সেনাবাহিনীর হাতে আটক সু চির আরেক ঘনিষ্ঠ সহযোগী

অনলাইন ডেস্ক

সেনাবাহিনীর হাতে আটক সু চির আরেক ঘনিষ্ঠ সহযোগী

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হাতে আটক ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চির আরেক ঘনিষ্ঠ সহযোগী কিয়াও টিন্ট সোয়েকে আটক করেছে সামরিক জান্তা। আটককৃত কিয়াও টিন্ট সোয়ে সু চির দপ্তরে স্টেট কাউন্সিলরের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি) এক কর্মকর্তার বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এমন খবর জানিয়েছে।

উল্লেখ্য ১লা ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী। ক্ষমতাসীন দলের নেতা অং সান সু চিসহ দেশটির প্রেসিডেন্ট উইন মিন্টকেও বন্দি করে দেশটির সামরিক জান্তা।  

সেনাবাহিনীর দাবি, গণতন্ত্র রক্ষা না করে নির্বাচনে জালিয়াতির মাধ্যমে সু চি সরকার ক্ষমতা দখলে নিয়েছে। তারা নতুন করে সুষ্টু নির্বাচন দেওয়ার পর ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াবে।

ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসির তথ্য বিষয়ক কমিটির সদস্য কি তোয়ে জানান, বুধবার রাতে কিয়াও টিন্টসহ চার জনকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনারকেও আটক করা হয়েছে। তবে, এ ব্যাপারে তাৎক্ষণিকভাবে সামরিক জান্তার কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন:


বিএনপির ডাকা চট্টগ্রামের সমাবেশ স্থগিত

বাঙালীদের আত্মপরিচয় ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে: মহাদেব সাহা

সেবা বৈষম্য নিয়ে ক্ষুব্ধ নতুন যুক্ত ওয়ার্ডের বাসিন্দারা

কমলাপুর স্টেশন অক্ষত রেখেই মেট্রোরেলের পরিকল্পনা


গত ৮ নভেম্বরের জাতীয় নির্বাচনে সু চির দল নিরঙ্কুশ জয় পায়। পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য যেখানে ৩২২টি আসনই যথেষ্ট, সেখানে এনএলডি পেয়েছিল ৩৪৬টি আসন। এনএলডি নিরঙ্কশ জয় পেলেও সেনাবাহিনী সমর্থিত দল ইউনিয়ন সলিডারিটি অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টি (ইউএসডিপি) ভোটে প্রতারণার অভিযোগ তুলে ফলাফল মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানায়। তারা নতুন করে নির্বাচন আয়োজনের দাবি তোলে। যদিও ইউএসডিপি ৭১টি আসনে জয় পেয়েছে।

এদিকে সামরিক অভ্যুত্থানের ঘটনায় মিয়ানমারের জেনারেলদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে নির্বাহী আদেশে অনুমোদন দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

নতুন এই নিষেধাজ্ঞায় দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশটির সামরিক বাহিনীর কর্মকর্তা, তাদের পরিবারের সদস্য এবং সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মিয়ানমারে পুলিশের গুলিতে ৫ বিক্ষোভকারী নিহত

অনলাইন ডেস্ক

মিয়ানমারে পুলিশের গুলিতে ৫ বিক্ষোভকারী নিহত

মিয়ানমারে বিক্ষোভকারীদের ওপর আবারও গুলি করেছে পুলিশ। এতে আজ রোববার কমপক্ষে ৫ বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরও বেশ কয়েকজন। 

স্থানীয় মিডিয়াকে উদ্ধৃত করে লন্ডনভিত্তিক প্রভাবশালী অনলাইন গার্ডিয়ান বলেছে, দক্ষিণের ডাউয়ি শহরে নিহত হয়েছেন তিনজন। একজন নিহত হয়েছেন ইয়াঙ্গুনে। এ নিয়ে মিয়ানমারে অভ্যুত্থানের পর মোট কমপক্ষে ৭ বিক্ষোভকারী নিহত হলেন। রোববার বিক্ষোভকারীদের ওপর পুলিশ সরাসরি গুলি, কাঁদানে গ্যাস, স্টান গ্রেনেড ছুড়েছে। অভ্যুত্থানের পর এটাই তাদের সবচেয়ে আগ্রাসী বিক্ষোভ বিরোধী দমনপীড়ন।

এর ফলে ডাউয়ি শহরে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ২০ জন। বেশ কিছু মানুষ আহত হয়েছেন ইয়াঙ্গুনে। যেসব চিকিৎসক বিক্ষোভে অংশ নিয়েছিলেন, তারা ইয়াঙ্গুনে জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ফিরে গিয়েছেন আহতদের চিকিৎসা দিতে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যেসব ফুটেজ ছড়িয়ে পড়েছে তাতে দেখা যায় ইয়াঙ্গুনে লোকজন রক্তাক্ত ব্যক্তিদের নিরাপদে সরিয়ে নিচ্ছে। একজন মানুষকে রাস্তায় নিথর পড়ে থাকতে দেখা যায়। তার শরীরে সরাসরি বুলেটবিদ্ধ হয়েছে কিনা তা স্পষ্ট নয়। তবে হ্লেডান জংসনে সরাসরি গুলি করা হয়েছে। 


জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক আটকে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

শিক্ষা জাতির উন্নয়নের মূল চাবিকাঠি: প্রধানমন্ত্রী

অসুস্থ মাকে বাঁচাতে ক্রিকেটে ফিরতে চান শাহাদাত

প্রেমিকের আশ্বাসে স্বামীকে তালাক, বিয়ের দাবিতে অনশন!


 news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

উত্তাল মিয়ানমার : অভ্যুত্থানবিরোধী মিছিলে গুলিতে নিহত ১

অনলাইন ডেস্ক

উত্তাল মিয়ানমার : অভ্যুত্থানবিরোধী মিছিলে গুলিতে নিহত ১

মিয়ানমারে অভ্যুত্থানের পর তিন সপ্তাহেরও বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও, এখনও ক্ষোভে ফুঁসছে গোটা মিয়ানমার। অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে আবারও ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। বিক্ষোভ মিছিলে রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) পুলিশের গুলিতে এক আন্দোলনকারী নিহত এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এ ছাড়া গ্রেফতার হয়েছেন অর্ধশতাধিক।

১ ফেব্রুয়ারি ভোরে দেশটিতে সামরিক অভ্যুত্থান হওয়ার পর থেকে গত চার সপ্তাহ ধরে সামরিক জান্তার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল করে যাচ্ছে দেশটির জনগণ। খবর রয়টার্সের।

কিয়াও মিন হিনটিকে নামে মিয়ানমারের এক রাজনীতিক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে জানান, ডাউই শহরে একটি বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশ নির্বিচারে গুলি চালালে রোববার এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।


ঋণ থেকে মুক্তির দু’টি দোয়া

মেসি ম্যাজিকে সহজেই জিতল বার্সা

দোয়া কবুলের উত্তম সময়

প্রবাসী স্বামীকে তালাক দিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন!


এতে ঘটনাস্থলে একজন নিহত এবং কমপক্ষে আরও ২০ জন আহত হয়েছেন।এর আগে এক তরুণীসহ তিন বিক্ষোভকারী প্রাণ হারান পুলিশের গুলিতে। 

এ ব্যাপারে জানতে গণমাধ্যমগুলো দেশটির পুলিশ বা ক্ষমতাসীন সামরিক সরকারের কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও তারা এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেনি।

সম্প্রতি নির্বাচনে অং সান সু চির দল বিপুল ভোটে জয়লাভের পর কারচুপির অভিযোগ এনে দেশটিতে সামরিক অভ্যুথান ঘটায় সেনাবাহিনী। এখনও আটক করে রাখা হয়েছে সু চিসহ দেশটির শীর্ষ অনেক নেতাকে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সৌদি যুবরাজ সালমানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার আহবান জাতিসংঘের

অনলাইন ডেস্ক

সৌদি যুবরাজ সালমানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার আহবান জাতিসংঘের

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার আহবান জানিয়েছেন জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিনিধি অ্যাগনেস ক্যালামার্ড। সৌদি যুবরাজের নির্দেশেই ভিন্ন মতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যা করা হয়েছে এমন অভিযোগের কারণেই এই নিষেধাজ্ঞা দিতে বলেছেন তিনি। 

তিনি এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউজকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, বিন সালমানের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করার পাশাপাশি তার আন্তর্জাতিক বাণিজ্যিক লেনদেনের ওপরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে হবে। ক্যালামার্ড বলেন, যারা খাশোগিকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছে তাদেরকে আন্তর্জাতিক সমাজ থেকে একঘরে করে রাখতে পারলে একই ধরনের অপরাধ করার কথা যারা চিন্তা করে তারা শিক্ষা পেয়ে যাবে।  

খাশোগি হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে পুঙ্খানুপুঙ্খ গোয়েন্দা প্রতিবেদন প্রকাশ করে দেয়ার জন্যও মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের বিশেষ প্রতিনিধি।


ঋণ থেকে মুক্তির দু’টি দোয়া

মেসি ম্যাজিকে সহজেই জিতল বার্সা

দোয়া কবুলের উত্তম সময়

রোনালদোর গোলেও হোঁচট খেল জুভেন্টাস


সৌদি আরবের ক্ষমতাধর যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমান ব্যক্তিগতভাবে সেদেশের ভিন্ন মতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যা করার নির্দেশ দিয়েছিলেন বলে সদ্য প্রকাশিত মার্কিন গোয়েন্দা প্রতিবেদনে জানা গেছে।

২০১৮ সালে তৈরি করা মার্কিন সরকারের গোয়েন্দা প্রতিবেদনটি সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ধামাচাপা দিয়ে রাখলেও বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তা প্রকাশ করে দিয়েছেন। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মোহাম্মাদ বিন সালমান এমন একটি পরিকল্পনা অনুমোদন করেছিলেন যাতে সৌদি নিরাপত্তা বাহিনীকে এই নির্দেশ দেয়া হয়েছিল যে, খাশোগিকে ‘ধরে আনতে অথবা হত্যা করতে’ হবে।

তবে বাইডেন প্রশাসন সাফ জানিয়ে দিয়েছেন যে তারা বিন সালমানের বিরুদ্ধে কোন ধরণের নিষেধাজ্ঞা দিবে না। ট্রাম্প প্রশাসন খাসোগি হত্যাকান্ডের আলামত ধামাচাপা দিতে চেয়েছিল। কিন্তু, বাইডেন প্রশাসন সব ফাঁস করে দিলেন।  

সূত্র: পার্স টুডে

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ইরানের সঙ্গে আইএইএ’র সম্পর্ক নষ্টের চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র

অনলাইন ডেস্ক

ইরানের সঙ্গে আইএইএ’র সম্পর্ক নষ্টের চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র

মার্কিন সরকার আন্তর্জাতিক পরমানু শক্তি সংস্থার সাথে ইরানের সম্পর্ক নষ্ট করার চেষ্টা করছে বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের সংসদের জাতীয় নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক কমিশনের মুখপাত্র আবুলফজল আমুয়ি। গতকাল বার্তা সংস্থা ইরান প্রেসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি একথা বলেছেন। 

আমুয়ি বলেন, ইরান পরমাণু কর্মসূচির ক্ষেত্রে সর্বশেষ যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা পরমাণু সমঝোতার ভিত্তিতে নিয়েছে। এছাড়া, নিজের বেসামরিক পরমাণু কর্মসূচি পূর্ণোদ্যমে চালিয়ে যাওয়ার অধিকার তেহরানের রয়েছে।

তিনি বলেন, আমেরিকাসহ পশ্চিমা দেশগুলোর উচিত ইরানের সঙ্গে আইএইএ’র সম্পর্ক নষ্ট না করে পরমাণু সমঝোতায় নিজেদের দেয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ করা। ইরানের এই মুখপাত্র বলেন, পশ্চিমা দেশগুলো যেন আইএইএ’র নির্বাহী পরিষদের অপব্যবহার না করে। কারণ, তেমনটি করলে এই সংস্থার সঙ্গে ইরানের সম্পর্কে মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।


ঋণ থেকে মুক্তির দু’টি দোয়া

মেসি ম্যাজিকে সহজেই জিতল বার্সা

দোয়া কবুলের উত্তম সময়

রোনালদোর গোলেও হোঁচট খেল জুভেন্টাস


২০১৮ সালের মে মাসে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে ইরানের পরমাণু সমঝোতা থেকে তার দেশকে বের করে নিয়ে তেহরানের ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। ইরানও এর প্রতিক্রিয়ায় পরমাণু সমঝোতায় নিজের দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন কমিয়ে দিতে শুরু করে এবং বর্তমানে শতকরা ২০ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করছে তেহরান।

নয়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তার দেশের পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসার জন্য এখন ইরানকে আগে তার প্রতিশ্রুতিতে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানাচ্ছেন। কিন্তু তেহরান বলছে, আগে আইন লঙ্ঘন করেছে বলে আমেরিকাকেই আগে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে সদিচ্ছার পরিচয় দিতে হবে এবং তারপর তেহরান তার প্রতিশ্রুতিতে পুরোপুরি ফিরে যাবে।

মার্কিন প্রেসিযেন্ট জো বাইডেন বলেছেন ইরানকে আগে তার প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে হবে। তারপরে পরমানু সমঝাতায় ফিরবে তার দেশ। কিন্তু, তেহরান সাফ জানিয়ে দিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র আগে আইন লঙ্ঘণ করেছে তাই তাকেই আগে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে সদিচ্ছার প্রকাশ ঘটাতে হবে। তারপরে তেহরান পুরোপুরিভাবে তার প্রতিশ্রুতি পূরণ করবে।  

সূত্র: পার্স টুডে

news24bd.tv/আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মানুষ খুনের দায়ে থানায় মোরগ!

অনলাইন ডেস্ক

মানুষ খুনের দায়ে থানায় মোরগ!

এই বিশ্বে প্রতিনিয়ত কতই না অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটে। এমনই এক অবিশ্বাস্য রখমের ঘটনা ঘটেছে ভারতের তেলেঙ্গনা রাজ্যের লোথুনুর গ্রামে। মোরগের কাছে মৃত্যু হয়েছে মানুষের শুনতে অবাক লাগলেও এমটাই ঘটেছে। এই ঘটনার পর মোরগটিকে পুলিশ আটকও করেছে। 

জানা গেছে, অবৈধ মোরগ লড়াইয়ের জন্য পায়ে ছুরি বাঁধা একটি মোরগ তার মালিককে হত্যা করেছে।

স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা বি জীবন জানিয়েছেন, প্রতিপক্ষের সঙ্গে লড়াইয়ের জন্য নিজের মোরগকে প্রস্তুত করছিলেন ওই ব্যক্তি। এ সময় মোরগটি ছাড়া পাওয়ার চেষ্টা করলে এর পায়ে বাধা ৩ ইঞ্চির ধারালো ছুরি ওই ব্যক্তির কুঁচকিতে ঢুকে যায়।


ঋণ থেকে মুক্তির দু’টি দোয়া

মেসি ম্যাজিকে সহজেই জিতল বার্সা

দোয়া কবুলের উত্তম সময়

প্রবাসী স্বামীকে তালাক দিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন!


গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নেওয়ার সময় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়।

ওই মোরগ লড়াইয়ের সঙ্গে জড়িত ১৫ জনকে খুঁজছে পুলিশ। 

ঘটনার পর মোরগটিকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরে একটি পোল্ট্রির ফার্মে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। বিচারকার্য চলাকালীন মোরগটিকে সাক্ষ্য হিসেবে আদালতে হাজির করা হবে বলে জানান জীবন।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর