ধুনটে ছাত্রলীগের দুগ্রুপের সমাবেশ কেন্দ্র করে ১৪৪ধারা জারি

বগুড়া প্রতিনিধি

ধুনটে ছাত্রলীগের দুগ্রুপের সমাবেশ কেন্দ্র করে ১৪৪ধারা জারি

বগুড়ার ধুনট উপজেলা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ও মুজিব চত্বর এলাকা এবং তার আশেপাশের ৪০০ গজ পর্যন্ত ১৪৪ধারা জারি করা হয়েছে। বুধবার দিবাগত রাতে ধুনট উপজেলা নির্বাহি অফিসার সঞ্জয় কুমার মহন্ত এ আদেশ জারি করেন। ১৪৪ ধারা জারির পর ধুনট শহরে মধ্যরাতে মাইকিং করে গণবিজ্ঞপ্তি প্রচার করা হয়। এছাড়া জোরদার করা হয়েছে মুজিব চত্বর এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা। 

বৃহস্পতিবার উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার মুজিব চত্বর এলাকায় সমাবেশ আহবান করেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সালেহ স্বপন। একই সময়ে একই স্থানে ধুনট পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য রাসেল খন্দকার সমাবেশ আহবান করে। একই সময়ে ছাত্রলীগের দু'পক্ষের সমাবেশ ঘিরে এলাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়। এদিকে বুধবার রাতে সাড়ে ১১টায় প্রায় ৭ বার বিস্ফোরণের বিকট শব্দ পাওয়া যায়।


মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নৃশংস আচরণ, হাঁটু মুড়ে সন্ন্যাসিনীর আবেদন

সারাদেশে নিয়োগ দেবে ইবনে সিনা ট্রাস্ট

কাকে উদ্দেশ্য করে তাহসানের ৫ শব্দের এমন স্ট্যাটাস

জিতেও বিদায় নিতে হলো রোনালদোর জুভেন্টাসকে


ইউএনও সঞ্জয় কুমার মহন্ত জানান, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতির আশংকায় ১৪৪ ধারা জারি করে ঐ এলাকায় সব ধরনের সভা-সমাবেশ, মিটিং-মিছিল ও গণজমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সকাল থেকে মুজিব চত্বর, উপজেলা পরিষদ গেট ও ধুনট বাজারে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ৮ টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি থাকবে বলে জানায় প্রশাসন।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নারায়ণগঞ্জ থেকে হেফাজত নেতা লোকমান হোসেন আমিনী গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্ক

নারায়ণগঞ্জ থেকে হেফাজত নেতা লোকমান হোসেন আমিনী গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে হেফাজতে ইসলামের অন্যতম নেতা ও উপজেলার স্থানীয় মতুর্জাবাদ জামে মসজিদের খতিব লোকমান হোসেন আমিনীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। হেফাজতের ডাকা হরতালে সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় দাঙ্গা হাঙ্গামা এবং ফেসবুকে উস্কানিমূলক স্ট্যাটাস দেয়ার অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) জসিম উদ্দিন জানান, উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের মতুর্জাবাদ জামে মসজিদের খতিব মাওলানা লোকমান হোসেন আমিনী হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের পক্ষাবলম্বন করে ফেসবুকে রাষ্ট্রবিরোধী এবং দাঙ্গা হাঙ্গামা হতে পারে এ ধরনের উস্কানিমূলক স্ট্যাটাস দিয়ে আসছিলেন।


আরও পড়ুনঃ


সন্তানদের লড়াই করা শেখান

শুধুমাত্র পরিবারের সদস্যদের নিয়েই হবে প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্য

বাংলাদেশের জিহাদি সমাজে 'তসলিমা নাসরিন' একটি গালির নাম

করোনা আক্রান্ত প্রতি তিনজনের একজন মস্তিষ্কের সমস্যায় ভুগছেন: গবেষণা


এ ছাড়া  গত ২৮ মার্চ হেফাজতের ডাকা হরতালের সময় মাওলানা লোকমান জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় ব্যাপক রাহাজানিতে অংশগ্রহণ করেন বলে পুলিশ নিশ্চিত হয়। এ অবস্থায় ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে শনিবার রাত ১২ টার দিকে ওসির নেতৃত্বে একদল পুলিশ মসজিদ সংলগ্ন খতিবের আবাসিক কক্ষ থেকে গ্রেফতার করেন।

গ্রেফতারের পর তাকে জেলা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় দায়ের মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হবে বলে জানা গেছে।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চট্টগ্রামে হেলে যাওয়া ভবন অপসারণ শুরু

অনলাইন ডেস্ক

চট্টগ্রামে হেলে যাওয়া ভবন অপসারণ শুরু

চট্টগ্রামের গোয়ালপাড়ায় হেলে যাওয়া ভবন অপসারণ শুরু করেছে ভবন মালিক। শনিবার (১০ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৯টার দিকে ভবনটি হেলে পড়ে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। তারা উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেছেন। একে একে ওই ভবনের বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। ঘটনাস্থলে উৎসুক জনতাকে ভিড় না করার আহ্বান জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার নোবেল চাকমা বলেন, আমরা ভবনের সব বাসিন্দাকে সরিয়ে নিচ্ছি। সিটি করপোরেশন ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা কাজ করছেন।  নির্মাণজনিত ত্রুটির কারণে ভবনটি হেলে পড়েছে বলে ধারণা করছেন স্থানীয়রা।


আরও পড়ুনঃ


সন্তানদের লড়াই করা শেখান

শুধুমাত্র পরিবারের সদস্যদের নিয়েই হবে প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্য

বাংলাদেশের জিহাদি সমাজে 'তসলিমা নাসরিন' একটি গালির নাম

করোনা আক্রান্ত প্রতি তিনজনের একজন মস্তিষ্কের সমস্যায় ভুগছেন: গবেষণা


কোতোয়ালী থানার ওসি নেজাম উদ্দিন বলেন, গোয়ালপাড়ায় কার্তিক ঘোষের মালিকানাধীন ভবনটিতে তার ৫ ছেলে পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছেন। ভবনটি হেলে পড়ায় তাদের সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে।  

এদিকে নিয়ম না মেনে ভবন নির্মানের দায়ে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার হুশিয়ারী দিয়েছে সিডিএ।

news24bd.tv / নকিব

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চট্টগ্রামে হেলে পড়েছে ৫তলা ভবন

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রামে হেলে পড়েছে ৫তলা ভবন

চট্টগ্রামের এনায়েত বাজারে হেলে পড়েছে ৫ তলা ভবন, বাসিন্দাদের সরিয়ে যাওয়ার নির্দেশ প্রশাসনের।

বিস্তারিত আসছে...

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

চাকরি খোয়ালেন স্কুল শিক্ষক

সাতক্ষীরায় ছাত্রীকে ধর্মান্তরিত করে চতুর্থ বিয়ে!

শাকিলা ইসলাম জুঁই, সাতক্ষীরা :

সাতক্ষীরায় ছাত্রীকে ধর্মান্তরিত করে চতুর্থ বিয়ে!

হিন্দু সম্প্রদায়ের এক ছাত্রীকে ধর্মান্তিরত করে বিয়ে করার অভিযোগে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার নুরনগর আশালতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শামীম আহমেদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। 

একই সাথে তাকে কেন স্থায়ীভাবে বরখাস্ত করা হবে না তা জানতে চেয়ে সাত দিনের মধ্যে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে। শনিবার (১০ এপ্রিল) দুপুরে অনুষ্ঠিত  বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ওই ছাত্রীর বাবা জানান, ২০১৯ সালে তার মেয়ে নূরনগর আশালতা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান বিভাগে এসএসসি পাশ করে। ওই বিদালয়ের প্রধান শিক্ষক শামীম আহমেদ (৪৮) তাকে বিভিন্ন সময়ে বিজ্ঞানের ব্যবহারিক খাতার কাজে সহযোগিতা করতেন। পরে তার মেয়ে কাটুনিয়া রাজবাড়ি ডিগ্রি কলেজে ভর্তি হয়। মেয়েটি পার্শ্ববর্তী এক গ্রামের একজন শিক্ষকের কাছে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় শিক্ষক শামীম তাকে উত্ত্যক্ত করতেন। 

গত ২ এপ্রিল ভোরে প্রাইভেট পড়ে কলেজে যাওয়ার নাম করে বাড়ি থেকে বের হয় কলেজ ছাত্রী। দুপুর পেরিয়ে গেলেও মেয়ে বাড়িতে না ফিরলে তাকে খুঁজতে থাকে পরিবারের সদস্যরা। তাকে কোথাও খুঁজে না পেয়ে পরদিন তিনি শ্যামনগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। 

আরও পড়ুন


ইতিহাসের সত্য না বলা অপরাধ: মির্জা ফখরুল

দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সর্বোচ্চ মৃত্যু

মাওলানা মামুনুলের বিরুদ্ধে সোনারগাঁয়ে আরও এক মামলা

শরণখোলায় ডায়রিয়ার প্রকোপ, শতাধিক রোগী হাসপাতালে ভর্তি


গত বুধবার (৭ এপ্রিল) ফেসবুকে তার মেয়ে ও প্রধান শিক্ষক শামীম আহমেদ খুলনার এক নোটারী পাবলিকের কার্যালয়ে বসে ধর্মান্তরিত হওয়া ও বিয়ে সংক্রান্ত এক নন জুডিশিয়াল স্টাম্পে স্বাক্ষর করছেন এমন ছবি দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা তাকে জানান। একপর্যায়ে ওই রাতেই তিনি শামীম আহমেদ এর বিরুদ্ধে থানায় মেয়েকে অপহরণ ও ধর্মান্তরিত করার অভিযোগে একটি এজাহার দাখিল করেন।

আশালতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অভিভাবক আশরাফ হোসেন ও লিটন সরদারসহ কয়েকজন জানান, এই প্রতিষ্ঠানের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন প্রধান শিক্ষকের বড়ো ভাই নুরনগর ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য বখতিয়ার আহমেদ। 
 
ওই শিক্ষক তিনটি বিয়ে করার পরও সম্প্রতি তার বিদালয়ের এক সময়কার ছাত্রী হিন্দু নাবালিকাকে ফুসলিয়ে নিয়ে ধর্মান্তরিত করে বিয়ে করেছেন। 

এদিকে হিন্দু ছাত্রীকে ধর্মান্তরিত করে বিয়ের বিষয়টি জানাজানি হলে শনিবার আশালতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাকক্ষে এক জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

সভাপতি বখতিয়ার আহমেদের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন সহকারী প্রধান শিক্ষক আব্দুস সবুর, পরিচালনা কমিটির সদস্য ও ইউপি সদস্য হাবিবুর রহমান হবি, ইউপি সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান, সদস্য আব্দুল কাদের, সদস্য শাকির আহম্মেদ, বিদ্যোৎসাহী সদস্য জিএম মঈনুদ্দিন লাভলু, অভিভাবক সদস্য ডিএম রবিউল ইসলাম মুকুল, শিক্ষক সুশান্ত ঘোষসহ কয়েকজন অভিভাবক। 

সভায় প্রধান শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্তের সিদ্ধান্তসহ তাকে কেন স্থানীয়ভাবে বরখাস্ত করা হবে না তা জানতে চেয়ে নোটিশ প্রাপ্তির সাত দিনের মধ্যে ওই শিক্ষককে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে।

এদিকে অবিলম্বে প্রধান শিক্ষক শামীম আহমেদকে অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও ভিকটিমকে উদ্ধারের দাবি জানিয়ে শনিবার বিকেল ৫ টায় নূরনগর বাজারে শিক্ষক সমাজের ব্যানারে এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য দেন -বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য জিএম মঈনুদ্দিন লাভলু, মুক্তিযোদ্ধা এমএম আব্দুল মজিদ, নূরনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম সোহেল রানা, নূরনগর নবীন সংঘের আহ্বায়ক সাইফুল্লাহ মামুন, শিক্ষক জিয়াউর রহমান প্রমুখ।

এ ব্যাপারে আশালতা মাধমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শামীম আহমেদের সাথে কথা বলা সম্ভব না হলেও তার এক আত্মীয় আবুল হোসেন বলেন, 'এর আগে সাতক্ষীরা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের এক প্রধান শিক্ষক হিন্দু মেয়ে বিয়ে করেছিলেন। তার বেলায় তো সমস্যা হয়নি। কোনো হিন্দু মেয়ে বিয়ে করে যদি সিমিত পরিসরে মুসলমান হয় তাহলে দোষ কোথায়?'

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি বখতিয়ার আহম্মেদ বলেন, শামীমকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তবে কারণ দর্শাণোর নোটিশের জবাব দেওয়ার পর প্রয়োজনে ঘটনার তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে তাদের প্রতিবেদন অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাজমুল হুদা জানান, এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে শামীম আহমেদের নাম উল্লেখ করে শুক্রবার রাতে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নম্বর -১৬।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক দীপ্তেশ রায়কে আসামি গ্রেপ্তার ও ভিকটিম উদ্ধারের জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

news24bd.tv / কামরুল

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

মাদারীপুরে সেনাবাহিনীর ভুয়া কর্নেল আটক

মাদারীপুর প্রতিনিধি:

মাদারীপুরে সেনাবাহিনীর ভুয়া কর্নেল আটক

মাদারীপুরে এনএসআই’তে চাকুরি দেয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেয়া চক্রের ৪ জনকে আটক করে পুলিশ দিয়েছে স্থানীয়রা। শনিবার দুপুরে সদর উপজেলার খোয়াজপুর ইউনিয়নের গোবিন্দপুরে এ ঘটনা ঘটে। 

আটককৃতরা হলো, খুলনার পাইকগাছার লস্কারপুরের রবিউল ইসলামেন ছেলে মাসুদ পারভেজ (২৯), বরগুনার পাথরঘাটার জালিয়াঘাটা এলাকার আব্দুল আজিজ হাওলাদারের ছেলে শাহীন হাওলাদার (৩২), শাহীন হাওলাদারের কথিত স্ত্রী মোসাম্মদ শিরিন বেগম এবং মাদারীপুর সদর উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল কাইউম।

পুলিশ ও ভুক্তভোগী জানায়, সদর উপজেলার গোবিন্দপুরের আব্দুল হালিমের ছেলে রনি হোসেনকে এনএসআই’তে চাকুরি দেয়ার আশ্বাস দিয়ে মোটা অংকের ঘুষ দাবি করে একই গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল কাইউম। প্রাথমিক পর্যায়ে রনির কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা ঘুষ নেয় আব্দুল কাইউম। পরে শনিবার সকালে কাইউমের বাড়িতে আসা মাসুদ পারভেজ নামে ভুয়া সেনাবাহিনীর কর্নেল পরিচয়ে রনির সাথে পরিচয় করিয়ে দেয় কাইউম। তাদের সাথে থাকা শাহীন ও শিরিন নামের অপর দুইজনকেও সেনাবাহিনীতে কর্মরত হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়। সবার কথাবার্তা সন্দেহজনক মনে হলে রনি ও আশাপাশের লোকজন ৪ জনকে আটক করে সদর মডেল থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

আরও পড়ুন


ইতিহাসের সত্য না বলা অপরাধ: মির্জা ফখরুল

দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সর্বোচ্চ মৃত্যু

মাওলানা মামুনুলের বিরুদ্ধে সোনারগাঁয়ে আরও এক মামলা

শরণখোলায় ডায়রিয়ার প্রকোপ, শতাধিক রোগী হাসপাতালে ভর্তি


ভুক্তভোগী রনি হোসেন জানান, আমার কাছ থেকে প্রাথমিক পর্যায়ে ২০ হাজার টাকা ঘুষ নিয়েছে কাইউম। পাশাপাশি আমার মাথার চুল তারাই মেশিন দিয়ে ছোট করে কেটে দিয়েছে। এছাড়া মেডিকেল পরীক্ষাও তারাই প্রাথমিকভাবে সম্পন্ন করেছে। যা সবই ভুয়া ও প্রতারণা। বিষয়টি বুঝতে পেয়ে থানা পুলিশকে খবর দেই। পুলিশ এসে তাদের থানায় নিয়ে যায়। পরে প্রতারকদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করি।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. কামরুল ইসলাম মিঞা জানান, আটক ৪ প্রতারকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এছাড়া অজ্ঞাত আসামি রয়েছে আরও একজন। সে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে গেলে। আটককৃতদের গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়। আটককৃতরা গ্রামের সহজসরল মানুষকে বোকা বানিয়ে চাকুরি দেয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নিতো। এসব চক্রের কাছ থেকে সবাইকে সর্তক থাকার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

news24bd.tv / কামরুল

মন্তব্য

পরবর্তী খবর