এত মোটা যে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ঢুকানো সম্ভব হয়নি মাখনকে
এত মোটা যে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ঢুকানো সম্ভব হয়নি মাখনকে

এত মোটা যে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ঢুকানো সম্ভব হয়নি মাখনকে

অনলাইন ডেস্ক

অতিরিক্ত স্বাস্থ্যের কারণে অকালে মৃত্যু হলো ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মাখন মিয়ার। মাত্র ৪০ বছর বয়সেই তার ওজন হয় ৩০২ কেজি।  

যে কারণে শ্বাসকষ্ট, বুকে ব্যথা নিয়ে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে গতকাল সোমবার রাত ১০টায় মৃত্যু হয় মাখনের।

মাখন ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর শহরের দক্ষিণ মৌড়াইলের মিলন মিয়ার ছেলে।

আরও পড়ুন:


স্বামীকে খাবারের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে পরকীয়া, প্রেমিক ধরা

পরকীয়া প্রেমিকের হারিয়ে যাওয়া ফোনে স্বামী হত্যার রহস্য ফাঁস

পরকীয়া প্রেমিকাসহ ধরা যুবদল নেতা

পরকীয়া প্রেম: রাতভর আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণ

কোভিডে টরন্টোয় বন্দুক সন্ত্রাস বেড়েছে, বাংলাদেশিদের সতর্কতার পরামর্শ

ইসলামে নাম ব্যঙ্গ করার পরিণাম কী?


 

পারিবারিক সূত্র জানায়, মাখন মিয়ার ওজন প্রথমে স্বাভাবিক থাকলেও পরে ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। মৃত্যুকালে তার ওজন ছিল ৩০২ কেজি। অস্বাভাবিক এই ওজন নিয়ে মানবেতর দিন কাটিয়ে ছিল মাখন। অবশেষে ওজনের কারণে জীবন-যুদ্ধে হেরে  মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

মাখনের বাবা মিলন মিয়া জানান, কয়েকদিন যাবত মাখন শ্বাসকষ্ট ও হৃদরোগ ভুগছিলেন। গত ২০ বছর বয়স পর্যন্ত স্বাভাবিকই ছিল মাখন। তারপর হঠাৎ তার শারীরিক গঠন বাড়তে থাকে। সে সাথে তার শরীরের ওজনও অস্বাভাবিক বাড়তে থাকে। শেষ পর্যন্ত তার ওজন ৩০২ কেজিতে গিয়ে দাঁড়ায়। ছেলেকে সুস্থ করার জন্যে চিকিৎসাও করেছেন একাধিকবার, কিন্তু অস্বাভাবিক ওজনের কারণে ব্যাহত হচ্ছিল চিকিৎসা। তার চিকিৎসা ব্যয় বহন করতে গিয়ে এখন নি:স্ব তার পরিবার। দুই সন্তান ও স্ত্রী নিয়ে আর্থিক কষ্টে বেঁচে থাকাই ছিল কষ্ট কর।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগ কর্তব্যরত চিকিৎসক আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, সোমবার রাতে মাখন গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালে নিয়ে আসেন পরিবারের সদস্যরা। তার ওজনের কারণে হাসপাতালের ভেতরে জরুরি বিভাগে ঢুকানো সম্ভব হয়নি। হাসপাতালের গেইটেই তাকে চিকিৎসা দিতে হয়েছে।

তিনি বলেন, মাখনের শ্বাসকষ্ট সমস্যা ছিল। তার বুকে ব্যথা ছিল। হৃদযন্ত্র ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়েছে।  

news24bd.tv তৌহিদ

সম্পর্কিত খবর