বাংলাদেশ ক্রিকেট একাডেমি বানাতে চায় রাজস্থান রয়্যালস

অনলাইন ডেস্ক


বাংলাদেশ ক্রিকেট একাডেমি বানাতে চায় রাজস্থান রয়্যালস

হুট করেই মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটে রাজস্থান রয়্যালসের কর্তা ব্যক্তিদের আগমন। তাদের এই আগমন উপলক্ষে কয়েক ঘণ্টার জন্য সরগরমও হয়ে উঠেছিল মিরপুরের চত্বর। কারণ রাজস্থানের ক্যাম্প মিরপুরে সম্ভব কিনা, সেটি পর্যবেক্ষণ করতেই তাদের এমন ঝটিকা সফর। পর্যবেক্ষণ শেষে রাজস্থান রয়্যালসের চেয়ারম্যান রঞ্জিত বরঠাকুর জানিয়েছেন, বাংলাদেশে তাদের ক্রিকেট একাডেমি করার ইচ্ছের কথা।

বৃহস্পতিবার (০৪ মার্চ) মিরপুরের হোম অব ক্রিকেট পরিদর্শন শেষে এ মন্তব্য করেছেন তিনি। 

পরিদর্শন শেষে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বারঠাকুর আগমনের কারণ খোলাসা করেন, ‘আমি এখানে স্টেডিয়ামটি দেখতে এসেছি, যে কীভাবে বাংলাদেশের জেলা এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলির মধ্যে সহযোগিতার ভিত্তিতে কাজ করতে পারি। যাতে বাংলাদেশ ও ভারতের অঞ্চলগুলো নিয়ে যৌথভাবে উন্নতি করা যায়।’

এর পরেই বারঠাকুর জানান একাডেমি করার কথা, ‘আমি ভাবছি এখানে (বাংলাদেশে) একাডেমি করবো। যার নাম হবে রয়্যাল একাডেমি।যদিও এটি এখনো চূড়ান্ত হয়নি, ভাবনার মধ্যে আছে।’


বাংলাদেশের সঙ্গে ক্রিকেটীয় সম্পর্ক উন্নোয়নের ধারাবাহিকতায় স্কাউটিং এবং অ্যাকাডেমির বিষয়ে কার্যক্রম শুরু করতে চান তারা। এদিকে, আইপিএলের এবারের মৌসুমে মোস্তাফিজুর রহমান রাজস্থান দলে থাকলেও, দেশের খেলা বাদ দিয়ে সে আসুক, তা চায় না বলেও জানিয়েছেন রঞ্জিত।


গুপ্তচরবৃত্তির ইসরাইলি জাহাজে ইরানের হামলা!

ওটিটি প্ল্যাটফর্মেও ডাবল ব্লকবাস্টার দৃশ্যম টু!

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে পাক-ভারত!

অপো নতুন ফোনে থাকছে ১২ জিবি র‌্যাম


 

রাজস্থান রয়্যালস, ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের প্রথম চ্যাম্পিয়ন। শেন ওয়ার্নের নেতৃত্ব এবং কোচিং দর্শন দিয়ে প্রথম আসরেই সাফল্য তুলে নেয় তারা। এরপর কেটে গেছে অনেক সময়, কিন্তু চূড়ান্ত সাফল্য আর ধরা দেয়নি রয়্যালস শিবিরে। যদিও তা'তে বদলে যায়নি তাদের ক্রিকেট দর্শন। যেখানে তারকার পেছনে না ছুটে, তারকা তৈরিটাই ছিল মূল লক্ষ্য।

রঞ্জিত বরঠাকুর বলেন, রয়্যালসের একটা বড় ফ্যানব্যাজ আছে এখানে। আমরা সেটা আরো কিভাবে বাড়ানো যায় সেটা নিয়ে চিন্তা-ভাবনা শুরু করেছি। আমরা এখানে স্কাউটিং করতে আগ্রহী। আমাদের রাজ্যগুলোতে আমরা যেভাবে কার্যক্রম চালাই, এখানেও সেটা করতে চাই। তবে, কি উপায়ে হবে, তা আলোচনা সাপেক্ষ। আমাদের ক্রিকেট অ্যাকাডেমি আছে, সেখানেই আইপিএলের ক্রিকেটারদের আমরা পরিচর্যা করি। স্কাউটিং এর ফল ভালো আসলে, এখানেও রয়্যাল একাডেমি বানাতে চাই।'

কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ আছেন এবার আইপিএলে। তাও, রাজস্থান রয়্যালসেই। দলটির আশা, ফিজের পুরো সার্ভিস পাওয়া যাবে টুর্নামেন্টে। তবে, সেটা যেন দেশকে বঞ্চিত করে না হয় মনে করিয়ে দিলেন রঞ্জিত।

তিনি বলেন, মোস্তাফিজকে নিয়ে আমরা খুবই আশাবাদী। তাকে পুরো সময় আইপিএলে পেলে দারুণ হবে। তবে, সে সময় শুনলাম বাংলাদেশের খেলা আছে। তাই আমরা চাইব, সে যেন আগে দেশের দায়িত্বটাই পালন করে। সুযোগ পেলে অবশ্যই সে আসবে, আমাদের দ্বার উন্মুক্ত।'

এর আগে কেকেআরের পক্ষ থেকেও এমন পরিদর্শনে এসেছিলো একটা প্রতিনিধি দল। যদিও পরে আর কোন যোগাযোগ করেনি তারা।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

কলকাতার পথে হাটলো হায়দরাবাদও!

অনলাইন ডেস্ক

কলকাতার পথে হাটলো হায়দরাবাদও!

পরপর দুইদিন চরম উত্তেজনাপূর্ণ দুই ম্যাচ উপহার দিলো ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ। এবারের আইপিএলে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ের দ্বার প্রান্তে এসে হারতে হলো রান তাড়া করতে নামা দলকে।

বুধবার রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর দেয়া ১৫০ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ছয় রানে হেরেছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।আগের দিন মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের বিপক্ষে ১৫২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করে ১০ রানে হেরেছিল কলকাতা নাইটরাইর্ডাস।

প্রথমে ব্যাটিং এ নেমে ওপেনার বিরাট কোহলির ব্যাট থেকে ২৯ বলে ৩৩ রানে আসে। অন্যদিকে শেষ দিকে পর্যন্ত ক্রিজে থেকে ৪১ বলে ৫৯ রানের তোলেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। আরও  কেউই আহামরী রান করতে পারেননি।

২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৪৯ রান সংগ্রহ করে রয়েল চ্যালেঞ্জার্সরা। সানরাইজার্সের হয়ে তিনটি উইকেট নেন জেসন হোল্ডার। দুটি উইকেট শিকার করেন রশিদ খান।

নিজেদের আইপিএল ইতিহাসে এর আগে ১৫০ রানের কম করে ব্যাঙ্গালুরু ম্যাচ জিতেছিল প্রায় এক যুগ আগে। ২০০৯ সালের আসরে কিংস এলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে ১৪৫ রান করে জিতেছিল তারা। প্রায় ১২ বছর পর এবার হায়দরাবাদের বিপক্ষে এত কম রান করেও জয়ী দল হিসেবে মাঠ ছাড়ল ব্যাঙ্গালুরু।

১৫০ রানের লক্ষ্য খেলতে নেমে ভয়াবহ ভরাডুবির নজির গড়ে হায়দরাবাদ। শেষ চার ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ম্যাচটি হেরেছে ৬ রানের ব্যবধানে।

ব্যাটিং এ নেমে ৯ বলে ১ রান করে শুরুতেই ফিরে যান ঋদ্ধিমান সাহা। মনীষ পান্ডেকে নিয়ে দলের হাল ধরেন অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। ১৪তম ওভারের দ্বিতীয় বলে দলীয় ৯৬ রানে বিদায় নেন তিনি। তার আগে জয়ের ভীত গড়ে দিয়ে ৩৭ বলে ৫৪ রানের ইনিংস খেলেন ওয়ার্নার।

১১৫ রানের মাথায় বিদায় নেন জনি বেয়ারেস্টো ও মনীষ পান্ডে। এক রান যোগ হতে আউট হন আবদুল সামাদও।

১৩ বলে ১২ রান করেন বেয়ারেস্টো। ৩৯ বলে ৩৮ রানের ইনিংস খেলেন পান্ডে। ২ বল খেলে রানের খাতা না খুলেই ফিরেন সামাদ। এরপর ৫ বলে ৩ রান করে বিদায় নেন বিজয় শঙ্কর। জেসন হোল্ডার ৫ বলে খেল চার রান করেন।

৯ বলে ১৭ রান করে রশিদ খান আশা দেখান। প্রথম বলেই ফিরেন শাহবাজ নাদিম। ২ বলে ২ রান করে অপরাজিত ছিলেন ভুবনেশ্বর কুমার। তার সঙ্গে ক্রিজে ছিলেন টি নাটারাজন।

২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৪৩ রানের বেশি করতে পারেনি সানরাইজার্স।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
ব্যাঙ্গালুরু: ১৪৯/৮, ২০ ওভার (ম্যাক্সওয়েল ৫৯, কোহলি ৩৩, শাহবাজ ১৪; হোল্ডার ৩/৩০, রশিদ ২/১৭৮)

হায়দরাবাদ: ১৪৩/৯, ২০ ওভার (ওয়ার্নার ৫৪, মণীশ ৩৮, রশিদ ১৭; শাহবাজ ৩/৭, সিরাজ ২/২৫, হার্শাল ২/২৫)

ফল: ব্যাঙ্গালুরু ৬ রানে জয়ী।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

টি-টোয়েন্টিতে বাবরের প্রথম শতক, পাকিস্তানের জয়

অনলাইন ডেস্ক

টি-টোয়েন্টিতে বাবরের প্রথম শতক, পাকিস্তানের জয়

ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে থাকা বিরাট কোহলিকে টপকে এক নম্বর ব্যাটসম্যান হয়েছেন পাকিস্তান অধিনায়ক বাবর আজম। শুধু ওয়ানডে নয় টি-টোয়েন্টিতেও যে তিনি অসাধারণ তার প্রমাণ আবারও দিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বড় রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে হেসে খেলে জেতালেন দলকে। তুলে নিয়েছেন টি-টোয়েন্টিতে প্রথম আন্তর্জাতিক শতক।

বুধবার সেঞ্চুরিয়ন পার্কে সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে টস হেরে ব্যাট করে প্রোটিয়ারা। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২০৫ রান সংগ্রহ করেছে প্রোটিয়ারা।

পাহার সমান রান তারা করতে নামেন বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান। স্বাগতিক বোলারদের পাত্তা না দিয়ে দ্রুত রান তুলতে থাকেন দুই ওপেনার।

জয়ের একেবারে দ্বারপ্রান্তে এসে ফিরে যান বাবর। ১৮তম ওভারের চতুর্থ বলে লিজার্ড উইলিয়ামরে বলে উইকেটরক্ষক হেনরিচ ক্লাসেনের হাতে ধরা পড়েন সফরকারী দলপতি। তার আগে ৫৯ বলে ১২২ রান আসে তার ব্যাট থেকে। ১১টি চার ও চারটি ছক্কায় ইনিংসটি সাজান ২৬ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান।

বাবর যখন ফিরে গেলেন, তখন জেতার জন্য লাগত মাত্র সাত রান। হাতে ছিল ১৪ বল। তবে ওভারের শেষ দুই বলে দুটি চার মেরে ম্যাচ শেষ করে দেন নতুন ব্যাটসম্যাস ফখর জামান। ননস্ট্রাইকে থাকা রিদওয়ান ৪৭ বলে ৭৩ রান করেন।

এতে ১২ বল বাকি থাকতে ৯ উইকেটে বিশাল জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে পাকিস্তান।

বাবর-রিজওয়ানের জুটিটি ছিল ১৯৭ রানের। যা টি-টোয়েন্টির চতুর্থ সর্বোচ্চ। তবে রান তাড়া করতে নেমে এটাই সবচেয়ে বড় জুটি।

এর আগে এইডেন মার্করামের ৩১ বলে ৬৩ রান ও ৪০ বলে জানেমান মালানের ৫৫ রানের সুবাদে বড় সংগ্রহ করতে সক্ষম হয় প্রোটিয়ারা।

পাকিস্তানের জার্সিতে দুটি উইকেট তুলেন মোহাম্মদ নেওয়াজ। একটি করে উইকেট আদায় করেন শাহিন শাহ আফ্রিদি, হাসান আলি ও ফাহিম আশরাফ।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

দুর্নীতির দায়ে ৮ বছর নিষিদ্ধ বাংলাদেশের সাবেক কোচ হিথ স্ট্রিক

অনলাইন ডেস্ক

দুর্নীতির দায়ে ৮ বছর নিষিদ্ধ বাংলাদেশের সাবেক কোচ হিথ স্ট্রিক

দুর্নীতির দায়ে ৮ বছরের জন্য জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক ও বাংলাদেশের দলের সাবেক বোলিং কোচ হিথ স্ট্রিককে নিষিদ্ধ করেছে আইসিসি। দলের তথ্য পাচারের বহু অভিযোগ প্রমাণিত হওয়াতেই নিষিদ্ধ করা হয় তাকে।বুধবার এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করে আইসিসি।

২০১৬ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত জিম্বাবুয়ে এবং বিভিন্ন ঘরোয়া দলের কোচ থাকার সময় আইসিসির দুর্নীতি-বিরোধী ধারা ভঙ্গ করেছেন স্ট্রিক। এরমধ্যে ২০১৮ সালে বাংলাদেশে শ্রীলঙ্কা ও জিম্বাবুয়েকে নিয়ে হওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজের তথ্য পাচার করেছেন তিনি। এছাড়া জিম্বাবুয়ে-আফগানিস্তান সিরিজ, ২০১৮ সালের আইপিএল, আফগানিস্তান প্রিমিয়ার লিগ এবং এমনকি ২০১৭ সালের বিপিএলে সম্পৃক্ত থাকার সময় বিভিন্ন তথ্য পাচার করেছেন এ জিম্বাবুইয়ান।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, জুয়ার ক্ষেত্রে কাজে লাগতে পারে জেনেও দুর্নীতি-দমন ধারা ভেঙে দলের ভেতরের তথ্য পাচার করেছেন স্ট্রিথ। জাতীয় দলের অধিনায়কসহ মোট চারজন ক্রিকেটারকে এমন একজনের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন স্ট্রিক যিনি জুয়াড়ি হতে পারেন।

বাংলাদেশের দায়িত্ব ছাড়ার পর নিজ দেশ জিম্বাবুয়ের কোচের দায়িত্ব দেন স্ট্রিক। তবে জিম্বাবুয়েকে বিশ্বকাপে তুলতে ব্যর্থ হওয়ায় চাকরি হারান। ২০১৮ সালে আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সের বোলিং কোচের দায়িত্ব পান জিম্বাবুয়ের ইতিহাসে অন্যতম সেরা এ ক্রিকেটার। বাংলাদেশে কোচিং করানো ছাড়াও ঢাকার ক্লাব ক্রিকেটেও খেলেছেন স্ট্রিক। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলেছেন আবাহনী লিমিটেডের হয়ে।

উল্লেখ্য, জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট ইতিহাসে অন্যতম সেরা পেসার মনে করা হয় তাকে। ৬৫ টেস্টে ২১৬ উইকেট নিয়েছেন তিনি, যেখানে দেশটির অন্য কোনো বোলার ৮০'র বেশি টেস্ট উইকেট নিতে পারেননি। ১৮৯ ওয়ানডেতে স্ট্রিকের উইকেট ২৩৯টি। জিম্বাবুয়ের হয়ে ওয়ানডেতে অন্য কোনো বোলার দেড়শ উইকেটের মুখ দেখেননি। খেলোয়াড়ি জীবন শেষে কোচিংয়ে পুরোপুরি মনোযোগ দিয়েছিলেন স্ট্রিক।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

করোনার কষ্ট যাতে কমে যায় সেটা প্রত্যাশা মুশফিকের

অনলাইন ডেস্ক

করোনার কষ্ট যাতে কমে যায় সেটা প্রত্যাশা মুশফিকের

রোজার প্রথম দিনটিতে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল রয়েছে শ্রীলঙ্কায়। কলম্বোর পাশেই নিগোম্বো নামের এক শহরে চলছে তাদের কোয়ারেন্টিন। ঠিক সাগরের পাশে নিগোম্বোর জেট ইয়াং বিচ হোটেলে আপাতত সময় কাটছে ক্রিকেটারদের। 

করোনায় কষ্ট যাতে কমে চায় সেটা প্রত্যাশা করেছেন তারকা ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিম। তিনি রমজানে সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করছেন। 

দুই টেস্ট ম্যাচের সিরিজের আগে এখানে ৩ দিনের কোয়ারেন্টাইন। হোটেল বন্দি এই সময়টাতে দেশবাসীকে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা জানাতে ভুল করলেন না জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। 

রমজানে কষ্ট লাগব করতে বিধাতার কাছে প্রার্থনা করেছেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম।

তিনি তার অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে লিখলেন, ‘পবিত্র এই রমজান মাসে মহান আল্লাহ যেনো সবার কষ্ট কমিয়ে দেন, রহমত নাজিল করেন এবং জীবনকে সমৃদ্ধ করেন। সবাইকে রমজান মোবারক।’

শুভেচ্ছা জানালেন, ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবালও। তিনি করোনার এই সময়ে স্বাস্থ্যবিধির কথাও মনে করিয়ে দিলেন। তামিম লিখেছেন, ‘সবাইকে পবিত্র রমজানের শুভেচ্ছা। সবাই সুস্থ্য ও নিরাপদে থাকুন।’

আরও পড়ুন


সাতক্ষীরায় বাঘের আক্রমণে মৌয়াল আহত

উত্তরায় ৬ তলা ভবনের ছাদ থেকে পড়ে গৃহকর্মীর মৃত্যু

দেশবাসীকে নববর্ষ ও রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের

রমজানে নতুন রান্না নিয়ে হাজির কেকা ফেরদৌসি


কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে আইপিএলে ব্যস্ত থাকা সাকিব আল হাসানওও জানালেন রমজানের শুভেচ্ছা। তার কথাতেও থাকল করোনার এই সময়ে সৃষ্টি কর্তার কাছে প্রার্থনা। সাকিব লিখেছেন, ‘দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে আমাদের প্রয়োজন ধৈর্য্য ও সহানুভূতি। একমাত্র আল্লাহ তায়ালা আমাদের এই কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলা করার শক্তি দিতে পারেন। আসুন পবিত্র রমজান মাসে আমরা সবাই মিলে আমাদের দেশ ও জনগনের মঙ্গলের জন্য প্রার্থনা করি। সবাইকে রমজানুল মোবারক।’

এছাড়া রমজানের শুভেচ্ছা জানালেন, রুবেল হোসেন-তাসকিন আহমেদও। পেসার রুবেল তার অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে লিখলেন, আলহামদুলিল্লাহ, রমজানের চাঁদ দেখা গিয়েছে..., সবাইকে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা।

news24bd.tv / কামরুল 
 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

যে ভুল প্রতিবারই করে শোয়েব মালিক, মেনে নেন সানিয়া

অনলাইন ডেস্ক

যে ভুল প্রতিবারই করে শোয়েব মালিক, মেনে নেন সানিয়া

কাঁটা তারের বেড়া আটকাতে পারেনি এই তারকা দম্পতির ভালোবাসা। সব বাধা পেরিয়ে এক হয়েছেন পাকিস্তান ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক শোয়েব মালিক ও ভারতের টেনিস সেনসেশন সানিয়া মির্জা। বিয়ে করে সুখে সংসার করছেন।

তবে তারকা মানেই ভক্তদের আগ্রহের বিষয়। আর সেটা যদি হয় শোয়েব মালিক ও সানিয়া মির্জা তাহলেতো কথাই নেই। এই জুটির দাম্পত্য ও ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কৌতুহলের শেষ নেই ভক্ত-অনুরাগীদের।

শোয়েব-সানিয়ার ঘর আলো করে এসেছে একটি ছেলে সন্তান। ছেলেকে ঘিরে শোয়েব-সানিয়ার পরিবারে যেন বাড়তি সুখ যোগ হয়েছে। তারকাদের দাম্পত্য নিয়ে কোন না কোন ঝামেলা থাকেই। তবে এই দম্পতি উদাহরণ হতে পারে সুখি দম্পতি হিসেবে।

দুজনেই দুজনকে খুব বেশি ভালোবাসেন। শোয়েব হয়তোবা এদিক থেকে একটু বেশিই এগিয়ে। কিন্তু ঝামেলাটা অন্য জায়গায়। শোয়েব এমন কিছু ভুল করে যা রীতি মতো সানিয়ার জন্য বিব্রতকর।

গত ১২ এপ্রিল শোয়েব-সানিয়ার ১১তম বিবাহবার্ষিকী ছিল। ২০১০ সালের ১২ এপ্রিল ভারত-পাকিস্তানের জাতিগত বিদ্বেষ ভুলে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন এ জুটি। এরপর থেকে গত ১১ বছরে সুখে-শান্তিতেই সংসার করছেন এ দম্পতি।

তবে এর পেছনে যে সানিয়ার অনেক বড় অবদান, তা না বললেই নয়। কেননা বিবাহবার্ষিকীর মতো বড় বিষয় প্রতিবারই ভুলে যান মালিক। তবু সেটিকে মানিয়ে নেন সানিয়া। বরাবরের মতো এবারও ১২ তারিখের বদলে ১৩ তারিখে সানিয়া বিবাহবার্ষিকীর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন শোয়েব।

আরও পড়ুন


জনসনের টিকা যুক্তরাষ্ট্রে সাময়িক স্থগিত

রোজা মানে শুধু না খেয়ে থাকা না, সুদ, ঘুষ থেকেও বিরত থাকা

সাতক্ষীরায় বাঘের আক্রমণে মৌয়াল আহত

উত্তরায় ৬ তলা ভবনের ছাদ থেকে পড়ে গৃহকর্মীর মৃত্যু


সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে এক সংক্ষিপ্ত বার্তায় শোয়েব লিখেছেন, ‘ওপস! ভুলের কারণে ভুল হয়ে গেল। প্রতিবারের মতো এবারও একদিন পর শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। তোমাকে ভালোবাসি সানিয়া মির্জা।’

শোয়েব মালিক ভুলে গেলেও, সানিয়া মির্জা মোটেও ভুলেননি নিজেদের বিবাহবার্ষিকী। তিনি ১২ তারিখেই পোস্ট করেছেন ইন্সটাগ্রামে। যেখানে নিজেদের দুইটি ছবি দিয়ে লিখেছেন, ‘যদি সবাই বলে মোটু ও পাতলু, তবু ভালো-খারাপের মধ্য দিয়েই আমার মূল শক্তিকে শুভ বিবাহবার্ষিকী। আরও অনেক বছর তোমাকে জ্বালিয়ে যাব, ইনশাআল্লাহ্! ১১ বছর!!!’

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর