নোয়াখালীতে গৃহবধূকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

অনলাইন ডেস্ক

নোয়াখালীতে গৃহবধূকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা তমরদ্দী ইউনিয়নে ক্ষিরোদিয়ায় এক গৃহবধূকে (২০) বাড়ী থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনায় গৃহবধূর দায়ের করা মামলায় তিন আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে হাতিয়া থানা পুলিশ। বুধবার সকালে তমরদ্দী এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। 

গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছেন, ২নং ওয়ার্ডের ক্ষিরোদিয়া গ্রামের মোয়াজ্জেম হোসেনের ছেলে ফজল আলী হেলাল (২৫), আবদুর রহিমের ছেলে মিরাজ (২৮) ও মৃত খোরশেদ আলমের ছেলে নেজাম (৫০)।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি রাতে খাওয়া শেষে পরিবারের সদস্যদের সাথে ঘুমিয়ে পড়েন গৃহবধূ। রাত ১১টা ৪৫মিনিটের সময় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘুম থেকে উঠে ঘরের বাইরে যান ওই গৃহবধূ।


যে জায়গায় মিল পাওয়া গেছে বুবলী-দীঘির

সোনালির প্রেমে পড়ে স্ত্রীকে ডিভোর্স দিতে চেয়েছিলেন যেসব তারকারা

পুলিশ হেফাজতে আইনজীবীর মৃত্যু: বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ

ভাসানচরে যাচ্ছে দুই হাজারের বেশি রোহিঙ্গা


কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই ফজর আলী হেলাল গৃহবধূর মুখ চেপে ধরে বাড়ীর পশ্চিম পাশের একটি পুকুর পাড়ে নিয়ে যায়। পরে ওই স্থানে থাকা মিরাজের সহযোগিতায় হেলাল ও নেজাম পালাক্রমে তাকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। 

পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় বুধবার সকালে বিচারিক আদালত-৩, হাতিয়া আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. নিজাম উদ্দিনের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেন আসামি ফজল আলী হেলাল। 

হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় ওই গৃহবধূ বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাতে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। অভিযান চালিয়ে মামলার এজাহারভুক্ত তিন আসামীকে গ্রেপ্তার করে বুধবার সকালে তাদের বিচারিক আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। 

news24bd.tv আয়শা

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মুন্সীগঞ্জে দুই গ্রামে গোলাগুলি ও সংঘর্ষে দুইজন গুলিবিদ্ধ

অনলাইন ডেস্ক

মুন্সীগঞ্জে দুই গ্রামে গোলাগুলি ও সংঘর্ষে দুইজন গুলিবিদ্ধ

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার ছোট মোল্লাকান্দি ও খাসকান্দি গ্রামের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে দুইজন গুলিবিদ্ধসহ সাতজন আহত হয়েছেন। দফায় দফায় সংঘর্ষে ব্যাপক ককটেল ও গুলিবর্ষণ হয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

গুলিবিদ্ধ আনোয়ার (২২) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও সুজনকে (১৯) মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত মো. রুবেল (২২) নামে এক যুবককে পুলিশ আটক করেছে বলে জানা গেছে। অপর আহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি। তবে আহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করছে এলাকাবাসী।

জানা গেছে, চর কেওয়ার ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আফসার উদ্দিন ভূঁইয়া ও বর্তমান চেয়ারম্যান আখতারুজ্জামান জীবন গ্রুপের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে।

শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) বিকেল থেকে থেমে থেমে বেশ কয়েকটি স্থানে ককটেল বিস্ফোরণ, গোলাগুলি ও বাড়ি ঘর ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মিনহাজুল ইসলাম বলেন, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে উপজেলার ছোট মোল্লাকান্দি ও খাসকান্দি গ্রামের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। 

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি) আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, ঘটনাস্থলে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন আছে। পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে আটক করেছে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

থানা থেকে পালিয়ে আবারও পুলিশের হাতে ধরা আসামি

অনলাইন ডেস্ক

থানা থেকে পালিয়ে আবারও পুলিশের হাতে ধরা আসামি

মোটরসাইকেল চুরির মামলার আসামী শাহজালাল ইসলাম (৩২)কে আটক করে থানায় নিয়ে আসে রংপুরের পীরগাছা থানা পুলিশ। কিন্তু আটকের পর থানা থেকে পালিয়ে যায় শাহজালাল। 

শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) দুপুর ১টার দিকে পীরগাছা থানা থেকে ওই আসামিকে আদালতে পাঠানোর সময় এ ঘটনা ঘটে।

কিন্তু পালিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি শাহজালাল ইসলামের। পালানোর তিন ঘন্টা পর আবারও তাকে আটক করে পুলিশ।

পীরগাছা থানা পুলিশ জানায়, শুক্রবার ভোরে পীরগাছা উপজেলার পারুল এলাকা থেকে মোটরসাইকেল চুরির মামলায় শাহজালাল ও শরিফুল নামের দুইজনকে আটক করে পুলিশ। পরে দুপুর ১টার দিকে পীরগাছা থানা থেকে আটকদের জেলহাজতে পাঠানোর জন্য প্রস্তুতি নেওয়া হয়। এ সময় দুই আসামিকে একটি হ্যান্ডকাপ লাগানো হয়। কিন্তু শাহজালালের হাতে থাকা হ্যান্ডকাপটি লুজ থাকায় সবার অজান্তে হ্যান্ডকাপ খুলে পালিয়ে যান তিনি। পরে তিন ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে পীরগাছা উপজেলার কদমতলা নামক স্থান থেকে তাকে আটক করা হয়।

পীরগাছা থানার ওসি (তদন্ত) শাহীনুর ইসলাম তালুকদার বলেন, হ্যান্ডকাপ লুজ থাকায় হাত খুলে আসামি শাহজালাল পালিয়ে যায়। পরে তাকে অভিযান চালিয়ে আবার আটক করা হয়েছে।

শাহজালাল ইসলাম রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের ছাইফুল ইসলামের ছেলে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

কোর্টের হাজতখানায় স্বামীকে ইয়াবা দিতে গিয়ে ধরা স্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

কোর্টের হাজতখানায় স্বামীকে ইয়াবা দিতে গিয়ে ধরা স্ত্রী

দিনাজপুরের পুলিশ কোর্টের হাজতখানায় আনা হয় চুরির মামলার আসামি মিলন রহমান (২৭)কে। সেখানে তার স্ত্রী রুজিনা বেগম রিক্তা স্বামীকে খাবারের সঙ্গে ১৬ পিস ইয়াবা দেওয়ার সময় পুলিশের কাছে গ্রেফতার হন। ঘটনাটি ঘঠেছে বৃহস্পতিবার দিনাজপুরের পুলিশ কোর্টের হাজতখানায়।

পুলিশ জানিয়েছে, হাজতখানায় স্বামীকে শুকনা খাবারের সঙ্গে ইয়াবা দেওয়ার সময় পুলিশের হাতে গ্রেফতান হন রিক্তা।হাজতখানায় ইয়াবা দেওয়ার অভিযোগে পুলিশ বাদী হয়ে মাদক আইনে কোতয়ালি থানায় মামলা দায়ের করেছে  তার বিরুদ্ধে। 

কোতয়ালি থানার ওসি আবু ইমাম জাফর গণমাধ্যমকে জানান, একটি চুরি মামলার আসামি মিলন রহমান (২৭) পুলিশ কোর্টের হাজতখানায় নিয়ে আসা হয়। এ সময় তার স্ত্রী রুজিনা বেগম রিক্তা শুকনা খাবার দেওয়ার জন্য পুলিশের কাছে যান। হাজতখানায় ডিউটিতে থাকা পুলিশ ওই শুকনা খাবার দিতে না চাইলে রুজিনা কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক শফিকুল ইসলামের কাছে যান এবং তার স্বামীকে খাবার দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানান। এ সময় শুকনা খাবারগুলো যাচাই করতে গিয়ে তার মধ্যে ১৬ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া যাওয়া। 

ওসি আরও জানান, এই ঘটনায় রুজিনাকে ডিবি পুলিশের নিকট হস্তান্তর করা হয়। ডিবি পুলিশের এসআই আলমগীর হোসেন বাদী হয়ে কোতয়ালি থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। রুজিনাকে দুপুর আড়াইটার দিকে সিনিয়ার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইসলমাইল হোসেনের আদালতে হাজির করা হয়। বিচারক তার জবানবন্দি গ্রহণ করে বিকেল ৪টায় জেলহাজতে প্রেরণ করেন।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রাজশাহীতে নকল ওষুধ জব্দ, আটক ১

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

রাজশাহীতে নকল ওষুধ জব্দ, আটক ১

রাজশাহীর চন্দিমা থানা এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ বিভিন্ন কোম্পানীর নকল ওষুধ জব্দ করেছে ডিবি পুলিশ। শুক্রবার রাত ৮টার দিকে পুলিশ এই অভিযান চালায়। দীর্ঘদিন ধরে বাড়িটিতে নকল ওষুধ তৈরি করা হতো।


লকডাউনে শপিংমলে যেতে লাগবে মুভমেন্ট পাস

মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের বৈধ হওয়ার সুযোগ

করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত কমল চট্টগ্রামে

হিরো আলম বললেন, এইটা মরুভূমি না, যমুনা নদীর চর


এ ঘটনায় জড়িত থাকায় পুলিশ আনিস নামের একজনকে আটক করেছে।

পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে আনিস জানিয়েছে, নকল ওষুধগুলো বিভিন্ন উপজেলা পর্যায়ের ফার্মেসিগুলোতে সরবরাহ করতো।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে তিন লাশ, মিলল রক্তাক্ত ধারাল অস্ত্র

অনলাইন ডেস্ক

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে তিন লাশ, মিলল রক্তাক্ত ধারাল অস্ত্র

কক্সবাজারের উখিয়া আশ্রয় শিবিরে স্বামী, স্ত্রী ও শ্যালিকার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)।

শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) সন্ধ্যায় উখিয়ার বালুর মাঠ ক্যাম্প থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

তারা হলেন- কুতুপালং মেগা ক্যাম্পের ২/ইস্ট ক্যাম্পের ডি-৭ ব্লকের আলী হোসেনের ছেলে নুরুল ইসলাম (৩২), নুরুলের স্ত্রী মরিয়ম বেগম (২৬) ও শ্যালিকা হালিমা খাতুন (২২)।

এ তথ্য নিশ্চিত করে ১৪ এপিবিএন এর অধিনায়ক মো. নাঈমুল হক বলেন, উখিয়ার বালুর মাঠ ক্যাম্প এলাকার একটি ঘর থেকে স্বামী-স্ত্রী ও শ্যালিকার রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।


লকডাউনে শপিংমলে যেতে লাগবে মুভমেন্ট পাস

মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীদের বৈধ হওয়ার সুযোগ

করোনায় মৃত্যু ও শনাক্ত কমল চট্টগ্রামে

হিরো আলম বললেন, এইটা মরুভূমি না, যমুনা নদীর চর


প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহের জেরে এ হত্যার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থল থেকে রক্তাক্ত ধারাল অস্ত্রও উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে উখিয়ার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহমেদ সঞ্জুর মোরশেদ বলেন, উখিয়ার আশ্রয় শিবিরে একটি হত্যাকাণ্ডের সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে রওনা হয়েছি।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর