১২৯ বছর পর লিভারপুলকে লজ্জা ফেলল চেলসি!
১২৯ বছর পর লিভারপুলকে লজ্জা ফেলল চেলসি!

১২৯ বছর পর লিভারপুলকে লজ্জা ফেলল চেলসি!

অনলাইন ডেস্ক

ইয়ুর্গেন ক্লপের হাত ধরে বদলে গিয়েছিলো লিভারপুল। যে মাঠ থেকে জয় নিয়ে ফেরা যে কোনো ক্লাবের জন্যই ছিলো এক দুঃসাধ্য অভিযান। এই ক্লপের অধীনেই অ্যানফিল্ডে টানা ৬৮ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ডও গড়েছিল অলরেডরা। কিন্তু মুদ্রার উল্টো পিঠটাও দেখা হয়ে গেলো জার্মান মাস্টার মাইন্ডের।

অ্যানফিল্ডে বৃহস্পতিবার রাতে ১-০ ব্যবধানে জিতেছে টমাস টুখেলের দল। ব্যবধান গড়ে দেওয়া গোলটি করেন ম্যাসন মাউন্ট।

ম্যাচ জুড়ে ধুঁকতে দেখা গেল লিভারপুলকে। লক্ষ্যে শট রাখতে পারল কেবল একটি। উজ্জীবিত ফুটবল খেলে তাদের মাঠ থেকে দারুণ এক জয় নিয়ে ফিরল চেলসি।

চেলসির কাছে ১-০ গোলের এই হার দীর্ঘদিন ক্ষত হয়ে থাকবে কোটি লিভারপুল সমর্থকের মনে। এ নিয়ে অ্যানফিল্ডে টানা ৫ ম্যাচ হারলো ইপিএলের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। ১৮৯২ সালে ক্লাব প্রতিষ্ঠিত হবার পর ১২৯ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম অ্যানফিল্ডে টানা পাঁচ ম্যাচ হারলো লিভারপুল।  

লিগে এই নিয়ে ঘরের মাঠে টানা পাঁচ ম্যাচ হারল লিভারপুল। টুখেল দায়িত্ব নেওয়ার পর সব প্রতিযোগিতা মিলে টানা ১০ ম্যাচে অপরাজিত রইল চেলসি। গত সেপ্টেম্বরে দুই দলের প্রথম দেখায় স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে ২-০ গোলে জিতেছিল লিভারপুল।  

গেলো ক'মাস ধরেই ইনজুরি বেশ ভোগাচ্ছিলো লিভারপুলকে। যার প্রভাব ছিলো ম্যাচের ফলে। টানা হারতে হয়েছে বেশ কিছু ম্যাচে। ইপিএলের শিরোপা ধরে রাখার স্বপ্ন অনেক আগেই শেষ অলরেডদের। তাদের চাওয়া হয়তো এটুকুই ছিলো অন্তত সেরা চারে থেকে মৌসুম শেষ করা। কিন্তু সেটাও এখন কঠিন থেকে কঠিনতর হচ্ছে।

সালাহ-ফিরমিনো-মানে, আক্রমণভাগে পছন্দের তিন খেলোয়াড় নিয়েই চেলসির বিপক্ষে একাদশ সাজান ক্লপ। লিভারপুলে যখন দুর্দশা, চেলসি তখন মাঠে নামে টানা ৯ ম্যাচ অপরাজিত থাকার আত্মবিশ্বাস নিয়ে।  

যার স্পষ্ট ছাপ ছিলো ব্লু'দের খেলাতেও। ভার্নার-জিয়েখরা শুরুতেই নিয়ে নেয় ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ। একবার তো গোল করে চেলসিকে এগিয়েও দেন টিমো ভার্নার। যদিও ভিএআরে সেটা বাতিল করে দেন রেফারি।


ঋণ থেকে মুক্তির দু’টি দোয়া

মেসি ম্যাজিকে সহজেই জিতল বার্সা

দোয়া কবুলের উত্তম সময়

রোনালদোর গোলেও হোঁচট খেল জুভেন্টাস


তার ৪ মিনিট বাদেই লিড নিতে পারতো স্বাগতিকরা। কিন্তু এ যাত্রায় বলের সঙ্গে সাদিও মানের সংযোগ না হওয়ায় গোল বঞ্চিত হয় ক্লপের দল।

চেলসি আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলার ফল পায় প্রথমার্ধ্বের শেষদিকে। ৪২ মিনিটে মেসন মাউন্টের গোলে লিড পায় থমাস টুখেলের দল।  

দ্বিতীয়ার্ধ্বের শুরু থেকেই চলতে থাকে চেলসির ব্যবধান বাড়ানোর চেষ্টা। ক্লাবের নতুন সাইনিং হাকিম জিয়েখ ব্যবধান দ্বিগুণ প্রায় করেই ফেলেছিলেন। তবে রবার্টসন  সে যাত্রায় ত্রাতা হয়ে রক্ষা করেন লিভারপুলকে।

গোলের জন্য মরিয়া লিভারপুল বস ৬২ মিনিটে পরিবর্তন আনেন দুটি। মাঠে নামান দিয়েগো জটা আর চেম্বারলাইনকে। যদিও তাতেও লাভ হয়নি খুব একটা। অলরেডদের হয়ে গোল করতে পারেনি কেউই। চেলসির ১-০ গোলের জয়ে নিশ্চিত হয় সেরা চারে যাওয়া আর হারের সঙ্গে লজ্জার ইতিহাস নিয়ে নত মাথায় মাঠ ছাড়ে লিভারপুল।

২৭ ম্যাচে ১৩ জয় ও আট ড্রয়ে চেলসির পয়েন্ট হলো ৪৭। সমান ম্যাচে ৪৩ পয়েন্ট নিয়ে সাত নম্বরে গতবারের চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল। ওয়েস্ট ব্রমউইচ অ্যালবিয়নের মাঠে ১-০ গোলে জেতা এভারটন ২৬ ম্যাচে ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে আছে।

২৭ ম্যাচে ৬৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ম্যানচেস্টার সিটি। ৫১ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। তাদের চেয়ে ১ পয়েন্ট কম নিয়ে তিন নম্বরে লেস্টার সিটি।

news24bd.tv/আলী