বৃদ্ধা মাকে ঘরে তুলেন না ছেলে, ভরণপোষণের ভার নিলেন ইউএনও
বৃদ্ধা মাকে ঘরে তুলেন না ছেলে, ভরণপোষণের ভার নিলেন ইউএনও

বৃদ্ধা মাকে ঘরে তুলেন না ছেলে, ভরণপোষণের ভার নিলেন ইউএনও

অনলাইন ডেস্ক

বয়স ৮০ পেরিয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত নানান রোগে ভুগছেন পঞ্চগড় সদর ইউনিয়নের মোলানীপাড়া এলাকার মৃত বাদল হোসেনের স্ত্রী বুলবুলি। নিজে নিজে হাটা চলাও করতে পারেন না। বয়সের ভারে হারিয়ে ফেলেছেন বাকশক্তিও।

এ অবস্থায় বৃদ্ধ বুলবুলি এখন পরিবারের বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ছেলে-বউ আর নাতি নাতনিরা দালান ঘরে থাকলেও বৃদ্ধার রাত কাটাতে হয় ভাঙা ঘরে যেখানে নেই ভালো একটি চৌকি, এমনকি মশার উপদ্রব থেকে বাঁচতে মশারীও। ছেলে রেজাউল ইসলাম পেশায় কাঠমিস্ত্রি। জীবিকার তাগিদে ছেলে দিনভর বাইরে থাকলে শয্যাশায়ী এই বৃদ্ধার খোঁজ নেওয়ার কেউ থাকেনা।

আরও পড়ুন:


কন্যাসন্তান জন্ম দেয়ায় ৩ তালাক দিলেন স্বামী

পাঠ্য বইয়ে জামায়াতকে রাজনৈতিক দল উল্লেখ করায় প্রতিবাদ

মার্কিন ঘাঁটিতে আঘাত হানা ক্ষেপণাস্ত্র প্রদর্শন ইরানের

পারস্য উপসাগরের কিশ দ্বীপে নৌযান মহড়া


সম্প্রতি বৃদ্ধা বুলবুলির মানবেতর এই জীবন কাহিনি তুলে ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট শেয়ার করেন পঞ্চগড় জেলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শাহ জালাল। ফেসবুকের সেই পোস্টটি নজরে আসে পঞ্চগড় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো: আরিফ হোসেনের। এরপর প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী নিয়ে বৃদ্ধার পাশে দাঁড়িয়েছেন ইউএনও আরিফ।

বুধবার বিকেলে তিনি একটি কমোড চেয়ারসহ বেডশীট, তোষক, মশারী, বালতি, মগ, বদনা, স্যাভলন, হুইল পাউডার ও সাবান নিয়ে হাজির হন বৃদ্ধার বাড়িতে। একই সাথে বৃদ্ধার দেখভালের জন্য স্থানীয় সমিলা বেগমকে দায়িত্ব দেন তিনি। বিনিময়ে সমিলা বেগমকে আর্থিক সহায়তাসহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার আশ্বাস দেন ইউএনও। এর আগে, বৃদ্ধার ছেলে রেজাউলকে চৌকি কিনতে নগদ টাকা দেন ইউএনও।

news24bd.tv আহমেদ