এস-৪০০ কেনার ব্যাপারে তুরস্কের নীতি অপরিবর্তনীয়

অনলাইন ডেস্ক

এস-৪০০ কেনার ব্যাপারে তুরস্কের নীতি অপরিবর্তনীয়

রাশিয়ার কাছ থেকে অত্যাধুনিক এস-৪০০ আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার ক্ষেত্রে তুরস্কের নীতি অপরিবর্তনীয় থাকবে বলে জানিয়েছেন, দেশটির প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগানের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন।

তুর্কি নিউজ চ্যানেল টিআরটিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ইব্রাহিম কালিন বলেন, এস-৪০০ কেনার ব্যাপারে নিজের অবস্থান থেকে পিছু হটবে না আঙ্কারা। এ ব্যাপারে আমেরিকার সঙ্গে চলমান মতবিরোধ আলোচনার মাধ্যমে সমাধানের চেষ্টা করা হবে বলেও জানান তিনি।

এরদোগানের মুখপাত্র বলেন, ওয়াশিংটন ও আঙ্কারার মধ্যে আলোচনার পরিবেশ বজায় রয়েছে; তবে দ্রুত কোনো ফলাফল বেরিয়ে আসবে এমনটি আশা করাও ঠিক নয়।

নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তার পূর্বসুরি ডোনাল্ড ট্রাম্পের অনেক নীতিতে পরিবর্তন আনলেও তুরস্কের এস-৪০০ কেনার ব্যাপারে ট্রাম্পের নীতি অনুসরণ করছেন। সম্প্রতি বাইডেন প্রশাসন এই ব্যবস্থা সংগ্রহের পরিকল্পনা থেকে সরে আসার আহ্বান জানিয়েছে তুরস্ককে হুমকি দিয়েছে।

আরও পড়ুন:


মডেলের প্রতারণার ফাঁদে পড়ে নিঃস্ব অনেকেই

সেনাবাহিনীর হাতে আটক সু চির আরেক ঘনিষ্ঠ সহযোগী

বিএনপির ডাকা চট্টগ্রামের সমাবেশ স্থগিত

বাঙালীদের আত্মপরিচয় ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে: মহাদেব সাহা


তুরস্ক হচ্ছে ন্যাটো জোটভুক্ত প্রথম দেশ যে কিনা রাশিয়ার কাছ থেকে অত্যাধুনিক আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এস-৪০০ সংগ্রহ করেছে।  ২০১৭ সালে এ ধরনের চারটি ব্যবস্থা সংগ্রহের জন্য রাশিয়ার সঙ্গে ৫২০ কোটি ডলারের চুক্তি করে তুরস্ক। ২০১৯ সলের জুলাই মাসে এ ব্যবস্থা আঙ্কারাকে সরবরাহ শুরু করে মস্কো যে প্রক্রিয়া এখনো চলছে।

মার্কিন সরকার ২০১৭ সাল থেকেই রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ কেনার ব্যাপারে তুরস্ককে সতর্ক করে দিয়ে আসছে। মার্কিন সরকার দাবি করছে, এই চুক্তির মাধ্যমে তুরস্ক রাশিয়ার হাতে বিশাল অঙ্কের বাজেট তুলে দেয়ার পাশাপাশি ন্যাটা জোটের সামরিক প্রযুক্তিকে বিপদের মুখে ঠেলে দিচ্ছে। তবে তুরস্ক ও রাশিয়া আমেরিকার এ দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে। কিন্তু আঙ্কারা বলেছে, দেশটি কোনো অবস্থায় রাশিয়ার সঙ্গে করা এ সংক্রান্ত চুক্তি বাতিল করবে না। 

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

গান দিয়ে করোনা ঠেকানোর ব্যাতিক্রম উদ্যোগ

চন্দ্রানী চন্দ্রা

গান দিয়ে করোনা ঠেকানোর ব্যাতিক্রম উদ্যোগ

ভেনেজুয়েলার বারকুইসিমাতো শহরে অভিনব কায়দায় করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চলছে। ভাইরাসটি প্রতিরোধে এবার সেখানে ব্যবহার করা হচ্ছে অর্কেস্ট্রা। প্রায় ১৬ জন মিউজিয়ান ট্রাকে ওপর বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে আশপাশের মানুষদের ভ্যাকসিন নেওযার জন্য অনুপ্রাণিত করেন।  

বারকুইসিমাতো শহরে বসবাসকারী ভেনিজুয়েলায়ানদের অর্কেস্ট্রা বাজিয়ে অর্থাৎ সংগীতের মাধ্যমে করোনার ভ্যাকসিনের প্রদানের উৎসাহ যোগাচ্ছেন।  


কুমিরের পেট থেকে বের করা হচ্ছে আস্ত মানুষ (ভিডিও)

প্রেমের বিয়ের ৪ মাসের মাথায় নববধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

বাক্‌স্বাধীনতা সুরক্ষিত রাখতে মানবাধিকার সংস্থাগুলোর আহ্বান

চুম্বনের দৃশ্যের আগে ফালতু কথা বলতো ইমরান : বিদ্যা


মহামারী থেকে বাঁচতে দক্ষিণ আমেরিকার এই দেশটি শৈল্পিক ভ্যাকসিনের প্রস্তাব দিয়েছেন অর্কেস্ট্রার পরিচালক। ট্রাকের ওপর মিউজিশিয়ানরা তাদের ভিন্ন ভিন্ন ইন্সট্রুমেন্ট বাজাতে থাকে। রাস্তার পাশে সাধারণ মানুষ বিল্ডিয়ের বাসিন্দারা মোবাইলে দৃশ্যধারণে করে সামাজিক যোগাযোগে ছড়িয়ে দেয়।

অন্যদিকে, ব্রিটিশ টিভির রিয়েলেটি তারকা মেগান ম্যাককেননা তার নতুন সিঙ্গেল গান দিজ এবং হোল জার্নি অফ মি অনেকের জীবনের দীর্ঘ লালিত স্বপ্নের কথা তুলে এনেছেন।  ম্যাক কেননা এবং অ্যামি ওয়াজের যৌথভাবে লেখা গানটি স্টোরি অফ মি ২০১৯ সালে দ্যা এক্স ফ্যাক্টর: সেলিব্রিটি’র ফাইনালেও পরিবেশন করা হয়।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

হংকং এর নির্বাচন ব্যবস্থায় পরিবর্তন আনতে চায় চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

হংকং এর নির্বাচন ব্যবস্থায় পরিবর্তন আনতে চায় চীন

হংকংয়ের শাসনক্ষমতায় যেন শুধু বেইজিংয়ের অনুগতরাই বসতে পারে, তা নিশ্চিত করতে অঞ্চলটির নির্বাচন ব্যবস্থায় পরিবর্তন আনতে চাইছে চীন। দেশটির পার্লামেন্ট ন্যাশনাল পিপলস কংগ্রেসে এই বিষয়ে পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে।

কঠোর নিরাপত্তা আইন চালুর পর হংকংয়ে ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। ওই ঘটনার উল্লেখ করে শুক্রবার  চীনের এনপিসির ভাইস চেয়ারম্যান ওয়াং চেন বলেন, বিদ্যমান নির্বাচন ব্যবস্থায় স্পষ্ট অসংলগ্নতা রয়েছে। তাই এ ব্যবস্থায় থাকা ঝুঁকি সংস্কারের প্রয়োজন। 


কুমিরের পেট থেকে বের করা হচ্ছে আস্ত মানুষ (ভিডিও)

প্রেমের বিয়ের ৪ মাসের মাথায় নববধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

বাক্‌স্বাধীনতা সুরক্ষিত রাখতে মানবাধিকার সংস্থাগুলোর আহ্বান

চুম্বনের দৃশ্যের আগে ফালতু কথা বলতো ইমরান : বিদ্যা


প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াং বলেছেন, হংকং বিষয়ে বৈদেশিক হস্তক্ষেপ ঠেকাতে বেইজিং শক্ত ভূমিকা অব্যাহত রাখবে। একইসঙ্গে সতর্ক করেন, এই পদক্ষেপে হস্তক্ষেপ না করার। হংকংয়ের জন্য কঠোর নিরাপত্তা আইন চালুর পর এবার  নির্বাচন ব্যবস্থার ওপর নিয়ন্ত্রণ জোরালো করতে চাইছে চীন। তবে বিরোধীদের দাবী, ভিন্নমত দমনের উদ্দেশ্যেই এ আইন প্রচলন করা হয়। ইউরোপীয় ইউনিয়নও সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, শুক্রবার ঘোষিত পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হলে চীনের বিরুদ্ধে আরও ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আরো সাড়ে চার লাখ মানুষ আক্রান্ত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আরো সাড়ে চার লাখ মানুষ আক্রান্ত

করোনায় বিশ্বে গেলো ২৪ ঘণ্টায় আরো সাড়ে চার লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছে ৯ হাজার ৬৫৫ জন। এর মধ্যে শুধু যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলে ১৭০০ করে মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে।

যা নিয়ে বিশ্বে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়ালো ২৫ লাখ ৯৪ হাজার। আর মোট সংক্রমণ ছাড়িয়েছে ১১ কোটি ৬৭ লাখ। অবশ্য যুক্তরাষ্ট্রে গেলো সপ্তাহের তুলনায় সংক্রমণ কিছুটা বাড়লেও নিউইয়র্কসহ বেশকটি অঙ্গরাজ্যে থিয়েটার ও সিনেমা হলের মতো জনসমাগম স্থল খুলে দেয়া হচ্ছে।

এছাড়া প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রস্তাবিত মহামারীতে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত মার্কিনীদের সাহায্যার্থে ১ দশমিক ৯ ট্রিলিয়ন ডলারের বিলটি বর্তমানে সিনেটের অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। প্রেসিডেন্ট বিলটি দ্রুত অনুমোদনের তাগিদ দিয়েছেন।


কুমিরের পেট থেকে বের করা হচ্ছে আস্ত মানুষ (ভিডিও)

প্রেমের বিয়ের ৪ মাসের মাথায় নববধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

বাক্‌স্বাধীনতা সুরক্ষিত রাখতে মানবাধিকার সংস্থাগুলোর আহ্বান

চুম্বনের দৃশ্যের আগে ফালতু কথা বলতো ইমরান : বিদ্যা


এছাড়া ভাইরাসটির উৎস খুঁজতে চীনে চালানো তদন্তের প্রতিবেদনটি প্রকাশে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা দেরি করছে বলে অভিযোগ করেছে হোয়াইট হাউজ। তবে চলতি মাসেই এই প্রতিবেদন প্রকাশের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ডব্লিউএইচও।

এদিকে মহামারিতে বিশ্বের প্রতি ৩০ মিনিটে একজন করে স্বাস্থ্য কর্মীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে মানবাধিকার সংস্থা এমনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রাণ হারিয়েছে ৫৫ জন, তারপরো মিয়ানমারে থামছে না আন্দোলন

চন্দ্রানী চন্দ্রা

প্রাণ হারিয়েছে ৫৫ জন, তারপরো মিয়ানমারে থামছে না আন্দোলন

মিয়ানমারে জান্তা বাহিনীর হাতে এ পর্যন্ত কমপক্ষে ৫৫ জন প্রাণ হারানোর পরও, গণতন্ত্র পুণ:প্রতিষ্ঠার দাবি থেকে পিছু হটেনি আন্দোলনকারীরা। শনিবারও দেশটির বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ অব্যাহত রাখেন তারা। কঠোর অবস্থান নেয় পুলিশও। এদিকে, এবার সেনাসরকারের বিরুদ্ধে দাঁড়াচ্ছেন দেশটির কূটনীতিকরা। অন্যদিকে, মিয়ানমারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে ব্যবস্থা নেওয়ার তাগিদ জাতিসংঘ দূতের।

মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের এক মাসেরও বেশি সময় কেটে যাচ্ছে। তবুও বন্ধ হচ্ছে না জান্তা সরকারের দমনপীড়ন। তবে বন্ধ রয়েছে ইন্টারনেট ও বিদ্যুৎ সরবরাহ। চলছে নির্বিচারে গ্রেপ্তার, পুলিশের লাঠিচার্জ ও গুলিবর্ষণ। কিন্তু কিছুতেই দমানো যাচ্ছে না আন্দোলনকারীদের।

শনিবারও অভ্যূত্থান বিরোধী বিক্ষোভে অংশ নিয়েছে হাজার হাজার মানুষ। সেনাদের ঠেকাতে আন্দোলনকারীরা  অভিনব কায়দায় বিক্ষোভ শুরু করেছে। দক্ষিণ মিয়ানমারের দাওয়া শহরের জনতার আন্দোলনকে ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ারগ্যাস ছুঁড়ে দাঙ্গা পুলিশ। তবে এ ঘটনায় আহত বা গ্রেপ্তারের খবর পাওয়া যায়নি।


আরও পড়ুনঃ


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

লবণ প্রাসাদ ‘পামুক্কালে’

ইসরাইলে কনসার্ট করে দেয়া হল করোনার টিকা

৪ প্রেমিককে নিয়ে পালালো তরুণী, লটারিতে বেছে নিলেন বর


অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে নির্বিচার হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদেই দেশটির কূটনীতিকরা সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নিচ্ছেন। এপি জানিয়েছে, ওয়াশিংটনের মিয়ানমার দূতাবাস সামরিক জান্তার আনুগত্য স্বীকারে অনীহা জানিয়েছে। এক কূটনীতিক এরিমধ্যে পদত্যাগ করেছেন। সেখানকার অন্তত তিন কূটনীতিক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট দিয়ে বলেছেন, তারা সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা জানিয়ে অসহযোগ আন্দোলনে যোগ দিচ্ছেন।

এদিকে, সম্প্রতি ব্যাপক এই হতাহতের ঘটনায় মিয়ানমারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ ব্যবস্থা নিতে নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দেশটিতে নিযুক্ত জাতিসংঘ দূত ক্রিস্টিন শার্নার বার্গেনার।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

আন্দোলনের শততম দিনে দিল্লিতে নতুন করে বিক্ষোভ কৃষকদের

অনলাইন ডেস্ক

আন্দোলনের শততম দিনে দিল্লিতে নতুন করে বিক্ষোভ কৃষকদের

কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে কৃষক আন্দোলনের ১০০ দিন পূর্ণ হওয়ায় নতুন করে দিল্লির সীমানায় বিক্ষোভ করেছেন কৃষকেরা। ঘোষণা অনুযায়ী শনিবার অবরোধ করা হয়েছে কুন্দলি-মানেসর-পালওয়াল (কেএমপি) এক্সপ্রেসওয়ে। সকাল ১১টা থেকে শুরু হওয়া এই অবরোধ চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

আজ সকাল থেকেই কুন্দলি সীমানায় মিছিল শুরু করেন কৃষকেরা। কৃষক আন্দোলনের পতাকা ও কালো পতাকা হাতে তারা মিছিল এগিয়ে নিয়ে যান। মিছিলে অনেক কৃষকই হাজির হয়েছিলেন ট্র্যাক্টর নিয়েও। বেলা বাড়তেই রাস্তা অবরোধ শুরু করেন কৃষকরা।


আরও পড়ুনঃ


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

লবণ প্রাসাদ ‘পামুক্কালে’

ইসরাইলে কনসার্ট করে দেয়া হল করোনার টিকা

৪ প্রেমিককে নিয়ে পালালো তরুণী, লটারিতে বেছে নিলেন বর


রাস্তায় জমায়েত হয়ে, কোন কোন জায়গায় রাস্তায় আড়াআড়ি দাঁড় করিয়ে দেওয়া হয় ট্র্যাক্টর। কালো পতাকা দেখিয়ে আন্দোলনের ১০০তম দিন পালন করেন কৃষকরা। আরও একবার সংযুক্ত কৃষক নেতারা জানিয়ে দেন, যতক্ষণ না এই তিনটি আইন বাতিল করা হচ্ছে, তত ক্ষণ তারা দিল্লির সীমানা ছেড়ে কোথাও যাবেন না।

দিল্লি পুলিশ অবশ্য আগেই জানিয়েছিল, রাস্তা অবরোধের কর্মসূচি ঘিরে যাতে কোনও গোলমাল না হয়, তার জন্য যথেষ্ট ব্যবস্থা থাকবে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর