গুজব ছড়িয়ে খাটাশ হত্যা
গুজব ছড়িয়ে খাটাশ হত্যা

গুজব ছড়িয়ে খাটাশ হত্যা

অনলাইন ডেস্ক

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরগরে বিরল প্রজাতির প্রাণী গন্ধগোকুলকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে নাসিরনগর উপজেলার গুনিয়াউক ইউনিয়নের চিতনা গ্রামে সাবেক ইউপি সদস্য রহমত আলীর বাড়ির পাশে পুকুর পাড়ে এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী জানায়, কবরস্থানে নতুন লাশ দাফন করা হলে গভীর রাতে কবর থেকে লাশ তুলে খেয়ে ফেলে। গত তিন মাস ধরে এলাকায় এমন গুঞ্জন ছিল।

আরও পড়ুন: 


সাতক্ষীরায় মেয়র হলেন বিএনপি প্রার্থী

চৌগাছায় নৌকার জয়, প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল জামায়াত

খাটের ওপর ব্যবসায়ীর মৃতদেহ, আলমারির টাকা-স্বর্ণ উধাও

এফ-৩৫ ও এস-৪০০ একসঙ্গে রাখা যাবে না, তুরস্ককে যুক্তরাষ্ট্র


এরইমধ্যে গত শনিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) হযরত আলী নামে চিতনা গ্রামের এক ব্যক্তি মারা যায়। রোববার সকালে স্থানীয়রা প্রাণীটিকে কবরের মাটি খুঁড়তে দেখেন। পরে তারা চিৎকার চেঁচামেচি করে স্থানীয়দের জড়ো করে মানুষ খেকু প্রাণী সন্দেহে বিলুপ্তির পথে বিরল প্রজাতির প্রাণীটিকে পিটিয়ে হত্যা করে।  

এসময় প্রাণীটিকে একনজর দেখার জন্য সকাল থেকে সাবেক ইউপি সদস্য রহমত আলীর বাড়িতে উৎসুক জনতা ভিড় করেন।  

নাসিরনগর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা চন্দন কুমার পোদ্দার বলেন, এ প্রাণীটি গন্ধগোকুল নামে পরিচিত। এরা নিরীহ প্রজাতির প্রাণী। এরা কখনও মাংসাশী প্রাণী নয়। প্রাণীটি নিশাচর এটি ফলমুল, ইদুঁর ও কীটপতঙ্গ খেয়ে বেচেঁ থাকে। এটি এলাকাভেদে গাছ খাটাশ, ভোদর, এশীয় তাল খাটাশ ও সাইরেল নামে পরিচিত।  

তিনি আক্ষেপ করে বলেন, এলাকাবাসী হয়তো আতঙ্কিত হয়ে বা ভুল ধারণা পোষণ করে নিরীহ এই প্রাণীটিকে পিটিয়ে হত্যা করেছে। তারা এটিকে আটক করে আমাদের অথবা বনবিভাগকে খবর দিলে প্রাণীটির শেষ রক্ষা হতো।  

নাসিরনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমা আশরাফী সাংবাদিকদের জানান, বিরল প্রজাতির এই নিরীহ প্রাণীকে হত্যা করা খুবই দুঃখজনক। বাংলাদেশের জীববৈচিত্র্য টিকিয়ে রাখতে হলে বিলুপ্ত সব প্রাণীকে আমাদের বাঁচিয়ে রাখতে হবে। এজন্য সকলকে সচেতন থাকতে হবে। সভা সমাবেশে জনসচেতনতা তৈরী করা হবে বলেও জানান তিনি।

news24bd.tv তৌহিদ

সম্পর্কিত খবর

;