টানা দুই বছর মাদ্রাসা ছাত্রীকে ভয় দেখিয়ে আ.লীগ নেতার ধর্ষণ
টানা দুই বছর মাদ্রাসা ছাত্রীকে ভয় দেখিয়ে আ.লীগ নেতার ধর্ষণ

টানা দুই বছর মাদ্রাসা ছাত্রীকে ভয় দেখিয়ে আ.লীগ নেতার ধর্ষণ

অনলাইন ডেস্ক

মাদ্রাসা ছাত্রীকে টানা দুই বছর ধরে ধর্ষণ ও ধর্ষণের ছবি ধারণ করে ব্ল্যাকমেইল করার অভিযোগে মামলা হয়েছে আনোয়ার হোসেন (৫০) নামের এক স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে।

দিনাজপুরের দশম শ্রেণির  ঐ ছাত্রীর বাবা এ ঘটনায় বাদী হয়ে আওয়ামীলীগ নেতাসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে কোতয়ালী থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

মামলার এজাহারে নির্যাতিতা ছাত্রীর বাবা উল্লেখ করেন, তার মেয়ে নবম শ্রেণিতে পড়াকালীন থেকে মাদ্রাসায় যাওয়া-আসার সময় আনোয়ার হোসেন বিভিন্ন কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছে। এক পর্যায়ে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে ছাত্রীটিকে তার প্রাইভেট কারে তুলে নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে ও ভিডিও চিত্র ধারণ করে।

পরবর্তীতে বিভিন্ন সময়ে প্রাইভেটকার চালক ও মাদ্রাসা পিয়নের সহযোগিতায় ছাত্রীটিকে বিভিন্ন স্থানে তুলে নিয়ে গিয়ে বিভিন্ন স্থানে একাধিকবার ধর্ষণ করে।


দেশের ব্যাংকসহ ১৯ সংস্থার ডাটা চুরি হ্যাকার গ্রুফের

ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ শিরক

কবর আজাব থেকে বাঁচতে যে দুয়া বিশ্বনবি শিখিয়েছেন

দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ ‌`জুমার’ দিনে যা করবেন


এ সময় ছাত্রীটি বাধা দিলে আনোয়ার হোসেন নিজেকে নেতা পরিচয় দিয়ে হুমকি-ধমকি দেয় এবং বিয়ের প্রলোভন দেয়। এরপর বিষয়টি কাউকে জানালে ধারণকৃত ভিডিও চিত্র ভাইরাল করে দিয়ে পরিবারের চরম ক্ষতিসাধনের হুমকি দেয় ওই নেতা।  

আসামি আনোয়ার হোসেন দিনাজপুর সদর উপজেলার ২নং সুন্দরবন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলার রামডুবি এলাকার মৃত শাহ মোঃ মমির উদ্দীনের ছেলে। মামলার অন্য দুইজন আসামির মধ্যে আনোয়ার হোসেনের গাড়ি চালক বেলবাড়ী গ্রামের মোঃ মানিক (৪৮) এবং ফুলবন ফাজিল মাদ্রাসার পিয়ন মোঃ হাফেজ (৪৮)।

মামলার ১০ দিন পেরিয়ে গেলেও পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। আসামিরা প্রভাবশালী হওয়ায় আতঙ্কের মধ্যে দিন পার করছে নির্যাতিতা পরিবারটি।

news24bd.tv/আলী