কাদের মির্জা যেভাবে মারলো, মনে হলো আমি পকেট মাইর
কাদের মির্জা যেভাবে মারলো, মনে হলো আমি পকেট মাইর

(ছবি-বাঁদিক থেকে) খিজির হায়াত খান, কাদের মির্জা

কোম্পানীগঞ্জ আওয়ামী লীগ সভাপতি ও মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াতের অভিযোগ

কাদের মির্জা যেভাবে মারলো, মনে হলো আমি পকেট মাইর

Other

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই ও বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার বিরুদ্ধে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খানকে মারধরের অভিযোগ ওঠেছে।  

আজ বিকাল ৫টার দিকে বসুরহাট পৌরসভার রূপালী চত্বরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।  

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকাল ৫টার দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খান দলীয় কার্যালয়ের পাশে অবস্থান করেন। হঠাৎ করে আবদুল কাদের মির্জা, তার ছোট ভাই শাহাদাত হোসেনসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী খিজির হায়াতকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে।

এক পর্যায়ে মির্জা কাদের খিজির হায়াত খানের পাঞ্জাবি ধরে তাকে বাহিরে নিয়ে আসে। এক পর্যায়ে তাকে মারধর করে এবং তার পাঞ্জাবি ছিড়ে ফেলে। এ সময় খিজির হায়াতকে ভবিষ্যতে বসুরহাট বাজারে আসতে নিষেধ করেন।  


চলন্ত বাস থেকে ফেলে দেওয়া হলো প্রতিবন্ধী নারীকে

অর্থনীতির নতুন পথ সন্ধানের এখনই সময়

৫ বছরে লাশ হয়ে দেশে ফিরেছেন ৪৮৭ নারী শ্রমিক

সন্তানদের নিয়ে রাজনীতি করবেন না : শ্রীলেখা


মারধরের বিষয়ে খিজির হায়াত খান বলেন, মির্জা যেভাবে তাকে মারধর করেছে মনে হলো আমি পকেট মাইর। তিনি আমাকে লাথি, কিল, ঘুষি মেরে পাঞ্জাবি ছিঁড়ে ফেলে। বিষয়টি পুলিশকে জানালেও পুলিশ তাকে কোনো সহযোগিতা করে নাই।  

তবে অভিযোগের বিষয় জানতে মেয়র আবদুল কাদের মির্জাকে এবং কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মীর জাহিদুল হক রনিকে ফোন দিলেও তারা কেউই রিসিভ করেননি।

news24bd.tv নাজিম

;