বাংলাদেশ বিমানের কল সেন্টারের নম্বর পরিবর্তন

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশ বিমানের কল সেন্টারের নম্বর পরিবর্তন

ফাইল ছবি

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের কল সেন্টারের নম্বর পরিবর্তন করা হয়েছে। আগামী রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) থেকে নতুন নম্বরে কল করে সেবা নেওয়া যাবে।

আজ শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বিমানের ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানানো হয়।

আরও পড়ুন:


বিএনপির ডাকা চট্টগ্রামের সমাবেশ স্থগিত

বাঙালীদের আত্মপরিচয় ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে: মহাদেব সাহা

সেবা বৈষম্য নিয়ে ক্ষুব্ধ নতুন যুক্ত ওয়ার্ডের বাসিন্দারা

কমলাপুর স্টেশন অক্ষত রেখেই মেট্রোরেলের পরিকল্পনা


এতে বলা হয়, আগামী রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) থেকে কল সেন্টারের এ ০১৭৭৭১৫৬১৩-১৬ নম্বর পরিবর্তন করা হবে। যাত্রীরা এ নম্বরে ০১৯৯০৯৯৭৯৯৭ কল করে সেবা নিতে পারবে। প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত কল করা যাবে।

যাত্রীদের যেকোনো তথ্য নিতে নতুন নম্বরে কল করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

আম পরিবহনের জন্য এবার একাধিক স্পেশাল ট্রেন: রেলমন্ত্রী

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :

আম পরিবহনের জন্য এবার একাধিক স্পেশাল ট্রেন: রেলমন্ত্রী

এ বছরও আম পরিবহনের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ‘ম্যাংগো স্পেশাল’ একাধিক ট্রেন চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন এমপি। 

আজ শুক্রবার বিকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুর রেলওয়ে শুল্কস্টেশন পরির্দশন শেষে এ কথা বলেন তিনি। 

রেলমন্ত্রী বলেন, গত বছর আম পরিবহনের জন্য একটি ট্রেন চালু করেছিলাম। এবার একাধিক ট্রেন চালু করা হবে। 


রাস্তায় ফেলে যুবককে মারপিট, ছবি ভাইরাল

বিয়ে করাতে রাজি না হওয়ায় মাকে কুপিয়ে হত্যা

দেশে করোনায় মৃত্যু আবারও বাড়ল

স্ত্রীকে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ, সন্ত্রাসীদের হাতে স্বামী খুন


রেলমন্ত্রী আরও জানান, ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ব্যাবসা-বাণিজ্য বাড়ছে। ভারত তাদের রপ্তানিপণ্যের বেশিরভাগই ট্রেনের মাধ্যমে পরিবহন করতে চাই। আমরা এ বিষয়েও সম্ভাব্যতা যাচাই করছি। দুইদিনের রাজশাহী সফরে এসে প্রথমদিনেই রেলমন্ত্রী বেলা সাড়ে তিনটার দিকে বিশেষ ট্রেনে রহনপুর স্টেশনে আসেন। 

মন্ত্রীর সঙ্গে রেলওয়ের ছিলেন উর্ধতন কর্মকর্তা, স্থানীয় প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দরা ছিলেন। রেলস্টেশন পরিদর্শন শেষে তিনি সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন এবং পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। 

news24bd.tv / কামরুল 

পরবর্তী খবর

২০৩০ সালের মধ্যে ভারত থেকে বাংলাদেশের রেল উন্নত হবে

শেখ রুহুল আমিন, ঝিনাইদহ :

২০৩০ সালের মধ্যে ভারত থেকে বাংলাদেশের রেল উন্নত হবে

২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশের রেলওয়ে ব্যবস্থা ভারতের থেকে উন্নত হবে। যে অনুযায়ী রেলে বিনিয়োগ চলছে সে ধারা অব্যাহত থাকলে আগামী ১০ বছরের মধ্যে উন্নত রেল ব্যবস্থা করা হবে বলে আশা ব্যক্ত করেছেন বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. শামছুজ্জামান।

শনিবার দুপুরে কালীগঞ্জের বারোবাজার রেলস্টেশনে কৃষিপণ্য পরিবহণের জন্য লাগেজ ভ্যান সংযুক্ত বিষয়ক অংশীজন সভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।


দেশে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় মৃত্যু বেড়েছে, আক্রান্ত কমেছে

আবাসিক কটেজ থেকে ৫২ জন নারী-পুরুষকে আটক

যশোরে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

মাথা গোঁজার ঠাঁই পেলেন প্রতিবন্ধী রোজিনা বেগম


তিনি বলেন, বাংলাদেশের রেলওয়ের কারিগরি মান ইউরোপসহ আন্তর্জাতিক মানের সমতুল্য। দেশের রেওলয়ের আধুনিকায়নে বর্তমান সরকার কাজ করে যাচ্ছে। এভাবে চললে আমাদের দেশের রেল ব্যবস্থা উন্নত হতে বেশি সময় লাগবে না।

 সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার, বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক মিহিরকান্তি গুহ, রেলওয়ের রাজশাহী আরএনবি’র চীফ কমাডেন্ট আশাবুল ইসলাম, পশ্চিমাঞ্চলের প্রধান বৈদ্যুতিক প্রকৌশলী মুহাম্মদ শফিকুর রহমান, চীফ কমার্শিয়াল ম্যানেজার মোহাম্মদ আহছান উল্যা ভূঞাঁ, প্রধান যন্ত্র প্রকৌশলী মোহাম্মদ কুদরত-ই খুদা, প্রধান প্রকৌশলী আল ফাত্তাহ মো. মাসউদুর রহমান, চীফ অপারেটিং সুপারিনটেনডেন্ট শহিদুল ইসলামসহ অন্যান্যরা।

news24bd.tv / কামরুল

পরবর্তী খবর

মাঠ প্রশাসনে পদোন্নতি

সুখবর আসছে ১১ থেকে ১৬ গ্রেডের কর্মচারীদের জন্য

অনলাইন ডেস্ক

সুখবর আসছে ১১ থেকে ১৬ গ্রেডের কর্মচারীদের জন্য

বিভাগীয় কমিশনার, ডেপুটি কমিশনার (ডিসি), উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও সহকারী কমিশনারের (ভূমি) কার্যালয়ের ১১ থেকে ১৬ গ্রেডের কর্মচারীদের জন্য সুখবর আসছে। 

মাঠ প্রশাসনে কাজ করা এসব পদের কর্মচারীরা পদোন্নতির সুযোগ তৈরি এবং বেতন বাড়ানোর দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করছিলেন। তবে সরকারের পক্ষ থেকে সাড়া মিলছিল না।

আরও পড়ুন: 


বুলেট ট্রেনে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে যাওয়া যাবে ৫৫ মিনিটেই!


গত ১৫ থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত টানা কর্মবিরতি পালন করে প্রতিবাদ জানানোর পর এবার তাঁদের দাবি মানার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে গত সপ্তাহে এসংক্রান্ত নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

উল্লিখিত পদের সমান গ্রেডে কাজ করা সচিবালয়ের কর্মচারীরা পদোন্নতির সুযোগ পান। একই রকম সুযোগ মাঠ প্রশাসনের কর্মচারীদেরও দাবি। শেষ পর্যন্ত মাঠপর্যায়ের কর্মচারীদের পদ-পদবি পরিবর্তনের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এরই মধ্যে এসংক্রান্ত প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছেন। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের দাবির বিষয়ে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা জানান, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এরই মধ্যে এ বিষয়ে কাজ শুরু করেছে। দ্রুতই সুখবর পাবেন মাঠ প্রশাসনের কর্মচারীরা।

news24bd.tv কামরুল

পরবর্তী খবর

বুলেট ট্রেনে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে যাওয়া যাবে ৫৫ মিনিটেই!

অনলাইন ডেস্ক

বুলেট ট্রেনে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে যাওয়া যাবে ৫৫ মিনিটেই!

ফাইল ছবি।

সমীক্ষা প্রকল্পটি অনুমোদন করা হয় ২০১৭ সালের ১৮ মার্চ। একই বছরের ৩১ মে পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি হয়। সম্প্রতি সমীক্ষাটি শেষ হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে দেখা দিয়েছে ঢাকা-চট্টগ্রামের মধ্যে দ্রুতগতির বুলেট ট্রেন চালু হওয়ার সম্ভাবনা।

বুলেট ট্রেনটি চালু হলে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে পৌঁছানো যাবে মাত্র ৫৫ মিনিটে। অর্থাৎ ছয় ঘণ্টার জায়গায় সময় বাঁচবে পাঁচ ঘণ্টা।

আরও পড়ুন: 


বিজয় দিবসে ঘরোয়া অনুষ্ঠানের কথাও পুলিশকে জানাতে হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলার মামলায় আরো তিনজনের সাক্ষ্যগ্রহণ


জানা গেছে, প্রস্তাবিত দ্রুতগতির রেলপথটি যাবে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার মধ্য দিয়ে। ঢাকা থেকে কুমিল্লা বা লাকসাম হয়ে চট্টগ্রাম পর্যন্ত হাইস্পিড ট্রেন লাইন নির্মাণ করা হলে এ পথে যাতায়াতে এক ঘণ্টারও কম সময় লাগবে। রেলপথটি কক্সবাজার পর্যন্ত বর্ধিত করা হলে পর্যটন নগরী কক্সবাজারে যাতায়াতও সহজ হয়ে যাবে।

সমীক্ষা প্রকল্পটির অনুমোদিত ব্যয় ছিল ১০০ কোটি ৬৯ লাখ ২৯ হাজার টাকা। ২০১৭ সালের ০১ জানুয়ারি থেকে ২০১৯ সালের ৩১ মার্চের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করার কথা ছিল। কিন্তু ডলারের দাম ও পরামর্শক খাতে ব্যয় বৃ্দ্ধির কারণে পিছিয়ে যায় সম্ভাব্যতা সমীক্ষা ও বিশদ ডিজাইন প্রকল্প। সমীক্ষা প্রকল্প শেষ হওয়ার পর এখন পরবর্তী মূল প্রকল্প গ্রহণ করা হচ্ছে। ফলে বুলেট ট্রেনে ভ্রমণের জন্য অপেক্ষা করতে হবে আরো কয়েক বছর।

২০১৭ সালে সমীক্ষা প্রকল্পে পরামর্শক সেবা বাবদ মোট ব্যয় ছিল ৯৭ কোটি ৪১ লাখ ১৫ হাজার টাকা। তখন বৈদেশিক মুদ্রায় অর্থ পরিশোধের ক্ষেত্রে মার্কিন ডলারের সঙ্গে টাকার বিনিময় হার ধরা হয়েছিল ১ মার্কিন ডলার সমান ৭৮ টাকা ৪০ পয়সা। বর্তমানে বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে ১ মার্কিন ডলার ৮৩ টাকা ৮৫ পয়সা খরচ করে কিনতে হয়েছে। ফলে এই খাতে অতিরিক্ত ৯ কোটি ৭৭ লাখ ৩৫ হাজার টাকা বৃদ্ধি পায়। সার্বিকভাবে সমীক্ষা প্রকল্পের ব্যয় বাড়ছে ৯ দশমিক ৫১ শতাংশ। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলেন, এই টাকা সমন্বয় করতে প্রকল্পের মেয়াদ কয়েক মাস বাড়ে।

যৌথভাবে সম্ভাব্যতা সমীক্ষা ও নকশার কাজ করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে এবং চায়না রেলওয়ে ডিজাইন করপোরেশন (চীন) এবং মজুমদার এন্টারপ্রাইজ (বাংলাদেশ)। প্রকল্পের আওতায় বিভিন্ন অবকাঠামোর বিশদ ডিজাইন প্রণয়ন, দরপত্র দলিলাদি প্রস্তুতকরণ, নতুন রেললাইন পরিচালন প্রক্রিয়া নির্ধারণ, প্রাথমিক পরিবেশ পরীক্ষা প্রতিবেদন তৈরি, প্রকল্পের পরিবেশগত প্রভাব মূল্যায়ন, পরিবেশ ব্যবস্থাপনা ও মনিটরিং, ভূমি অধিগ্রহণ ও পুনর্বাসন পরিকল্পনাও চলমান। জানুয়ারির মধ্যে প্রকল্পটির নকশা তৈরির কাজও শেষ হবে।

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের প্রধান প্রকৌশলী সুবক্তগীন জানান, ডিসেম্বরের দিকে বাংলাদেশে এসে নকশা চূড়ান্ত অনুমোদন করবেন চায়না রেলওয়ে ডিজাইন করপোরেশনের প্রতিনিধিরা। এরপর ব্যায়ের বিষয়টি নির্ধারণ করে  অনুমোদনের জন্য একনেকে যাবে প্রকল্পটি। অনুমোদন পাওয়ার পর কাজ শুরু হবে।

ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম রুটের ৩২১ কিলোমিটার রেলপথ রয়েছে। তবে উচ্চগতির রেলপথটি আগের রেলপথের চেয়ে প্রায় ৯৪ কিলোমিটার কম হবে। এক্ষেত্রে উচ্চগতির রেলপথ দাঁড়াবে ২২৭ কিলোমিটার।

প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে বুলেট ট্রেনটি ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৩০০ কিলোমিটার গতিতে চলবে। আর দিনে প্রায় ৫০ হাজার যাত্রী পরিবহন করবে। এর জন্য একজন যাত্রীকে ভাড়া গুণতে হবে ২ হাজার টাকার মতো।

news24bd.tv কামরুল

পরবর্তী খবর

সাত মাস পর খুলছে সুন্দরবন

শেখ আহসানুল করিম, বাগেরহাট

সাত মাস পর খুলছে সুন্দরবন

দেশব্যাপী করোনা পরিস্থিতির কারণে সাত মাস বন্ধ থাকার পর ওয়ার্ল্ড হ্যারিটেজ সাইড (বিশ্ব ঐতিহ্য এলাকা) সুন্দরবনে সব ধরনের ইকো ট্যুরিজমের উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে। আগামী ১ নভেম্বর থেকেই সুন্দরবনে দেশি-বিদেশি পর্যটকরা প্রবেশ করতে পারবেন।

মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) বন মন্ত্রণালয়ে বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

প্রধান বন সংরক্ষক (সিসিএফ) মো. আমির হোসাইন চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, দেশব্যাপী করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে গত ১৯ মার্চ পুরো সুন্দরবনে পর্যটকদের যাতায়াত ও নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে বন মন্ত্রণালয়। ওই নির্দেশে বলা হয় পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত গোটা সুন্দরবন জুড়ে এ নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে।

বর্তমানে দেশে করোনা পরিস্থিতি স্বভাবিক হওয়ায় মঙ্গলবার (২৭ আক্টোবর) বন মন্ত্রণালয়ে বৈঠকে সুন্দরবনে সব
ধরনের পর্যটন বা ইকো ট্যুরিজমের উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে। এই বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আগামী ১ নভেম্বর থেকেই করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে সুন্দরবনে দেশি-বিদেশি পর্যটকরা প্রবেশ করতে পারবেন। তবে, ১ নভেম্বর থেকে সুন্দরবনে কোনো ট্যুর অপারেটরা তাদের লঞ্চে একসাথে সর্বোচ্চ ৫০ জনের বেশি পর্যটক বহন করতে পারবেন না। একই সাথে সুন্দরবন বিভাগের পূর্বের সব নির্দেশনা মানতে হবে পর্যটক ও ট্যুর অপারেটরদের।

ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব সুন্দরবনের সভাপতি মো. মইনুল ইসলাম জমাদ্দার বন মন্ত্রণালয়ের এই সিদ্দান্তকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, গত ১৯ মার্চ পুরো সুন্দরবনে পর্যটকদের যাতায়াত ও নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণার পর সুন্দরবন কেন্দ্রীক ৭০টি ট্যুর অপারেটর কোম্পানির অর্ধশত লঞ্চ ও জাহাজের কয়েক হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী প্রায় সাত মাস ধরে বেকার হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করেছে। চরম আর্থিক সংকটে ছিলো তারা। মাত্র তিন থেকে চার মাস সুন্দরবনের পর্যটন মৌসুম। এরপর সারা বছর বসে বসে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সেই টাকায় চলতে হয়।

আরও পড়ুন: নতুন ম্যানেজার পাচ্ছে জাতীয় ফুটবল দল

সুন্দরবনের ৯টি পর্যটন এলাকায় পর্যটন মৌসুমে (নভেম্বর থেকে মার্চে) হাজার হাজার মানুষ ঘুরতে আসেন। করোনার কারণে পর্যটন বন্ধ থাকলে সুন্দরবন কেন্দ্রিক পর্যটন শিল্পে ধস নামে। আগামী ১ নভেম্বর থেকেই সুন্দরবনে দেশি-বিদেশি পর্যটকরা প্রবেশ করতে দেওয়ায় বন মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত আমাদের বাঁচিয়ে দিয়েছে। এখন আমরা ১ নভেম্বর থেকে করোনা স্বাস্থ্যবিধি মানাসহ সুন্দরবনে বন বিভাগের পূর্বের সব নির্দেশনা মানতে হবে দেশি-বিদেশি সব পর্যটকসহ আমরা কঠোর ভাবে মেনে চলব।

news24bd.tv তৌহিদ

পরবর্তী খবর