আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ১১

ইমন চৌধুরী, পিরোজপুর

আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ১১

পিরোজপুর সদর উপজেলার কদমতলা ইউনিয়ন পরিষদের কাছে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুইপক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে কমপক্ষে ১১ জন আহত হয়েছে। শুক্রবার রাতে কদমতলা ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান হানিফ খান এবং ওই ইউনিয়ন থেকে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করতে ইচ্ছুক শিহাব শেখ এর সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। 

সংঘর্ষে আহত হানিফ খান এর সমর্থকদের ৩ জনকে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং আরও বেশ কয়েকজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে শিহাব এর সমর্থকদের ৩ জনকে নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। 

এছাড়া হানিফ খান এর সমর্থক সাইদুল শেখ এবং শিহাব শেখ এর সমর্থক শহীদ শেখ ও আলম শেখকে গুরুতর অবস্থায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হানিফ খান এর স্ত্রী নাসিমা আক্তার অভিযোগ করেন, হঠাৎ করে ধারালো অস্ত্র ও লোহার পাইপ নিয়ে শিহাব এর লোকজন তার স্বামীকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করে। এ সময় তার সমর্থকেরা বাধা দিলে তাদেরকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করে শিহাব এর সমর্থকেরা। 


সানি লিওনের শুটিং সেটে হামলা, দাবি ৩৮ লাখ

টিকা নিয়ে যাদের ভয় ছিল তা কেটে গেছে: স্বাস্থ্য সচিব

তামিলনাড়ুতে আগুনের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১৬

দিঘী থেকে ২০০ বছর আগের হাতির কঙ্কাল উদ্ধার


অন্যদিকে পিরোজপুর সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান এস এম বায়েজিদ হোসেন অভিযোগ করেন, তার চাচা শিহাবের উপর অতর্কিতভাবে হানিফ খানের নেতৃত্বে হামলা করা হয়।

 
পিরোজপুর জেলা হাসপাতালে জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. ইসতিয়াক আহম্মেদ জানান, সাইদুল শেখ, শহীদ শেখ ও আলম শেখকে গুরুতর অবস্থা হওয়ার কারনে তাদের উন্নতর চিকিৎসার কারনে খুলনা মডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে ।

পিরোজপুর সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাঃ নূরুল ইসলাম বাদল জানান, বর্তমানে কদমতলার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে এবং সেখানে পুলিশের নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। 

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

১৫ রমজানে কঠোরভাবে হরতাল পালনের হুঁশিয়ারি মাওলানা ইসমাঈলের

অনলাইন ডেস্ক

১৫ রমজানে কঠোরভাবে হরতাল পালনের হুঁশিয়ারি মাওলানা ইসমাঈলের

হেফাজতের সকল তাণ্ডবকারীদের গ্রেফতার করা না হলে ১৫ রমজানে হরতাল পালনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বাংলাদেশ ইউনাইটেড ইসলামিক পার্টির চেয়ারম্যান মাওলানা ইসমাঈল হোসেন। 

সোমবার (১২ এপ্রিল) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক হলে এক আলোচনা সভায় তিনি এই হুঁশিয়ারি দেন।

তিনি বলেন, সারাদেশে হেফাজতের নাশকতায় অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা না হলে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করা হবে। এই হরতাল কঠোরভাবে পালন করা হবে। রিকশা-সাইকেল কোনো কিছুই চলতে দেব না। এমনকি পুলিশের গাড়িও চলতে দেওয়া হবে না।

হেফাজতে ইসলামের হরতাল কর্মসূচিতে ব্রাক্ষণবাড়িয়ায় অর্ধশতাধিক সরকারি ও বেসরকারি স্থাপনায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগকারী সবাইকে গ্রেফতারে আল্টিমেটাম  দিয়ে মাওলানা ইসমাইল হোসাইন আরও বলেন, হেফাজতের ঘটনায় ২৬ টি তাজা প্রাণ ঝরল। তার সাথে জাতীয় সম্পদের শতকোটি টাকার অধিক ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের তাণ্ডবের সময় এক পুলিশ সদস্যের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেওয়া ২০ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে সদর উপজেলার সুহিলপুর বাজারের একটি মিষ্টির দোকান থেকে গুলিগুলো উদ্ধার করে পুলিশ। গুলি খোয়ার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় দু'জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

তিনি আরও বলেন, এই অবস্থায় সরকারের সাথে কোন প্রকার সংলাপের উদ্যোগ না নিয়ে হেফাজতে ইসলাম কেবল মাত্র প্রতিশোধ পরায়নতার খাতিরে যেই অগ্নিসংযোগ চালায় তা নিঃসন্দেহে সাধারণ জনগণের জানমালের নিরাপত্তার উপর হুমকি স্বরূপ এবং দেশের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করার জন্য যথেষ্ট। 

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন দলটির মহাসচিব মাওলানা মুফতি শাহাদাত হোসাইন, যুগ্ম-মহাসচিব কাজী মাওলানা শাহ মো. ওমর ফারুক প্রমুখ।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ভণ্ড মামুনুলরা মারা গেলে কারা জানাজা পড়ায় সেটা আমরা দেখবো : নিখিল

অনলাইন ডেস্ক

ভণ্ড মামুনুলরা মারা গেলে কারা জানাজা পড়ায় সেটা আমরা দেখবো : নিখিল

আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ এবং ছাত্রলীগের কেও মারা গেলে হেফাজতিরা জানাজা দিবে না, তাদের জানাজার দরকার নেই বলে মন্তব্য করেছেন  যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিল।

সোমবার (১২ এপ্রিল)  করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশব্যাপী যুবলীগের ফ্রি মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং জনসচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধনকালে তিনি এ মন্তব্য করেন।

নিখিল বলেন, আমাদের জানাজা পড়ানোর জন্য অনেক আলেম আছে, আল্লাহর ওলিরা আছেন। কিন্তু ভণ্ড মামুনুলরা মারা গেলে কারা জানাজা পড়ায় সেটাও আমরা দেখবো।

বক্তব্য শেষে ফার্মগেটে সাধারণ মানুষের মাঝে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সাবান ও সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ডা. খালেদ শওকত আলী, ইঞ্জিনিয়ার মৃনাল কান্তি জোদ্দার, সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. হেলাল উদ্দিন, মো. সাইফুর রহমান সোহাগ, মো. জহির উদ্দিন খসরু, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, দপ্তর সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, স্বাস্থ্য সম্পাদক ডা. ফরিদ রায়হান।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

‘খেলাফত প্রতিষ্ঠা হলে ধরব আর জবাই করব’ বক্তব্য দেওয়া হেফাজত নেতা রিমান্ডে

অনলাইন ডেস্ক

‘খেলাফত প্রতিষ্ঠা হলে ধরব আর জবাই করব’ বক্তব্য দেওয়া হেফাজত নেতা রিমান্ডে

‘খেলাফত প্রতিষ্ঠা হলে একটা একটা ধরব আর জবাই করব’ এমন বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার হেফাজত নেতা ওয়াসেক বিল্লাহ নোমানীর একদিনের রিমান্ড দেওয়া হয়েছে।

আইসিটি মামলায় সোমবার দুপুরে তাকে আদালতে সোপর্দ করে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়।

এসময় ১নং আমলী আদালতের বিচারক আব্দুল হাই একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রোববার বিকেলে নগরীর সেনবাড়ি এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

এর আগে ধর্মীয় ও সরকার বিরোধী উস্কানিমূলক বক্তব্য প্রদানের অভিযোগে জেলা শ্রমিকলীগ নেতা রাকিবুল ইসলাম শাহীন কোতোয়ালী মডেল থানায় একটি অভিযোগ করেন।

আটকের পর রবিবার রাতে শ্রমীক লীগ নেতার অভিযোগ আমলে নিয়ে কোতোয়ালী মডেল থানায় এসআই মাহবুবুর রশিদ বাদী হয়ে আরো একটি মামলা দায়ের করেন।  

কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার জানান, ওয়াসেক বিল্লাহ নোমানী ওরফে চয়ন কুমার দাসকে সোমবার দুপুরে তাকে আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চাইলে ১নং আমলী আদালতের বিচারক একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে হিন্দু থেকে ধর্মান্তরিত হওয়া এ নেতা এক ওয়াজ মাহফিলে বলেন, ‘আল্লাহ যদি আমাদেরকে তৌফিক দেয়, আর যদি ইনশাল্লাহ খেলাফত প্রতিষ্ঠা করতে পারি, যদি আল্লাহ তৌফিক দেয় আর যদি ইনশাল্লাহ খেলাফত কায়েম করতে পারি, আল্লাহর কসম, আল্লাহর কসম, সংবাদ দেখার টাইম পাবি না। সংবাদ দেখার টাইম পাবি না। একটা একটা ধরব আর জবাই করব, জবাই করব ইনশাল্লাহ।’

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

এদেশে জন্ম নেওয়া কি পাপ, প্রশ্ন নুরুর

অনলাইন ডেস্ক

এদেশে জন্ম নেওয়া কি পাপ, প্রশ্ন নুরুর

রাজনীতি ছেড়ে দেওয়ার জন্য প্রতিনিয়ত হুমকি দেওয়া হচ্ছে অভিযোগ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, আমাকে গুম করার চেষ্টা করা হয়েছে। প্রতিনিয়ত হুমকি দেওয়া হচ্ছে রাজনীতি ছেড়ে দেওয়ার জন্য। এদেশে রাজনীতি করতে এসে কি আমরা পাপ করলাম, নাকি এদেশে জন্ম নেওয়া পাপ। 

সোমবার (১২ এপ্রিল) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নসরুল হামিদ মিলনায়তনে উদ্বিগ্ন অভিভাবক ও নাগরিক সমাজ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নুর বলেন, মোদীবিরোধী বিক্ষোভ থেকে আটক অনেকেই আছে এমন যে তারা ছোটখাটো চাকরি করতো। কিংবা কেউ ছাত্র সাধারণ মানুষ। তাদের অনেককেই ধরে নেওয়া হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়ে বক্তব্য দেন- গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা.জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অবঃ) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ড.রেজা কিবরিয়া, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা নঈম জাহাঙ্গীর, লেখক ও গবেষক রাখাল রাহা, লেখক ও আইনজীবী খাদেমুল ইসলাম, সমাজকর্মী এ্যাড.আবু হানিফ, রাষ্ট্র চিন্তার সদস্য দিদারুল ইসলাম ভূঁইয়া প্রমুখ।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

হতদরিদ্র মানুষের করোনা চিকিৎসা অসম্ভব হয়ে পড়েছে : জি এম কাদের

অনলাইন ডেস্ক

হতদরিদ্র মানুষের করোনা চিকিৎসা অসম্ভব হয়ে পড়েছে : জি এম কাদের

করোনা ভাইরাসের প্রকোপ দেখা দেয়ার এক বছর পার হলেও দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থার তেমন কোন উন্নয়ন হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের। 

সোমবার এক বিবৃতিতে জাপা চেয়ারম্যান বলেন, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে সরকার। আক্রান্ত রোগীরা হাসপাতালে সিট পাচ্ছেনা। পয়সা খরচ করেও আইসিইউ পাচ্ছেনা মারাত্মক ভাবে আক্রান্ত রোগীরা। আর হতদরিদ্র মানুষের জন্য করোনা চিকিৎসা অসম্ভব হয়ে পড়েছে । 

বিবৃতিতে গোলাম মোহাম্মদ কাদের ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, গেলো বছর মার্চ থেকেই আমরা জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে করোনা পরীক্ষা বাড়ানোর পাশাপাশি প্রতিটি জেলা সদরে আইসিইউ স্থাপণের দাবি জানিয়ে আসছি। পর্যাপ্ত অক্সিজেন সহায়তার প্রস্তুতি রাখতে পরামর্শ দিয়েছি সরকারকে। কিন্তু সাধারণ মানুষের জীবন বাঁচাতে চিকিৎসা ব্যবস্থার উন্নয়ণে সরকারের তেমন কোন উদ্যোগ নেই। চিকিৎসা না পেয়ে সাধারণ মানুষ হতাশ হয়ে পড়েছে। সাধারণ মানুষের চিকিৎসায় সরকারে উদাসীনতা সবার সামনে পরিস্কার। 


বাংলাদেশের জিহাদি সমাজে 'তসলিমা নাসরিন' একটি গালির নাম

করোনা আক্রান্ত প্রতি তিনজনের একজন মস্তিষ্কের সমস্যায় ভুগছেন: গবেষণা

কুমারীত্ব পরীক্ষায় 'ফেল' করায় নববধূকে বিবাহবিচ্ছেদের নির্দেশ

বাদশাহ সালমানের নির্দেশে সৌদিতে কমছে তারাবির রাকাত সংখ্যা


 

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেন, সরকার হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে বড় বড় মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে, সেগুলো দরকার আছে। কিন্তু এই মুহুর্তে তার চেয়ে বেশি জরুরী হয়ে পড়েছে মানুষের জীবন বাঁচাতে চিকিৎসা ব্যবস্থার উন্নয়ণ।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান আশা প্রকাশ করে বলেন, দ্রুততার সাথে সরকার দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা উন্নয়ণ করে সাধারণ মানুষের জন্য চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করবে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর