মিয়ানমারে মৃত্যুর সাথে লড়ছেন বিক্ষোভে গুলিবিদ্ধ নারী

অনলাইন ডেস্ক

মিয়ানমারে মৃত্যুর সাথে লড়ছেন বিক্ষোভে গুলিবিদ্ধ নারী

গত মঙ্গলবার মিয়ানমারে বিক্ষোভে অংশ নেয়া এক নারী গুলিবিদ্ধ হন। বর্তমানে তার অবস্থা গুরুতর। এদিকে ৫ম দিনের মতো সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে রাজপথে বিক্ষোভ করছে হাজার হাজার মানুষ।

রাজধানী নেপিদোতে বিক্ষোভে অংশ নিয়েছিলেন ওই নারী। সে সময় বিক্ষোভ ছত্রভঙ্গ করতে জল কামান, রাবার বুলেট এবং ফাঁকা গুলি ছোড়ে পুলিশ।

গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বিক্ষোভের সময় ওই নারী মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। বিক্ষোভ ঠেকাতে পুলিশ আরও বেশি শক্তি প্রয়োগের পর থেকেই বেশ কিছু গুরুতর ঘটনার কথা জানা যাচ্ছে। তবে এখন পর্যন্ত বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারী আহত হলেও কোনো মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি।


ট্রাম্পের শয্যাসঙ্গী হওয়া ছিল সবচেয়ে বিরক্তিকর, দাবি পর্নতারকার

ভিয়েতনামের হাতে ধরা অপরূপ সোনালি সেতু


এদিকে, বুধবার সকাল থেকেই রাজধানীতে জড়ো হতে শুরু করে সরকারি কর্মচারীদের বিশাল একটি গ্রুপ। মঙ্গলবার রাবার বুলেট ছোড়ার আগে বিক্ষোভকারীদের সতর্ক করতে ফাঁকা গুলি ছোড়া হয়েছিল। কিন্তু চিকিৎসকরা বলছেন, আহত ব্যক্তিদের দেখে মনে হচ্ছে তাদের ওপর সরাসরি গোলা-বারুদ নিক্ষেপ করা হয়েছে।

বিবিসি জানিয়েছে, নেপিদোর একটি হাসপাতালে এক নারী মাথায় গুরুতর আঘাত নিয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাকে ইন্টেন্সিভ কেয়ারে রাখা হয়েছে। এছাড়া আরও এক বিক্ষোভকারী বুকে আঘাত পেয়েছেন।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ধর্ষণ শেষে নারীর শরীরে আগুন লাগিয়ে দেয় বাবা-ছেলে!

অনলাইন ডেস্ক

ধর্ষণ শেষে নারীর শরীরে আগুন লাগিয়ে দেয় বাবা-ছেলে!

বাবা ও ছেলে ধর্ষণ শেষে এক নারীর শরীরে আগুন লাগিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনা ভারতের উত্তরপ্রদেশের সীতাপুরের মিশরিখ অঞ্চলে।

জানা গেছে, ৩০ বছর বয়সী ওই নারী বাপের বাড়ি থেকে ফেরার সময় ৫৫ বছরের ওই ব্যক্তির রিকশায় উঠেছিলেন। এরপরই তার উপর চড়াও হয় অভিযুক্ত। সে এবং তার ছেলে মিলে ধর্ষণ করে নারীকে। পরে তার শরীরে আগুন লাগিয়ে দেয়।

এদিকে এই ঘটনায় তাদেরকে আটক করেছে পুলিশ। হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ওই নির্যাতিত নারীকে। তার শরীরের ৩০ শতাংশ পুড়ে গেছে।


নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে কে?

মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এল খাসোগি হত্যার গোপন তথ্য

নামাজে মনোযোগী হওয়ার কৌশল

অভাব দুর হবে, বাড়বে ধন-সম্পদ যে আমলে


 

সীতাপুরের পুলিশ সুপারিটেন্ডেন্ট আরপি সিং জানান, আপৎকালীন নম্বর ১১২-তে ফোন করে তাদের কাছে খবর দেওয়া হয়। দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে গিয়ে নারীকে উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশ দুই অভিযুক্তকেই আটক করেছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

পুলিশ সুপারিটেন্ডেন্ট আরও জানান, নির্যাতিতার মেডিক্যাল পরীক্ষা করা হবে। নারীর শারীরিক অবস্থা এখন স্থিতিশীল। শরীরের ৩০ শতাংশ পুড়ে গেলেও আপাতত তিনি বিপদমুক্ত বলে তদন্তকারী পুলিশ অফিসার জানিয়েছেন। এই ঘটনায় আরও কেউ জড়িত কিনা তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ করে ঘটনাটির বিস্তারিত বিবরণ জানতে চেষ্টা করা হচ্ছে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

‘নিষেধাজ্ঞা না তুললে আইএইএ’র ক্যামেরা খুলে ফেলা হবে’

অনলাইন ডেস্ক

‘নিষেধাজ্ঞা না তুললে আইএইএ’র ক্যামেরা খুলে ফেলা হবে’

ইরানের পরমাণু স্থাপনাগুলোতে আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থার যেসব ক্যামেরা বসানো আছে সাম্প্রতিক দ্বিপক্ষীয় চুক্তি অনুযায়ী তাতে ধারণ করা কোনো ছবি বা ভিডিও এই সংস্থা পাবে না। আর তিন মাসের মধ্যে ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা না হলে ওইসব ক্যামেরার সকল তথ্য মুছে ফেলার পাশাপাশি ক্যামেরাগুলো খুলে রাখা হবে বলেও জানানো হয়েছে।

ইরানের আণবিক শক্তি সংস্থার প্রধান ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলী আকবর সালেহি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। শুক্রবার রাতে টেলিভিশনের এক টক-শো’তে তিনি বলেন, সংসদে পাস হওয়া আইন অনুযায়ী ইরান সম্প্রতি এনপিটি চুক্তি সম্পূরক প্রটোকল বাস্তবায়ন বন্ধ করে দিয়েছে। তবে আইএইএ’র সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় চুক্তির ভিত্তিতে ওই সংস্থার ক্যামেরাগুলো এখনো ইরানের পরমাণু স্থাপনাগুলোতে বসানো রয়েছে এবং এসব স্থাপনার সব তৎপরতার দৃশ্য এসব ক্যামেরায় রেকর্ড হচ্ছে।

আরও পড়ুন:


পানির নিচের অভিজ্ঞতা শেয়ার করলেন টাইটানিকের সেই নায়িকা

কে এই রূপবতী তুলসী, যার গানের ভিউ ১০ কোটি ছাড়ালো (ভিডিও)

কার প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছেন শ্রাবন্তী, নাম ফাঁস করলেন নিজেই

বন্যপ্রাণীর মিঠাপানির চাহিদা মেটাতে সুন্দরবনে পুকুর খনন শুরু


কিন্তু আইএইএ’র প্রধান রাফায়েল গ্রোসির সাম্প্রতিক তেহরান সফরে তার সঙ্গে ইরানের তিন মাসের সাময়িক সমঝোতা হয়েছে। এই তিন মাসের মধ্যে আমেরিকা ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার না করলে আইএইএ’কে এসব ক্যামেরার কোনো ছবি বা ভিডিও দেখতে দেয়া হবে না এবং স্থায়ীভাবে সেসব দৃশ্য মুছে ফেলা হবে। তিনি বলেন, এরপর ইরানের পরমাণু স্থাপনাগুলো থেকে আইএইএ’র সব ক্যামেরা খুলে ফেলা হবে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বিশ্ব মুসলিম ব্যক্তিত্ব অ্যাওয়ার্ড পেলেন এরদোগান

অনলাইন ডেস্ক

বিশ্ব মুসলিম ব্যক্তিত্ব অ্যাওয়ার্ড পেলেন এরদোগান

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান ২০২০ সালের গ্লোবাল মুসলিম পার্সোনালিটি অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছেন। টানা তৃতীয় বছর নাইজেরিয়ার ইসলাম বিষয়ক সংবাদপত্র মুসলিম নিউজ নাইজেরিয়ার দেয়া এই পুরস্কার অর্জন করলেন তিনি।

সংবাদপত্রটির প্রকাশক রশিদ আবু বকর এক বিবৃতিতে এরদোগানের পুরস্কার অর্জনের এই ঘোষণা দেন। 

বিবৃতিতে আবু বকর বলেন, ২০২০ সালে কোভিড-১৯ মহামারীর জেরে সারাবিশ্ব প্রচণ্ড চ্যালেঞ্জের ভেতর দিয়ে গিয়েছে, যা মানুষের অগ্রগতিকে প্রভাবিত করেছে। এরদোগান এক ন্যায্য লক্ষ্যে স্থির ছিলেন এবং তার অর্জন আগের বছরকে অতিক্রান্ত করেছে।

তুর্কি রাষ্ট্র ও তার স্থানীয় অর্থনীতির জাতীয় সক্ষমতার পরিচর্যা ও উন্নয়নের মাধ্যমে, প্রেসিডেন্ট এরদোগান বিশ্বের সামনে এক উদাহরণ সৃষ্টি করেছেন, যার অভাব মানবাধিকার, রাজনীতি, ন্যায়বিচার ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সমতায় ইসলামি আদর্শের অনুপস্থিতির কারণে অনুভব করছে।


নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে কে?

মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এল খাসোগি হত্যার গোপন তথ্য

নামাজে মনোযোগী হওয়ার কৌশল

অভাব দুর হবে, বাড়বে ধন-সম্পদ যে আমলে


২০১৮ সাল থেকে এই পুরস্কার দেয়া শুরু হয়। বিশ্বজুড়ে মুসলমানদের বিভিন্ন অর্জনকে স্বীকৃতি দেয়ার জন্যই এই পুরস্কারের প্রচলন হয়।

উল্লেখ্য, এরদোগানকে নিয়ে সারা মুসলিম বিশ্বেই এক ধরণের আলোড়ন চলছে। কেউ কেউ বলছেন মুসলিম উন্মার নেতৃত্ব এখন তার হাতেই। এ ক্ষেত্রে দিনে দিনে সৌদি আরব পিছিয়ে পড়ছে। সেই শূন্যতা পূরণে এগিয়ে আসছেন এরদোগান। এরদোগানকে ২০১৮ সালেও  বিশ্ব মুসলিম ব্যক্তিত্ব অ্যাওয়ার্ড  পান । 

(সূত্র : ইয়েনি শাফাক)।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

যুক্তরাষ্ট্রে আবারও চালু হল গ্রিন কার্ড

অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রে আবারও চালু হল গ্রিন কার্ড

আবারও যুক্তরাষ্ট্রে চালু হল গ্রিন কার্ড। করোনা মহামারীর অজুহাত দেখিয়ে গত বছর বিদেশিদের গ্রিন কার্ডের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন ট্রাম্প।

এই ঘোষণাকে ভিত্তিহীন মন্তব্য করে গত বুধবার এক ঘোষণায় গ্রিন কার্ড বিষয়ে জারি করা ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। বৈধ অভিবাসীরা এখন থেকে দেশটিতে গ্রিন কার্ডের জন্য আবারও আবেদন করতে পারবেন

তিনি বলেন, 'বৈধ অভিবাসীদের জন্য দরজা বন্ধ করে দেওয়া যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থের জন্য সুবিধাজনক নয়। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। ট্রাম্পের নীতি যুক্তরাষ্ট্রের থাকা পরিবারগুলোকে তাদের প্রিয়জনদের থেকে আলাদা করেছে। শুধু তাই নয়, যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য আর অর্থনীতিরও ক্ষতি করেছে।'


বস্তিবাসীকে না জানিয়েই ভ্যাকসিনের ট্রায়াল

গাড়িতে অগ্নিকান্ড, রেকর্ড সংখ্যক গাড়ি উঠিয়ে নিচ্ছে হুন্দাই

সানি লিওনের জায়গা নিলেন আবিরা! (ভিডিও)

৭ সন্তান নিতে স্বেচ্ছায় দেড় লাখ ডলার জরিমানা গুনলেন চীনা দম্পতি


প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসের কারণে যুক্তরাষ্ট্রে বেকারত্ব বাড়ায় গ্রিন কার্ডে নিষেধাজ্ঞা দেন ট্রাম্প। সবশেষ ট্রাম্পের এই নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করলেন বাইডেন। এর ফলে যুক্তরাষ্ট্রের বৈধ অভিবাসীরা এখন থেকে গ্রিন কার্ড সংগ্রহ করে দেশটিতে বসবাস করতে পারবেন।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

শারীরিক সম্পর্কে রাজি নয় ষষ্ঠ স্ত্রী, নতুন স্ত্রীর সন্ধানে বৃদ্ধ

অনলাইন ডেস্ক

শারীরিক সম্পর্কে রাজি নয় ষষ্ঠ স্ত্রী, নতুন স্ত্রীর সন্ধানে বৃদ্ধ

ষষ্ঠ স্ত্রী ৬৩ বছরের বৃদ্ধের সাথে শারীরিক সম্পর্কে রাজি না হওয়াতে আবারও বিয়ে করতে চলেছেন স্বামী। এই বৃদ্ধ ভারতের গুজরাট রাজ্যের সুরাটের বাসিন্দা। অবাক হওয়ার মতো বিষয়, এটি ওই ব্যক্তির দ্বিতীয় বিয়ে নয়, সপ্তম বিয়ে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আয়ুব দেগিয়া নামে ওই চাষি সুরাটের গ্রামে থাকেন। গত বছরের সেপ্টেম্বর  নিজের থেকে ২১ বছরের ছোট একটি মেয়েকে ষষ্ঠ বিয়ে করেন।  যদিও ডিসেম্বর মাসেই আলাদা হয়ে যান। কারণ হিসেবে জানান, স্ত্রী তার সঙ্গে যৌন সম্পর্কে রাজি হন না, তাই এই সিদ্ধান্ত।

ভারতীয় একটি গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, আমার ডায়বেটিস, হৃদরোগসহ অন্যান্য সমস্যা রয়েছে। কিন্তু আমার স্ত্রী ইনফেকশনের দোহাই দিয়ে কখনই শারিরিক সম্পর্কে রাজি হতো না। তাই স্ত্রীকে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।


নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে কে?

মার্কিন গোয়েন্দা রিপোর্টে উঠে এল খাসোগি হত্যার গোপন তথ্য

নামাজে মনোযোগী হওয়ার কৌশল

অভাব দুর হবে, বাড়বে ধন-সম্পদ যে আমলে


 

ওই ব্যক্তির প্রথম স্ত্রী এখনও জীবিত। তিনি একই গ্রামেই থাকেন। তাদের পাঁচ সন্তান রয়েছে। প্রত্যেকেরই বয়স ২০ থেকে ৩৫ বছরের মধ্যে। কিন্তু ষষ্ঠ স্ত্রীকে ডিভোর্স দিলেও এখন আর প্রথম জনের কাছে যান না আয়ুব।

আয়ুবের ষষ্ঠ স্ত্রী প্রথমে তার এই কুকীর্তির কথা জানতেন না। কিছু না জেনেই বিয়ে সেরে ফেলেছিলেন। বর্তমানে সবকিছু জানার পর পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন।

এই প্রসঙ্গে ওই নারীর আইনজীবী জানান, তার মক্কেল বিধবা। সেটারই সুযোগ নেয় আয়ুব। ওই মহিলার খেয়াল রাখা, সাহায্য করা, পাশে থাকার কথা বলে বিয়েও সেরে ফেলেন। কিন্তু কিছুদিন পরই তার আসল স্বরূপ বেরিয়ে আসে। এমনকি স্ত্রীকে বোনের বাড়িতে রেখে আসেন। এরপরই স্বামীর আসল পরিচয় জানতে পারেন ওই মহিলা।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর