খুলনায় হত্যা মামলায় চারজনের যাবজ্জীবন

সামছুজ্জামান শাহীন, খুলনা

খুলনায় হত্যা মামলায় চারজনের যাবজ্জীবন

খুলনার ডুমুরিয়ায় ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালক আছমাউল মোড়ল ওরফে জীবন (২৮) হত্যা মামলায় চারজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

একই সাথে প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরও তিন মাাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আজ (সোমবার) দুপুরে বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক মো. জিয়া হায়দার এ রায় ঘোষণা করেন।

আরও পড়ুন:


স্ত্রীকে সৌদি পাঠিয়ে ৮ বছরের মেয়েকে নিয়মিত ধর্ষণ করে বাবা

বন্ধুর স্ত্রীর ‘গোপন ভিডিও’ ধারণ, ভয় দেখিয়ে আটমাস ধরে ‘ধর্ষণ’

কুমিল্লাগামী বাসে দরজা-জানালা বন্ধ করে তরুণীকে ধর্ষণ!

কলাইক্ষেতে নারীর অর্ধনগ্ন মরদেহ, পাশে পাজামা-ছাতা-স্যান্ডেল


নিহত আছমাউল মোড়েল ডুমুরিয়ার বাগদাড়ি নোয়াকাঠি এলাকার জহুরুল হক মোড়লের ছেলে।

সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলো- শুভংকর রায় (২৫), সুধাময় বালা ওরয়ে সুধাবৃন্দ বালা (৩০), অমিত বিশ্বাস (২৮) ও দিপংকর রায় (২৮)। এদের সকলের বাড়ি ডুমুরিয়ার বান্দা উলোর ডাঙ্গা নামক স্থানে। রায় ঘোষণাকালে আসামিরা কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। ২০০৭ সালের ১৯ অক্টোবর রাতে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে।

পুলিশ জানায়, আসামিরা মোটরসাইকেল নিয়ে ডুমুরিয়ার রংপুরে যাওয়ার কথা বলে ১৯ অক্টোবর রাতে আছমাউলকে মোবাইল ফোনে ডেকে নেয়। এরপর থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। পরের দিন ২০ অক্টোবর ডুমুরিয়ার খড়িয়ার ওয়াবদার নিকট থেকে বুকে ছুরিবিদ্ধ অবস্থায় আছমাউলের লাশ উদ্ধার হয়। এ ঘটনায় নিহতের ভাই হাবিবুর রহমান বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামী করে ডুমুরিয়া থানায় মামলা করেন।

তদন্ত কর্মকর্তা ও ডুমুরিয়া থানা-পুলিশের উপপরিদর্শক লস্কর জায়াদুল হক ২০০৮ সালের ৬ আগস্ট আসামির সকলকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়। মামলায় এজাহারভূক্ত ৮ আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

সুনামগঞ্জের ঘুঙ্গিয়ারগাঁওয়ে তিন দিনের জন্য ১৪৪ ধারা

অনলাইন ডেস্ক

সুনামগঞ্জের ঘুঙ্গিয়ারগাঁওয়ে  তিন দিনের জন্য ১৪৪ ধারা

একই জায়গায় এক সময়ে কীর্তন ডাকায় সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার বাহারা ইউনিয়নের ঘুঙ্গিয়ারগাঁও গ্রামে তিন দিনের জন্য ১৪৪ ধারা জারি করা।

এ তথ্য নিশ্চিত করেন শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে শাল্লা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো.আল মোক্তাদির হোসেন।

উপজেলা প্রশাসনের সূত্র জানায়, শাল্লা উপজেলার ঘুঙ্গিয়ারগাঁও গ্রামে স্থানীয় মহাদেব গাছতলা কীর্তনকে কেন্দ্র করে এক গ্রাম দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে একই জায়গায় এক সময়ে কীর্তন করতে চাচ্ছে গ্রামবাসী। এ নিয়ে গত কয়েকদিন যাবত গ্রামে উত্তেজনা চলছে।


অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

মেয়েকে তুলে নিয়ে মাকে রাত কাটানোর প্রস্তাব অপহরণকারীর

নাসির বিয়ে করেছেন আপনার খারাপ লাগে কেন?

ঘুমন্ত স্বামীর পুরুষাঙ্গ কাটলেন স্ত্রী


এতে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ রোধে ঘুঙ্গিয়ারগাঁও গ্রামে স্থানীয় মহাদেব গাছতলা ৪০০ শত গজের মধ্যে শুক্রবার বিকাল ৩ টা থেকে আগামী (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১ টা পর্যন্ত কোনো ধরনের ব্যক্তির চলাফেরা, সমাবেশ, কীর্তনসহ কোন কিছু করা যাবে না।

শাল্লা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো.আল মোক্তাদির হোসেন জানান, এক গ্রাম দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে একই স্থানে কীর্তন করতে চাচ্ছে সেই জন্য গত কয়েক দিন যাবত ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নবম শ্রেণির কিশোরী ধর্ষণের মামলায় কনস্টেবল গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

নবম শ্রেণির কিশোরী ধর্ষণের মামলায় কনস্টেবল গ্রেপ্তার

ফেনীতে কিশোরীকে ধর্ষণের মামলায় তৌহিদুল ইসলাম শাওন নামে এক পুলিশ কনস্টেবলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার তার বর্তমান কর্মস্থল রাঙ্গামাটি থেকে গ্রেপ্তার করে শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) আদালতের মাধ্যমে ফেনী কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে তিনি ফেনীর ফুলগাজী থানায় কর্মরত ছিলেন।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, পুলিশ কনস্টেবল তৌহিদুল ইসলাম বছরখানেক আগে ফেনীর ফুলগাজী থানায় কর্মরত ছিলেন। তখন তিনি স্থানীয় নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। একদিন ঘুরে বেড়ানোর কথা বলে ফেনী শহরের একটি বাসায় নিয়ে ফলের জুসের সঙ্গে চেতনানাশক ওষুধ মিশিয়ে মেয়েটিকে পান করান শাওন। এতে ওই কিশোরী অচেতন হয়ে পড়লে তাকে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ করেন তিনি।

জ্ঞান ফেরার পর ওই কিশোরী ধর্ষণের বিষয়টি বুঝতে পেরে এর প্রতিবাদ করে। তখন তার অশ্লীল ভিডিও ধারণ করা হয়েছে জানিয়ে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন শাওন। ওই ভিডিওর জেরে বিভিন্ন সময় ভয়ভীতি দেখিয়ে একাধিকবার ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করেন অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য। এতে ওই ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে।


অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

মেয়েকে তুলে নিয়ে মাকে রাত কাটানোর প্রস্তাব অপহরণকারীর

নাসির বিয়ে করেছেন আপনার খারাপ লাগে কেন?

ঘুমন্ত স্বামীর পুরুষাঙ্গ কাটলেন স্ত্রী


পরে কিশোরীর পরিবার তাদের মেয়ের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি জানতে পেরে বিষয়টি সমাধানের জন্য শাওনকে বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকে। এক পর্যায়ে শাওন ধারণ করা সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার দেয়ার ভয় দেখিয়ে সেই বিয়ে আটকান। তবে গত ১২ ফেব্রুয়ারি ওই কিশোরী একটি সন্তান জন্ম দিলে বিষয়টি জনসম্মুখে চলে আসে।

এর জেরে বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) ফেনীর আদালতে কিশোরীর মা বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর ফেনীর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কামরুল হাসান কিশোরীর ২০ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করে আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। পরে এ ঘটনায় তৌহিদুল ইসলাম শাওনকে তার বর্তমান কর্মস্থল রাঙ্গামাটি থেকে গ্রেফতার করা হয়।

ফুলগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কুতুব উদ্দিন পুলিশ সদস্য শাওনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ পৌর নির্বাচন স্থগিতের আদেশ

তানভীর আজাদ মামুন, জামালপুর

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ পৌর নির্বাচন স্থগিতের আদেশ

পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন। শুক্রবার দুপুরে নির্বাচন কমিশন সচিবালয় এই নির্বাচন স্থগিতের আদেশ জারি করে।

নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের নির্বাচন পরিচালনা ২ অধিশাখার উপ সচিব মো. আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত এক আদেশে জানানো হয়েছে, আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।


গণধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে কলেজছাত্রীর গায়ে আগুন

বাবার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে রাতধর ধর্ষণের শিকার মেয়ে

৩০-৩২ গার্লফ্রেন্ড থাকার পরও আমাকে ভালোবাসত নাসির: তামিমা

আমার সব প্রশ্নের জবাব ইসলামে পেয়েছি: কানাডিয়ান নারী


জামালপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা নির্বাচন স্থগিতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, নির্বাচন স্থগিত হওয়ায় দেওয়ানগঞ্জ ব্যতিত আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি জামালপুর, ইসলামপুর ও মাদারগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন স্থগিত

তানভীর আজাদ মামুন, জামালপুর

দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন স্থগিত

২৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত স্থগিত ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

আকবর হোসেন সোহাগ, নোয়াখালী

অস্ত্রের মুখে ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের পর দফায় দফায় ধর্ষণ

কোমলপানীয়র সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে মাকে অচেতন করে অস্ত্রের মুখে মেয়েকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণের অভিযোগ উঠেছে। নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের এ ঘটনা এখন টপ অফ দ্যা কান্টি। ওই ছাত্রী প্রায় দুই মাস ধরে নিখোঁজ রয়েছে।

এ ঘটনায় নোয়াখালী বেগমগঞ্জ মডেল থানায় বৃহস্পতিবার রাতে মামলা করা হয়েছে।

আসামিরা হলো- বেগমগঞ্জে উপজেলার আলাইয়ারপুরে হীরাপুর গ্রামের  রাসেল (২৫), জোবায়ের (২৪), সাইফুল ইসলাম ইমন (২২) এবং ফয়সাল নামের ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগীর মা।

বৃহস্পতিবার রাতে বেগমগঞ্জ পুলিশ অভিযান চালিয়ে সাইফুল ইসলাম ইমন ও ফয়সালকে গ্রেপ্তার করেছে।

ওই ছাত্রীর মা সাংবাদিকদের বলেন, ২০১৮ সাল থেকে একই এলাকার ইমন, রাসেল আমার মেয়েকে উত্ত্যক্ত করে। একদিন রাসেল ও ইমন আমাদের বাড়িতে এসে আমাকে কৌশলে কোমলপানীয়র সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে আমাকে অচেতন করে অস্ত্রের মুখে মেয়েকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ করে। পরে এক দোকানিকে ডেকে এনে জোর করে মেয়ের সঙ্গে দাঁড় করিয়ে উভয়কে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করে তারা।

‘পরে ওই ভিডিও ভাইরাল করার ভয় দেখিয়ে টাকা, স্বর্ণালংকার নিয়ে যায় এবং একাধিকবার তার মেয়েকে ধর্ষণ করে। বাধ্য হয়ে মেয়েকে বিয়ে দিয়েও রেহাই পাইনি। বিয়ের পরে মেয়ে বেড়াতে আসলে তাকে  তুলে নিয়ে যায়। এ সময় তারা ঘর থেকে ৫০ হাজার টাকা, ১ ভরি স্বর্ণালংকারও নিয়ে যায়। এরপর থেকেই ভিডিও ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে নিয়মিত চাঁদা নিতে থাকে।’

তিনি বলেন, দীর্ঘ তিন বছরেরও বেশি সময় সন্ত্রাসীদের ভয়ে মুখ খোলেননি। এবার থানায় অভিযোগ দিয়েও কোনো সুফল পাননি। বর্তমানে তারা অসহায় হয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের সাহায্যে পুনরায় আইনের আশ্রয় নিয়েছেন।


গণধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে কলেজছাত্রীর গায়ে আগুন

বাবার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে রাতধর ধর্ষণের শিকার মেয়ে

৩০-৩২ গার্লফ্রেন্ড থাকার পরও আমাকে ভালোবাসত নাসির: তামিমা

আমার সব প্রশ্নের জবাব ইসলামে পেয়েছি: কানাডিয়ান নারী


ছাত্রী মা বলেন, ‘বিয়ের পরে মেয়ে বেড়াতে আসলে তাকে তুলে নিয়ে যায়। উঠিয়ে নেওয়ার তিন মাস পরে রাসেলকে ৫০ হাজার টাকা দিয়ে মিরপুরের একটি বাসা থেকে তাকে উদ্ধার করে আনি। এ ঘটনার ১৫ দিন পর রাসেল পুনরায় মেয়েকে বাড়ি থেকে নিয়ে যায়। ১০ দিন পর আবারও ১০ হাজার টাকা দিয়ে মেয়ে নিয়ে আসি।’

তিনি বলেন, ‘সর্বশেষ গত ২৪ ডিসেম্বর রাসেল আবার আমার মেয়েকে নিয়ে যায়। এখনো সে কোথায় আছে, কীভাবে আছে জানি না। গত সপ্তাহে রাসেল প্রস্তাব দিয়েছে এবার ১ লাখ টাকা দিতে। টাকা না দিলে আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে।’

ভুক্তভোগীর মা বলেন, ‘মেয়ের সন্ধান চাইলে ইমন আমাকে তার সঙ্গে এক রাত কাটানোর প্রস্তাব দেয়। সে বলে তার সঙ্গে রাত কাটালে আমাকে মেয়ের সন্ধান দেবে।’

আলাইয়ারপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান বলেন, ‘এরা সবাই এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। এদের নামে একাধিক মামলা রয়েছে। বর্তমানে ওই মেয়ের বিষয়ে আমি কিছুই শুনিনি।

ঘটনার ব্যাপারে বেগমগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কামরুজ্জামান শিকদার জানান, রাতেই ইমন ও ফয়সালকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ওই মাদ্রাসাছাত্রীকে উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর