লালমনিরহাটে ইভিএম নিয়ে বিড়ম্বনায় ভোটাররা
লালমনিরহাটে ইভিএম নিয়ে বিড়ম্বনায় ভোটাররা

লালমনিরহাটে ইভিএম নিয়ে বিড়ম্বনায় ভোটাররা

নিজস্ব প্রতিবেদক

সকাল আটটা থেকে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ শুরু হলেও দশটার পরেই বিভিন্ন কেন্দ্রে শুরু হয় উত্তেজনাকর অবস্থা। লালমনিরহাট পৌরসভার প্রথম ইভিএম ভোটিং নিয়ে নানা বিড়ম্বনায় পড়েন ভোটাররা। হাতের ছাপ থেকে শুরু করে মেশিন অকার্যকর বলে অভিযোগ করেন তারা।

সকাল আটটা থেকে শুরু হয় লালমনিরহাট পৌরসভার ১৮ টি কেন্দ্রের ১৫০ টি বুথে ইভিএম এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ।

ভোটাররা অভিযোগ করেন ইভিএম মেশিন ক্রটিপূর্ণ ভোট দিতে গিয়ে পড়তে হচ্ছে তাদের নানা বিড়ম্বনায়। মেশিনে হাতের ছাপ না উঠায় ফিরে যান অনেক ভোটার।

এদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী রেজাউল করিম স্বপন, ধানের শীষের প্রার্থী মোশররফ হোসেন রানা ও লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী ওয়াহিদুল হাসান সেনা অভিযোগ করে বলেন, নৌকা প্রতীকের সমর্থকরা জোরপূর্বক ভোট দিচ্ছেন। বের করে দেওয়া হচ্ছে তাদের এজেন্টদেরকেও। এর প্রমাণ মেলে শহরের গিয়াস উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে। এজেন্টকে বের করে দিয়ে পিটাতে থাকে ছাত্রলীগ-যুবলীগের কর্মীরা।

আরও পড়ুন:


যশোরের দুই পৌরসভায় ভোটগ্রহণ চলছে

ঠাকুরগাঁওয়ে বোমা বিস্ফোরণে খবরে ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক

আবারও বাড়ল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি

দিনের শুরুতেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ শিবিরে রাহীর আঘাত


সকালে ভোটার উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো হলেও আতংক ছড়িয়ে পড়ায় বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই কেন্দ্রগুলো যেন ফাঁকা হয়ে যেতে শুরু করেছে। আতঙ্কে ভোটকেন্দ্রে আসছে না ভোটাররা।  

তবে জেলা প্রশাসক আবু জাফর ও পুলিশ সুপার আবিদা সুলতানা বললেন ভোট সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভাবেই হচ্ছে। এদিকে ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী মোশারফ হোসেন রানা ও লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী ওয়াহিদুল হাসান সেনা ভোট সুষ্ঠু হচ্ছে না বলে দাবি করে বলেন, ভোট জোরপূর্বক ছিনিয়ে নিচ্ছে নৌকা প্রতীকের সমর্থকরা।

news24bd.tv আহমেদ