দেশে আরেকটি ১৫ আগষ্ট ঘটানোর ষড়যন্ত্র চলছে: ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশে আরেকটি ১৫ আগষ্ট ঘটানোর ষড়যন্ত্র চলছে: ওবায়দুল কাদের

রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশে বিএনপির এক নেতা দেশে আরেকটি ১৫ আগষ্ট ঘটানোর যে ঈঙ্গিতপূর্ণ ও উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়েছে তাতে দেশবাসী বিক্ষুব্ধ বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। 

এই বক্তব্য বিএনপির ফ্যাসিবাদি মানসিকতা, ষড়যন্ত্র এবং খুনের রাজনীতির চরিত্র স্পষ্ট হয়ে উঠেছে বলেও মনে করেন ওবায়দুল কাদের। 

শুক্রবার (৫ মার্চ) ওবায়দুল কদের তাঁর সরকারি বাসভবন থেকে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বিএনপি নেতাদের কাছে প্রশ্ন রেখে বলেন, ওয়ার্কার্স পার্টির ফজলে হোসেন বাদসা এবং রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ এবিষয়ে প্রতিবাদ করেলেও বিএনপির পক্ষ থেকে এর কোন সুস্পষ্ট বক্তব্য দেওয়া হয়নি, তহলে কি ধরে নিবো এটি বিএনপির দলীয় বক্তব্য?  

ওবায়দুল কাদের বলেন, জনগণ আশা করেন বিএনপি এবিষয়ে তাদের বক্তব্য স্পষ্ট করবে। ১৫ ও ২১ আগষ্ট একই ষড়যন্ত্রের ধারাবাহিকতা। বিএনপি নেতার এ বক্তব্যে তাদের খুনের রাজনীতির স্বরুপ উন্মোচিত হয়েছে। 

এই বক্তব্য থেকে স্পষ্ট বুঝা যায় বিএনপি এখনো ষড়যন্ত্রের রাজনীতি করছে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন এ ষড়যন্ত্রের জাল দেশ-বিদেশে বিস্তৃত, তাদের বক্তব্য লন্ডনের ছক অনুযায়ী গোপন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের অংশ কিনা তাও খতিয়ে দেখা হবে।

ইতিমধ্যে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগ এ বক্তব্য প্রত্যাহারে ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে, আশা করছি কেন্দ্রীয় বিএনপি তাদের অবস্থান স্পষ্ট করবে বলে মনে করেন ওবায়দুল কাদের। 

সরকার নির্বাচিত নয়, জনগণের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনে সরকারের পতন হবে,- বিএনপি মহাসচিবের এমন বক্তব্যের প্রতিবাদে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির এমন হুমকি-ধামকি আমরা বছরের পর বছর শুনেছি, তাদের আন্দোলন এবং সরকার পতনের ঘোষণার ইতিমধ্যেই একযুগ পূর্তি হয়ে গেছে, জনগণ এখনো কোন আন্দোলন দেখতে পায়নি রাজপথে।

আরও পড়ুন:


মানুষের কাতারে পড়ে না আওয়ামী লীগ: গয়েশ্বর

মহাখালী বাসস্ট্যান্ডে সারারাতই থাকে ছিন্নমূল মানুষের আনাগোনা

২৫শে মার্চের ভয়াবহ সেই রাতের বর্ণনা দিলেন মওদুদ (ভিডিও)

ঢাকা বিএনপি: ব্যর্থতার কারণ সাংগঠনিক দুর্বলতা


তিনি বলেন ক্ষমতায় থাকাকালে বিএনপি সরকার পরিচালনায় একাধিক বিকল্প ক্ষমতাকেন্দ্র তৈরি করেছিলো। এখনো তাদের আন্দোলনের ডাক আসে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন ক্ষমতাকেন্দ্র থেকে।

বিএনপি নেতারা ডিজিটাল সিকিউরিটি এক্টের অন্ধ বিরোধিতা করছে, আইনটির যথাযথ প্রয়োগের ক্ষেত্রে কোন ব্যত্যয় ঘটছে কিনা সে বিষয়টির প্রতি সরকার কড়া নজর রাখছে। ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রযুক্তির এ যুগে জনস্বার্থেই এ আইন করা হয়েছে, আইনের অপপ্রয়োগ যাতে না হয় সে বিষয়ে দেওয়া হয়েছে নির্দেশনা। 

বিএনপি এখন এ আইন নিয়ে মানবাধিকারের কথা বলছে, অথচ ৭৫ এর হত্যাকান্ডর পর ইনডেমনিটি অধ্যাদেশের মাধ্যমে জাতির পিতার খুনিদের বিচার চাওয়ার পথ বন্ধ করে দিয়েছিলো।

news24bd.tv আহমেদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

৫ই মে তাণ্ডবে খালেদার সম্পৃক্ততার প্রমাণ পেলে মামলার সিধান্ত নেওয়া হবে : ডিবি

অনলাইন ডেস্ক

৫ই মে তাণ্ডবে খালেদার সম্পৃক্ততার প্রমাণ পেলে মামলার সিধান্ত নেওয়া হবে : ডিবি

২০১৩ সালের ৫ই মে সরকার পতনের লক্ষ্যে তাণ্ডবের আগে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সঙ্গে গোপন বৈঠক করেছিলেন জুনায়েদ বাবুনগরী।  সেই তাণ্ডবের মামলায় খালেদা জিয়াকে আসামি করা হবে কিনা তা সামগ্রিক তথ্য প্রমাণ বিচার করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়েছে পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ- ডিবি।

বুধবার দুপুরে, গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তিনি বলেন,  ২০১৩ সালে হেফাজত যে তাণ্ডব চালিয়েছিল। তখন সরকারের বিরুদ্ধে বড় একটি ষড়যন্ত্র ছিল। সেই ষড়যন্ত্রে কারা অংশগ্রহণ করেছে সে কথাও উঠে এসেছে। তখনকার জাতীয়তাবাদী দলের সাথে দলের চেয়ারপার্সন সহ অনেকের সাথে বাবু নগরীর মিটিং হয়েছিল।

সরকার পতনের লক্ষ্যে তাণ্ডবের আগে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সঙ্গে গোপন বৈঠক করেছিলেন জুনায়েদ বাবুনগরী। ২০১৩ সালে হেফাজত যে তাণ্ডব চালিয়েছিল। তখন সরকারের বিরুদ্ধে বড় একটি ষড়যন্ত্র ছিল। সেই ষড়যন্ত্রে কারা অংশগ্রহণ করেছে সে কথাও উঠে এসেছে। তখনকার জাতীয়তাবাদী দলের সাথে দলের চেয়ারপার্সন সহ অনেকের সাথে বাবু নগরীর মিটিং হয়েছিল।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ছাত্রদলের সাবেক সা. সম্পাদক এখন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক!

অনলাইন ডেস্ক

ছাত্রদলের সাবেক সা. সম্পাদক এখন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক!

কক্সবাজার জেলা বিএনপির সভাপতি ও উখিয়া-টেকনাফের সাবেক এমপি শাহাজান চৌধুরীর আস্থাভাজন হ্নীলা জুমুরিয়া মাদ্রাসা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল মোস্তফা এখন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক! গত ১৩ এপ্রিল রাত সাড়ে ১২টার দিকে টেকনাফ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন হলেও তা প্রকাশ পায় অনেক পরেই। সেখানে দেখা যায় নুরুল মোস্তফাকে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদ দেওয়া হয়।

কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এস এম সাদ্দাম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক আবু মো. মারুফ আদনান স্বাক্ষরিত টেকনাফ উপজেলা ছাত্রলীগের নব-গঠিত কমিটিতে সভাপতি করা হয়েছে উপজেলা ছাত্রলীগের দুই বারের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম মুন্নাকে। আগামী এক বছরের জন্য এই কমিটি অনুমোদন দেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। 

কমিটি প্রকাশের প্রতিবাদে হয়েছে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ। চলছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনা।

হ্নীলা জুমুরিয়া মাদ্রাসা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল মোস্তফা ছিলেন বিএনপির আন্দোলন সংগ্রামের প্রথম সারির ক্যাডার। ইতিমধ্যে অনেক ছবি ও তথ্য বহুল কাগজপত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

পাশাপাশি তার হাতে অত্যাচার ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের অসংখ্য ছাত্রলীগ কর্মী। কিন্তু হটাৎ রাতারাতি ছাত্রদল থেকে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মনোনীত হওয়ায় পুরো জেলার রাজনৈতিক অঙ্গনে সমালোচনার ঝড় উঠেছে।
 
কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এসএম সাদ্দাম হোসেন বলেন, ১৩ এপ্রিল উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম মুন্নাকে সভাপতি ও নুরুল মোস্তফাকে সাধারণ সম্পাদক করে এক বছরের জন্য টেকনাফ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সেখানে সাধারণ সম্পাদক নুরুল মোস্তফা ছাত্রলীগের পূর্বের কোনো ধরনের কমিটিতে ছিল না। তবে সে ছাত্রলীগ করে।

জেলা সভাপতি দাবি করেন, রাতারাতি নয় এবং অনৈতিক উপায়েও নয়, কাউন্সিল ও সম্মেলন করে দুই মাস পর কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

এদিকে যার বিরুদ্ধে এত অভিযোগ সেই নুরুল মোস্তফা সাংবাদিকদের জানান, তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ সত্য নয়।

কক্সবাজার জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শাহাদৎ হোসেন রিপন জানান, টেকনাফ ছাত্রলীগের কমিটি দেখার পর আমাদের নিজেদের মধ্যেও অনেক আলোচনা হয়েছে। কারণ নুরুল মোস্তফা হ্নীলা ইউনিয়ন ছাত্রদলের সদস্য এবং হ্নীলা জুমুরিয়া মাদ্রাসা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তার আত্মীয় স্বজন সবাই বিএনপি করে। তার বড়ভাই নাছির উদ্দিন ইউনিয়ন যুবদলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এছাড়া তার চাচা ও চাচাত ভাই সবাই বিএনপি রাজনীতির সঙ্গে জড়িত এটা সবাই জানে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

৫ মে হেফাজত নেতাদের অর্থ দেন বিএনপির কয়েক নেতা

অনলাইন ডেস্ক

৫ মে হেফাজত নেতাদের অর্থ দেন বিএনপির কয়েক নেতা

২০১৩ সালের ৫ মে ঢাকা ঘেরাও কর্মসূচি সফল করতে অর্থের যোগানদাতা ছিলেন বিএনপির কয়েকজন নেতা। বিএনপির প্রয়াত নেতা সাদেক হোসেন খোকা, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল ও এক জামায়াত নেতার সঙ্গে হেফাজত নেতাদের বৈঠক হয়েছিল। খোকার বাসা ও একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের অফিসে ওই বৈঠক হয়। সেখানে হেফাজত নেতাদের টাকা-পয়সা দেওয়া হয়। সিদ্ধান্ত হয়, তাদের ১৩ দফা বাস্তবায়ন না হলে সরকার পতনের আন্দোলন করা হবে।

সোমবার (১৯ এপ্রিল) ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারীর আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে চাঞ্চল্যকর এই তথ্য জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলামের ঢাকা মহানগর কমিটির তৎকালীন প্রচার সম্পাদক মুফতি ফখরুল ইসলাম। তিনি বর্তমানে বাংলাদেশ জনসেবা আন্দোলনের চেয়ারম্যান।

এই বিষয়ে বিএনপি বলছে, আদালতে প্রমাণ হওয়ার আগে গণমাধ্যমে কিছু আসলে  সেটার দায় নেবে না বিএনপি।

গত ১৪ এপ্রিল লালবাগ এলাকা থেকে মুফতি ফখরুলকে গ্রেফতারের পর পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেয় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। রিমান্ড শেষে সোমবার তিনি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। এরপর আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

৭ দিনের রিমান্ডে কোরবান আলী

অনলাইন ডেস্ক

৭ দিনের রিমান্ডে কোরবান আলী

হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগরীর সহসভাপতি ও বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা কোরবান আলীর সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ বুধবার (২১ এপ্রিল) তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে পুলিশ।


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনায় ২৪ ঘণ্টায় গ্রেপ্তার ১১

ভিপি নুরের নামে আরও এক মামলা

নাটোরের বড়াইগ্রামে দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে চালক নিহত


শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম মামুনুর রশীদ তার সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে রাজধানীর বাসাবো এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

ফেইসবুক লাইভে কাদের মির্জা

কোম্পানীগঞ্জে শান্তি ফেরাতে ১১ দফা প্রস্তাবনা

নোয়াখালী প্রতিনিধি

কোম্পানীগঞ্জে শান্তি ফেরাতে ১১ দফা প্রস্তাবনা

কোম্পানীগঞ্জের চলমান সংকট কাটিয়ে শান্তির জনপদে রূপান্তর করতে ১১ দফা প্রস্তাবনা তুলে ধরেন এবং তা দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। বুধবার ভোররাতে সাড়ে ৪টায় তার অনুসারী স্বপন মাহমুদের ফেসবুক থেকে লাইভে এসে ১১ দফা প্রস্তাবনা তুলে ধরেন তিনি।

আবদুল কাদের মির্জা বলেন, কোম্পানীগঞ্জ আমাদের শান্তির জনপদ। আমাদের প্রিয় কোম্পানীগঞ্জে যেন রক্তপাত, সংঘাত, সংঘর্ষ না হয় এ জন্য অস্ত্রমুক্ত, মাদকমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত, দখলমুক্ত ও দুর্নীতিবাজমুক্ত কোম্পানীগঞ্জ গড়তে হবে। এরপর তিনি ১১ দফা প্রস্তাবনা তুলে ধরেন।


ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনায় ২৪ ঘণ্টায় গ্রেপ্তার ১১

ভিপি নুরের নামে আরও এক মামলা

নাটোরের বড়াইগ্রামে দুই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে চালক নিহত


কাদের মির্জার ১১ দফা প্রস্তাবনাগুলো হলো-

১. নোয়াখালীর যে সকল প্রশাসনিক কর্মকর্তা নিরপেক্ষতা হারিয়েছে তাদের সরিয়ে অস্ত্রের রাজনীতি বন্ধ করতে হবে।

২. সাংবাদিক মুজাক্কির ও সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালক আলাউদ্দিন হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত করে দ্রুত বিচার করতে হবে।

৩. আমার ছেলে তাশিক মির্জার ওপর হামলায় সিসিটিভি ফুটেজ দেখে দোষীদের আইনের আওতায় আনতে হবে।

৪. গত তিন মাসে দায়ের করা সকল মামলার দ্রুত সুষ্ঠু তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

৫. নিরপেক্ষভাবে পুলিশের নির্যাতনের মামলার বিচার করতে হবে।

৬. কোম্পানীগঞ্জের আগামী ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

৭. কোম্পানীগঞ্জে রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক অন্যায়, অনিয়ম ও দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে।

৮. কোম্পানীগঞ্জে রাজনৈতিক সহাবস্থান নিশ্চিত করতে হবে।

৯. গত তিন মাসে অন্যায়ভাবে যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের দ্রুত মুক্তি দিতে হবে।

১০. গত তিন মাসে যারা কোম্পানীগঞ্জে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করেছে, তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে হবে।

১১. যে সকল ঘটনায় মামলা হয়নি যেমন, দাগনভূঁইয়ায় আমার ওপর হামলা, গুলিবর্ষণ এবং চট্টগ্রামের হামলার ঘটনার দ্রুত বিচার করতে হবে।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ জানুয়ারি বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনে আবদুল কাদের মির্জা আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। এর আগে তিনি তিনবার মেয়র নির্বাচিত হন। নির্বাচনের আগে দলীয় নেতাকর্মীদের সমালোচনা করে আলোচনায় আসেন তিনি।

এরপর কাদের মির্জার সঙ্গে তার দলের বিরোধী পক্ষের সংঘর্ষে সাংবাদিকসহ দুইজন নিহত হন। এসব ঘটনায় তার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ জমা পড়েছে আদালতে। ৩১ মার্চ নিজের ফেসবুক আইডি থেকে তিনি দল থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দেন। এ ছাড়া তিনি আর জনপ্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচন করবেন না বলেও ঘোষণা দেন।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর