কাজী হায়াতের ছবির সেই পাগলী এখন কোথায়?

অনলাইন ডেস্ক

কাজী হায়াতের ছবির সেই পাগলী এখন কোথায়?

কাজী হায়াতের ‘ধর’ ছবির পাগলী এখনো আছে। প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা কাজী হায়াৎ। নব্বই দশকের শেষ ভাগে তিনি দেখলেন মগবাজার এলাকায় এক পাগলী অসহায়ভাবে ঘুরে বেড়ায়। কিছুদিন পর লক্ষ্য করলেন সেই পাগলীটি অন্তঃসত্ত্বা। একসময় তার কোল জুড়ে এলো সন্তান। কে এই সন্তানের বাবা। কেউ জানে না।

জীবনধর্মী চলচ্চিত্রের কারিগর কাজী হায়াতের মনে বিষয়টি গভীরভাবে রেখাপাত করল। সিদ্ধান্ত নিলেন বিষয়টি নিয়ে একটি ছবি নির্মাণ করবেন। ১৯৯৯ সালে মুক্তি পেল সেই চলচ্চিত্র। শিরোনাম ‘ধর’। বিবেক নাড়া দেওয়া গল্প লিখলেন নির্মাতা নিজেই। ছবিটি দেখে দর্শকের চোখ অশ্রুসিক্ত হলো। সমাজের সর্বস্তরের মানুষের প্রশংসা কুড়াল।

এখনো সেই পাগলীকে মগবাজার এলাকায় উদাসভাবে ঘুরে বেড়াতে দেখা যায়। সোমবার অফিস শেষ করে আমি ও আমার সহযোদ্ধা পান্থ আফজাল মগবাজার দিলু রোডে যাচ্ছিলাম। গন্তব্যে পৌঁছার আগেই মগবাজার রেললাইনের পাশে দিলু রোড জামে মসজিদের সামনে দেখি পাগলীটি বসে আছে। তার কাছে গেলাম, উদ্দেশ্য, তার সম্পর্কে কিছু জানা। দূর থেকেই পান্থ আফজাল ছবি তুলতে শুরু করলেন। পাগলী তা লক্ষ্য করেনি। তার নাম জানতে চাইলে নিশ্চুপ হাসি আর ফ্যাল ফ্যাল করে তাকালো। অনেক কথার ভিড়ে জানতে চাইলাম তাকে নিয়ে একটি ছবি নির্মাণ হয়েছিল একসময়, বিষয়টি তার জানা আছে কিনা? আবারও উদাস হাসি, সঙ্গে হ্যাঁ সূচক মাথা নাড়ানো।

গল্প যখন মোটামুটি জমে উঠেছে তখনই তার নজরে এলো কেউ একজন তার ছবি তুলছেন। মুহূর্তে হাসি মিলিয়ে তার চোখে-মুখে ফুটে উঠল অজানা আতঙ্কের ছাপ। মুখ লুকানোর চেষ্টা তার। নানাভাবে প্রবোধ দেওয়ার চেষ্টা করেও কোনো লাভ হলো না। একসময় সে রেললাইনে উঠে দৌড়ে মিলিয়ে গেল অজানায়। জানা গেল মগবাজারের একটি ঝুপড়ি ঘরে ছেলেকে নিয়ে সে থাকে। বেশির ভাগ সময় মগবাজার মোড় থেকে এফডিসির মোড় পর্যন্ত উদ্দেশ্যহীন ঘুরে বেড়ায় এই পাগলী। কেউ টাকা পয়সা বা খাবার দিলে নেয়। 

পাগলী হলেও পিতৃপরিচয়হীন সন্তানটিকে পরম মমতায় অনেক কষ্টে ভিক্ষার টাকায় বড় করে তুলেছে সে। ছেলেটি নাকি মাঝে মধ্যে গাড়ির ওয়ার্কশপে কাজ করে। অনেকে জানায়, কেউ তাকে কাজ দেয় না বলে অভাব ঘুচাতে নানা অপরাধের সঙ্গে বাধ্য হয়ে মাঝে মধ্যে জড়িয়ে যায়। স্থানীয়রা সেই পাগলী বা তার সন্তানের নামধাম সম্পর্কে তেমন বলতে পারে না। জানে না কীভাবে এই সন্তানের জন্ম হলো।

খোদ নির্মাতা কাজী হায়াতের কাছেই ছবিটি সম্পর্কে গতকাল জানতে চাইলে দীর্ঘ নিঃশ্বাস ফেলে তিনি বলেন, ‘সমাজে এমন প্রান্তিক শিকড়হীন মানুষের অভাব নেই। স্বাভাবিকভাবেই সমাজের প্রতি এদের দায়িত্ববোধ কম থাকে বলে সহজেই এরা অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে। তাদের কাছে একজন মন্ত্রী যা রিকশাওয়ালাও তা। এদের পড়াশোনারও কোনো সুযোগ থাকে না বলে অপরাধ জগতের অন্ধকারেই তাদের বসবাস।’ 

কাজী হায়াৎ আক্ষেপ করে বলেন, ‘সমাজে অনেক দায়িত্ববান মানুষ আছেন, যাঁরা জনগণের দ্বারাই ক্ষমতার চেয়ারে বসেন, তাঁদেরও এমন শিকড়হীন মানুষের প্রতি কখনো দায়িত্ব পালন করতে দেখি না। এমন রুটলেসদের রাষ্ট্রীয় চার মৌলিক অধিকার অন্ন, বস্ত্র, শিক্ষা, বাসস্থানের অধিকার থেকেও বঞ্চিত থাকতে হয় বলে তাদের মধ্যে অপরাধপ্রবণতা উত্তরোত্তর বেড়েই চলে। যা সমাজ ও রাষ্ট্রের জন্য ভয়ংকর যন্ত্রণা। আমি আমার অবজারভেশন ও দায়িত্ববোধের জায়গা থেকে ছবিটি নির্মাণ করেছিলাম। ভেবেছিলাম ছবিটি দেখে সমাজের বিবেক জাগ্রত হবে। ছবিটি মুক্তির পর ব্যাপক সাড়া মিললেও দুঃখের বিষয় দীর্ঘ ২১ বছর পরও সেই পাগলী বা তার সন্তানের দায়িত্ব কেউ নেয়নি। তাদের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়নি, জীবনমান এখনো দুঃখ-কষ্টের বৃত্তবন্দী হয়ে আছে।

আরও পড়ুন:


‘আমেরিকা-ইসরাইল কৌশলগত অচলাবস্থার সম্মুখীন হয়েছে’

ট্রাম্পের শয্যাসঙ্গী হওয়া ছিল সবচেয়ে বিরক্তিকর, দাবি পর্নতারকার

যে কাজে আগের ছোট-বড় গোনাহ ক্ষমা করেন আল্লাহ

লালমনিরহাটে নৌকার নির্বাচনী কার্যালয়ে অগ্নিসংযোগ


শুধু এই দুইজন নয়, দেশে হাজারও এমন শিকড়হীন মানুষ রয়েছে, যাদের প্রতি সমাজপতিদের নজর নেই বলে দেশে অবক্ষয় বেড়েই চলছে। বর্তমান সময়ের চলচ্চিত্র নির্মাতাদের মধ্যেও এমন বিষয় নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণের তাগিদ দেখি না। অথচ প্রেমের প্যানপ্যানানির গতানুগতিক গল্পের চেয়ে এমন গল্পের বাণী ও বিনোদনসমৃদ্ধ বাণিজ্যিক ছবি নির্মাণ করলে তা দর্শকগ্রহণযোগ্যতার পাশাপাশি এই প্রধান গণমাধ্যমটির দ্বারা সমাজ ও রাষ্ট্র নিঃসন্দেহে উপকৃত হতে পারে।’

‘ধর’ ছবিটি শুরুর প্রথমেই সেই পাগলী ও তার সন্তানের কিছু ফুটেজ তুলে ধরে ব্যাকগ্রাউন্ডে নির্মাতা কাজী হায়াতের দরাজ কণ্ঠে ভেসে ওঠে মর্মস্পর্শী সেই বর্ণনা- ‘এই হলো ঢাকা শহরের ব্যস্ততম মগবাজার চৌরাস্তা। আপনারা অনেকেই এই চৌরাস্তার আইল্যান্ডের পাশে মহিলাটিকে শিশুসন্তান কোলে নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখেছেন। রোদ-বৃষ্টির মধ্যেও মহিলার রুগ্ন হাত অনেক গাড়ির দরজার পাশে ভিক্ষা পাওয়ার আশায় পেতে দেয়। কেউ দেয় কেউ দেয় না। কোথায় তার সংসার, কোথায় রাতে থাকে আমরা তা কেউ জানি না। কে এই সন্তানের পিতা জানি না। পাগলীটির বিয়ে হয়েছিল কিনা জানি না। শিশুটির ভবিষ্যৎ কী হবে তাও আমরা জানি না।’

ছবিটিতে সন্তানের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন প্রয়াত নায়ক মান্না। পরিস্থিতির শিকারে যে হয়ে ওঠে একজন সন্ত্রাসী। রাষ্ট্র ও সমাজের মৌলিক অধিকারবঞ্চিত ‘অপূর্ব’ নামের ছেলেটির করুণ জীবনকাহিনি আজও সাধারণ দর্শককে কাঁদায়, কিন্তু বিবেক জাগ্রত হয় না সমাজপতিদের। আর তাই সমাজে আজ কিশোর গ্যাং নামের ভয়াবহ অপরাধীদের সংখ্যা উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে। একই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে চরম অবক্ষয়। এ থেকে সমাজ কখন মুক্তি পাবে। এমন প্রশ্ন ‘ধর’ ছবির দূরদর্শী নির্মাতা কাজী হায়াতের। সৌজন্য: বাংলাদেশ প্রতিদিন।

news24bd.tv আহমেদ

পরবর্তী খবর

সালমানের দুই বোন করোনা আক্রান্ত

অনলাইন ডেস্ক

সালমানের দুই বোন করোনা আক্রান্ত

অতিমারি করোনার থাবায় নাস্তানাবুদ ভারত। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন সেলিব্রেটিরাও। এবার করোনা থাবা বসাল বলিউড তারকা সালমান খানের পরিবারে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জিনিউজের প্রতিবেদনে জানা যায়, কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন সালমান খানের দুই বোন- অলভিরা খান ও অর্পিতা খান।

এবারের ঈদে মুক্তি পেতে চলেছে সালমান খানের ছবি রাধে। তার ঠিক ৩ দিন আগেই করোনার থাবা ভাইজানের পরিবারে। সংবাদমাধ্যমে অভিনেতা নিজেই এ কথা জানান।

রাধে: ইয়োর মোস্ট ওয়ান্টেড ভাই-এর প্রচার ইন্টারভিউ দিচ্ছিলেন সালমান। সেখানেই দুই বোনের কোভিড পজিটিভ হওয়ার কথা জানালেন অভিনেতা। আগামী বৃহস্পতিবার (১৩ মে) থিয়েটার ও ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পাচ্ছে এই ছবি।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর

সালমানের পরিবারে করোনার থাবা

অনলাইন ডেস্ক

সালমানের পরিবারে করোনার  থাবা

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ‘সুনামি’তে ভারতের চিকিৎসা ব্যবস্থা প্রায় ভেঙে পড়তে বসেছে। দেশটিতে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ‘সার্স-কভ-২’ ভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ ও মৃত্যু। প্রতিদিনই ভাঙছে মৃত্যু ও শনাক্তের রেকর্ড। করোনার থাবা থেকে রক্ষা পাচ্ছে না কেও। বলিউডও এর বাইরে নেই। এবার করোনা হানা দিয়েছে বলিউড ভাইজান সালমান খানের পরিবারে। ভাইজানের দুই বোন- অলভিরা ও অর্পিতা খান দুজনের করোনা পজিটিভ। সালমান খান নিজেই সংবাদমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

‌‘রাধে : ইয়োর মোস্ট ওয়ান্টেড ভাই’এর প্রমোশন্যাল ইন্টারভিউতে বোনেদের কোভিড ১৯ পজিটিভ হওয়ার কথা জানান অভিনেতা। আগামী বৃহস্পতিবার থিয়েটার ও ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি পাচ্ছে এই ছবি। 

বোনেদের সংক্রমিত হওয়ার কথা জানিয়ে, সালমান বলেন, এতদিন দূরের মানুষজনদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার কথা তিনি শুনতেন তবে এবার করোনা এক্কেবারে ঘরে চলে এসেছে। 

অভিনেতা বলেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ অনেক বেশি মারাত্মক। 

সালমান খানের নিজের বোন অলভিরা খান অগ্নিহোত্রী। অভিনেতা তথা পরিচালক অতুল অগ্নিহোত্রীর স্ত্রী ৫১ বছর বয়সী অলভিরা। সালমা খান ও সেলিম খানের একমাত্র কন্যা তিনি। অন্যদিকে সেলিম খান ও তার দ্বিতীয় স্ত্রী হেলেনের দত্তক কন্যা অর্পিতা।  এর আগে গত বছরের নভেম্বরে সালমানের ব্যক্তিগত গাড়ির ড্রাইভার অশোক এবং দুই গৃহকর্মী করোনায় আক্রান্ত হন।

‘রাধে: ইয়োর মোস্ট ওয়ান্টেড ভাই’ পরিচালনার দায়িত্বে প্রভুদেবা। ছবিতে সালমান ছাড়াও দিশা পাটানি, রণদীপ হুদা ও জ্যাকি শ্রফ গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

১৩ দিনে ইউটিউব থেকে যা পেলেন ডিপজল

অনলাইন ডেস্ক

১৩ দিনে ইউটিউব থেকে যা পেলেন ডিপজল

ঢালিউড অভিনেতা ও প্রযোজক ঢাকাই ছবির ডেঞ্জারম্যান খ্যাত  মনোয়ার হোসেন ডিপজল  ইউটিউবে এসেই বাজিমাত করেছেন। মাত্র ১৩ দিনে এক লাখ সাবস্ক্রাইবারের মাইলফলক ছুঁয়ে ইউটিউব থেকে সিলভার প্লে বাটন পেয়েছেন ডিপজল।

সেই খুশির সংবাদ  ভক্তদের সাথে শেয়ারও করেছেন তিনি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় প্লে বাটন হাতে একটি ছবি পোস্ট করে ডিপজল লিখেছেন, ফাইনালি ১৩দিনে এক লাখ সাবস্ক্রাইবারের মাইলফলক পার করে সিলভার প্লে বাটন অ্যাওয়ার্ড পেয়ে গেলাম। আমি কৃতজ্ঞ আমার ভালোবাসার দর্শক ও ভক্তদের কাছে। ইউটিউবের এই স্বীকৃতি আমি তাদেরকে উৎসর্গ করলাম।

তিনি আরও লিখেছেন, আশা করছি আপনাদের ভালবাসায় খুব তাড়াতাড়ি দশ লাখ সাবস্ক্রাইবারের মাইলফলক পার করে ফেলব। সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন, নিরাপদে থাকুন।

এই ঈদে এফ আই মানিক পরিচালিত ‘সৌভাগ্য’ সিনেমাটি দেশের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে।  এ সিনেমায় ডিপজল ছাড়াও অভিনয় করেছেন মৌসুমী, কাজী মারুফ, তমা মির্জা, হাসান মাসুদ প্রমুখ। এটি নির্মিত হয়েছে অমি বনি কথাচিত্রের ব্যানারে। ২০১০ সালে শুরু হওয়া এ সিনেমার শুটিং ২০১২ সালে শেষ হয়।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

আমার মার ওড়না দেখা যাচ্ছে না কেন? এরাই ধর্ষক : ভাবনা

অনলাইন ডেস্ক

আমার মার ওড়না দেখা যাচ্ছে না কেন? এরাই ধর্ষক : ভাবনা

অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনা রোববার (৯ মে) মা দিবসে নিজের ফেসবুকে মায়ের সঙ্গে একটি ছবি পোস্ট । সঙ্গে তার ছোট বোন অদিতি হাবিব অনন্যাও ছিলেন। নিজের ইনস্টাগ্রাম ও ফেসবুকে পোস্ট করা একটি ভিডিওতে দেখা যায়, মা দিবসে মাকে শুভেচ্ছা জানিয়ে তাকে কেক কেটে খাওয়াচ্ছেন দুই বোন।

এরপরই ভিডিওর নিচে ভাবনা ও তার মাকে নিয়ে আসতে থাকে একের পর এক বাজে মন্তব্য। এস কমেন্টের পর আবার মুখ খুললেন এই অভিনেত্রী।

ফেসবুক কিছু জঘন্য মানসিকতার মানুষের আস্তানা হয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে ভাবনা বলেন, মা দিবসে মাকে নিয়ে আমরা দুই বোন ছবি পোস্ট করেছি। তারপর যা হলো, আমার মাকেও তারা ছাড়ল না। মানুষ কারও মাকে নিয়ে এমন নোংরামি করতে পারে! সাইবার ক্রাইম কেন দু-একটাকে শাস্তি দেয় না!

ফেসবুকের অন্য একটি পোস্টে নায়িকা বলেন, আমার হাতা কাটা ব্লাউজ নিয়ে তাদের কথা। আমার মা কেন টিপ পরল, আমার মা হিন্দু, আমার মা হিন্দু হোক, আর মুসলিম হোক তবে সে মানুষ। আমার মার ওড়না দেখা যাচ্ছে না কেন? এরাই ধর্ষক। এরা অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীর মাকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করে। তবে একটা জিনিস পরিষ্কার হলাম। আমাকে নিয়ে আমার কলিগরা কোনোদিন কোনো প্রতিবাদ করেননি। আমাকে প্রতিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় যখন হেয় করা হয় তারা চুপ থেকেছেন। আজকে ভালো লাগছে যে, চঞ্চল ভাইয়ের জন্য হলেও তারা প্রতিবাদ করছেন। কারণ প্রতিবাদ করাটা জরুরি। শিল্পীরা ইগনোর করে না, বয়কট করে না, তারা প্রতিবাদ করতে জানে। আমাদের মাদেরকেও যারা বাজে বলতে ছাড়ে না তাদেরকে শাস্তি দেওয়া হোক। সাইবার ক্রাইম প্লিজ।

ভাবনা এ পর্যন্ত বেশকিছু নাটক-টেলিফিল্মে অভিনয় করেছেন। ‘ভয়ংকর সুন্দর’ সিনেমার মাধ্যমে রুপালি পর্দায় নাম লেখান তিনি। অনিমেষ আইচ পরিচালিত এ সিনেমায় তার বিপরীতে অভিনয় করেন কলকাতার পরমব্রত চ্যাটার্জি।

news24bd.tv/আলী

পরবর্তী খবর

মা দিবসে ছোট ছেলের ছবি প্রকাশ করলেন কারিনা

অনলাইন ডেস্ক

মা দিবসে ছোট ছেলের ছবি প্রকাশ করলেন কারিনা

বিশ্ব মা দিবসে বলিউড অভিনেত্রী কারিনা কাপুর তার ছোট ছেলের ছবি প্রকাশ্যে আনলেন।

ফেব্রুয়ারিতে দ্বিতীয়বার মা হয়েছেন কারিনা। তবে এবার সদ্যোজাতকে পাপারাজ্জিদের থেকে দূরে রেখেছেন সাইফিনা। কিন্তু ভক্তদের উৎসাহের তো শেষ নেই। তারা অপেক্ষায় ছিলেন তৈমুরের ছোট ভাইয়ের ছবি দেখার জন্য। অবশেষে অপেক্ষা ফুরাল। মা দিবসকে ঘিরেই ছোট ছেলের ছবি প্রকাশ্যে আনলেন কারিনা।

মা দিবসে দুই সন্তানের ছবি প্রথমবার একসঙ্গে সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করলেন কারিনা। ছবিতে তৈমুরের কোলে তার ছোট ভাইকে দেখা যাচ্ছে। ছবির ক্যাপশনে অভিনেত্রী লিখেছেন, ‘পুরো পৃথিবী আজ আশায় বেঁচে আছে। এই দুজন আমাকে আশা জোগায়… সুন্দর আগামীর… মা দিবসের শুভেচ্ছা সকল সুন্দর এবং শক্তিশালী মায়েদের। বিশ্বাস রাখুন…’।

news24bd.tv / কামরুল  

পরবর্তী খবর