নিজের ৭ কোটি টাকা বেতন কমিয়ে বৃদ্ধি করলেন কর্মীদের বেতন

অনলাইন ডেস্ক

নিজের ৭ কোটি টাকা বেতন কমিয়ে বৃদ্ধি করলেন কর্মীদের বেতন

এমন নজির সত্যিই বিরল। কারণ কর্মীরা সব কিছু করতে পারে কিন্তু বেতন নিয়ে কোন ছাড় দেয় না কেউ। অফিসের সকল নিয়ম অনিয়ম মেনে নিলেও একজন কর্মীর অভিযোগের শেষ নেই। কিন্তু এমন একটি সংস্থা রয়েছে যেখানে না চাইতেই এই করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও কর্মীদের বিপুল পরিমাণ বেতন বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

কর্মীদের বেতন বাড়াতে গিয়ে নিজের বেতন কমিয়ে দিয়েছেন সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা তথা সিইও! সংস্থা থেকে প্রতি বছরে কর্মচারীদের সমান বেতন নিচ্ছেন তিনিও!

সংস্থাটির নাম গ্রাভিটি পেমেন্টস। আর কর্মীবান্ধব এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে সারাবিশ্বের নজরে এসেছেন সংস্থার সিইও ড্যান প্রাইস। মাত্র ১৯ বছর বয়সে গ্রাভিটি পেমেন্টস সংস্থা চালু করেন তিনি। তখন তিনি কলেজে পড়েন। একটি ঘর থেকেই শুরু হয়েছিল গ্রাভিটি পেমেন্টসের যাত্রা।

গ্রাভিটি পেমেন্টস একটি ক্রেডিট কার্ড প্রসেসিং সংস্থা। এর সদর দপ্তর ওয়াশিংটনের বালার্ডে। ২০০৪ সালে ড্যান প্রাইস এবং তাঁর ভাই লুকাস সংস্থাটি প্রতিষ্ঠা করেন। মাত্র ৪ বছরের মধ্যেই ওয়াশিংটনের সবচেয়ে বড় ক্রেডিট কার্ড সংস্থায় পরিণত হয় এটি। সংস্থাটির গ্রাহকের সংখ্যা এখন ১৫ হাজারেরও বেশি।

শ’দুয়েক কর্মী কাজ করেন এই সংস্থায়। ২০১৫ সালে ছোট্ট এই সংস্থাটি সংবাদমাধ্যমের দৃষ্টি আকর্ষণ করে যখন এর সিইও ড্যান তাঁর সংস্থার প্রত্যেক কর্মীর বেতন অন্তত ৭০ হাজার ডলার করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন। ২০১৯ সালে প্রত্যেক কর্মীর বেতন ১০ হাজার ডলার বাড়িয়ে দেন তিনি। প্রতি বছরই এ ভাবে বেতন বৃদ্ধি পাচ্ছে কর্মীদের।

আরও পড়ুন:


‘ফ্রান্সের অস্ত্র বিক্রির কারণে বিপর্যস্ত ইয়েমেন’

বরিশালে ট্রাক চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত

লেখক সৈয়দ আবুল মকসুদের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া কাল

কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যুর ঘটনায় টরন্টো সংস্কৃতিকর্মীদের প্রতিবাদ


কঠিন সময়ে এবং মূল্যবৃদ্ধির আবহে যাতে কোনও কর্মচারীকেই সমস্যায় না পড়তে হয় তার জন্যই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সিইও ড্যান। ড্যান আগের বছরে সংস্থা থেকে ১০ লক্ষ ডলার বেতন নিতেন। এখন তিনি বছরে মাত্র ৭০ হাজার ডলার বেতন নেন। অর্থাৎ ৯ লক্ষ ৩০ হাজার ডলার।

ড্যানের এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে একমত হতে পারেননি সংস্থার সহ প্রতিষ্ঠাতা এবং তাঁর ভাই লুকাস। এ নিয়ে দু’জনের মধ্যে আইনি লড়াইও চলেছে। তবে দু’ভাইয়ের মধ্যে মতবিরোধ থাকলেও এই সিদ্ধান্তে আখেরে সংস্থার লাভ হয়েছে অনেকটাই। ২০১৪ সালে যা লাভ করছিল সংস্থাটি ওই ঘোষণার পর তা দ্বিগুণ হয়ে যায়।

২০২০ সালে মহামারির প্রভাব পড়ার আগে পর্যন্ত প্রতি মাসে ৪০ লাখ ডলার আয় করেছিল সংস্থাটি। ড্যানের এখন বয়স ৩৬ বছর। ৩১ বছরেই ড্যান কোটিপতি হয়ে গিয়েছিলেন। তাঁর মতে, যে সমস্ত ধনকুবের নিজেদের আয়ের সামান্য অংশ দান করেন বা হয়তো নিজের নামে কোনও হাসপাতাল বানান, বেশির ভাগই কর ফাঁকি দেওয়ার উদ্দেশ্যে এমন করে থাকেন। তিনি যে সে পথে হাঁটেত নারাজ তা-ও জানান তিনি।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ভারতে করোনায় মৃতের লাশ ফেলে দেওয়া হচ্ছে, অভিযোগ স্বজনদের

অনলাইন ডেস্ক

ভারতে করোনায় মৃতের লাশ ফেলে 
দেওয়া হচ্ছে, অভিযোগ স্বজনদের

ভারতের মধ্যপ্রদেশে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতদের মরদেহ স্বজনদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ করা হয়েছে। বরং তাদের না জানিয়েই দূরে মরদেহ ফেলে দেওয়া হচ্ছে।

রাজ্যটির রাজধানী ভোপাল থেকে ৫৭ কিলোমিটার দূরে বিদিশা জেলা হাসপাতালে এমনই একটি মর্মান্তিক ভিডিও দেখা গেছে।

ভিডিওতে দেখা যায়, করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া এক ব্যক্তির মরদেহ নিয়ে হাসপাতাল থেকে একটি অ্যাম্বুলেন্স বেরিয়ে এসেছে। হাসপাতালের ফটক পেরিয়ে মোড়ে পৌঁছে মরদেহটি ছুড়ে ফেলে দিয়েছে। অ্যাম্বুলেন্সটির হাড্ডিসার চালককে আতঙ্কগ্রস্ত অবস্থায় দেখা গেছে।


আরও পড়ুনঃ


বাঙ্গি: বিনা দোষে রোষের শিকার যে ফল

আপনি কী করেন? এটি মোটেও নিরীহ প্রশ্ন নয়

সড়ক দুর্ঘটনায় রাস্তাটি গুরুতরভাবে আহত হয়েছে: নোবেল

লকডাউনে 'বান্ধবীর' সাথে দেখা করতে যুবকের আকুতি, পুলিশের রোমান্টিক জবাব!


এরপর দুজন লোক সেখানে দৌড়ে চলে যান। যদিও তখন পিপিই-পরা একজন লোককে অ্যাম্বুলেন্সের ভেতর থেকে উঁকি দিতে দেখা গেছে।
অভিযোগে বলা হচ্ছে, স্বজনদের না জানিয়েই মরদেহ দূরে ফেলে দিয়ে আসছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।
উল্লেখ্য, মহমারির দ্বিতীয় ঢেউ সবচেয়ে জোরে আছড়ে পড়েছে ভারতে। টানা দ্বিতীয় দিন তিন লাখের বেশি নতুন কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে দেশটিতে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মসজিদই যখন করোনা হাসপাতাল!

অনলাইন ডেস্ক

মসজিদই যখন করোনা হাসপাতাল!

করোনাভাইরাসে বিপর্যস্ত পুরো দেশ। বেরিয়ে এসেছে দেশটির ভঙ্গুর চিকিৎসাব্যবস্থার রূপ। এমন অবস্থায় চিকিৎসার অভাবে প্রতিদিনই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছেন অনেকে।

করোনা মহামারিতে রোগীদের চিকিৎসায় মানবিকতার উদাহরণ সৃষ্টি করেছে ভারতের গুজরাটের মুসলমানরা। করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় মসজিদকেই তৈরি করা হয়েছে ৫০ শয্যার কোভিড হাসপাতালে।

এ হাসপাতালে প্রতিদিনই ভর্তি হচ্ছেন করোনা আক্রান্ত রোগী। চাপ বাড়ায় হাসপাতালের পরিধি বাড়াতে কাজ শুরু করেছে মসজিদ কমিটি।


আরও পড়ুনঃ


বাঙ্গি: বিনা দোষে রোষের শিকার যে ফল

আপনি কী করেন? এটি মোটেও নিরীহ প্রশ্ন নয়

সড়ক দুর্ঘটনায় রাস্তাটি গুরুতরভাবে আহত হয়েছে: নোবেল

লকডাউনে 'বান্ধবীর' সাথে দেখা করতে যুবকের আকুতি, পুলিশের রোমান্টিক জবাব!


জাহাঙ্গীরপুরা মসজিদের ট্রাস্টি ইরফান শেখ বলেন, 'আমরা মসজিদকে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য হাসপাতাল হিসেবে ব্যবহার করছি। এই মুহূর্তে ৫০টি বেডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রয়োজন হলে এ সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে।'

দুই সপ্তাহ আগে গুজরাটেরই স্বামী নারায়ণ মন্দিরে তৈরি করা হয় ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট অস্থায়ী কোভিড হাসপাতাল।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চিঠি লিখে ভ্যাকসিন ফেরত দিলো চোর

অনলাইন ডেস্ক

চিঠি লিখে ভ্যাকসিন ফেরত দিলো চোর

ঘটনা ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের। জিন্দো জেনারেল হাসপাতালের স্টোররুম থেকে চুরি হয়ে গিয়েছিল ১,৭০০ করোনা ভ্যাকসিন। কিন্তু এরপর চিঠি লিখে সেই ভ্যাকসিন ফেরত দিয়েছে চোর।

জিন্দো সিভিল লাইন্স থানার সামনে ১,৭০০ ভ্যাকসিন এবং একটি চিঠি রেখে যায় সেই চোর। চোরের লেখা ওই চিঠিটি হিন্দিতে লেখা। ওই চিঠিতে লেখা রয়েছে, ‘দুঃখিত, আমি বুঝতে পারিনি যে এগুলি করোনার ভ্যাকসিন।’ 


আরও পড়ুনঃ


বাঙ্গি: বিনা দোষে রোষের শিকার যে ফল

৫৩ জন নাবিকসহ নিখোঁজ ইন্দোনেশিয়ার সাবমেরিন

ভিক্ষা করে হলেও অক্সিজেন সরবরাহের নির্দেশ ভারতে

১৫ বছর ধরে কাজে যান না, বেতন তুললেন সাড়ে ৫ কোটি টাকা!


জিন্দো সিভিল লাইন্স থানা এলাকায় সিসিটিভি ফুটেজ দেখে চোরেদের শনাক্ত করার চেষ্টা করছে পুলিশ।

চোরের খোঁজে তল্লাশিও শুরু করেছে পুলিশ কর্মকর্তারা। যদিও চুরি যাওয়া ভ্যাকসিন ফিরিয়ে দিয়ে মানবিকতার পরিচয় দিল এই চোর।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চেষ্টা করেও সিরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র আটকাতে ব্যর্থ হয়েছি: ইসরাইলি যুদ্ধমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

চেষ্টা করেও সিরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র আটকাতে ব্যর্থ হয়েছি: ইসরাইলি যুদ্ধমন্ত্রী

দিমোনা পরমাণু স্থাপনার কাছে আঘাতকারী সিরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্রটি আটকানোর চেষ্টা করেও তারা ব্যর্থ হয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন ইসরাইলের যুদ্ধমন্ত্রী বেনি গান্তয। বৃহস্পতিবার তেল আবিবে তিনি এ স্বীকারোক্তি দিয়েছেন বলে টাইমস অব ইসরাইল জানিয়েছে।

গান্তয বলেছেন, “ক্ষেপণাস্ত্রটি ঠেকানোর জন্য চেষ্টা করা হয়েছিল যা ব্যর্থ হয়েছে। আমরা এখনো বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।”

এর আগে বৃহস্পতিবার দিনের শুরুতে ইসরাইলি সেনাবাহিনী জানায়, একটি ইসরাইলি জঙ্গিবিমানকে লক্ষ্য করে সিরিয়ার এস-২০০ আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা থেকে একটি এসএ-৫ ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়। ক্ষেপণাস্ত্রটি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে ইসরাইলের চরম-গোপনীয় ও বহু বিতর্কিত দিমোনা পরমাণু স্থাপনার ৩০ কিলোমিটারের মধ্যে আঘাত হানে। ইহুদিবাদী ইসরাইলের প্রধান পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচি এই স্থাপনায় পরিচালিত হয়।


আরও পড়ুনঃ


বাঙ্গি: বিনা দোষে রোষের শিকার যে ফল

৫৩ জন নাবিকসহ নিখোঁজ ইন্দোনেশিয়ার সাবমেরিন

ভিক্ষা করে হলেও অক্সিজেন সরবরাহের নির্দেশ ভারতে

১৫ বছর ধরে কাজে যান না, বেতন তুললেন সাড়ে ৫ কোটি টাকা!


ইসরায়েলি যুদ্ধমন্ত্রী দাবি করেন, এ ধরনের অতি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনার ব্যাপারে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী সব সময় সতর্ক থাকে। স্পর্শকাতর স্থাপনাগুলোর নিরাপত্তা দিতে সেনাবাহিনীকে সর্বোচ্চ সচেষ্ট রাখা হয়।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ভারতে করোনার দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যুতে নতুন রেকর্ড

অনলাইন ডেস্ক

ভারতে করোনার দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যুতে নতুন রেকর্ড

ভারতে করোনার দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যুতে নতুন রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে। দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, ভারতে এক দিনে রেকর্ডসংখ্যক ২ হাজার ২৬৩ জন করোনায় মারা গেছেন। আর শনাক্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৩২ হাজার ৭৩০। এটি একটি বিশ্ব রেকর্ড। বিশ্বের কোনো দেশে এখন পর্যন্ত এক দিনে এত রোগী আগে কখনো শনাক্ত হয়নি।

ভারত সরকারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১ কোটি ৬২ লাখ ৬৩ হাজার ৬৯৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত ভারতে করোনায় মারা গেছেন ১ লাখ ৮৬ হাজার ৯২০ জন।

এদিকে, রাজধানী নয়াদিল্লিসহ বেশ কয়েকটি রাজ্যের হাসপাতালে একেবারেই অক্সিজেন নেই বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এতে ভেঙে পড়েছে চিকিৎসা ব্যবস্থা। 

এ অবস্থায় দেশটিতে ট্রিপল মিউট্যান্ট বা তিনবার রূপ পরিবর্তনকারী তিনগুণ বেশি শক্তিশালী নতুন করোনার সন্ধান মিলেছে। যা টিকা নিলেও প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়।

করোনা প্রকোপের সবচেয়ে খারাপ সময় পার করছে ভারত। একদিনে সাড়ে তিন লাখের মতো মানুষ কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হওয়া বিশ্বে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। দিল্লি ছাড়াও, মহারাষ্ট্র, উত্তরপ্রদেশ, পাঞ্জাব, ছত্তিশগড়, পশ্চিমবঙ্গসহ বেশ কয়েকটি রাজ্যের অবস্থা সব থেকে খারাপ। অনেক স্থানে লকডাউন বা বিধিনিষেধ চলছে। তবুও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসছে না।


আরমানিটোলায় কেমিক্যাল গোডাউনের অগ্নিকাণ্ডে নিহত ৪, দগ্ধ ২০

করোনার ভয়ে ভারত ছাড়লো শাহরুখের পরিবার

রাহমানিয়া মাদ্রাসায় রাজনীতি ঢোকান বাবা আজিজুল, দখল করে রাখেন ছেলে মাওলানা মামুনুল, অভিযোগ শিক্ষকদের

ফর্মুলা দেবে রাশিয়া, করোনার টিকা উৎপাদন করবে বাংলাদেশ


অক্সিজেন না পেয়ে রোগীকে নিয়ে এক হাসপাতাল থেকে অন্য হাসপাতালে ছোটাছুটি খবরও জানিয়েছে দেশটির গণমাধ্যমগুলো। 

স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, যে পরিমাণ অক্সিজেন দরকার তার কিছুই নেই তাদের কাছে। চরম সংকটের কারণে দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল। দুই হাজারের বেশি মানুষ প্রতিদিন মারা যাচ্ছেন।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর