ইউএস বাংলার ফ্লাইটে ৭ কেজি স্বর্ণ (ভিডিও)

মাসুদা লাবনী

ইউএস বাংলার ফ্লাইটে ৭ কেজি স্বর্ণ (ভিডিও)

আবারো ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের দুবাই ফেরত ফ্লাইটে মিললো সাম্প্রতিক সময়ের সবচেয়ে বড় স্বর্ণের চোরাচালান। মঙ্গলবার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ৭ কেজি স্বর্ণের চোরাচালান উদ্ধার করে কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর। 

ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের আন্তর্জাতিক ফ্লাইটগুলোয় গেল কয়েক বছরে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ চোরাচালানের স্বর্ণ উদ্ধার হওয়ায় উদ্বেগ জানান সংস্থাটির মহাপরিচালক ড. মো. আব্দুর রউফ।

আরও পড়ুন:


১১, ১৩, ১৪, ১৬ ও ১৭ বছরের ৫ মৃত কিশোরীকে ধর্ষণ করে মুন্না

‘করোনায় আক্রান্ত’ বলে ধর্ষণ থেকে বাঁচলেন তরুণী

‌‘বাড়ি চলে যান, নইলে অ্যাকশন’, বিক্ষোভকারীদের মিয়ানমারের সেনাবাহিনী

মোশাররফ করিম ‘বাংলাদেশের শাহরুখ খান’: আনন্দবাজার

গাড়িতে উঠিয়ে দরজা বন্ধ করে ধর্ষণ


এসব স্বর্ণ চোরাচালানের আড়ালে অস্ত্র ও মাদক চোরাচালান হয় বলেও জানান তিনি।

বাংলা এয়ার লাইন্সের ফ্লাইট থেকে স্বর্ণ উদ্ধারের ঘটনা নতুন কিছু নয়। এর আগেও ২০১৭ সালে দুই দফায় ৮ কেজি, ১৯-এ দুই দফায় প্রায় প্রায় সাড়ে ১০ কোটি টাকা মূল্যের এবং ২০২০ সালে কয়েক দফায় জব্দ হয় প্রায় ৯ কেজি স্বর্ণের বার। 

তবে মঙ্গলবারের উদ্ধার করা চালানটি সাম্প্রতিককালে সবচেয়ে বড়। এই ৬০ পিস স্বর্ণবারের বাজার মূল্য প্রায় পাচঁ কোটি টাকা। এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের ৮ জনকে আটক করা হয়েছে। দুপুরে কাকরাইলে সংস্থার প্রধান কার্যালয়ে এ নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন কাস্টমস গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক।

ইউএস বাংলা এয়ার থেকে বার বার চোরাই স্বর্ণ উদ্ধারের ঘটনায় পেছনের কারণ খুঁজতে বিশেষ গুরুত্বও দিচ্ছেন তারা।

মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে বিমানটি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবরতণের পর অভিযান চালানো হয়।

ভিডিও দেখুন

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ভ্যাকসিনে আগ্রহী নয় চরাঞ্চলের মানুষ

হুমায়ূন কবির সূর্য্য

ভ্যাকসিনে আগ্রহী নয় কুড়িগ্রামের চরাঞ্চলের মানুষ। এমনকি ভ্যাকসিন নিতে টাকা লাগবে কিনা, তা-ও জানা নেই অনেকের। রয়েছে ভ্রান্ত ধারণাও, অনেকে মনে করেন, চরে করোনার প্রকোপ নেই। জনপ্রতিনিধরা এসব মানুষকে টিকার আওতায় আনতে ভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। যদিও জেলা সিভিল সার্জন টিকা কার্যক্রম জোরদারে প্রশাসন ও গণমাধ্যমের সহযোগিতা চেয়েছেন।

নদী বেষ্টিত প্রত্যন্ত এলাকা। উন্নয়নের ছোঁয়া নেই বললেই চলে। কুড়িগ্রামের এসব চরের মানুষ শতভাগ কৃষিজীবী। এখানে চিকিৎসা সেবাও অপ্রতুল। গ্রামের মানুষের ধারণা চরগুলোয় করোনার বিস্তার কম। এছাড়া টিকা নিলে জটিলতা তৈরি হতে পারে। এমনই সব ভ্রান্ত ধারণায় টিকা নিতে আগ্রহী নন মানুষ।

ভ্যাকসিন নিয়ে সরকারের নেওয়া পদক্ষেপ সম্পর্কেও অবগত নন এসব কৃষিজীবী।


রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ

মোবাইলে পরিচয়, দেখা করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

নোয়াখালীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা: স্বামী আটক


জনপ্রতিনিধিরা বলছেন, দারিদ্র পীড়িত এলাকার মানুষ দূরের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যেতে আগ্রহী নন। এজন্য ভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ জরুরি।

টিকা কার্যক্রম সফল করতে জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের পাশাপাশি গণমাধ্যমকে ভূমিকা পালনের আহ্বান জানিয়েছেন কুড়িগ্রামের সিভিল সার্জন।

কুড়িগ্রামের ১৬টি নদ-নদীতে ৫ শতাধিক চর রয়েছে। এসব চরে ৫ লাখের বেশি মানুষ বসবাস করে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ফেলে দেয়া বর্জ্য থেকে এবার উৎপাদিত হবে বিদ্যুৎ

তৌফিক মাহমুদ মুন্না

বাসা-বাড়ির ফেলে দেয়া বর্জ্য থেকে এবার উৎপাদিত হবে বিদ্যুৎ।  দুই এক মাসের মধ্যেই বিদ্যুৎ উৎপাদনের কাজ শুরু হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম। 

তিনি বলছেন প্রথমে সিটি কর্পোরেশন এ প্রকল্পে যুক্ত হবে পরে সকল পৌরসভা। তবে নগরবাসীকে সম্পৃক্ত করে প্রকল্প বাস্তবায়নের দাবি নগর পরিকল্পনাবিদদের। 

ঢাকার দুই সিটিতে গড়ে প্রতিদিন ৬ থেকে সাড়ে ৬ হাজার টন বর্জ্য সংগৃহীত হয়।  দেশের অন্যান্য সিটি কর্পোরেশন ও পৌরসভায় সংগৃহীত বর্জোর পরিমাণ লক্ষাধিক টন। এতদিন এই বর্জ্য রাখা হতো কর্পোরেশনের নিজস্ব ভাগাড়ে।

এই বিপুল পরিমাণ বর্জ্যকে এবার সম্পদে রুপ দিতে যাচ্ছে সরকার। স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের এবারের প্রকল্প বর্জ্য থেকে বিদ্যুত উৎপাদন।

এরই মধ্যে বিদ্যুৎ উৎপাদন কোম্পনী চূড়ান্ত করেছে সরকার। জমি অধিগ্রহণ শেষ হলে মাস দুয়েকের মধ্যে আনুষ্ঠানিক কাজ শুরু হবে।


পুলিশকে কেন প্রতিপক্ষ বানানো হয়, প্রশ্ন আইজিপির

আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

বিমা খাতে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে আরও প্রচার প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেললো বাংলাদেশ


এদিকে নগর পরিকল্পনাবিদ ইকবান হাবি্ব সরকারের এই পরিকল্পনাকে স্বাগত জানিয়ে উৎস থেকে বর্জ্যকে পৃথক করার পদ্ধতি আরো আধূনিক করার উপর গুরুত্বারোপ করেন। বর্জ্য্ থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রকল্পে জনগনকে সম্পৃক্ত এবং সচেতন করে এ প্রকল্প বাস্তবায়নের দাবি এই নগর পরিকল্পনাবিদের।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

উত্তরা থেকে আগারগাঁও অংশে বসলো মেট্রোরেলের শেষ গার্ডার

প্লাবন রহমান

স্বপ্ন পূরণে আরো একধাপ এগুলো ঢাকার মেট্রোরেল । উত্তরা থেকে আগারগাঁও পযর্ন্ত অংশে বসলো শেষ গার্ডার। যার মাধ্যমে দৃশ্যমাণ হলো প্রায় ১২ কিলোমিটার ভায়াডাক্ট। মেট্রোরেল প্রকল্পের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলছেন- আসছে ডিসেম্বরে চালুর লক্ষ্য নিয়ে এগুচ্ছে মেট্রোরেলের কাজ। তবে-উদ্বোধন আসলেই কবে হবে, চূড়ান্তভাবে ঠিক হবে মে মাসে ট্রায়াল রান শুরুর পর।

দ্রুত এগুচ্ছে মেট্রোরেলের কাজ। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে মেট্রোরেলের এই গার্ডার বসানোর মধ্য দিয়ে পুরোপুরি যুক্ত হলো উত্তরা থেকে আগারগাঁও অংশ। আর এর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হলো এই অংশের প্রায় ১২ কিলোমিটার ভায়াডাক্ট।

রোববার সকাল ১১টার দিকে এই অংশের শেষ গার্ডার স্থাপন করা হয়। মেট্রোরেলের উত্তরা থেকে আগারগাও অংশে মোট স্প্যান ৪৬৭টি। যেখানে ডাবল লাইনসহ ১১ দশমিক সাত তিন কিলোমিটার অ্যালাইনমেন্টে ভায়াডাক্ট তৈরি হয়েছে প্রায় সাড়ে ১৪ কিলোমিটার।


গুলি ছুড়ে ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র আকাশেই ধ্বংস করেছে সৌদি

জানা গেল আসল রহস্য, ১৩-১৪ বছরের দুই বোনের সঙ্গেই শরীরিক মেলামেশা ছিল তার

আবাহনীকে ৪-১ গোলে উড়িয়ে দিল বসুন্ধরা কিংস

৬৬ নারীকে ধর্ষণ


উত্তরা থেকে আগারগাঁও অংশে মোট স্টেশন হচ্ছে ৯টি। যার মধ্যে উত্তরায় যে তিনটি স্টেশনকে ঘিরে মেট্রোরেলের ট্রায়াল রান হবে-সেগুলোর কাজ বেশি এগিয়ে। চলতি বছরেই বিজয় দিবসে উদ্বোধনের লক্ষ্য নিয়ে এগুচ্ছে প্রকল্পের কাজ। যাতে আশাবাদী কর্তৃপক্ষ।

আসছে ডিসেম্বরে মেট্রোরেল চালুর ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ আশাবাদী হলেও-এখনও অনেক কাজই বাকী। উত্তরা থেকে আগারগাও পযর্ন্ত কাজ বাকী ১৯ ভাগ। আর পুরো উত্তরা থেকে মতিঝিল অংশের কাজ বাকী ৪০ ভাগেরও বেশি। তবে-লক্ষ্য পূরণে দিন-রাত তিন শিফটে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

স্বপ্ন পূরণে আরো একধাপ এগোলো ঢাকার মেট্রোরেল

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্বপ্ন পূরণে আরো একধাপ এগোলো ঢাকার মেট্রোরেল। উত্তরা থেকে আগারগাঁও পযর্ন্ত অংশে বসলো শেষ গার্ডার। যার মাধ্যমে দৃশ্যমান হলো প্রায় ১২ কিলোমিটার ভায়াডাক্ট। 

মেট্রোরেল প্রকল্পের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলছেন-আসছে ডিসেম্বরে চালুর লক্ষ্য নিয়ে এগুচ্ছে মেট্রোরেলের কাজ। তবে-উদ্বোধন আসলেই কবে হবে, চূড়ান্তভাবে ঠিক হবে মে মাসে ট্রায়াল রান শুরুর পর। 

দ্রুত এগুচ্ছে মেট্রোরেলের কাজ। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে মেট্রোরেলের এই গার্ডার বসানোর মধ্য দিয়ে পুরোপুরি যুক্ত হলো উত্তরা থেকে আগারগাঁও অংশ। আর এর মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হলো এই অংশের প্রায় ১২ কিলোমিটার ভায়াডাক্ট।

আজ সকাল ১১টার দিকে এই অংশের শেষ গার্ডার স্থাপন করা হয়। মেট্রোরেলের উত্তরা থেকে আগারগাও অংশে মোট স্প্যান ৪৬৭টি। যেখানে ডাবল লাইনসহ ১১ দশমিক সাত তিন কিলোমিটার অ্যালাইনমেন্টে ভায়াডাক্ট তৈরি হয়েছে প্রায় সাড়ে ১৪ কিলোমিটার।


জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক আটকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

শিক্ষা জাতির উন্নয়নের মূল চাবিকাঠি: প্রধানমন্ত্রী

অসুস্থ মাকে বাঁচাতে ক্রিকেটে ফিরতে চান শাহাদাত

প্রেমিকের আশ্বাসে স্বামীকে তালাক, বিয়ের দাবিতে অনশন!


উত্তরা থেকে আগারগাঁও অংশে মোট স্টেশন হচ্ছে ৯টি। যার মধ্যে উত্তরায় যে তিনটি স্টেশনকে ঘিরে মেট্রোরেলের ট্রায়াল রান হবে-সেগুলোর কাজ বেশি এগিয়ে। চলতি বছরেই বিজয় দিবসে উদ্বোধনের লক্ষ্য নিয়ে এগুচ্ছে প্রকল্পের কাজ। যাতে আশাবাদী কর্তৃপক্ষ।

আসছে ডিসেম্বরে মেট্রোরেল চালুর ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ আশাবাদী হলেও-এখনও অনেক কাজই বাকী। উত্তরা থেকে আগারগাও পযর্ন্ত কাজ বাকী ১৯ ভাগ। আর পুরো উত্তরা থেকে মতিঝিল অংশের কাজ বাকী ৪০ ভাগেরও বেশি। তবে-লক্ষ্য পূরনে দিন-রাত তিন শিফটে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। 

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দিনাজপুরের লিচু বাগানগুলোয় বেশ ভালো পরিমাণে মুকুল এসেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক

বেশ ভালো পরিমাণে মুকুল এসেছে দিনাজপুরের লিচু বাগানগুলোয়। এরইমধ্যে গাছের বাড়তি যত্ন শুরু করেছেন বাগানীরা। এবার বড় প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে ভালো ফলনের আশা করছেন তারা। 

কৃষি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ফলন বাড়াতে চাষিদের আধুনিক পরিচর্যার বিষয়ে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। 

দেশে লিচুর চাহিদার একটি বড় অংশ পূরণ করে দিনাজপুর। প্রতি বছর প্রায় ২৫ হাজার মেট্রিক টন লিচু উৎপাদন হয় এখানে। এবার শীত শেষ হতে না হতেই মুকুল এসেছে গাছগুলোয়। এই অবস্থায় বেশ খুশি চাষিরা। প্রাকৃতিক দুর্যোগ হানা না দিলে বড় লাভের আশা করছেন তারা।

এখন গাছের পরিচর্যায় ব্যস্ত বাগানীরা। ভালো ফলনের আশায় পানি সেচ, কীটনাশক এবং সার প্রয়োগে মনযোগ তাদের।


জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক আটকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

শিক্ষা জাতির উন্নয়নের মূল চাবিকাঠি: প্রধানমন্ত্রী

অসুস্থ মাকে বাঁচাতে ক্রিকেটে ফিরতে চান শাহাদাত

প্রেমিকের আশ্বাসে স্বামীকে তালাক, বিয়ের দাবিতে অনশন!


কৃষি কর্মকর্তারা বলছেন এবার কিছুটা আগেই মুকুল এসেছে। এগুলো পরিচর্যায় পরামর্শ দেয়া হচ্ছে কৃষকদের।

দিনাজপুর জেলায় প্রায় সাড়ে ৫ হাজার হেক্টর জমিতে লিচুর বাগান রয়েছে। সবচেয়ে বেশি বাগান আছে সদর ও বিরল উপজেলায়।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর