন নম্বরে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ফাইনালে বাংলাদেশের স্বপ্নভঙ্গ

অনলাইন ডেস্ক

ফাইনালে বাংলাদেশের স্বপ্নভঙ্গ

নেপালের বিপক্ষে ২-১ গোলে হেরে স্বপ্ন ভঙ্গ হলো বাংলাদেশের। প্রথমার্ধে নেপাল ২-০ গোলে এগিয়ে যায়। দ্বিতীয়ার্ধে বাংলাদেশের হয়ে একটি গোল শোধ করেন মাহবুবুর রহমান। নেপালের হয়ে দুটি গোল করেন সংযোগ রায় ও বিশাল রায়।

২০০৩ সালে সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ। তখন থেকে অধরা ছিল শিরোপা। আজ সুযোগ পেয়েও তা হাতছাড়া হলো।

প্রথমার্ধে ২ গোলে এগিয়ে থাকা নেপাল ঠান্ডা মাথায় খেলে যাচ্ছিল। ১২তম মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে একটি ক্রস ঠিকমতো নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি ত্রিদেব গুরাং। পরে বল বিপমুক্ত করেন বাংলাদেশের ডিফেন্ডার রিয়াদুল হাসান রাফি। পাঁচ মিনিট পর নেপালের দারুণ একটি সুযোগ কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো।


কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানকে সমর্থন তুরস্কের, ভারতের ক্ষোভ

আবারও ইকো ট্রেন চলবে ইরান-তুরস্ক-পাকিস্তানে

সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে বিজিবির অভিযান, বিপুল গোলাবারুদ উদ্ধার

দেনমোহর পরিশোধ না করে স্ত্রীকে স্পর্শ করা যাবে কি না? 


তবে কর্নার থেকে পরের মিনিটেই এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। রাকিব হোসেন বল পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে ব্যর্থ হন। ফিরতি শটে ডান প্রান্ত দিয়ে বল জালে পাঠান অরক্ষিত সংযোগ। ২৮তম মিনিটে প্রথম কর্নার পায় বাংলাদেশ। তবে অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার নেওয়া কর্নারে ঠিকমতো মাথা ছোঁয়াতে পারেননি কেউ।

৩০তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করতে পারত নেপাল। তবে তা মিস হয়ে যায়। সমতায় ফিরতে নিজেদের গুছিয়ে নিয়ে আক্রমণে ওঠার চেষ্টা করে বাংলাদেশ।

৩৬তম মিনিটে জামালের ফ্রি-কিকে মেহেদী হাসানের হেড পোস্টের উপর দিয়ে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। উল্টো পাঁচ মিনিট পর আরেক গোল হজম করে বাংলাদেশ।

দ্বিতীয়ার্ধের সুমন রেজা, রিমন হোসেন ও মেহেদী হাসান রয়েলের জায়গায় যথাক্রমে টুটুল হোসেন বাদশা, ইয়াসিন আরাফাত ও মাহবুবুর রহমান সুফিলকে নামান বাংলাদেশ কোচ।

অবশ্য এ পরিবর্তনে ফলও পায় বাংলাদেশ। ৬৭তম মিনিটে ইয়াসিনের দূরপাল্লার শট পোস্ট ঘেঁষে বাইরে চলে যায়। চাপ ধরে রেখে ৮২তম গোল আদায় করে নেয় বাংলাদেশ। জামালের কর্নারে হেড করে সুফিল ভেদ করেন নিশানা। আসরে এটাই বাংলাদেশের প্রথম গোল।

বাকি সময়টাতে সুবিধা করতে পারেনি বাংলাদেশ। ফলে হারের তিক্ত অভিজ্ঞতা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাদের। নেপালের সঙ্গে শেষ চার ম্যাচে এটি বাংলাদেশের প্রথম হার।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর