ফেইসবুক-অস্ট্রেলিয়া মুখোমুখি; বিপাকে ব্যবহারকারীরা

অনলাইন ডেস্ক

ফেইসবুক-অস্ট্রেলিয়া মুখোমুখি; বিপাকে ব্যবহারকারীরা

ফেইসবুক অস্ট্রেলিয়ান ব্যবহারকারীদের নিউজ শেয়ার এবং ভিউ বন্ধ রেখেছে। জণমনে এই তথ্য নিয়ে বিভ্রান্তির তৈরি হয়েছে। খবর বিবিসির। 

বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ানরা ঘুম থেকে উঠে ফেইসবুক পেইজে কোন জাতীয় কিংবা আন্তর্জাতিক নিউজ কনটেন্ট খুঁজে পায় নি। কয়েকটি সরকারি স্বাস্থ্য সেবা, জরুরি এবং অন্যান্য দরকারি পেইজগুলোও বন্ধ করে দেওয়া হয় ওই দিন। পরে অবশ্য টেক জায়ান্টের পক্ষে থেকে ভুল শিকার করা হয়েছে। 

অস্ট্রেলিয়ান সরকার বলেছে এই ধরণের নিষেধাজ্ঞা ফেইসবুকের বিশ্বাসযোগ্যতাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। 

এর বাইরে অস্ট্রেলিয়ানরা ফেইসবুক পেইজে কোন ধরণের নিউজ লিংক খুঁজে পাচ্ছে না। ফেইসবুকের এই পদক্ষেপ নেওয়ার পেছনের কারণ হলো অস্ট্রেলিয়ান সরকার কিছুদিন আগে একটি আইন করতে যাচ্ছে যে, কোন নিউজ কনটেন্ট দিতে হলে ওই নিউজ পোর্টালকে টাকা দিতে হবে।  

ফেইসবুক এবং গুগুল অভিযোগ করেছে যে, এই আইন সম্পূর্ণভাবে তাদের মাধ্যমের উপর শাস্তিস্বরুপ এবং ইন্টারনেটে অবস্থা কেমন সেসব বিবেচনা না করেই। 

বুধবার অস্ট্রেলিয়ান সরকার জানিয়েছে যে তারা এই আইন সংসদের নিম্নকক্ষ পাস করেছে। তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রী পাউল ফ্লেকচার এবিসি নিউজকে বলেছেন যে, ফেইসবুকের উচিত এই সিদ্ধান্ত পুনরায় বিবেচনা করা। কেননা তাদের এই প্লাটফর্মে একটা ভাবমূর্তি আছে।  


বরিশালে বিএনপির মহাসমাবেশ আজ

বরিশালে সমাবেশের উদ্দেশে ইশরাকের বিশাল গাড়িবহর

সোনালী ও জনতা ব্যাংকের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

যে কারণে থানায় অভিযোগ করলেন সৌরভের স্ত্রী ডোনা!


ফেইসবুক এই কঠিন সিদ্ধান্ত তখনই নিলো যখন গুগুল নিউজ কনটেন্ট এর জন্য মিডিয়া মুগল রুপার্ট মারডকের কোম্পানিকে টাকা দিতে রাজি হল।  

ফেইসবুক কেন এই সিদ্ধান্ত নিল?

অস্ট্রেলিয়ান কর্তৃপক্ষ বলেছে যে, তারার এই আইন করতে যাচ্ছে কারণ নিউজ পোর্টাল গুলো এবং টেক জায়ান্টদের মধ্যে অর্থের সমান সুবিধা বন্টণ করতে।

তবে ফেসবুক বলেছে যে আইনটি "একেবারে বেছে নিতে বাধ্য করেছে। এই সম্পর্কের বাস্তবতাকে উপেক্ষা করে এমন একটি আইন মেনে চলার চেষ্টা করা বা অস্ট্রেলিয়ায় আমাদের পরিষেবাগুলিতে সংবাদ বিষয়বস্তু প্রবেশের অনুমতি দেওয়া বন্ধ করা"।

ফেইসবুক তাদের একটি ব্লগে লিখেছে "আমার অত্যন্ত ভারাক্রান্ত হৃদয় নিয়ে দ্বিতীয় পথটি বেছে নিচ্ছি"। 

অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়ান নিউজ পোর্টালগুলো তাদের নিউজ লিংক ফেইসবুকে শেয়ার করার অপশন বন্ধ করে দিয়েছে। অস্ট্রেলিয়ান জাতীয় সংবাদমাধ্যম এবিসি এবং সিডনি মর্নিংসহ অন্যান্য পত্রিকার লাখ লাখ ফলোয়ার আছে। 

ফেসবুক বলেছে যে এটি অস্ট্রেলিয়ান প্রকাশকদের রেফারেলগুলির মাধ্যমে গত বছর প্রায় ৪০৭ মিলিয়ন ডলার আয় করতে সহায়তা করেছে।

সূত্র: বিবিসি

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ধনীদের সংখ্যায় বিশ্বের তিন নম্বর স্থানে ভারত

অনলাইন ডেস্ক

ধনীদের সংখ্যায় বিশ্বের তিন নম্বর স্থানে ভারত

করোনা ভাইরাসের বছর ২০২০ সালে প্রতি সপ্তাহে ৮ জন বিলিয়নিয়ার হয়েছেন। বছরটিতে মোট বিলিয়নিয়ার হয়েছেন ৪২১ জন।

‘হুরুন গ্লোবাল রিচ লিস্ট ২০২১’ এর দশম সংস্করণ মঙ্গলবার এমন তথ্য জানিয়েছে।

তথ্য অনুযায়ী, এ নিয়ে বিশ্বে মোট বিলিয়নিয়ারের (১০০ কোটি ডলার বা এর বেশি সম্পদের মালিক) সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩ হাজার ২৮৮ জনে।

এই তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন টেসলা ও স্পেস এক্স-এর সিইও ইলন মাস্ক।


সবইতো চলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন ঈদের পরে খুলবে: নুর

আইন চলে ক্ষমতাসীনদের ইচ্ছেমত: ভিপি নুর

রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ

মোবাইলে পরিচয়, দেখা করতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী

নোয়াখালীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা: স্বামী আটক


আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোস রয়েছেন দ্বিতীয় স্থানে।

ভারতের মুকেশ আম্বানি রয়েছেন অষ্টম স্থানে। ভারতের আরও তিন ধনকুবেরও রয়েছেন এ তালিকায়।

তারা হলেন- গৌতম আদানি, শিব নাদর ও লক্ষ্মী মিত্তল।

আদানির সম্পত্তি গত এক বছরে দ্বিগুণ হয়ে গেছে।

তালিকার মোট হিসাব অনুযায়ী ভারতে বিলিয়নিয়ারের সংখ্যা ১৭৭, যা গত বছরের নিরিখে সংখ্যায় আরও ৪০ বেশি।

সব মিলিয়ে ধনীদের সংখ্যার হিসাবে ভারত বিশ্বের মধ্যে তিন নম্বর স্থানে রয়েছে। 

তালিকা অনুযায়ী, ভারতের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বিলিনেয়ার রয়েছেন মুম্বাইয়ে, ৬১জন। এরপরেই রয়েছে দিল্লির নাম। সেখানে বিলিনিয়ারের সংখ্যা ৪০।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রতিবাদকারীদের ওপর ফের গুলি মিয়ানমারে

মাসুদ রানা

পুলিশের সহিংসতায় হতাহতের ঘটনার পর, আরো কঠোর অবস্থান নিয়েছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। বিদেশি মিশনে দায়িত্বরত শতাধিক কূটনীতিককে দেশে ফেরার নির্দেশ দিয়েছে সেনা কর্তৃপক্ষ।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে করা হচ্ছে ব্যাপক রদবদল। নতুন করে অভিযোগ আনা হয়েছে সু চির বিরুদ্ধে। এদিকে দেশটির সেনাদের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত নিষেধাজ্ঞার হুমকি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। 

মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থান ও অবৈধ ক্ষমতা দখলের প্রতিবাদে প্রায় এক মাস ধরে অব্যাহত রয়েছে বিক্ষোভ আন্দোলন। সেনা সরকারের ব্যাপক দমনপীড়ন, ধরপাকড় ও গুলি আর একের পর এক হত্যার পরও এই আন্দোলন প্রতিদিনই জোরালো হচ্ছে। মঙ্গলবার আবারো পুলিশের গুলি, টিয়ারগ্যাসে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে। 

জাতিসংঘে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত কিয়াউ মো তুনের সেনাবিরোধী বিদ্রোহের পরই অন্তত ১৯টি দেশে সু চিপন্থী কূটনীতিকদের দেশে ফেরার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রায় অর্ধশতাধিক কর্মকর্তাকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বদলির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ব্যাপক রদবদল করা হয়েছে।

এছাড়া সু চির বিরুদ্ধে যোগাযোগ আইন লঙ্ঘন ও গণ–অসন্তোষ উসকে দেওয়ার আরও দুটি অভিযোগ আনা হয়েছে। ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট উইন মিন্টের বিরুদ্ধেও একই অভিযোগ আনা হয়েছে। এমন অবস্থায় দেশটির বিরুদ্ধে অতিরিক্ত নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার সব রকম প্রস্তুতি নিয়েছে মার্কিন সরকার।


রাজশাহীতে চলছে বিএনপির মহাসমাবেশ

করোনায় দেশে আরও ৭ জনের মৃত্যু

বিমানের মধ্যেই মৃত্যু, পাকিস্তানে ভারতীয় বিমানের জরুরি অবতরণ

কুয়েতে দিনার ছিটিয়ে ‘অশ্লীল নাচ’, ৪ বাংলাদেশিকে খুঁজছে দূতাবাস


মিয়ানমার সেনাবাহিনী শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে যদি এই সহিংসতা বন্ধ করতে অস্বীকার করে, তবে মার্কিন সরকার তাদের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে প্রস্তুত।  

দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট আসিয়ান দেশগুলোর পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বসতে যাচ্ছে মিয়ানমারের  সামরিক সরকার। এদিকে রোববারের ওই সহিংসতায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশ নিন্দা জানালেও এখনও কোন মন্তব্য করেনি  চীন।  

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

পদাতিক ও কামান ইউনিটের অংশগ্রহণে তুরস্ক ও কাতারের যৌথ মহড়া

অনলাইন ডেস্ক

পদাতিক ও কামান ইউনিটের অংশগ্রহণে তুরস্ক ও কাতারের যৌথ মহড়া

তুরস্ক ও কাতারের পদাতিক ও কামান ইউনিটের অংশগ্রহণে পারস্য উপসাগরের উপকূলীয় এলাকায় যৌথ সামরিক মহড়া শুরু হয়েছে। চলবে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত।

মহড়ার নাম দেওয়া হয়েছে ‘আল আদিদ-২০২১’। দুই দেশের সামরিক সম্পর্ক আরও জোরদার এবং রণশক্তি বাড়ানোর লক্ষ্যে এই মহড়া চালানো হচ্ছে বলে কাতারের গণমাধ্যম জানিয়েছে।

এর আগে গত ডিসেম্বরের মাঝামাঝিতেও তুরস্ক ও কাতার সামরিক মহড়ায় অংশ নেয়।


সবইতো চলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কেন ঈদের পরে খুলবে: নুর

আইন চলে ক্ষমতাসীনদের ইচ্ছেমত: ভিপি নুর

রাঙামাটিতে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠক

৭৫০ মে.টন কয়লা নিয়ে জাহাজ ডুবি, শুরু হয়নি উদ্ধার কাজ


সে সময় মহড়ার একটি পর্ব অনুষ্ঠিত হয় রাজধানী দোহার এক জনবহুল এলাকায়। সেখানে তারা সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলার কৌশল রপ্ত করতে অনুশীলন চালায়।

২০১৭ সালে এই দুই দেশের মধ্যে সামরিক সম্পর্ক জোরদার হয় এবং দুই দেশ সামরিক চুক্তি সই করে। এই চুক্তির ভিত্তিতে কাতারে সামরিক ঘাঁটি স্থাপন করেছে তুরস্ক এবং নিয়মিতভাবে যৌথ মহড়া চালিয়ে আসছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

টিকা ছাড়া হজ নয় : সৌদি সরকার

অনলাইন ডেস্ক

টিকা ছাড়া হজ নয় : সৌদি সরকার

মহামারি করোনার সময়ে সামনের হজ পালনে ইচ্ছুকদের করোনার টিকা নিয়েই সৌদি প্রবেশ করতে হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী  তৌফিক আল-রাবিয়া ।

দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, পবিত্র হজ আয়োজনে এই মহামারির সময়ে সৌদি সরকার সব প্রস্তুতি নিয়েছে। হজ ব্যবস্থাপনার যাতে কোনও ত্রুটি না হয় সেজন্য মদিনার স্বাস্থ্য খাতে প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে বলেও জানান তিনি।

 আরও পড়ুন


গুপ্তচরবৃত্তির ইসরাইলি জাহাজে ইরানের হামলা!

ওটিটি প্ল্যাটফর্মেও ডাবল ব্লকবাস্টার দৃশ্যম টু!

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে পাক-ভারত!

অপো নতুন ফোনে থাকছে ১২ জিবি র‌্যাম


উল্লেখ্য মহামারি করোনার কারণে গত বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ওমরাহ বন্ধ করে দেয় সৌদি সরকার। দীর্ঘ প্রায় ৮ মাস বন্ধ থাকার পর গত বছরের ৪ অক্টোবর থেকে কঠোর নজরদারি ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুরু করা হয়।

মহামারি করোনার দ্বিতীয় ধাপে যুক্তরাজ্য এবং অন্যান্য ইউরোপীয় দেশগুলোতে নতুন করে কোভিড-১৯ এর প্রাদূর্ভাব দেখা যাওয়ায় বছরের শেষ সপ্তাহে বহিঃবিশ্বের সঙ্গে আবারও বিমান চলাচল এক সপ্তাহের জন্য বন্ধ করা হলে এখন আবার যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু হয়েছে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

৮ বছরে ইরানের গ্যাস রপ্তানি দ্বিগুণ

অনলাইন ডেস্ক

৮ বছরে ইরানের গ্যাস রপ্তানি দ্বিগুণ

ইরানের জাতীয় গ্যাস কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হাসান মোন্তাজের তোরবাতি বলেছেন, গত আট বছরের মধ্যে তার দেশের গ্যাস রপ্তানির পরিমাণ দ্বিগুণ হয়েছে।

আজ (মঙ্গলবার) তিনি জানান, বর্তমান সরকারের দুই মেয়াদে গ্যাস রপ্তানির এই প্রবৃদ্ধি ঘটেছে এবং চলতি ফার্সি বছরে ১,৮০০ কোটি ঘন মিটার গ্যাস রপ্তানি করেছে। ২০১৩ সালে গ্যাস রপ্তানির পরিমাণ ছিল ৯০০ কোটি ঘন মিটার।

ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ইরানকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তোরবাতি এসব কথা বলেন। তিনি জানান, ইরাক ও তুরস্ক হচ্ছে ইরানি গ্যাসের প্রধান ক্রেতা। একইভাবে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়াতেও বিপুল পরিমাণ গ্যাস রপ্তানি হয়। এসব দেশে ইরানের গ্যাস রপ্তানির ধারা অব্যাহত থাকবে বলে জানান তোরবাতি।


আমাকে ‘বলির পাঁঠা’ বানানো হয়েছে: সামিয়া রহমান

পরবর্তী নির্বাচনে আবারও অংশ নিবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

ইরানের সমঝোতা প্রস্তাব প্রত্যাখ্যানে হতাশ যুক্তরাষ্ট্র

খাশোগি হত্যাকান্ড: রহস্যজনকভাবে বদলে গেল প্রতিবেদনে অভিযুক্তের নাম


ইরানের এ কর্মকর্তা জানান, তার দেশ প্রতিদিন সাড়ে সাত কোটি ঘন মিটার গ্যাস রপ্তানি করে। তিনি জানান, তুরস্কে গ্যাস রপ্তানি বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে। তুর্কি বাজারের অনেক কিছুই সরকারি খাত থেকে বেসরকারি খাতে হস্তান্তর হচ্ছে; সে কারণে ইরানের বেসরকারি খাতের লোকজনকে গ্যাস রপ্তানি বাড়ানোর প্রক্রিয়ায় যুক্ত হওয়া উচিত।

সূত্রঃ পার্সটুডে

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর