এক্সরেকক্ষে নারী রোগীকে ধর্ষণ চেষ্টা, ৯৯৯ এ ফোন করে উদ্ধার
এক্সরেকক্ষে নারী রোগীকে ধর্ষণ চেষ্টা, ৯৯৯ এ ফোন করে উদ্ধার

এক্সরেকক্ষে নারী রোগীকে ধর্ষণ চেষ্টা, ৯৯৯ এ ফোন করে উদ্ধার

অনলাইন ডেস্ক

জামালপুরের বকশীগঞ্জে একটি বেসরকারীরি ক্লিনিকের এক্সরেকক্ষে নারী রোগীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে হাসপাতালটির টেকনোলজিস্ট শেখ ফরিদ (২৮) নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ফরিদকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে বকশীগঞ্জ মালীবাগ মোড় এলাকায় ডা. আব্দুল গনি হেলথ কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে।

শেখ ফরিদ শেরপুর সদর উপজেলা বটতলা চৈতনখোলা গ্রামের সুরুজ আলীর ছেলে।

তিনি বকশীগঞ্জে ডা. আব্দুল গণি হেলথ কমপ্লেক্সে এক্সরে টেকনোলজিস্ট হিসেবে কর্মরত।

ভুক্তভোগী ওই নারী জানান, দীর্ঘদিন কোমরের ব্যথায় ভুগছিলেন তিনি। চিকিৎসার জন্য বকশীগঞ্জ মালীবাগ মোড়ে অবস্থিত ডা. আব্দুল গণি হেলথ কমপ্লেক্সে যান। চিকিৎসক তাকে এক্সরে করার পরামর্শ দিলে টাকা জমা দিয়ে এক্সরেকক্ষে প্রবেশ করেন।

আরও পড়ুন:


চাকরি দেবে বলে ডেকে নিয়ে মাঠের মধ্যে ৩ জন মিলে ধর্ষণ

বরিশালে ভূত আতঙ্কে নার্সিং ইন্সটিটিউটের ৪ ছাত্রী হাসপাতালে

নেত্রকোনায় খাবারের সন্ধানে এসে ধরা পড়ল চিতা বাঘের শাবক

গোনাহ থেকে মুক্তি লাভে যে দোয়া পড়তেন বিশ্বনবী


এসময় এক্সরেকক্ষে থাকা টেকনোলজিস্ট ফরিদ দরজা বন্ধ করে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। পরে তিনি চিৎকার করলে বাইরে অপেক্ষামাণ ওই নারীর স্বামী গিয়ে প্রতিবাদ করলে তাকে ও তার স্বামীকে মারধর করে ক্লিনিকের একটি কক্ষে আটকে রাখে।

পরে পুলিশের বিশেষ সেবা ৯৯৯ এ ফোন করে অভিযোগ জানালে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ ওই নারী রোগী ও তার স্বামীকে উদ্ধার করে। এসময় শ্লীলতাহানির অভিযোগে এক্সরে টেকনোজিস্ট শেখ ফরিদকে আটক করে পুলিশ।

বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম সম্রাট শুক্রবার দিবাগত রাতে জানান, নারী রোগীর অভিযোগের ভিত্তিতে একজনকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

news24bd.tv আহমেদ