আল্পস পর্বতের বিপর্যয় এড়াতে জোড় গবেষণা চলছে

অনলাইন ডেস্ক

আল্পস পর্বতের বিপর্যয় এড়াতে জোড় গবেষণা চলছে

ইউরোপে অবস্থিত পর্বতমালাদের অন্যতম আল্পস‌ পর্বতমালা। পূর্বে অস্ট্রিয়া ও স্লোভানিয়া এবং পশ্চিমে ইতালি, সুইজারল্যান্ড, লিশ্টেনশ্টাইন হয়ে জার্মানি থেকে ফ্রান্স পর্যন্ত বিস্তৃত। আল্পস পর্বতমালার সবচেয়ে উচ্চতম পর্বত ইতালি-ফ্রান্স সীমান্তে অবস্থিত মোঁ ব্লঁ, যার উচ্চতা ৪৮০৮ মিটার।

আল্পস পর্বতের একটি অংশে সব মিলিয়ে প্রায় ৪০ লাখ ঘনমিটার অংশ ভেঙে পড়েছে। আট জন পর্বতারোহী সে সময়ে ঘটনাস্থলে ছিলেন। আজও তাঁরা নিখোঁজ। সেই ধ্বংসলীলার কিছু সময় পর কাদামাটির বন্যা বোন্ডো শহরের মধ্যে নেমে এসে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ঘটিয়েছে।

অস্ট্রিয়ার টিরোল অঞ্চলের হিন্টারহর্নবাখ ধস নামলে সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত না হলেও কাদামাটির স্রোত সেখানেও পৌঁছতে পারে। সেখানকার মানুষ ও পর্বতারোহীদের ঠিক সময় সতর্ক করতে বিজ্ঞানীরা পাহাড়ের চূড়ার নড়াচড়ার উপর অবিরাম নজরদারি চালাতে চান। প্লাস্টিকের পাইপের মধ্যে দূরত্ব মাপার যন্ত্র রয়েছে।

টেলিস্কোপের মতো সেগুলি আরও লম্বা বা ছোট করা যায়। ফাটলের মাপ বাড়লেও সেটি তা নথিভুক্ত করতে পারে। তারপর বেতার সংকেতের মাধ্যমে উপত্যকায় সেই তথ্য প্রেরণ করা হয়।

১৮৬৩ সালে বিশ্বে প্রথমবারের মতো একটি পর্যটন সংস্থা সুইজারল্যান্ডের আল্পস-এ একটি ভ্রমণের আয়োজন করেছিল। এ বছরের সুইস গ্র্যান্ড ট্যুর ২০১৩-তে একটি দল সেই সময়ের পথ ধরেই আল্পস ভ্রমণ করল। লিউকারবাড এবং কান্ডেরস্টেগের মধ্যকার গেমি পাস-এ দলটির অনেকে পর্বতারোহণও করেছে।


ঘরে ঢুকে গৃহবধূকে ধর্ষণের হুমকি দিয়ে ডাকাতি

‌‘দূর সম্পর্কের বোনের’ সম্মতিতে শারীরিক সম্পর্ক, সাজা বাতিল হলো কিশোরের

দেশীয় বিলুপ্ত প্রজাতির শকুনটিকে খাওয়ানো হচ্ছে মাংস

তুরস্ককে বাইডেন প্রশাসনের হুমকি


হাড়ের দক্ষিণের অংশ ভেঙে পড়লে উত্তরে আলগয় অঞ্চলেও তার পরিণতি টের পাওয়া যাবে। সেখানে কোনো লোকালয় না থাকলেও পর্বতারোহী ও পাহাড়প্রিয় মানুষের পছন্দের এক ট্রেল বা গিরিপথ রয়েছে। জিওমর্ফোলজিস্ট হিসেবে মিশায়েল ডিৎসে মনে করেন, ‘‘সেখানে এক ধাক্কায় পাহাড় ভেঙে পড়লে চূড়ার অংশেও আমূল পরিবর্তন ঘটবে। ভারসাম্য সম্পূর্ণ বদলে গেলে আরও ধস নামবে।’’

ফ্লোরিয়ান মেডলার ও সিমন গিলিশ পাহাড়ের উপর একটি ড্রোনও ওড়াচ্ছেন। ড্রোনের ক্যামেরা দিয়ে ফ্লোরিয়ান এমন ছবি তুলছেন, যার সাহায্যে পাহাড়ের ত্রিমাত্রিক চেহারা ফুটে উঠছে। তাতে মাত্র এক থেকে দুই সেন্টিমিটার ত্রুটির অবকাশ রয়েছে। সেই ছবি দেখে সামান্য চিড়ও শনাক্ত করা সম্ভব। এই উদ্যোগের আওতায় বিজ্ঞানীরা নজরদারির বিভিন্ন প্রযুক্তি হাতেনাতে পরীক্ষার সুযোগও পাচ্ছেন।

ক্রাউটব্লাটার ও তাঁর সহকর্মীরা বড় ফাটলগুলিতে দূরত্ব মাপার ডাণ্ডাও বসাচ্ছেন। তবে তাতে সমস্যা দেখা যাচ্ছে। সন্ধ্যা পর্যন্ত সব পরিমাপ যন্ত্র বসানো সম্ভব হয়েছে। এভাবে ধস নামার কয়েক দিন আগেই উপত্যকার মানুষ ও পর্বতারোহীদের সতর্ক করার আশা করছেন তাঁরা।

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

করোনায় মৃত্যুর সঙ্গে স্থূলতার সম্পর্ক রয়েছে: গবেষণা

অনলাইন ডেস্ক

করোনায় মৃত্যুর সঙ্গে স্থূলতার সম্পর্ক রয়েছে: গবেষণা

করোনায় মৃত্যুর সঙ্গে স্থূলতার যোগসূত্র রয়েছে বলে দাবি করেছেন গবেষকরা। তারা বলছেন, যেসব দেশে মানুষের স্থূলতার হার বেশি, কোভিড-১৯ এ মৃত্যুও সেসব দেশে বেশি।

ওয়ার্ল্ড ওবেসিটি ফেডারেশন বিশ্বে করোনায় মৃত্যু নিয়ে জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্য বিশ্লেষণ করে এই চিত্র পেয়েছে। খবর রয়টার্সের।

করোনায় আক্রান্তের ও মৃতের দিক থেকে শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এর পরই রয়েছে ভারত, ব্রাজিল, রাশিয়া ও যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশ।

এমন পরিস্থিতিতে করোনায় মৃত্যু নিয়ে নতুন তথ্য দিল ওয়ার্ল্ড ওবিসিটি ফেডারেশন। তারা বলছে, যেসব দেশে পূর্ণবয়স্ক মানুষের কমপক্ষে ৫০ শতাংশ স্থূল, সেসব দেশে মৃত্যু হার অন্য দেশগুলোর তুলনায় ১০ গুণ বেশি।


আরও পড়ুনঃ


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

প্রথমবারের মতো দেশে পালিত হচ্ছে টাকা দিবস

ইয়ার্ড সেলে মিললো ৪ কোটি টাকার মূল্যবান চীনামাটির পাত্র!

এই নচিকেতা মানে কী? আমি তোমার ছোট? : মঞ্চে ভক্তকে নচিকেতার ধমক (ভিডিও)


জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্য অনুযায়ী, কোভিড-১৯ এ বিশ্বে যে ২৫ লাখ মানুষের মৃত্যু ঘটেছে, তার ২২ লাখই সেই সব দেশের, যেখানকার মানুষের মধ্যে মেদবহুল হওয়ার প্রবণতা রয়েছে। গবেষণায় পাওয়া এই তথ্যকে ‘নাটকীয়’ বলছেন গবেষকরা।
news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ছাত্রীদের নগ্ন হয়ে নাচতে বাধ্য করল পুলিশ, নাচের ভিডিও ভাইরাল

অনলাইন ডেস্ক

ছাত্রীদের নগ্ন হয়ে নাচতে বাধ্য করল পুলিশ, নাচের ভিডিও ভাইরাল

হোস্টেলে ঢুকে মেয়েদের নগ্ন করে নাচানোর অভিযোগ উঠেছে ভারতীয় পুলিশের বিরুদ্ধে। দেশটির মহারাষ্টের রাজ্যের জলগাঁও এলাকার একটি হোস্টেলে ভয়াবহ এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।

সম্প্রতি এই ঘটনার একটি ভিডিও ক্লিপ সামাজিক মাধ্যমে ফাঁস হওয়া পরই প্রতিবাদে বিধানসভায় সরব হয় বিরোধীরা।

বিজেপি বিধায়ক সুধীর মুঙ্গান্তিওয়ার জানান, বিষয়টিকে আদৌ কঠিনভাবে দেখছে না সরকার!


আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকাণ্ড, ধরা ২০ নারী

চুমু দিয়ে নারীদের সব রোগ সারিয়ে দেন ‘চুমুবাবা’

বুবলিকে ধাক্কা দেওয়া গাড়িটি ছিল ব্ল্যাক পেপারে মোড়ানো, ছিল না নম্বর প্লেট

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

মেয়েকে তুলে নিয়ে মাকে রাত কাটানোর প্রস্তাব অপহরণকারীর

নাসির বিয়ে করেছেন আপনার খারাপ লাগে কেন?


ভারতের স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, জলগাঁও এলাকার এক হোস্টেলের কিছু বসবাসকারী অভিযোগ আনেন, তদন্তের নাম করে পুলিশ ও বাইরের কিছু লোক হোস্টেলে ঢুকে তাঁদের সঙ্গে অশালীন আচরণ করছে। ছাত্রীদের জোর করে পোশাক খুলিয়ে নাচে বাধ্য করেছে পুলিশ কর্মীরা। এখানেই শেষ নয়! ছাত্রীদের সেই নাচের ভিডিও তুলে নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ নির্যাতিতাদের।

ওই ঘটনায় মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ জানান, খুবই নক্কারজনক ঘটনা। চার সদস্যের হাই-লেভেল কমিটি ঘটনার তদন্ত করছে। ২ দিনের মধ্যে তাদের রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তারপরই অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে উচিত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মরুভূমির ত্বীন ফল চাষ হচ্ছে এখন দিনাজপুরে

অনলাইন ডেস্ক

মরুভূমির ত্বীন ফল চাষ হচ্ছে এখন দিনাজপুরে

উত্তরের জনপদ দিনাজপুরে খাদ্যশস্য প্রচুর ফলে। ধান এখানে বেশি জন্মায়। তবে এখন চাষিরা ফল চাষের দিকে বেশি নজর দিচ্ছে। বিশেষ করে নতুন জাতের ফল। এবার জেলার দক্ষিণের উপজেলা নবাবগঞ্জে চাষ শুরু হয়েছে মরুভূমির মিষ্টি ফল ত্বীন।

নতুন এই ফল চাষ শুরু করে এলাকায় মানুষের দৃষ্টি কেড়েছে উপজেলার কৃষক মতিউর মান্নান। এই ফলের বাগান দেখতে ভিড় করছেন স্থানীয়রা। শুধু ফল চাষই নয়, বাগানটিতে কর্মসংস্থানের সুযোগ হয়েছে বেশ কয়েকটি পরিবারের।

উপজেলা কৃষি অফিসের তথ্যমতে, উত্তরবঙ্গে প্রথমবারের মতো এই ফলের চাষ শুরু হয়েছে। এই উপজেলায় ৪ বিঘা জমিতে ৫ প্রজাতির ৯০০ ত্বীন ফলের গাছ লাগিয়েছেন কৃষক মতিউর মান্নান। ইতিমধ্যে বাগানের গাছগুলোতে ফলও আসতে শুরু করেছে।

বাগান দেখতে আসা রোকন ও জুলহাজ বলেন, আমরা শুধু ফেসবুক, টিভিতে দেখি ত্বীন ফল। পবিত্র কোরআনেও এই ফলের নাম আছে। আজ বাগানে এসে বাস্তবে ফলটি দেখতে পেরে আমাদেরকে অনেক ভালো লাগলো।


আইটেম গার্ল জেরিন খান এখন ড. জেরিন খান

রাজধানীর খিলক্ষেতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১

সিরাজগঞ্জে এইচ টি ইমামের প্রথম জানাজা সম্পন্ন

মা হচ্ছেন শ্রেয়া ঘোষাল, বেবি বাম্পের ছবি ভাইরাল


তারা বলেন, ফলগুলো দেখতে ডুমুর আকৃতির। গাছে অনেক ফল ধরেছে। এই ফলটি আমাদের এলাকায় প্রথম চাষ হচ্ছে। ফলের বাগান দেখে আমাদের এরকম বাগান করার ইচ্ছে হচ্ছে। আমরা বাগান দেখার পাশাপাশি মতিউর মান্নানের কাছ থেকে এই ফল চাষের পদ্ধতি সর্ম্পকে অনেক কিছু জানলাম। আমরা ভবিষতে এরকম বাগান করবো।

বাগানের শ্রমিক লাবলুসহ বেশ কয়েকজন বলেন, আমরা ১০ জন ত্বীন ফলের বাগানে কাজ করছি। করোনায় কোনো কাজকর্ম ছিলো না। মতিউর ভাই ত্বীন ফলের বাগান করায় এখানে আমাদের কর্মসংস্থানের সুযোগ হয়েছে। এখানে কাজ করে আগের থেকে আমাদের সংসার অনেক ভালো চলছে। মতিউর ভাইয়ের মতো এলাকায় আরো যদি কেউ বাগান তৈরি করে, তাহলে আরো বেশকিছু মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে।

ত্বীন ফলে রয়েছে নানা ওষধি গুণ। খেতেও বেশ সুস্বাদু। উপজেলার স্থানীয় কৃষি অফিস এ ব্যাপারে সব রকমের সহযোগিতা করছে। আরো কেউ যদি ত্বীন ফলের বাগান করতে চায় তবে উপজেলা কৃষি অফিস সব ধরণের সহযোগিতা করবে। ত্বীন ফল বাজারে ব্যাপক সারা ফেলবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চুমু দিয়ে নারীদের সব রোগ সারিয়ে দেন ‘চুমুবাবা’

অনলাইন ডেস্ক

চুমু দিয়ে নারীদের সব রোগ সারিয়ে দেন ‘চুমুবাবা’

চুমু দিয়ে কিংবা অন্তরঙ্গভাবে জড়িয়ে ধরে নারীদের শারীরিক ও মানসিক রোগ সারিয়ে দিতে পারেন তিনি। এজন্য তিনি ‌‘চুমুবাবা’ নামেও খ্যাত অনেকের কাছে। তার আসল নাম রাম প্রকাম চৌহান। ভারতীয় গণমাধ্যম জানায়, আসাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেছে ভারতীয় পুলিশ।

চৌহানের দাবি, হিন্দু দেবতা বিষ্ণুর কাছ থেকে তিনি স্বপ্নে অতি প্রাকৃতিক ক্ষমতার অধিকারী হয়েছেন। যার মাধ্যমে বিবাহিত নারীদের যে কোনো বৈবাহিক সমস্যা চুমুর মাধ্যমে সারিয়ে তোলা সম্ভব।

‘চুমুবাবা’ আসামের মৌরিরগাঁও অঞ্চলে একটি মন্দির গড়ে তুলেছিলেন রাম প্রকাশ।


বুবলিকে ধাক্কা দেওয়া গাড়িটি ছিল ব্ল্যাক পেপারে মোড়ানো, ছিল না নম্বর প্লেট

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

মেয়েকে তুলে নিয়ে মাকে রাত কাটানোর প্রস্তাব অপহরণকারীর

নাসির বিয়ে করেছেন আপনার খারাপ লাগে কেন?


এক মাস আগে শুরু করা তার এই  কথিত পন্থা আসাম জুড়ে নারীদের মাঝে আলোড়ন ফেলে।

শত শত বছর ধরে মৌরিগাঁও অঞ্চলে কালো জাদু নামক কু সংস্কারের প্রভাব থাকায় রাম প্রকাশের ভন্ডামি প্রসার পেয়েছে বেশ। আধুনিক শিক্ষার প্রসার এ অঞ্চলে একদম নেই বললেই চলে।

শত শত বছর ধরে মৌ’রিগাঁও অঞ্চলে কা’লো জাদু নামক কুসংস্কারের প্রভাব থাকায় রাম প্রকাশের ভন্ডামি প্রকাশ পেয়েছে বেশ।

আধুনিক শিক্ষার প্রসার এ অঞ্চলে একদম নেই বললেই চলে। আর সন্তানের প্র’সারে রাম প্রকাশের মায়ের অবদান ছিল খানিকটা। মৌরিগাঁও অঞ্চলের মানুষদের বিশ্বাস স্বয়ং ‘বিষ্ণু’র কৃপা আছে তাদের ওপর।

আর সেই প্রভাব কাজে লাগিয়েই সাপের ওঝা থেকে শুরু করে তান্ত্রিক গুরু নামক মা’নুষ ঠকানো বিভিন্ন পন্থা গড়ে উঠেছে এই অঞ্চলে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

২ হাজার ডলার খরচ করে সার্জারিতে এ কী হাল!

অনলাইন ডেস্ক

২ হাজার ডলার খরচ করে সার্জারিতে এ কী হাল!

বিশ্বের সবচেয়ে বৃহৎ চোয়ালের অধিকারিণী ইউক্রেনিয়ান মডেল অ্যানাস্তেশিয়া পক্রেশ্চাক। সম্প্রতি তিনি সার্জারির আগে নিজের ‘আসল’ ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইন্সটাগ্রামে শেয়ার করে ব্যাপক আলোচিত-সমালোচিত হচ্ছেন।

বর্তমানে তিনি নিজের বৃহৎ চোয়াল এবং পুরু ঠোঁটের জন্য আলোচিত। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য সান এর দেয়া তথ্য অনুযায়ী তার বর্তমান ‘রূপ’এর গোপন রহস্যের পিছে বেশ কয়েকটি প্ল্যাস্টিক সার্জারি ‘দায়’ রয়েছে, যার মধ্যে ফেসিয়াল ফিলার এবং বোটক্স ইঞ্জেকশন রয়েছে।

দ্য সান আরও জানিয়েছে, ৩২ বছর বয়সী এই মডেল তার চেহারার পিছনে গত ৬ বছরে নিজের চেহারার আকৃতি পরিবর্তনের জন্য খরচ করেছেন ২১০০ মার্কিন ডলার বা, প্রায় ১ লাখ ৭৮ হাজার টাকা। বর্তমানে ইন্সটাগ্রামে তার ফলোয়ার ২ লাখেরও বেশি।

সাধারণত ইন্সটাগ্রামে তার অধিকাংশ ছবিই গোলাপি চুল, চোখে রঙ্গিন লেন্স ও কড়া মেকাপ সম্বলিত। তবে সম্প্রতি তিনি শেয়ার করেছেন তার এই পরিবর্তনের আগের ছবি। আর এই ছবি দিয়েই হটাত নতুন করে আলোচনায় চলে আসেন তিনি।

ছবিতে তিনি ক্যাপশন দেন “পরিবর্তন ২৬ থেকে ৩২, তুমি কোনটি পছন্দ করবে?”


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

প্রথমবারের মতো দেশে পালিত হচ্ছে টাকা দিবস

ইয়ার্ড সেলে মিললো ৪ কোটি টাকার মূল্যবান চীনামাটির পাত্র!

এই নচিকেতা মানে কী? আমি তোমার ছোট? : মঞ্চে ভক্তকে নচিকেতার ধমক (ভিডিও)


এখানে ২৬ বছর বয়সে প্রায় মেকাপ ছাড়া তার সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক চেহারা দেখা যায়। পোষ্টটিতে ২২ হাজার লাইক ও শতাধিক কমেন্ট পড়ে, যার অধিকাংশ মন্তব্যেই বলা হয়েছে তাকে একদমই চেনা যাচ্ছে না।

এর সুত্র ধরেই তিনি আরো একটি ছবে তার ইন্সটাগ্রামে শেয়ার করেন।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর