গেরিলা মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণের দেখভাল করতেন আবদুল্লাহ আল নোমান
গেরিলা মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণের দেখভাল করতেন আবদুল্লাহ আল নোমান

গেরিলা মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণের দেখভাল করতেন আবদুল্লাহ আল নোমান

Other

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ভাষণ জাতিকে মুক্তিযুদ্ধের প্রশ্নে ঐক্যবদ্ধ করেছিলো বলে জানান বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান। শতাব্দির সেরা বঙ্গবন্ধুর ভাষণ ঐতিহাসিক মন্তব্য করে তিনি আরও বলেন, জিয়াউর রহমানের ২৬ মার্চের বক্তব্য মুক্তিযোদ্ধাদের উজ্জ্বিবিত করে। স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে দেশে ও দলে গণতন্ত্র চর্চার আহ্বান জানান মুক্তিযোদ্ধা আবদুল্লাহ আল নোমান।  

একাত্তরে যখন মুক্তি সংগ্রাম শুরু হয়, আবদুল্লাহ আল নোমানের কাঁধে দায়িত্ব পড়ে যুদ্ধের অস্ত্র বহনের।

ঐতিহ্যবাহী চট্রগ্রাম কলেজে থেকে অস্ত্র আর গোলাবারুদ নিয়ে পাড়ি দেন রাউজানে। ১২ এপ্রিল ১৯৭১। মুক্তিকামী বীর জনতাদের সংগঘঠিত করে পাড়ি দেন সীমান্তে।


অভিনেতা ফারুকের রক্তে ইনফেকশন ধরা

আইরিশদের শেষ ম্যাচেও হারালো উদীয়মান টাইগারা

চাঁদ দেখা যায়নি, শবে বরাত ২৯ মার্চ

১৭ মার্চ সারা দেশে মার্কেট-দোকান বন্ধের ঘোষণা


আগরতলায় গেরিলা মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণের দেখভাল করেন আবদুল্লাহ আল নোমান। সেনা কর্মকর্তা মাহবুবের নেতৃত্বে সরাসরি অংশ নেন পাক বাহিনীর ক্যাম্প উড়িয়ে দেয়ার কাজে।  

আবদুল্লাহ আল নোমানের যুদ্ধে যাবার পিছনে নিয়ামক শক্তি হিসাবে কাজ করেছে বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ। উজ্জ্ববিত করেছে জিয়াউর রহমানের বক্তব্য।  

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম এই সংগঠকের কন্ঠে দল আর দেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাপনা নিয়ে আক্ষেপের সুর।

শারীরিকভাবে ভীষণ অসুস্থ আবদুল্লাহ আল নোমান এখনো চান, তার প্রিয় দল বিএনপির জন্য আরও কাজ করবার। আবদুল্লাহ আল নোমান কয়েক দফা সাংসদ ও মন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।

 news24bd.tv আয়শা