৫ বছর ধরে পরকীয়া, যে কারণে প্রেমিক ৫ খণ্ড

অনলাইন ডেস্ক

৫ বছর ধরে পরকীয়া, যে কারণে প্রেমিক ৫ খণ্ড

৫০ বছর বয়সী এক প্রেমিকার হাতে রাজধানীতে খুন হয়েছেন এক যুবক। বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে সায়েদাবাদের কে এম দাস লেনের একটি ভাড়া বাসা থেকে উদ্ধার করা হয় সজীবের খণ্ড খণ্ড মরদেহ। এ ঘটনায় আটক করা হয়েছে প্রেমিকা শাহনাজকে।

গ্রেফতারের পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন শাহনাজ। প্রেমিককে ছুরিকাঘাতে হত্যার পর ৫ খণ্ড করেন শাহানাজ। নিহত সজিবের সঙ্গে তার পাঁচ বছর ধরে অবৈধ সম্পর্ক চল‌ছিল।

বৃহস্পতিবার দুপু‌রে ওয়ারীর স্বামীবা‌গের কে এম দাস লেন এলাকার একটি চারতলা বাসায় এ ঘটনা ঘটে। লাশের তিন খণ্ড ঘরের মেঝেতে এবং দুই খণ্ড টয়লেটে পাওয়া যায়।

প্রতিবেশীরা বলছেন, ৫ থেকে ৬ বছর ধরে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে সায়েদাবাদের কে এম দাস লেনের ৬ তলা ভবনের চতুর্থ তলায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন ৫০ বছর বয়সী শাহনাজ ও বাসের টিকিট কাউন্টারের কর্মী ৩২ বছরের সজীব।

এদিকে স্ত্রী নিখোঁজ থাকায় মঙ্গলবার (০৯ ফেব্রুয়ারি) ওয়ারি থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন আটক শাহনাজের আসল স্বামী।

যে কারণে ইসলাম ছেড়ে ইহুদি ধর্মে কুয়েতের নারী কণ্ঠশিল্পী (ভিডিও)

প্রেমিকের ৫ খণ্ড মরদেহের পাশে বসে ছিলেন প্রেমিকা শাহনাজ

সূরা তাওবায় কেন ‘বিসমিল্লাহ’ নেই, কি বিষয়ে সূরাটি নাযিল

কুরআন শরিফ ছিড়ে গেলে ইসলামের নির্দেশনা কি?


ডিএমপির ওয়ারী বিভাগের উপ-কমিশনার ইফতেখারুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, পারভিন তিন দিন ধরে নিখোঁজ জানিয়ে তার স্বামী ওয়ারি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। পুলিশ তাকে (পারভিন) খুঁজতে গিয়ে এই (সজিবের) মৃতদেহ পায়।  

পুলিশ জানায়, সজিবের সঙ্গে পারভিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সে কারণে পারভিন তার স্বামীর বাসা থেকে তিনদিন আগে টাকা-পয়সা ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে পালিয়ে সজিবের বাসায় ওঠেন। জিডি হওয়ার পর মোবাইল ফোন ট্র্যাক করে পারভিনের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে সজিবের বাসায় যায় পুলিশ। সেখানে পারভিনকে পাওয়ার পাশাপাশি সজিবের লাশও মেলে।

পারভিনকে সন্দেহের কারণ জানতে চাইলে উপ-কমিশনার ইফতেখার বলেন, সজিবের সঙ্গে থাকতে গিয়ে পারভিন বুঝতে পারে, সজিবের অন্য মেয়েদের সঙ্গেও সম্পর্ক রয়েছে এবং সজীবের মুখ্য উদ্দেশ্য পারভিনের টাকা ও স্বর্ণালংকার।

পারভিনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ‍তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার সকালে ঝগড়ার সময় এই হত্যাকাণ্ড ঘটে।

তিনি বলেছেন, সজিবের সঙ্গে তার প্রথমে ঝগড়া হয়, তখন সজিব তাকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে। পরে ধস্তাধস্তির মধ্যে ছুরি পারভিনের হাতে চলে আসে। তখন তিনি সজিবকে ছুরি মারলে সে মারা যায়। এরপর পারভিন রান্না ঘরের বটি দিয়ে সজীবের মৃতদেহ পাঁচ টুকরা করার কথা স্বীকার করেছেন বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা। পারভিনের হাতেও কেটে যাওয়ার জখম থাকার কথা জানান তিনি।

প্রাথমিক অনুসন্ধানের জানা গেছে, শাহানাজ স্বামীবাগ এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা। তার দুই ছেলে ও মেয়ে র‌য়ে‌ছে। নিহত সজিবের সঙ্গে শাহনাজের চার পাঁচ বছর ধরে অবৈধ সম্পর্ক চল‌ছিল। তারা একটি বাসায় মাঝে মাঝে অনৈতিক সম্পর্কে লিপ্ত হ‌তেন। বৃহস্প‌তিবারও দুজ‌ন দেখা ক‌রে শারীরিক সম্পর্ক শে‌ষে টাকা ও সোনা গহনা পাওনা নি‌য়ে ঝগড়ায় লিপ্ত হন। বাক‌বিতণ্ডার এক পর্যা‌য়ে স‌জিব শাহনাজ‌কে চড় থাপ্পড় মার‌লে শাহনাজ ক্ষিপ্ত হ‌য়ে ছু‌রিকাঘাত করেন। এতে ঘটনাস্থ‌লেই স‌জি‌বের মৃত্যু হয়। মৃতদেহ লুকাতে শাহানাজ মরদেহ ৫টি খণ্ড ক‌রেন। 

সূত্র জানায়, গত ২ দিন আগে হত্যাকারী শাহানাজ পারভিন তার প্রকৃত স্বামীর ঘর সংসার ছেলে মেয়ে রেখে স্বর্ণাংলকার কাপড়চোপড় ও টাকা-পয়সা এবং লাগেজ নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে সজিব হাসানের সঙ্গে দেখা করেন। তার স্ত্রী পরিচয় দিয়ে সজিবের বাসায় অবস্থান করা শুরু করেন।

ওই নারী পুলিশের কাছে বলেছেন, এমন পরিস্থিতিতে সজিব হাসান তার টাকাপয়সা ও স্বর্ণাংলকার নিয়ে বিক্রি করতে চাইলে কথা কাটাকাটি হয়। এরই জেরেই সজিব হাসান তাকে ছুরি দিয়ে হত্যা করতে চাইলে ওই ছুরি কেড়ে নিয়ে উল্টো সজিব হাসানের বুকের নিচে আঘাত করেন। হত্যাকারী শাহনাজ পারভিন প্রেমিক সজিবের তুলনায় শারীরিক গঠনে খুবই ভালো। হত্যা শেষে ছুরি দিয়ে সজিবের দু’হাত, দু’পা বিছিন্ন করে হত্যা করা হয়। এ কাজে ব্যবহৃত ছুরি ও শিল উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ভিডিও দেখুন

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মাদ্রাসা শিক্ষকের হাত-পা বাঁধা ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

শেখ রুহুল আমিন, ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় এক মাদ্রাসা শিক্ষকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

আজ সকালে সদর উপজেলার বাজারগোপালপুর কলুপাড়ার একটি ভাড়াবাসা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত ইসমাইল হোসেন সদর উপজেলার হলিধানী গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে। 

পুলিশ জানায়, বাজারগোপালপুর বড়বাড়ি দাখিল মাদ্রাসার সুপার ইসমাইল হোসেনের ভাড়া বাসার নিজ কক্ষে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয় পরিবারের লোকজন। 


পুলিশকে কেন প্রতিপক্ষ বানানো হয়, প্রশ্ন আইজিপির

আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

বিমা খাতে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে আরও প্রচার প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেললো বাংলাদেশ


পরে পুলিশ এসে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। স্থানীয় ও পুলিশের ধারণা ওই মাদ্রাসা শিক্ষককে রাতের কোনো এক সময় দুর্বৃত্তরা হাত-পা বেঁধে ঘরের কাঠামোর সাথে ঝুলিয়ে হত্যা করেছে। গত ৪ বছর ধরে গ্রামের শরিফুল ইসলামের বাড়িতে স্ত্রী সন্তান নিয়ে তিনি বসবাস করে আসছিল।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মোবাইলে পরিচয়, দেখা করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

আব্দুল লতিফ লিটু, ঠাকুরগাঁও

মোবাইলে পরিচয়, দেখা করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

ঠাকুরগাঁওয়ে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ১৫ বছর বয়সী এক তরুণীকে গণধর্ষণ করার আভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের ভগদগাজী মুরগীর ফার্ম এর পাশে একটি আম বাগানে এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

গণধর্ষণের ঘটনায় ওই তরুণীর মা বাদী হয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। 

এ মামলায় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তাররা হলেন- রাণীশংকৈল উপজেলার উত্তর মহেশপুর গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে বাবুল (১৯), একই এলাকার খলিলুর রহমানের ছেলে সোহেল রানা (২০), নুনতোর বাবুপাড়া গ্রামের শামসুদ্দীনের ছেলে রমজান আলী (১৯), ঝাড়বাড়ি মোহাম্মদপুর গ্রামের মোসলেম উদ্দীনের ছেলে পইদুল ইসলাম (২২)।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, এক মাস আগে ওই তরুণীর সাথে বাবু ওরফে বাবুলের মোবাইলে পরিচয় হয় এবং প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

পরে শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে তরুণী খালার বাসায় খাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে কাশিয়াডাঙ্গা ব্রিজে বাবুলের
সঙ্গে দেখা করতে যায়।

সেখানে আগে থেকে অপেক্ষারত বাবুল ও তার সহযোগী সোহেল সহ অপরিচিত ৪-৫ জন ওই তরুণী ও তার সাথে থাকা ভাতিজিকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।


প্রতিদিন নতুন নারী লাগত তার, পরতেন ত্রিশ দিনে ৩০ সানগ্লাস

১৭ বছরের কিশোরীর পেটে ৪৮ সেন্টিমিটার লম্বা চুলের দলা

ছোট ভাই মাকে বলল,‘আপুকে পেছনের রুমে নিয়ে গেছে এক ভাইয়া

স্ত্রীকে সৌদি পাঠিয়ে ৮ বছরের মেয়েকে নিয়মিত ধর্ষণ করে বাবা

৬৬ নারীকে ধর্ষণ করেছে এক ‌‘ডেলিভারি বয়’


ভগদগাজী মুরগীর ফার্মে ওই তরুণীর ভাতিজিকে আটকে রেখে পাশের আম বাগানে বাবু ওরফে বাবুল ও তার সহযোগী সোহেল সহ অন্যরা ধর্ষণ করে।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মামলার তদন্ত চলছে, অন্য আসামিদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ভাতিজিকে মুরগীর ফার্মে আটকে ফুফুকে গণধর্ষণ

আব্দুল লতিফ লিটু,ঠাকুরগাঁও

ভাতিজিকে মুরগীর ফার্মে আটকে ফুফুকে গণধর্ষণ

ঠাকুরগাঁওয়ে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ১৫ বছর বয়সী এক তরুণীকে গণধর্ষণ করার আভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের ভগদগাজী মুরগীর ফার্ম এর পাশে একটি আম বাগানে এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

গণধর্ষণের ঘটনায় ওই তরুণীর মা বাদী হয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন।


এক নারী দিয়ে হতো না, প্রতিদিন নতুন নারী লাগত তার

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

মেয়েকে তুলে নিয়ে মাকে রাত কাটানোর প্রস্তাব অপহরণকারীর

নাসির বিয়ে করেছেন আপনার খারাপ লাগে কেন?

ঘুমন্ত স্বামীর পুরুষাঙ্গ কাটলেন স্ত্রী


এ মামলায় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তাররা হলেন- রাণীশংকৈল উপজেলার উত্তর মহেশপুর গ্রামের আব্দুল জলিলের ছেলে বাবুল (১৯), একই এলাকার খলিলুর রহমানের ছেলে সোহেল রানা (২০), নুনতোর বাবুপাড়া গ্রামের শামসুদ্দীনের ছেলে রমজান আলী (১৯), ঝাড়বাড়ি মোহাম্মদপুর গ্রামের মোসলেম উদ্দীনের ছেলে পইদুল ইসলাম (২২)।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, এক মাস আগে ওই তরুণীর সাথে বাবু ওরফে বাবুলের মোবাইলে পরিচয় হয় এবং প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

পরে শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে তরুণী খালার বাসায় খাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে কাশিয়াডাঙ্গা ব্রিজে বাবুলের
সঙ্গে দেখা করতে যায়।

সেখানে আগে থেকে অপেক্ষারত বাবুল ও তার সহযোগী সোহেল সহ অপরিচিত ৪-৫ জন ওই তরুণী ও তার সাথে থাকা ভাতিজিকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

ভগদগাজী মুরগীর ফার্মে ওই তরুণীর ভাতিজিকে আটকে রেখে পাশের আম বাগানে বাবু ওরফে বাবুল ও তার সহযোগী সোহেল সহ অন্যরা ধর্ষণ করে।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মামলার তদন্ত চলছে, অন্য আসামিদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

বাড়িতে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ছাত্রলীগ নেতার

অনলাইন ডেস্ক

বাড়িতে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ছাত্রলীগ নেতার

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি রাতে স্কুলছাত্রীকে বাড়িতে রেখে একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে যান তার মা ও বাবা। বাড়িতে এ সময় কেউ না থাকায় আকাশ ওই স্কুলছাত্রীকে দেখা করার কথা বলে কৌশলে নিজেদের বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে তিনি ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন। পরে স্কুলছাত্রী কান্নাকাটি করলে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে আবার বাড়িতে রেখে যান। 

পরের দিন সকালে স্কুলছাত্রীর কাছ থেকে ঘটনা জানতে পেরে তার বাবা ধুনট থানায় মামলা করেন। এর পর রাতেই পুলিশ বগুড়ার একটি ছাত্রাবাস থেকে আকাশকে গ্রেপ্তার করে। আর ধুনট থানাহাজতে থাকা অবস্থায় তিনি তার ছাত্রলীগের পদ নিশ্চিত করেন।


গুপ্তচরবৃত্তির ইসরাইলি জাহাজে ইরানের হামলা!

ওটিটি প্ল্যাটফর্মেও ডাবল ব্লকবাস্টার দৃশ্যম টু!

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে পাক-ভারত!

অপো নতুন ফোনে থাকছে ১২ জিবি র‌্যাম


 

বগুড়ার ধুনটে স্কুলছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণের অভিযোগে আজিজুল হক কলেজ শাখার ছাত্রলীগের সদস্য আকাশ খান নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার (১ মার্চ) তাকে আদালতের মাধ্যমে বগুড়া কারাগারে পাঠানো হয়। এর আগে গতকাল রোববার রাতে আকাশের বিরুদ্ধে ধুনট থানায় অপহরণ ও ধর্ষণের মামলা করেন ওই স্কুলছাত্রীর বাবা।

গ্রেপ্তারকৃত আকাশ হক আজিজুল হক কলেজ শাখার ছাত্র লীগের সদস্য ও স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি অভিযোগ স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এ ঘটনার বিষয়ে ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামি ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন। ভুক্তভোগী ছাত্রীর শারীরিক পরীক্ষার জন্য সোমবার বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মাগুরায় বাগান থেকে পোড়া লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক

মাগুরায় বাগান থেকে পোড়া লাশ উদ্ধার

মাগুরা সদরের দারিয়াপুর গ্রামের একটি বাগান থেকে আগুনে পোড়া একটি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ সকালে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ ও এলাকাবাসীর ধারণা, জুয়া খেলাকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় উদ্বেগ ও আতঙ্ক দেখা ছড়িয়ে পড়ে। নৃশংস এ  ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবী জানিয়েছেন গ্রামবাসী।  

পুলিশ জানায়, সকাল ১০টার দিকে এলাকাবাসী দারিয়াপুর গ্রামের তাহের মোল্ল্যার বাগানে আগুনে পোড়া লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে সংবাদ দেয়। সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দেহটি এক তৃতীয় অংশ পোড়া অবস্থায় দেখতে পায়। ঘটনাস্থল থেকে জুতা, তাসের টুকরো ও মোবাইলের ভাংগা টুকরা উদ্ধার করা হয়েছে।


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

বিমা খাতে সচেতনতা সৃষ্টির ক্ষেত্রে আরও প্রচার প্রয়োজন: প্রধানমন্ত্রী

পোশাক খাতে ভিয়েতনামকে পেছনে ফেললো বাংলাদেশ

৩০ মার্চের মধ্যে শিক্ষকদের টিকা নিতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী


এলাকাবাসী জানায়, সকালে বাগানে এক ব্যক্তির লাশ দেখতে পেয়ে তারা পুলিশকে খবর দেন। এ খবর দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে বাগান মালিকসহ শত শত মানুষ ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। 

স্থানীয়দের ধারনা, জুয়া খেলাকে কেন্দ্র করে হত্যা বা দূরবর্তী কোন এলাকা থেকে ওই ব্যক্তিকে হত্যা করে রাতের বেলা এ গ্রামের নির্জন বাগানে নিয়ে এসে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়।

মাগুরা সদর থানার ওসি জয়নাল আবেদিন জানান, পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। ঘটনাটির তদন্ত করা হবে এবং এর সঙ্গে জড়িতদের ধরতে চেষ্টা চলছে।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর