স্ত্রীর কথায় মায়ের হাত-পা ভেঙে দিলেন ছেলে!

অনলাইন ডেস্ক

স্ত্রীর কথায় মায়ের হাত-পা ভেঙে দিলেন ছেলে!

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় স্ত্রীর কথায় মায়ের হাত-পা ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ছেলে মো. আনিছুর রহমানের (৩৫) বিরুদ্ধে। গত শুক্রবার উপজেলার সাকোয়া ইউনিয়নের নগর সাকোয়া ইক্ষু সেন্টার গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

সাকোয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সায়েদ জাহাঙ্গির হাসান সবুজ বলেন, ‘পুত্রবধূ ও শাশুড়ির মধ্যে বনিবনা ছিল না। স্ত্রীর কথা শুনে আনিছুর রহমান পিটিয়ে তার মা রেজিনা বানুর (৫৫) দুই হাত ও দুই পা ভেঙে দিয়েছে। এই ঘটনা শোনার পর আমি ওই বৃদ্ধার বাড়িতে গিয়ে খোঁজ-খবর নিয়েছি এবং চিকিৎসার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। রেজিনা বানু বর্তমানে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধী রয়েছেন। ঘটনার পর থেকে আনিছুর রহমান পলাতক রয়েছে।’

আরও পড়ুন:


চিকিৎসার নামে ঘর ফাকা করে তরুণীকে ধর্ষণ করল ‌‘কবিরাজ’

কোরআন ছিঁড়ে টুকরো টুকরো করে পোড়ায় এই কবিরাজ

ভূতের ভয় দেখিয়ে ২ শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করল কবিরাজ

বুকে পবিত্র কোরআন শরীফ চেপে ধরে ধর্ষণ থেকে রক্ষা পান গৃহবধূ


স্থানীয়রা জানায়, এর আগেও আনিছুর রহমান অনেকবার তার মা ও বাবাকে মারধর করেছে। পাঁচ মাস আগে আনিছুর তার মায়ের মাথায় আঘাত করে রক্তপাত ঘটায়। সেসময় তার মা দীঘদিন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

চিকিৎসা শেষে বাড়ি ফিরে সন্তানের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করলে ওই মামলায় আনিছুর রহমান তিন মাস হাজত বাস করে। জেলে থেকে ভালো হয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে তার মা সন্তানের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা তুলে নেন। কিন্তু জেল থেকে বের হওয়ার এক মাসের মাথায় আবারও বর্বরতা শুরু করে এবং পিটিয়ে মায়ের হাত পা ভেঙে দেয়।

বোদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু সাঈদ চৌধুরী বলেন, ‘ঘটনাটি শুনেছি। অভিযোগ দাখিল করলে আইনানুক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মেয়র প্রার্থীর মিছিলে ককটেল হামলা

অনলাইন ডেস্ক

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মেয়র প্রার্থীর মিছিলে ককটেল হামলা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা নির্বাচনে নৌকার মেয়র প্রার্থী নায়ার কবিরের মিছিলে ককটেল হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলায় রাব্বি ও সাব্বির নামে ছাত্রলীগের দুই নেতা আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাত আটটার দিকে জেলা শহরের মেড্ডা বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন সদর থানার ওসি আব্দুর রহমান।

আহত ছাত্রলীগের দুই নেতা হলেন- ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা ছাত্রলীগের পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মো. রাব্বি (২২) ও শহর ছাত্রলীগের প্রস্তাবিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. সাব্বির।

জানা গেছে, আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এবারই প্রথম পৌরসভা নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পদ্ধতিতে ভোট হবে। নির্বাচনে মেয়র পদে ছয়জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

তারা হলেন- নৌকার প্রতীকের প্রার্থী বর্তমান মেয়র নায়ার কবির, বিএনপির প্রার্থী জহিরুল হক, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মাহমুদুল হক ভূইয়া (মোবাইল ফোন), বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী নজরুল ইসলাম  (হাতুড়ী), ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী আব্দুল মালেক  (হাতপাখা) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল কারীম  (নারকেল গাছ)।


গণধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে কলেজছাত্রীর গায়ে আগুন

বাবার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে রাতধর ধর্ষণের শিকার মেয়ে

৩০-৩২ গার্লফ্রেন্ড থাকার পরও আমাকে ভালোবাসত নাসির: তামিমা

আমার সব প্রশ্নের জবাব ইসলামে পেয়েছি: কানাডিয়ান নারী


জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাসুম বিল্লাহ বলেন, রাত ৮টার দিকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা একটি মিছিল নিয়ে শহরের মেড্ডা বাজার এলাকায় পৌঁছি। সেসময় মিছিলকে উদ্দেশ্য করে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মাহমুদুল হক ভূঁইয়ার কর্মীরা ককটেল হামলা চালায়।

এতে ছাত্রলীগের দুই নেতা আহত হয়েছেন। পরে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে মিছিল করে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার বলেন, বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে মেড্ডা বাজার এলাকায় ছাত্রলীগের একটি মিছিল বের করা হয়। মিছিলকে লক্ষ্য করে হঠাৎ ককটেল হামলা করা হয়। ভোটারদের মনে আতঙ্ক সৃষ্টি করতেই এ ককটেল হামলা হয়েছে বলে আমি মনে করি।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

খুন করে বালতিতে ঢেকে রাখা ছোট বোনের লাশ দেখাল বড় বোন

অনলাইন ডেস্ক

খুন করে বালতিতে ঢেকে রাখা ছোট বোনের লাশ দেখাল বড় বোন

ধারালো বটি দিয়ে কুপিয়ে ছোট বোনকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে কিশোরীর বিরুদ্ধে। আজ বৃহস্পতিবার বেলা একটার দিকে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে উপজেলার সদর ইউনিয়নের চর হোসেনপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার একটি এলাকায় এক ইজিবাইকচালক পরিবার নিয়ে বাস করেন। তাঁর চার মেয়ে ও এক ছেলে। বড় দুই মেয়ে ও এক ছেলে বাইরে থাকে। বাড়িতে থাকে দুই মেয়ে। তাদের একজনের বয়স ১২ ও অন্যজনের বয়স ৩ বছর।

আরও পড়ুন:


গণধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে কলেজছাত্রীর গায়ে আগুন

বাবার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে রাতধর ধর্ষণের শিকার মেয়ে

৩০-৩২ গার্লফ্রেন্ড থাকার পরও আমাকে ভালোবাসত নাসির: তামিমা

আমার সব প্রশ্নের জবাব ইসলামে পেয়েছি: কানাডিয়ান নারী


স্থানীয় সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার বেলা একটার দিকে ছোট মেয়েকে ঘুম পাড়িয়ে রেখে তাদের মা পাশের বাড়িতে যান। বাবা আগেই বাইরে চলে গিয়েছিলেন। বিকেল চারটার দিকে মা ও বাবা বাড়ি ফিরে দুই মেয়ের মধ্যে কাউকে দেখতে পাননি। তাঁরা সন্তানদের খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। 

একপর্যায়ে বড় মেয়েটিকে প্রতিবেশীর বাড়িতে পেয়ে তাকে ছোট বোনের কথা জিজ্ঞাসা করেন। এ সময় ওই মেয়ে বালতির মধ্যে কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখা তাঁদের ছোট মেয়ের লাশ দেখিয়ে দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে ও বড় মেয়েকে থানায় নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল কাদের মিয়া বলেন, নিহত শিশুর লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য আগামীকাল শুক্রবার শিশুটির লাশ মর্গে পাঠানো হবে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রেমিকার বাড়ির সামনে গাছে মিলল প্রেমিকের ঝুলন্ত লাশ

মাদারীপুর প্রতিনিধি

প্রেমিকার বাড়ির সামনে গাছে মিলল প্রেমিকের ঝুলন্ত লাশ

মাদারীপুরের রাজৈরে প্রেমিকার বাড়ির সামনের একটি গাছ থেকে বৃহস্পতিবার সকালে নিতাই বারুরী (২৮) নামে এক প্রেমিকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে রাজৈর থানা পুলিশ। নিহত নিতাই উপজেলার কদমবাড়ী ইউনিয়নের হিজলবাড়ি গ্রামের সুশীল বারুরীর ছেলে এবং কদমবাড়ী বাজারের মোবাইল ব্যবসায়ী।

পারিবারিক ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নিতাই বারুরীর সাথে ইকরাবাড়ি গ্রামের বাবুল গাইনের মেয়ে সঙ্গীতা গাইনের (২৫) প্রেমের সম্পর্ক ছিল। তারা নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে একে অপরকে বিয়েও করেছে। কিন্তু বাধ সাধে সঙ্গীতার পরিবার। 

নিতাই বারুরীর সাথে তারা (সঙ্গীতার পরিবার) সঙ্গীতাকে পারিবারিকভাবে বিয়ে দিতে রাজী ছিল না। এই কারণে নিতাই এবং সঙ্গীতা মোবাইলে কথা বলত এবং পালিয়ে দেখা করত। বুধবার সকালে নিতাই মাদারীপুর যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর বাড়ি ফেরেনি। 


সেই দুই ভাইয়ের সাড়ে ৫ হাজার বিঘা জমি, ৫৫টি বাস ক্রোকের নির্দেশ

দেশে করোনার সর্বশেষ মৃত্যু-শনাক্তের তথ্য

টিকা নেয়ার ১২ দিন পর ত্রাণ সচিবের করোনা শনাক্ত

চাকায় ওড়না পেঁচিয়ে রাস্তায় পড়ে মারা গেলো মেয়েটি


বৃহস্পতিবার সকালে সঙ্গীতাদের বাড়ির সামনের একটি জামগাছে নিতাইয়ের লাশ ঝুলতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পরে রাজৈর থানা পুলিশ গিয়ে গাছ থেকে নিতাইয়ের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।

নিতাইয়ের প্রেমিকা সঙ্গীতা গাইন বলেন, তার সাথে আমার ৩ বছরের সম্পর্ক। তার সাথে আমার বিয়েও হয়েছে। বুধবার সারারাত আমরা মোবাইলে কথা বলেছি। এমনকি ভোর ৫টা পর্যন্ত আমাদের কথা হয়েছে। তারপর কি হল, বুঝতে পারলাম না।

নিতাইয়ের বাবা সুশীল বারুরী বলেন, আমার ছেলেকে ওরা ডেকে নিয়ে হত্যা করে লাশ গাছে ঝুলিয়ে রেখেছে। আমার ছেলে আত্মহত্যা করতে পারে না। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।

রাজৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ সাদি বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে প্রেম ঘটিত কারণে ছেলেটি আত্মহত্যা করেছে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্টের পর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সিরাজগঞ্জে নিখোঁজ অটোরিকশা চালকের গলিত মরদেহ উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

সিরাজগঞ্জে নিখোঁজ অটোরিকশা চালকের গলিত মরদেহ উদ্ধার

সিরাজগঞ্জে নিখোঁজের আট দিন পর হাসান আলী (২৪) নামে এক সিএনজি চালিত অটোরিকশা চালকের গলিত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে সদর থানা পুলিশ সদর উপজেলার শিয়ালকোল ইউপির নতুন ফুলবাড়ী গ্রামে একটি আনারস বাগান থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করেন।

হাসান পৌর এলাকার সয়াধানগড়া উত্তর পাড়া ভাসানী রোড মহল্লার সেলিমের ছেলে।

অটোচালক হাসান গত ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে নিখোঁজ ছিল।


গণধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে কলেজছাত্রীর গায়ে আগুন

বাবার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে রাতধর ধর্ষণের শিকার মেয়ে

৩০-৩২ গার্লফ্রেন্ড থাকার পরও আমাকে ভালোবাসত নাসির: তামিমা

আমার সব প্রশ্নের জবাব ইসলামে পেয়েছি: কানাডিয়ান নারী


সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গোলাম মোস্তফা জানান, গত ১৭ ফেব্রয়য়ারি হাসান নামে ওই অটোরিকশা চালক নিখোঁজ ছিল। বৃহস্পতিবার দুপুরের পর নতুন ফুলবাড়ি চরের মধ্যে একটি আনারস বাগানে গলিত মরদেহ দেখে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ধারণা করা হচ্ছে ৮/৯ দিন আগেই তাকে হত্যা করে পরিত্যক্ত বাগানে ফেলে রাখা হয়েছিল। তবে নিখোঁজের পর পরিবারের কেউ থানায় অবগত করেনি।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাবার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে রাতধর ধর্ষণের শিকার মেয়ে

শাকিলা ইসলাম জুই, সাতক্ষীরা

বাবার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে রাতধর ধর্ষণের শিকার মেয়ে

সাতক্ষীরার তলুইগাছায় এক স্কুলছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। বুধবার রাতে ধর্ষক সুব্রতর নামে থানায় মামলাটি দায়ের করেন নির্যাতিতা স্কুলছাত্রীর বাবা। এর আগে মঙ্গলবার রাতে এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

ধর্ষক সুব্রত সদর উপজেলার গড়িয়া ডাঙ্গা গ্রামের ভুত নাথের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, সদর উপজেলার তলুইগাছা গ্রামের ওই স্কুলছাত্রীর বাবা সাতক্ষীরা একটি কলেজের শিক্ষককে গত মঙ্গলববার রাতে তার বাড়ির পাশ থেকে একটি মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে মর্মে খবর ছড়িয়ে পড়ে।

এ খবর জানার পর ওই স্কুলছাত্রী তার বাবার সাথে দেখা করার জন্য রাতেই বাড়ি থেকে বের হয়।


তামিমার পাসপোর্ট আসল কিনা মুখ খুললেন নাসিরের সাবেক প্রেমিকা

একসাথে রাম চরণ ও কোরিয়ান নায়িকা সুজি!

রাজধানীর যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না আজ

পিলখানা হত্যা: শহীদদের সমাধিতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা


একপর্যায়ে পথে প্রতিবেশী সুব্রত দাসের সাথে তার দেখা হয়। এ সময় সুব্রত তাকে তার বাবার কাছে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে পথিমধ্যে ভবানিপুর এলাকায় নির্জন জায়গায় নিয়ে আটকে রেখে তাকে রাতভর ধর্ষণ করে। এদিকে ওই কলেজ শিক্ষক পরদিন তার মেয়ের কাছ থেকে বিস্তারিত জানার পর তিনি এ ঘটনায় নিজেই বাদি হয়ে ধর্ষক সুব্রতকে প্রধান আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন। ধর্ষক সুব্রত বর্তমানে পলাতক রয়েছে।

এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও সদর থানার এসআই শাহজামাল বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ইতিমধ্যে নির্যাতিতা স্কুলছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষাও সম্পন্ন করা হয়েছে। এছাড়া ধর্ষক সুব্রতকে গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর