ফুটবল ঈশ্বরের মৃত্যু রহস্য : তদন্তের দাবিতে রাস্তায় পদযাত্রা

অনলাইন ডেস্ক

ফুটবল ঈশ্বরের মৃত্যু রহস্য : তদন্তের দাবিতে রাস্তায় পদযাত্রা

ফুটবল ঈশ্বর দিয়াগো ম্যারাডোনার মৃত্যুর পর থেকেই স্বস্তি পাচ্ছেন না তার ঘনিষ্ঠজনরা। তাদের দাবি, আর্জেন্টাইন ফুটবল ঈশ্বরের মৃত্যুতে চিকিৎসকদের গাফিলতি ছিল। এমন অভিযোগের পর থেকে তদন্তে নামে আর্জেন্টাইন প্রসিকিউটররা।

এদিকে ডিয়েগো ম্যারাডোনার মৃত্যুর রহস্য উদ্‌ঘাটনের দাবিতে রাস্তায় নেমেছেন আর্জেন্টিনার সাধারণ মানুষ। বুধবার দেশটির জাতীয় ঐতিহাসিক স্মৃতিস্তম্ভ ‘ওবেলিসকো’ থেকে  পদযাত্রা শুরু হয় । পদযাত্রায় এ সময় বিক্ষোভকারীরা পতাকা উড়িয়ে, গান গেয়ে ম্যারাডোনাকে শ্রদ্ধা জানান।

বিক্ষোভকারীরা বলছেন, তিনি মারা যাননি, তাকে হত্যা করা হয়েছে। এ সময় তাদের ‘জাস্টিস ফর ডিয়েগো, দোষীদের বিচার ও শাস্তি চাই’ বলে স্লোগান দিতে শোনা যায়।

সন্ধ্যায় র‌্যালির নেতৃত্ব দেন ম্যারাডোনার সাবেক স্ত্রী ক্লাওদিয়া ভিয়াফানে ও তার দুই মেয়ে, দিলমা ও জিয়ান্নিনা।

ম্যারাডোনার মৃত্যু পর তার আইনজীবী মাতিয়াস মোরলা দাবি করেন, ম্যারাডোনার জন্য জরুরি অ্যাম্বুলেন্স চাওয়া হলেও সেটি আধা ঘণ্টার মতো দেরি করে এসেছিল। 

ম্যারাডোনার পরিবার বলছে, ফুটবলারের চিকিৎসায় গাফিলতি রয়েছে জেনেও তার মনোবিদ কোসাচভ তথ্য লুকিয়েছেন। গত ডিসেম্বরে কোসাচভের ক্লিনিক ও বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়।


মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নৃশংস আচরণ, হাঁটু মুড়ে সন্ন্যাসিনীর আবেদন

সারাদেশে নিয়োগ দেবে ইবনে সিনা ট্রাস্ট

কাকে উদ্দেশ্য করে তাহসানের ৫ শব্দের এমন স্ট্যাটাস

জিতেও বিদায় নিতে হলো রোনালদোর জুভেন্টাসকে


প্রসঙ্গত, আর্জেন্টাইন ফুটবল ঈশ্বর দিয়েগো ম্যারাডোনা ২৫ নভেম্বর  হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে না ফেরার দেশে চলে যান। ১৯৮৬ সালে আর্জেন্টিনাকে প্রায় একাই বিশ্বকাপ জেতানো এই কিংবদন্তির মাত্র দুই সপ্তাহ আগেই মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার হয়েছিল।

মাসের শুরুতে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের জন্য অস্ত্রোপচার করাতে হয় সাবেক নাপোলি ও বোকা জুনিয়র্স তারকাকে। প্রথম দিকে দ্রুত হাসপাতাল ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু অ্যালকোহল আসক্তির কারণে নানা জটিলতা দেখা দেওয়ায় অনেক বেশি সময় সেখানে থাকতে হয়। মাত্র ৬০ বছর বয়সে কোটি ফুটবলভক্তকে কাঁদিয়ে অন্য পারের বাসিন্দা হলেন বাঁ পায়ে অসংখ্য মুহূর্তের জন্ম দেয়া ফুটবল কিংবদন্তি।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

‘আইনগত কোনো জটিলতা নেই সুপার লিগ আয়োজনে’

অনলাইন ডেস্ক

‘আইনগত কোনো জটিলতা নেই সুপার লিগ আয়োজনে’

জার্মানির ক্রীড়া আইনজীবী মার্ক অরথ মনে করেন, ইউরোপিয়ান সুপার লিগ আয়োজনে আইনগত কোনো বাঁধা নেই। বরং এই আয়োজনের ফলে তা নতুন দলগুলোর জন্য সম্ভাবনার দ্বার উম্মোচন হবে। এদিকে বিশ্বের অন্যতম সফল ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজও সুপার লিগ আয়োজনে পূর্ণ সমর্থন দিচ্ছেন। আর ফ্রান্সের ক্রীড়া মন্ত্রী বিষয়টিকে নাকচ করে দিয়েছেন।

ফিফা ও উয়েফা ইউরোপিয়ান সুপার লিগ করতে মানা করার পরও কে শোনে কার কথা। আয়োজকরা তাদের সিদ্ধান্তে অটল। উয়েফার নিষেধাজ্ঞার হুমকিও মানছে না কেউ। বিশ্বের ফুটবল বোদ্ধাদের বড় একটা অংশ সুপার লিগের বিপক্ষে। যদিও জার্মানির এক আইনজীবী সুপার লিগ আয়োজনে আইনি বাঁধা নেই বলে জানালেন।

মার্ক অরথ নামের জার্মানীর এই আইনজীবী জানান, নতুন ফরম্যাটে লিগ আয়োজন নতুন দলগুলোর সম্ভাবনার দ্বার খুলে দেবে। এতে আইনগত কোনো বাঁধা নেই। এই আয়োজনের মধ্যে দিয়ে ক্লাবগুলো তাদের আর্থিক ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে পারবে।

চারিদিকে সুপার লিগ নিয়ে সমালোচনার ঢেউ। যদিও সেসব নিয়ে ভাবছে না ইএসএলের সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। বিতর্কিত এই লিগ গঠনের পর প্রথমবারের মতো গণমাধ্যমে কথা বললেন রিয়াল প্রেসিডেন্ট। নিজেদের অবস্থানে অনড় ইএসএলের সভাপতি।

আরও পড়ুন


কষ্টটা ডায়রির পাতায় শব্দে শব্দে বুনে রেখেছিলাম

বৈঠকতো দূরের কথা, বাবুনগরী কখনোই খালেদা জিয়াকে সামনাসামনি দেখেননি: হেফাজতে ইসলাম

গোদাগাড়ী পৌরসভার মেয়র বাবু মারা গেছেন

প্রয়োজন ছাড়া বের না হলে লকডাউনের প্রশ্নই উঠবে না: মোদি


পেরেজ জানান, রিয়াল গত দুই মৌসুমে ৪০০ মিলিয়ন ইউরো আর্থিক ক্ষতিতে পড়েছে। যখন আপনার কাছে ক্লাব চালানোর মত টাকা থাকবে না। তখন কোনো কিছুই ভালো লাগবে না। আর নতুন ফরম্যাটে আমি কোনো সমস্যা দেখছি না। বরং এতে ফুটবলের প্রচার আর অংশগ্রহণকারী বাড়বে।

তবে ফ্রান্সের ক্রীড়া মন্ত্রী বলছেন ভিন্ন কথা। করোনার তাণ্ডবে অস্থির এই পৃথিবীতে এখনই সুপার লিগ না করার আহবান মারাসিনানুর। আরও সময় নিয়ে সবার সঙ্গে বসে কিভাবে ক্ষতি পুষিয়ে নেয়া যায় সে বিষয়ে আলোচনার পর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া উচিত বলে জানালেন।

 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নতুন লিগ নিয়ে চিন্তায় ফিফা কর্তা, দিলেন হুশিয়ারি

অনলাইন ডেস্ক

নতুন লিগ নিয়ে চিন্তায় ফিফা কর্তা, দিলেন হুশিয়ারি

ফুটবলকে বাঁচাতে ইউরোপিয়ান ফুটবলের শীর্ষ কয়েক ব্যক্তি জোট বেঁধেছেন। তাদের উদ্দেশ্য ইউরোপের সেরা ক্লাবগুলোকে নিয়ে ‘ইউরোপিয়ান সুপার লিগ’ নামে একটা নতুন টুর্নামেন্ট আয়োজন করা। ১২ টি ক্লাব একজোট হয়ে রবিবার এই লিগের আত্মপ্রকাশের কথা ঘোষণা করেছে। লিগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রিয়েল মাদ্রিদ প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ দাবি করেছেন, ফুটবলকে বাঁচাতে এই উদ্যোগ। 

অন্যদিকে ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো এই প্রস্তাবের ব্যপারে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, প্রস্তাবিত সুপার লিগে ক্লাবগুলো অংশ নিলে এর  ‘পরিণতি’ মেনে নিতে হবে তাদের!

সুইজারল্যান্ডে উয়েফার সম্মেলনে ইনফান্তিনো বলেন, ইউরোপের খেলার মডেল রক্ষা করা আমাদের দায়িত্ব। তাই কেউ যদি নিজেদের পথ বেছে নেয়, তাহলে এই পথ বেছে নেওয়ার পরিণতিও ভোগ করতে হবে। কাজের পরিণতি তো মেনে নিতেই হবে।

তার পাশে দাড়িয়েছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফাও। তারাও বলছে প্রস্তাবিত  সুপার লিগে অংশ নেওয়া ক্লাব ও খেলোয়াড়দের নিষিদ্ধ করা হবে। ক্লাবগুলো ঘরোয়া লিগে খেলতে পারবে না এবং জাতীয় দলের হয়েও খেলতে পারবেন না ফুটবলাররা।

স্পেন থেকে রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা, আতলেতিকো মাদ্রিদ, ইংল্যান্ড থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ম্যানচেস্টার সিটি, চেলসি, আর্সেনাল, লিভারপুল ও টটেনহাম এবং ইতালি থেকে এসি মিলান, ইন্টার মিলান ও জুভেন্টাস সুপার লিগে অংশ নেওয়ার কথা জানিয়েছে প্রতিষ্ঠাতা ক্লাব হিসেবে। তবে এ টুর্নামেন্ট হবে মোট ২০টি ক্লাব নিয়ে।

এই টুর্নামেন্ট চালু হলে ইউরোপিয়ান ফুটবলের কাঠামোয় আমূল বদল আসতে পারে। উয়েফা এবং ফিফাকে কার্যত চিন্তায় ফেলে ইউরোপে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সমান্তরাল এই ফুটবল টুর্নামেন্ট শুরু হতে চলেছে। 

এই বছরের আগস্ট থেকে ইউরোপিয়ান সুপার লিগ শুরু করার পরিকল্পনা রয়েছে। ঠিক হয়েছে সপ্তাহের মাঝখানে লিগের ম্যাচগুলি হবে। আপাতত ১২টি দল যোগদানের কথা ঘোষণা করলেও ২০ দল নিয়ে লিগ আয়োজনের চেষ্টা করা হচ্ছে। 

লিগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আরও ৩টি ক্লাব প্রতিষ্ঠাতা ক্লাবের তালিকায় রয়েছে। প্রতিষ্ঠাতা দল হিসেবে ১৫টি দল প্রতিবছরই লিগে থাকবে। এছাড়া প্রতিবছর ৫টি নতুন দলকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। অর্থাৎ ২০ দলকে নিয়ে হবে সুপার লিগ।  নতুন এই লিগে অংশ নেওয়ার জন্য ‘প্রতিষ্ঠাতা ক্লাবগুলো ৩.৫ বিলিয়ন ইউরো (প্রায় ৩৫ হাজার ৫৭১ কোটি টাকা) করে পাবে।

news24bd.tv/আলী

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

হোঁচট খেলো লিভারপুল

অনলাইন ডেস্ক

হোঁচট খেলো লিভারপুল

হোঁচট খেলো লিভারপুল। লিডস ইউনাইটেডের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করলো অল রেডরা। সোমবার (২০ এপ্রিল) লিডসের মাঠে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়। 

দলটির বিপক্ষে প্রথম দেখায় গত সেপ্টেম্বরে ৪-৩ গোলে জিতে আসর শুরু করেছিল লিভারপুল। রোববার (১৮ এপ্রিল) রাতে ইউরোপিয়ান সুপার লিগ চালুর ঘোষণার পর থেকে উত্তাল ফুটবল বিশ্ব, চলছে তুমুল সমালোচনা। এর প্রভাব দেখা যায় লিভারপুল-লিডস ম্যাচেও। বিতর্কিত এই টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়া ইউরোপের শীর্ষ ১২ ক্লাবের একটি যে লিভারপুল।


বৈঠকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে যা বললেন হেফাজত নেতারা

কবরের আজাব থেকে মুক্তি লাভের দোয়া

২০ এপ্রিল, ইতিহাসে আজকের এই দিনে

সিঙ্গাপুরগামী বিমানের বিশেষ ফ্লাইট ঢাকা ছাড়ছে আজ


টুর্নামেন্টটির বিরোধিতা করে ম্যাচ শুরুর আগে ‘ফুটবল সমর্থকদের জন্য’ লেখা টি-শার্ট পরে অনুশীলন করে লিডসের খেলোয়াড়রা। ক্লাবের সমালোচনা করে অ্যানফিল্ডের বাইরে বিভিন্ন ব্যানার টাঙায় লিভারপুল সমর্থকরা।

টানা তিন জয়ের পর পয়েন্ট হারাল লিভারপুল। ৩২ ম্যাচে ১৫ জয় ও আট ড্রয়ে ৫৩ পয়েন্ট নিয়ে ষষ্ঠ স্থানে আছে তারা। সমান ম্যাচে ৪৬ পয়েন্ট নিয়ে দশম স্থানে লিডস। ৩২ ম্যাচে ৭৪ পয়েন্ট নিয়ে শিরোপার পথে অনেকটাই এগিয়ে আছে ম্যানচেস্টার সিটি। ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

news24bd.tv নাজিম

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

টানা ৬০ পাস এর পর মেসির গোল! (ভিডিও)

অনলাইন ডেস্ক

লা কার্তুসা স্টেডিয়ামে শনিবার রাতে মেসির জোড়া গোল আর আঁতোয়া গ্রিজমান ও ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ংয়ের গোলে অ্যাথলেটিকো বিলবাওকে হারিয়ে কোপা দেল রে'র শিরোপা ঘরে তোলে বার্সেলোনা।

ফাইনাল ম্যাচে ৪-০ গোলের বড় ব্যবধানে বিলবাওকে বিধ্বস্ত করে মেসি-গ্রিজমানরা। তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মেসির দেয়া শেষ গোলটি নিয়ে বেশ আলোচনা হচ্ছে।

৭২ মিনিটের মাথায় গোলটা হলেও প্রায় দুই মিনিট ধরে নিজেদের মধ্যে বল চালাচালি করছিল মেসিরা। এই সময়ে একবারের জন্যও ভুল পাস দেয়নি বার্সার খেলোয়াড়েরা।

৭১:৪৬ মিনিট থেকে শুরু হয়ে এই বল চালাচালি শেষ হয় ৭১:৫০ মিনিটের মাথায় মেসির গোলে। বাঁ দিক থেকে আলবার বাড়ানো পাস ডি-বক্সে পেয়েই নিচু শটে গোল করেন মেসি।

news24bd.tv / কামরুল 

মন্তব্য

পরবর্তী খবর

নারী ফুটবল দলে করোনার হানা

অনলাইন ডেস্ক

নারী ফুটবল দলে করোনার হানা

জাতীয় নারী দলের পাঁচ ফুটবলার কৃষ্ণা রানী সরকার, মণিকা চাকমা, ঋতুপর্ণা চাকমা, নিলুফা ইয়াসমিন নীলা ও আনাই মোগিনী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তাদের শরীরে করোনার হালকা উপসর্গ আছে। তবে কারও অবস্থাই আশঙ্কাজনক নয়।

বর্তমানে ফুটবল ফেডারেশনের আবাসিক ক্যাম্পে আইসোলেশনে আছেন তারা।

এই চার ফুটবলারই বসুন্ধরা কিংসের হয়ে খেলছেন এবারের লিগে।

করোনার কারণে মেয়েদের লিগ স্থগিত হয়েছে ৫ এপ্রিল।

এদিকে, লকডাউনের কারণে বসুন্ধরা কিংস তাদের ক্যাম্প বন্ধ করে দিয়েছে। তাই মেয়েদের সবাইকে বাফুফে ভবনে নিয়ে আসা হয়। সেখানেই তাদের করোনা পরীক্ষা করানো হয়। এরপরই কৃষ্ণাদের করোনা পজিটিভ আসে তাদের।

news24bd.tv তৌহিদ

মন্তব্য

পরবর্তী খবর