নারীকে ধর্ষণের পর ইয়াবা দিয়ে ধরিরে দেয় ছাত্রলীগ নেতা
নারীকে ধর্ষণের পর ইয়াবা দিয়ে ধরিরে দেয় ছাত্রলীগ নেতা

নারীকে ধর্ষণের পর ইয়াবা দিয়ে ধরিরে দেয় ছাত্রলীগ নেতা

অনলাইন ডেস্ক

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে ধর্ষণের পর ইয়াবা দিয়ে এক গৃহবধূকে ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় আদালতে মামলা দায়ের করেছেন ওই গৃহবধূ।

আসামি করা হয়েছে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুর রহমান রাসেল ও ছয় পুলিশ সদস্যসহ ১০ জনকে।

আজ রোববার দুপুরে চট্টগ্রামের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শহীদুল্লাহ কায়সারের আদালতে এ মামলা দায়ের করেন এক নারী।

আসামিরা করা হয়- হাটহাজারী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আরিফুর রহমান রাসেল (৩২), হাটহাজারী থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই মুকিব হাসান, এসআই মো. সেলিম মিয়া, এসআই কফিল উদ্দীন, কনস্টেবল মো. পারভেজ, কনস্টেবল মো. সাইফুল, নারী কনস্টেবল বৈশাখী রহমান, পুলিশের সোর্স মো. রিংকু সুলতান (২৫), মো. হেলাল উদ্দীন ও মো. হেলাল (৩৫)।

আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে বাদীর বক্তব্য গ্রহণ করেছেন। বাদীর আইনজীবী মোহাম্মদ ইলিয়াছ মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।  

মামলার অভিযোগে তিনি জানান, স্বামীর সঙ্গে বিরোধ, পারিবারিক অশান্তি ও সন্তানদের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ না পেয়ে প্রতিকারের আশায় হাটহাজারী উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আরিফুর রহমান রাসেলের শরণাপন্ন হন ভুক্তভোগী নারী। রাসেল বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দিয়ে ওই নারীকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। পরে উপজেলা সদরের একটি গেস্ট হাউসে নিয়ে ধর্ষণের পর পুলিশের মাধ্যমে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসিয়ে দেন তাকে। সেই মামলায় পাঁচ মাস কারাগারে ছিলেন ওই নারী।

এ ঘটনায় কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে আজ (রোববার) আদালতে মামলা দায়ের করেন তিনি।

news24bd.tv তৌহিদ